সংযুক্ত আরব আমিরাত জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সংযুক্ত আরব আমিরাত
দলের লোগো
ডাকনামআল আবিয়াদ (সাদা)
ইয়াল জাইদ (জায়েদের পুত্র)
অ্যাসোসিয়েশনসংযুক্ত আরব আমিরাত
ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনএএফসি (এশিয়া)
প্রধান কোচবের্ট ভান মারভেইক
অধিনায়কওয়ালিদ আব্বাস
সর্বাধিক ম্যাচআদনান আল তালইয়ান (১৬১)
শীর্ষ গোলদাতাআলি মবখুত (৭৯)
মাঠবিভিন্ন
ফিফা কোডUAE
ওয়েবসাইটwww.uaefa.ae
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৬৮ বৃদ্ধি ১ (৩১ মার্চ ২০২২)[১]
সর্বোচ্চ৪০ (নভেম্বর – ডিসেম্বর ১৯৯৮)
সর্বনিম্ন১৩৮ (জানুয়ারি ২০১২)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৭৭ বৃদ্ধি ১৯ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ২৪ (জানুয়ারি ২০১৫)
সর্বনিম্ন১৪০ (সেপ্টেম্বর ১৯৮১)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 সংযুক্ত আরব আমিরাত ১–০ কাতার 
(রিয়াদ, সৌদি আরব; ১৭ মার্চ ১৯৭২)
বৃহত্তম জয়
 ব্রুনাই ০–১২ সংযুক্ত আরব আমিরাত 
(বন্দর সেরি বেগাওয়ান, ব্রুনাই; ১৪ এপ্রিল ২০০১)
বৃহত্তম পরাজয়
 সংযুক্ত আরব আমিরাত ০–৮ ব্রাজিল 
(আবুধাবি, সংযুক্ত আরব আমিরাত; ১২ নভেম্বর ২০০৫)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ১ (১৯৯০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৯০)
এএফসি এশিয়ান কাপ
অংশগ্রহণ১০ (১৯৮০-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যরানার-আপ (১৯৯৬)

সংযুক্ত আরব আমিরাত জাতীয় ফুটবল দল (আরবি: منتخب الإمارات العربية المتحدة لكرة القدم‎‎) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম সংযুক্ত আরব আমিরাতের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা সংযুক্ত আরব আমিরাত ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৭৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে।[৩] ১৯৭২ সালের ১৭ই মার্চ তারিখে, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; সৌদি আরবের রিয়াদে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাত কাতারকে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

আল আবিয়াদ নামে পরিচিত এই দলটি বেশ কয়েকটি স্টেডিয়ামে তাদের হোম ম্যাচগুলো আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় সংযুক্ত আরব আমিরাতের বৃহত্তম শহর দুবাইয়ে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন বের্ট ভান মারভেইক এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন শাবাব আল-আহলির রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ওয়ালিদ আব্বাস

সংযুক্ত আরব আমিরাত এপর্যন্ত মাত্র ১ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যেখানে তাদের সাফল্য হচ্ছে গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করা। অন্যদিকে, এএফসি এশিয়ান কাপে সংযুক্ত আরব আমিরাত এপর্যন্ত ১০ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৯৬ এএফসি এশিয়ান কাপের ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা সৌদি আরবের সাথে ০–০ গোলে ড্র করার পর পেনাল্টি শুট-আউটে ৪–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

আদনান আল তালইয়ান, ইসমাইল মাতার, জুহাইর বাখিত, আলি মবখুত এবং আহমদ খলিলের মতো খেলোয়াড়গণ সংযুক্ত আরব আমিরাতের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৮ সালের নভেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাত তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৪০তম) অর্জন করে এবং ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৩৮তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ২৪তম (যা তারা ২০১৫ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৪০। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৬৬ হ্রাস  আলবেনিয়া ১৩৭১.৮৬
৬৭ হ্রাস  গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ১৩৬৫.০৭
৬৮ বৃদ্ধি  সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৩৫৬.৯৯
৬৯ হ্রাস  দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩৫৬.০১
৭০ বৃদ্ধি  মন্টিনিগ্রো ১৩৪২.৭৯
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৭৫ হ্রাস ১০  জ্যামাইকা ১৫৩৫
৭৬ হ্রাস  মন্টিনিগ্রো ১৫১৮
৭৭ বৃদ্ধি ১৯  সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৫১৫
৭৭ হ্রাস ১০  হাইতি ১৫১৫
৭৯ হ্রাস  বুলগেরিয়া ১৫১১

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬ উত্তীর্ণ হয়নি
ইতালি ১৯৯০ গ্রুপ পর্ব ২৪তম ১১ ১৬
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ উত্তীর্ণ হয়নি ১৯
ফ্রান্স ১৯৯৮ ১২ ১৬ ১৩
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ১৪ ৩১ ২০
জার্মানি ২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১৬ ১৯ ২৪
ব্রাজিল ২০১৪ ১৪ ১৬
রাশিয়া ২০১৮ ১৮ ৩৭ ১৭
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট গ্রুপ পর্ব ১/২১ ১১ ৯৭ ৪৩ ২০ ৩৫ ১৬৫ ১১২

ফিফা আরব কাপ[সম্পাদনা]

ফিফা আরব কাপ
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
লেবানন ১৯৬৩ অংশগ্রহণ করেনি
কুয়েত ১৯৬৪
ইরাক ১৯৬৬
সৌদি আরব ১৯৮৫
জর্ডান ১৯৮৮
সিরিয়া ১৯৯২
কাতার ১৯৯৮ তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ৪র্থ
কুয়েত ২০০২ অংশগ্রহণ করেনি
000 ২০০৯ বাতিল
সৌদি আরব ২০১২ অংশগ্রহণ করেনি
কাতার ২০২১ অনির্ধারিত
মোট তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ১/৯

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 
  3. "AFC BARS ISRAEL FROM ALL ITS COMPETITIONS"রয়টার্সদ্য স্ট্রেইটস টাইমস। ১৬ সেপ্টেম্বর ১৯৭৪। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]