সিরিয়া জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিরিয়া
দলের লোগো
ডাকনামنسور قاسيون (নসুন কাসিয়ুন)[১]
অ্যাসোসিয়েশনসিরীয় ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনএএফসি (এশিয়া)
প্রধান কোচনাবিল মা'লুল
অধিনায়কওমর আল সুমাহ
সর্বাধিক ম্যাচমাহির আল সাইদ (১০৯)
শীর্ষ গোলদাতাফিরাস আল খতিব (৩৬)
মাঠবিভিন্ন
ফিফা কোডSYR
ওয়েবসাইটfootballsyria.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৮৮ বৃদ্ধি ৩ (৩১ মার্চ ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ৭৩ (জুন–আগস্ট ২০১৮)
সর্বনিম্ন১৫২ (সেপ্টেম্বর ২০১৪, মার্চ ২০১৫)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৯১ হ্রাস ৪ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[৩]
সর্বোচ্চ৫৩ (অক্টোবর ১৯৭৪)
সর্বনিম্ন১২৫ (সেপ্টেম্বর ১৯৮৪)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 তুরস্ক ৭–০ সিরিয়া 
(আঙ্কারা, তুরস্ক; ২০ নভেম্বর ১৯৪৯)
বৃহত্তম জয়
সিরিয়া ১৩–০ মাস্কট ও ওমান
(কায়রো, মিশর; ৬ সেপ্টেম্বর ১৯৬৫)[৪]
বৃহত্তম পরাজয়
 গ্রিস ৮–০ সিরিয়া 
(অ্যাথেন্স, গ্রিস; ২৫ নভেম্বর ১৯৪৯)
 মিশর ৮–০ সিরিয়া 
(আলেক্সান্দ্রিয়া, মিশর; ১৬ অক্টোবর ১৯৫১)
এএফসি এশিয়ান কাপ
অংশগ্রহণ৬ (১৯৮০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৮০, ১৯৮৪, ১৯৮৮, ১৯৯৬, ২০১১, ২০১৯)
ডাব্লিউএএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ৮ (২০০০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (২০১২)

সিরিয়া জাতীয় ফুটবল দল (আরবি: منتخب سوريا لكرة القدم‎‎, ইংরেজি: Syria national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সিরিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম সিরিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিরীয় ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৩৭ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৭০ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে।[৫] ১৯৪৯ সালের ২০শে নভেম্বর তারিখে, সিরিয়া প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; তুরস্কের আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে সিরিয়া তুরস্কের কাছে ৭–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

নসুন কাসিয়ুন নামে পরিচিত এই দলটি বেশ কয়েকটি স্টেডিয়ামে তাদের হোম ম্যাচগুলো আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন নাবিল মা'লুল এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন আল আহলির আক্রমণভাগের খেলোয়াড় ওমর আল সুমাহ

সিরিয়া এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, এএফসি এশিয়ান কাপে সিরিয়া এপর্যন্ত ৬ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে প্রত্যেকটি আসরে তারা শুধুমাত্র গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করেছে। এছাড়াও, ডাব্লিউএএফএফ চ্যাম্পিয়নশিপ সিরিয়া অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ১টি (২০১২) শিরোপা জয়লাভ করেছে।

মুসাব বালহাউস, আলি দিয়াব, মাহমুদ আমনাহ, রাজা রাফ' এবং ওমর আল সুমাহের মতো খেলোয়াড়গণ সিরিয়ার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৮ সালের জুন মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে সিরিয়া তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৭৩তম) অর্জন করে এবং ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৫২তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে সিরিয়ার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৫৩তম (যা তারা ১৯৭৪ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১২৫। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৮৬ হ্রাস  উগান্ডা ১২৭৫.৫
৮৭ বৃদ্ধি  জাম্বিয়া ১২৬৭.০৪
৮৮ বৃদ্ধি  সিরিয়া ১২৬৫.০৩
৮৯ অপরিবর্তিত  বাহরাইন ১২৬২.৫৫
৯০ হ্রাস  হাইতি ১২৬১.৮৬
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[৩]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৮৯ বৃদ্ধি  গ্যাবন ১৪৫৬
৮৯ বৃদ্ধি  উত্তর সাইপ্রাস ১৪৫৬
৯১ হ্রাস  সিরিয়া ১৪৫৪
৯১ হ্রাস  চীন ১৪৫৪
৯৩ বৃদ্ধি ২২  গাম্বিয়া ১৪৩৯

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০ প্রত্যাহার
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
সুইডেন ১৯৫৮ উত্তীর্ণ হয়নি
চিলি ১৯৬২ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ প্রত্যাহার
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ ২৭
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ৪০
জার্মানি ২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১০ ২৩ ১০
ব্রাজিল ২০১৪ অনুত্তীর্ণ
রাশিয়া ২০১৮ উত্তীর্ণ হয়নি ২০ ৩৬ ২২
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ৮৯ ৪১ ২০ ২৮ ১৮৮ ১০১

অর্জন[সম্পাদনা]

শিরোপা[সম্পাদনা]

চ্যাম্পিয়ন (১): ২০১২
রানার-আপ (২): ২০০০, ২০০৪
চতুর্থ স্থান (১): ২০০২
রানার-আপ (৩): ১৯৬৩, ১৯৬৬, ১৯৮৮
চতুর্থ স্থান (৩): ১৯৯২
চ্যাম্পিয়ন (১): ১৯৫৭
রানার-আপ (২): ১৯৫৩, ১৯৯৭
তৃতীয় স্থান (১): ১৯৭৬
চতুর্থ স্থান (১): ১৯৯২
চ্যাম্পিয়ন (১): ১৯৮৭
তৃতীয় স্থান (১): ১৯৫১
চতুর্থ স্থান (১): ১৯৫৫
রানার-আপ (২): ১৯৯৭, ২০০৫
তৃতীয় স্থান (১): ২০০২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Smale, Simon। "Who the Socceroos are facing as the Asian Cup kicks off, and when to watch"ABC News। Australian Broadcasting Corporation। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  3. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 
  4. "4th Pan Arab Games, 1965 (Cairo, Egypt)"www.rsssf.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ আগস্ট ২০১৭ 
  5. The A-Z of Asian Football 97-98; 1997 Asian Football Confederation

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]