মালয়েশিয়া জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মালয়েশিয়া
ডাকনামমালয়ের বাঘ[১]
অ্যাসোসিয়েশনমালয়েশিয়া ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনএএফসি (এশিয়া)
প্রধান কোচথান ছেং হো
অধিনায়কআইদিল জাফুয়ান
সর্বাধিক ম্যাচসোহ ছিন অন (২৫২)
শীর্ষ গোলদাতামুক্তার দাহারি (৮৫)[২]
মাঠবুকিত জলিল জাতীয় স্টেডিয়াম
ফিফা কোডMAS
ওয়েবসাইটwww.fam.org.my
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৫৪ অপরিবর্তিত (৩১ মার্চ ২০২২)[৩]
সর্বোচ্চ৭৫ (আগস্ট ১৯৯৩)
সর্বনিম্ন১৭৮ (মার্চ ২০১৮)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৭০ হ্রাস ৯ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[৪]
সর্বোচ্চ৬১ (মার্চ ১৯৭৭)
সর্বনিম্ন১৮৫ (সেপ্টেম্বর ২০১৮)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 মালয়েশিয়া ১–১ থাইল্যান্ড 
(কুয়ালালামপুর, মালয়েশিয়া; ১২ অক্টোবর ১৯৬৩)[৫]
বৃহত্তম জয়
 মালয়েশিয়া ১৫–১ ফিলিপাইন 
(জাকার্তা, ইন্দোনেশিয়া; ২৬ আগস্ট ১৯৬২)
বৃহত্তম পরাজয়
 সংযুক্ত আরব আমিরাত ১০–০ মালয়েশিয়া 
(আবুধাবি, সংযুক্ত আরব আমিরাত; ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫)
এএফসি এশিয়ান কাপ
অংশগ্রহণ৩ (১৯৭৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৭৬, ১৯৮০, ২০০৭)
এএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ১২ (১৯৯৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (২০১০)

মালয়েশিয়া জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Malaysia national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে মালয়েশিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম মালয়েশিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা মালয়েশিয়া ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৫৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই বছর হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে।[৬] ১৯৬৩ সালের ১২ই অক্টোবর তারিখে, মালয়েশিয়া প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত মালয়েশিয়া এবং থাইল্যান্ডের মধ্যকার উক্ত ম্যাচটি ১–১ গোলে ড্র হয়েছে।

৮৭,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট বুকিত জলিল জাতীয় স্টেডিয়ামে মালয়ের বাঘ নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় মালয়েশিয়ার পেটালিং জয়ায় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন থান ছেং হো এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন জহর দারুল তা'জিমের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় আইদিল জাফুয়ান

মালয়েশিয়া এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, এএফসি এশিয়ান কাপে মালয়েশিয়া এপর্যন্ত ৩ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার প্রত্যেকবার তারা শুধুমাত্র গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করেছে। এছাড়াও, এএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপে মালয়েশিয়া অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ১টি (২০১০) শিরোপা জয়লাভ করেছে।

শুকর সালেহ, রঙ্গাস্বামী অরুমুগম, মুক্তার দাহারি, সাফাউই রশিদ এবং সোহ ছিন অনের মতো খেলোয়াড়গণ মালয়েশিয়ার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৩ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে মালয়েশিয়া তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৭৫তম) অর্জন করে এবং ২০১৮ সালের মার্চ মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৭৮তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে মালয়েশিয়ার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৬১তম (যা তারা ১৯৭৭ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৮৫। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[৩]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৫২ অপরিবর্তিত  মিয়ানমার ১০৪৪.৫৬
১৫৩ বৃদ্ধি  অ্যান্ডোরা ১০৪০.১৩
১৫৪ অপরিবর্তিত  মালয়েশিয়া ১০৩৫.০৬
১৫৫ বৃদ্ধি  ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র ১০২৯.৪২
১৫৬ বৃদ্ধি  মালদ্বীপ ১০২৫.৫
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[৪]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৬৮ অপরিবর্তিত  হংকং ১১৬০
১৬৯ হ্রাস  তাহিতি ১১৫৯
১৭০ হ্রাস  মালয়েশিয়া ১১৫১
১৭০ হ্রাস  ভানুয়াতু ১১৫১
১৭২ বৃদ্ধি  ইরিত্রিয়া ১১৪৩

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ মালয়ের অংশ ছিল মালয়ের অংশ ছিল
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১৬
ফ্রান্স ১৯৯৮
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ১১
জার্মানি ২০০৬ ১৮
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০
ব্রাজিল ২০১৪ ১০
রাশিয়া ২০১৮ ৩০
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ৫৯ ১৬ ১৪ ২৯ ৬৯ ১১১

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Harimau Malaysia now back to 'Harimau Malaya' after just one year"। The Malay Mail। ৩ এপ্রিল ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৭ 
  2. "Mohamed Mokhtar Dahari"RSSSF 
  3. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  4. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 
  5. "Malaysia matches, ratings and points exchanged"। World Football Elo Ratings: Malaysia। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৬ 
  6. "Asian soccer championship next year"The Straits TimesNational Library Board। ২৭ মে ১৯৫৪। পৃষ্ঠা 14। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
     • "ASIAN SOCCER FINALS IN SINGAPORE May be used as Olympic series"The Singapore Free Press। National Library Board। ৫ অক্টোবর ১৯৫৪। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
     • "Singapore to meet Indonesia in Asian Soccer Tourney"The Straits Times। National Library Board। ১৪ জুন ১৯৫৫। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]