চিলি জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
চিলি
দলের লোগো
ডাকনামলা রোহা (লাল)
এল একুইপো দে তদোস (সকলের দল)
অ্যাসোসিয়েশনচিলি ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনকনমেবল (দক্ষিণ আমেরিকা)
প্রধান কোচরেইনালদো রুয়েদা
অধিনায়কগারি মেদেল
সর্বাধিক ম্যাচআলেক্সিস সানচেজ (১৩৬)
শীর্ষ গোলদাতাআলেক্সিস সানচেজ (৪৫)
মাঠএস্তাদিও নাসিওনাল হুলিও মার্তিনেস প্রাদানোস
ফিফা কোডCHI
ওয়েবসাইটwww.anfp.cl
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৯ হ্রাস(৭ এপ্রিল ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ(এপ্রিল–মে ২০১৬)
সর্বনিম্ন৮৪ (ডিসেম্বর ২০০২)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২১ অপরিবর্তিত (২৪ এপ্রিল ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ(জুলাই ২০১৬)
সর্বনিম্ন৫৯ (জুন ২০০৩[৩])
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 আর্জেন্টিনা ৩–১ চিলি 
(বুয়েনোস আইরেস, আর্জেন্টিনা; ২৭ মে ১৯১০)
বৃহত্তম জয়
 চিলি ৭–০ ভেনেজুয়েলা 
(সান্তিয়াগো, চিলি; ২৯ আগস্ট ১৯৭৯)
 চিলি ৭–০ আর্মেনিয়া 
(বিনিয়া দেল মার, চিলি; ৪ জানুয়ারি ১৯৯৭)
 মেক্সিকো ০–৭ চিলি 
(সান্টা ক্লারা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র; ১৮ জুন ২০১৬)
বৃহত্তম পরাজয়
 ব্রাজিল ৭–০ চিলি 
(রিউ দি জানেইরু, ব্রাজিল; ১৭ সেপ্টেম্বর ১৯৫৯)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৯ (১৯৩০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যতৃতীয় স্থান (১৯৬২)
কোপা আমেরিকা
অংশগ্রহণ৩৯ (১৯১৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (২০১৫, ২০১৬)
প্যানআমেরিকান চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ২ (১৯৫২-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যরানার-আপ (১৯৫২)
কনফেডারেশন্স কাপ
অংশগ্রহণ১ (২০১৭-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যরানার-আপ (২০১৭)

চিলি জাতীয় ফুটবল দল (স্পেনীয়: Selección de fútbol de Chile, ইংরেজি: Chile national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে চিলির প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম চিলির ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা চিলি ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯১৩ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯১৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা কনমেবলের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯১০ সালের ২৭শে মে তারিখে, চিলি প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; আর্জেন্টিনার বুয়েনোস আইরেসে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে চিলি আর্জেন্টিনার কাছে ৩–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

৪৮,৬৬৫ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট এস্তাদিও নাসিওনাল হুলিও মার্তিনেস প্রাদানোসে লা রোহা নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় চিলির রাজধানী সান্তিয়াগোতে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন রেইনালদো রুয়েদা এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন বোলোনিয়ার মধ্যমাঠের খেলোয়াড় গারি মেদেল

চিলি এপর্যন্ত ৯ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৬২ ফিফা বিশ্বকাপের তৃতীয় স্থান অর্জন করা, যেখানে তারা যুগোস্লাভিয়াকে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে। অন্যদিকে, কোপা আমেরিকায় চিলি অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ২টি (২০১৫ এবং ২০১৬) শিরোপা জয়লাভ করেছে। এছাড়াও, চিলি ২০১৭ ফিফা কনফেডারেশন্স কাপে রানার-আপ হয়েছে।

আলেক্সিস সানচেজ, গারি মেদেল, ক্লাউদিও ব্রাভো, এদুয়ার্দো বার্গাস এবং আরতুরো ভিদালের মতো খেলোয়াড়গণ চিলির জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

চিলি ফুটবল ফেডারেশন হচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার দ্বিতীয় প্রাচীন ফুটবল ফেডারেশন, এর ইতিহাস প্রায় ১০০ বছরেরও বেশি পুরোনো। চিলির বন্দর নগরী ভ্যালপারাইসোতে ১৮৯৫ সালে ১৯শে জুন তারিখে এই সংস্থাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ডেভিড স্কট ছিলেন সংস্থাটির প্রথম সভাপতি।[৪]

আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল এবং উরুগুয়ের সাথে চিলি হচ্ছে কনমেবলের চার প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য দেশ। এই চারটি জাতীয় ফুটবল সংস্থা মিলেই ১৯১৬ সালের ৯ই জুলাই তারিখে দক্ষিণ আমেরিকার এই ফুটবল সংস্থার প্রতিষ্ঠা করেছে।[৫] এছাড়া এই তিন দেশের সাথেই চিলি এই অঞ্চলের প্রথম আঞ্চলিক ফুটবল প্রতিযোগিতা দক্ষিণ আমেরিকান চ্যাম্পিয়নশিপ অংশগ্রহণ করে, পরবর্তীতে যার নাম হয় কোপা আমেরিকা

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে চিলি তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৩য়) অর্জন করে এবং ২০০২ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৮৪তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে চিলির সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২য় (যা তারা ২০১৬ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৫৯। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৭ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৭ বৃদ্ধি  ওয়েলস ১৫৭০.৩৬
১৮ বৃদ্ধি  সুইডেন ১৫৬৯.৮১
১৯ হ্রাস  চিলি ১৫৬৯.৫২
২০ বৃদ্ধি  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৫৫৫.৪২
২১ হ্রাস  পোল্যান্ড ১৫৪৯.৮৭
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৪ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৯ বৃদ্ধি ১৯  ইকুয়েডর ১৮২৮
২০ হ্রাস  ইউক্রেন ১৮১৮
২১ অপরিবর্তিত  চিলি ১৮১৬
২২ বৃদ্ধি  পোল্যান্ড ১৮০৮
২২ বৃদ্ধি  তুরস্ক ১৮০৮

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ গ্রুপ পর্ব ৫ম আমন্ত্রণের মাধ্যমে উত্তীর্ণ
ইতালি ১৯৩৪ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০ গ্রুপ পর্ব ৯ম স্বয়ংক্রিয়ভাবে উত্তীর্ণ
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪ উত্তীর্ণ হয়নি ১০
সুইডেন ১৯৫৮ ১০
চিলি ১৯৬২ ৩য় স্থান নির্ধারণী ৩য় ১০ আয়োজক হিসেবে উত্তীর্ণ
ইংল্যান্ড ১৯৬৬ গ্রুপ পর্ব ১৩তম ১৪
মেক্সিকো ১৯৭০ উত্তীর্ণ হয়নি
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ গ্রুপ পর্ব ১১তম
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ উত্তীর্ণ হয়নি
স্পেন ১৯৮২ গ্রুপ পর্ব ২২তম
মেক্সিকো ১৯৮৬ উত্তীর্ণ হয়নি ১৮ ১২
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ নিষিদ্ধ নিষিদ্ধ
ফ্রান্স ১৯৯৮ ১৬ দলের পর্ব ১৬তম ১৬ ৩২ ১৮
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ উত্তীর্ণ হয়নি ১৮ ১২ ১৫ ২৭
জার্মানি ২০০৬ ১৮ ১৮ ২২
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১৬ দলের পর্ব ১০ম ১৮ ১০ ৩২ ২২
ব্রাজিল ২০১৪ ৯ম ১৬ ২৯ ২৫
রাশিয়া ২০১৮ উত্তীর্ণ হয়নি ১৮ ২৬ ২৭
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ৩য় স্থান নির্ধারণী ৯/২১ ৩৩ ১১ ১৫ ৪০ ৪৯ ১৪৭ ৬২ ২৯ ৫৬ ২১৮ ১৯৪

অর্জন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৭ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৪ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০২১ 
  3. "World Football Elo Ratings: Chile"eloratings.net। World Football Elo Ratings। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৮ 
  4. Confederación Sudamericana de Fútbol
  5. "Confederación Sudamericana de Fútbol"। ২৭ অক্টোবর ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]