বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
শার্ট ব্যাজ/অ্যাসোসিয়েশন কুলচিহ্ন
ডাকনাম(সমূহ) Zmajevi (ড্রাগনস)
Zlatni Ljiljani (গোল্ডেন লাইন্স)
অ্যাসোসিয়েশন ফুটবল ফেডারেশন অব বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
কনফেডারেশন উয়েফা (ইউরোপ)
প্রধান কোচ সাফেত সুসিক
অধিনায়ক এমির স্পাহিক
সর্বাধিক ম্যাচ খেলা খেলোয়াড় ভেজদান মিসিমোভিক (৮০)
শীর্ষ গোলদাতা এডিন জেঁকো (৩৩)
স্বাগতিক স্টেডিয়াম বিলিনো পোলজে, জেনিকা
ফিফা কোড BIH
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৫
সর্বোচ্চ ১৩ (আগস্ট ২০১৩)
সর্বনিম্ন ১৭৩ (সেপ্টেম্বর ১৯৯৬)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২৪
সর্বোচ্চ ২১ (৭ জুন ২০১৩)
সর্বনিম্ন ৮৭ (৫ অক্টোবর ১৯৯৯)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
ফিফা আন্তর্জাতিক নয়
 ইরান ১–৩ [১] রি. বসনিয়া-হার্জে. বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
(তেহরান, ইরান; ৬ জুন ১৯৯৩)
ফিফা আন্তর্জাতিক
 আলবেনিয়া ২–০ বসনিয়া-হার্জে. বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
(তিরানা, আলবেনিয়া; ৩০ নভেম্বর ১৯৯৫)
বৃহত্তম জয়
বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা বসনিয়া-হার্জে. ৭–০ এস্তোনিয়া 
(জেনিকা, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা; ১০ সেপ্টেম্বর ২০০৮)
 লিশটেনস্টাইন ১–৮ বসনিয়া-হার্জে. বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
(ভাদুজ, লিশটেনস্টাইন; ৭ সেপ্টেম্বর ২০১২)
বৃহত্তম হার
 আর্জেন্টিনা ৫–০ বসনিয়া-হার্জে. বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা
(কর্দোবা, আর্জেন্টিনা; ১৪ মে ১৯৯৮)
বিশ্বকাপ
উপস্থিতি ১ (প্রথম ২০১৪)
সেরা সাফল্য N/A

বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা জাতীয় ফুটবল দল (Bosnian/Croatian/Serbian: Nogometna/Fudbalska reprezentacija Bosne i Hercegovine; Cyrillic script: Ногометна/Фудбалска репрезентација Боснe и Херцеговинe) যারা Zmajevi বা ড্রাগনস নামে পরিচিত আন্তর্জাতিক ফুটবলে বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার (শুনুনi/ˈbɒzniə ænd hɛrtsəɡˈvnə/) প্রতিনিধি।

এই দলটি ফুটবল ফেডারেশন অব বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা দ্বারা পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয়। ১৯৯২ সালের আগ পর্যন্ত বসনিয়া-হার্জেগোভিনার খেলোয়াড় যুগোস্লেভিয়া জাতীয় ফুটবল দলের অংশ ছিল।

বসনিয়া ও হার্জেগোভনা গ্রিসকে পেছনে ফেলে ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে, যা তাদের স্বাধীনতা লাভের পর প্রথম কোন বড় টুর্নামেন্টে খেলার যোগ্যতা অর্জন।[২][৩] বসনিয়া-হার্জে. এখন পর্যন্ত ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি যদিও তারা বেশ কয়েকবার খুব কাছ থেকে ফিরে এসেছে। তারা ২০১০ ফিফা বিশ্বকাপ ও ২০১২ উয়েফা ইউরোর বাছাইপর্বের প্লেঅফে পর্তুগালের কাছে হেরে ঐ টুর্নামেন্টগুলোর চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নিতে ব্যর্থ হয়।[৪][৫][৬][৭]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. rsssf.com (২৬ মার্চ ২০০৮)। "Bosnia-Herzegovina - List of International Matches"rsssf.com। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০০৮ 
  2. Fifa.com (১৫ অক্টোবর ২০১৩)। "Bosnians make history"। FIFA.com। 
  3. uefa.com (১৫ অক্টোবর ২০১৩)। "Ibišević sparks Bosnia and Herzegovina joy"। uefa.com। 
  4. "Jubilant Bosnians book play-off place"। UEFA। ১০ অক্টোবর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০০৯ 
  5. UEFA.com (১৩ অক্টোবর ২০১১)। "Draw for the UEFA EURO 2012 play-offs" 
  6. bleacherreport.com (১১ অক্টোবর ২০১২)। "World Cup Qualifying: Is Luck Finally on the Side of Bosnia and Herzegovina?" 
  7. Rusty Woodger (২৩ মার্চ ২০১৩)। "Can Bosnia break their hoodoo?"। theroar.com.au। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]