উরুগুয়ে জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উরুগুয়ে
দলের লোগো
ডাকনামলা সেলেস্তে (আকাশী)
অ্যাসোসিয়েশনউরুগুয়েয়ীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনকনমেবল (দক্ষিণ আমেরিকা)
প্রধান কোচঅস্কার তাভারেজ
অধিনায়কদিয়েগো গোদিন
সর্বাধিক ম্যাচদিয়েগো গোদিন (১৩৮)
শীর্ষ গোলদাতালুইস সুয়ারেস (৬৩)
মাঠসেন্সেনারিও স্টেডিয়াম
ফিফা কোডURU
ওয়েবসাইটwww.auf.org.uy
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমানঅপরিবর্তিত (১০ ডিসেম্বর ২০২০)[১]
সর্বোচ্চ(জুন ২০১২)
সর্বনিম্ন৭৬ (ডিসেম্বর ১৯৯৮)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১১ হ্রাস(১৩ জানুয়ারি ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ(১৯২০–১৯২৯)
সর্বনিম্ন৪৮ (সেপ্টেম্বর ১৯৭৯)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 উরুগুয়ে ২–৩ আর্জেন্টিনা 
(মোন্তেবিদেও, উরুগুয়ে; ১৬ মে ১৯০১)[৩]
বৃহত্তম জয়
 উরুগুয়ে ৯–০ বলিভিয়া 
(লিমা, পেরু; ৯ নভেম্বর ১৯২৭)
বৃহত্তম পরাজয়
 উরুগুয়ে ০–৬ আর্জেন্টিনা 
(মোন্তেবিদেও, উরুগুয়ে; ২০ জুলাই ১৯০২)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ১৩ (১৯৩০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (১৯৩০, ১৯৫০)
কোপা আমেরিকা
অংশগ্রহণ৪৪ (১৯১৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (১৯১৬, ১৯১৭, ১৯২০, ১৯২৩, ১৯২৪, ১৯২৬, ১৯৩৫, ১৯৪২, ১৯৫৬, ১৯৫৯, ১৯৬৭, ১৯৮৩, ১৯৮৭, ১৯৯৫, ২০১১)
কনফেডারেশন্স কাপ
অংশগ্রহণ২ (১৯৯৭-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচতুর্থ স্থান (১৯৯৭, ২০১৩)

উরুগুয়ে জাতীয় ফুটবল দল (স্পেনীয়: Selección de fútbol de Uruguay, ইংরেজি: Uruguay national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে উরুগুয়ের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম উরুগুয়ের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা উরুগুয়েয়ীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯২৩ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯১৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা কনমেবলের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯০১ সালের ১৬ই মে তারিখে, উরুগুয়ে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; উরুগুয়ের মোন্তেবিদেওতে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে উরুগুয়ে আর্জেন্টিনার কাছে ৩–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

৬০,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট সেন্সেনারিও স্টেডিয়ামে লা সেলেস্তে নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় উরুগুয়ের রাজধানী মোন্তেবিদেওতে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন অস্কার তাভারেজ এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন কাইয়ারির রক্ষণভাগের খেলোয়াড় দিয়েগো গোদিন

উরুগুয়ে ফিফা বিশ্বকাপের ইতিহাসের অন্যতম সফল দল, যারা এপর্যন্ত ২ বার (১৯৩০ এবং ১৯৫০) বিশ্বকাপ জয়লাভ করেছে। এছাড়া কোপা আমেরিকায় উরুগুয়ে সফলতম দল, যেখানে তারা ১৫টি (১৯১৬, ১৯১৭, ১৯২০, ১৯২৩, ১৯২৪, ১৯২৬, ১৯৩৫, ১৯৪২, ১৯৫৬, ১৯৫৯, ১৯৬৭, ১৯৮৩, ১৯৮৭, ১৯৯৫ এবং ২০১১) শিরোপা জয়লাভ করেছে।

দিয়েগো গোদিন, মাক্সি পেরেইরা, এদিনসন কাভানি, লুইস সুয়ারেস এবং দিয়েগো ফরলানের মতো খেলোয়াড়গণ উরুগুয়ের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১২ সালের জুন মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে উরুগুয়ে তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (২য়) অর্জন করে এবং ১৯৯৮ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৭৬তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে উরুগুয়ের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১ম (যা তারা সর্বপ্রথম ১৯২০ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৪৮। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১০ ডিসেম্বর ২০২০ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
অপরিবর্তিত  স্পেন ১৬৪৫
অপরিবর্তিত  আর্জেন্টিনা ১৬৪২
অপরিবর্তিত  উরুগুয়ে ১৬৩৯
অপরিবর্তিত  মেক্সিকো ১৬৩২
১০ অপরিবর্তিত  ইতালি ১৬২৫
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১৩ জানুয়ারি ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
বৃদ্ধি  ইংল্যান্ড ১৯৬২
১০ বৃদ্ধি  জার্মানি ১৯৫৬
১১ হ্রাস  উরুগুয়ে ১৯৫৪
১২ বৃদ্ধি  মেক্সিকো ১৯৩১
১৩ বৃদ্ধি  ডেনমার্ক ১৯২৭

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ ফাইনাল ১ম ১৫ আয়োজক হিসেবে উত্তীর্ণ
ইতালি ১৯৩৪ অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি পূর্ববর্তী আসরের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে উত্তীর্ণ
ফ্রান্স ১৯৩৮ অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি
ব্রাজিল ১৯৫০ ফাইনাল ১ম ১৫ স্বয়ংক্রিয়ভাবে উত্তীর্ণ
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৪র্থ ১৬ পূর্ববর্তী আসরের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে উত্তীর্ণ
সুইডেন ১৯৫৮ উত্তীর্ণ হয়নি
চিলি ১৯৬২ গ্রুপ পর্ব ১৩তম
ইংল্যান্ড ১৯৬৬ কোয়ার্টার-ফাইনাল ৭ম ১১
মেক্সিকো ১৯৭০ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৪র্থ
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ গ্রুপ পর্ব ১৩তম
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ উত্তীর্ণ হয়নি
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬ ১৬ দলের পর্ব ১৬তম
ইতালি ১৯৯০ ১৬ দলের পর্ব ১৬তম
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ উত্তীর্ণ হয়নি ১০
ফ্রান্স ১৯৯৮ উত্তীর্ণ হয়নি ১৬ ১৮ ২১
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ গ্রুপ পর্ব ২৬তম ২০ ২২ ১৪
জার্মানি ২০০৬ উত্তীর্ণ হয়নি ২০ ২৪ ২৯
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৪র্থ ১১ ২০ ৩০ ২১
ব্রাজিল ২০১৪ ১৬ দলের পর্ব ১২তম ১৮ ৩০ ২৫
রাশিয়া ২০১৮ কোয়ার্টার-ফাইনাল ৫ম ১৮ ৩২ ২০
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ২টি শিরোপা ১৩/২১ ৫৬ ২৪ ১২ ২০ ৮৭ ৭৪ ১৫৭ ৭১ ৪২ ৪৪ ২২৫ ১৬৯

অর্জন[সম্পাদনা]

শিরোপা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১০ ডিসেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০২০ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১৩ জানুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০২১ 
  3. Pelayes, Héctor Darío (২৪ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "ARGENTINA-URUGUAY Matches 1902–2009"। RSSSF। সংগ্রহের তারিখ ৭ নভেম্বর ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]