২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ
2002 FIFA 월드컵 한국/일본
2002 FIFA Woldeu Keop Hanguk/Ilbon
2002 FIFAワールドカップ 韓国/日本
2002 FIFA Waarudo Kappu Kankoku/Nippon
২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ লোগো.png
প্রতিযোগিতার বিবরণ
স্বাগতিক দেশসমূহদক্ষিণ কোরিয়া দক্ষিণ কোরিয়া
জাপান জাপান
তারিখ৩১ মে – ৩০ জুন
দল৩২ (৫টি কনফেডারেশন থেকে)
ভেন্যু২০ (২০টি আয়োজক শহরে)
চূড়ান্ত অবস্থান
চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল (৫ম শিরোপা)
রানার-আপ জার্মানি
তৃতীয় স্থান তুরস্ক
চতুর্থ স্থান দক্ষিণ কোরিয়া
পরিসংখ্যান
ম্যাচ খেলেছে৬৪
গোল সংখ্যা১৬১ (ম্যাচ প্রতি ২.৫২টি)
উপস্থিতি২৭,০৫,১৯৭ (ম্যাচ প্রতি ৪২,২৬৯ জন)
শীর্ষ গোলদাতাব্রাজিল রোনালদো (৮ গোল)
সেরা খেলোয়াড়জার্মানি অলিভার কান
সেরা তরুণ খেলোয়াড়মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ল্যান্ডন ডনোভ্যান
সেরা গোলরক্ষকজার্মানি অলিভার কান
ফেয়ার প্লে পুরষ্কার বেলজিয়াম

২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ (কোরীয়: 2002 FIFA 월드컵 한국/일본; জাপানী: 2002 FIFAワールドカップ 韓国/日本) চতুর্বাষিক আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রতিযোগিতা ফিফা বিশ্বকাপের ১৭তম আসরের চূড়ান্ত পর্ব ছিল, যেখানে আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা ফিফার অন্তর্ভুক্ত ৩২টি জাতীয় ফুটবল দল (পুরুষ) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে। এই প্রতিযোগিতাটি দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানে ২০০২ সালের ৩১শে মে হতে ৩০শে জুন তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে ১৯৯৬ সালের ৩১শে মে তারিখে এক নিলামের মাধ্যমে দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানকে স্বাগতিক রাষ্ট্র হিসেবে নির্বাচন করা হয়।

এশিয়ায় অনুষ্ঠিত প্রথম এই বিশ্বকাপে সর্বমোট ৩২টি দল খেলার জন্য উত্তীর্ণ হয়েছিল। এই বিশ্বকাপটি আমেরিকা এবং ইউরোপের বাইরে প্রথম বিশ্বকাপ হওয়ার একই সাথে যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত প্রথম বিশ্বকাপ ছিল। এই বিশ্বকাপে চীন, ইকুয়েডর, সেনেগাল এবং স্লোভেনিয়া তাদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করেছিল।

এই প্রতিযোগিতায় বেশ কয়েকটি অবাক করা ফলাফল ঘটেছিল, যার মধ্যে পূর্ববর্তী চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স শুধুমাত্র একটি মাত্র পয়েন্ট অর্জনের মাধ্যমে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছিল এবং একই সাথে এই আসরের অন্যতম শক্তিশালী দল আর্জেন্টিনাও গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছিল। এই প্রতিযোগিতায় দক্ষিণ কোরিয়া বিতর্কিতভাবে সেমিফাইনালে উঠেছিল; যেখানে পৌঁছাতে তারা পর্তুগাল, ইতালি এবং স্পেনকে পরাস্ত করেছিল। এর ফলস্বরূপ দক্ষিণ কোরিয়া ইউরোপ এবং আমেরিকার বাইরে থেকে প্রথম এবং একমাত্র দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছেছিল। এই প্রতিযোগিতার ফাইনালে, দুই অন্যতম শক্তিশালী দল, ব্রাজিল জার্মানিকে ২–০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম এবং একমাত্র দেশ হিসাবে পাঁচবারের বিশ্বকাপ জয়লাভ করেছিল।[১] এই জয়ের ফলে ব্রাজিল ২০০৩ এবং ২০০৫ ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের জন্য উত্তীর্ণ হয়েছিল। দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে, তুরস্ক ৩–২ গোলে জয়লাভ করেছিল; এর ফলে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপে তুরস্ক তৃতীয় স্থান অর্জন করেছিল। এই ম্যাচে তুরস্কের হাকান শুকুর ফিফা বিশ্বকাপের ইতিহাসে (কিক-অফের মাত্র ১০.৮ সেকেন্ডে) দ্রুততম গোল করেছিল।[২]

এই বিশ্বকাপের ফিফা বিশ্বকাপের ইতিহাসের সর্বশেষ বারের মতো গোল্ডেন গোল নিয়ম ব্যবহার করা হয়েছিল।

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

সকল সময় কোরিয়া ও জাপানের প্রমিত সময় (ইউটিসি+৯)

গ্রুপ এ,বি, সি, ডি এর খেলা দক্ষিণ কোরিয়া এবং গ্রুপ ই,এফ,জি,এইচ জাপানে অনুষ্ঠিত হয়।

নিম্নোক্ত টেবিলগুলোতে:

  • খেলা = মোট খেলা
  • = মোট জয়লাভ করা খেলা
  • ড্র = মোট ড্রকৃত খেলা
  • পরা = মোট পরাজিত খেলা
  • স্বগো = পক্ষে সর্বমোট গোল
  • বিগো = বিপক্ষে সর্বমোট গোল
  • গোপা = গোল পার্থক্য
  • =সর্বমোট পুঞ্জিভূত পয়েন্ট
গ্রুপ টেবিলে রঙের অর্থ
গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং রানার-আপ ১৬ দলের পর্বে অগ্রসর হবে

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স ডেনমার্ক এবং প্রথমবারের মত বিশ্বকাপ খেলা সেনেগালের কাছে পরাজিত হয়ে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়। ২টি দলই ১৬ দলের পর্বে অগ্রসর হতে সক্ষম হয় যার ফলে ২ বারের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েও প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নেয়।[৩]

দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 ডেনমার্ক +৩
 সেনেগাল +১
 উরুগুয়ে −১
 ফ্রান্স −৩
৩১ মে ২০০২
ফ্রান্স  ০–১  সেনেগাল সিউল ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, সিউল
১ জুন ২০০২
উরুগুয়ে  ১–২  ডেনমার্ক মুনসু কাপ স্টেডিয়াম, উলসান
৬ জুন ২০০২
ডেনমার্ক  ১–১  সেনেগাল দেগু ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, দেগু
ফ্রান্স  ০–০  উরুগুয়ে এশিয়াড মেইন স্টেডিয়াম, বুজান
১১ জুন ২০০২
ডেনমার্ক  ২–০  ফ্রান্স ইঞ্চিয়ন মেইন স্টেডিয়াম, ইঞ্চিয়ন
সেনেগাল  ৩–৩  উরুগুয়ে শুয়ন ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, শুয়ন

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

স্পেন তাদের প্রত্যেকটি খেলায় জয়ী হয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ১৬ দলের পর্বে অগ্রসর হয়। অন্যদিকে স্লোভেনিয়া প্রত্যেকটি খেলায় পরাজিত হয় এবং গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়। গ্রুপের বাকি দুই দল প্যারাগুয়ে এবং দক্ষিণ আফ্রিকার পয়েন্ট এমনকি গোল ব্যাবধানও সমান হওয়ায় প্যারাগুয়ের স্বপক্ষে বেশি গোল (৬ গোল, দক্ষিণ আফ্রিকা ৫ গোল) থাকার সুবাদে ২য় দল হিসেবে শেষ ১৬তে জায়গা করে নেয়।

দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 স্পেন +৫
 প্যারাগুয়ে
 দক্ষিণ আফ্রিকা
 স্লোভেনিয়া −৫
২ জুন ২০০২
প্যারাগুয়ে  ২-২  দক্ষিণ আফ্রিকা এশিয়াড মেইন স্টেডিয়াম, বুজান
স্পেন  ৩-১  স্লোভেনিয়া গুয়াংঝু ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, গুয়াংঝু
৭ জুন ২০০২
স্পেন  ৩-১  প্যারাগুয়ে জিয়নঝু ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, জিয়নঝু
৮ জুন ২০০২
দক্ষিণ আফ্রিকা  ১-০  স্লোভেনিয়া দেগু ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, দেগু
১২ জুন ২০০২
দক্ষিণ আফ্রিকা  ২-৩  স্পেন দেইজিয়ন ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, দেইজিয়ন
স্লোভেনিয়া  ১-৩  প্যারাগুয়ে জেজু ওয়ার্ল্ড কাপ স্টেডিয়াম, জেজু

গ্রুপ সি[সম্পাদনা]


দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 ব্রাজিল ১১ +৮
 তুরস্ক 5 +২
 কোস্টা রিকা 5 6 −১
 গণচীন −৯
৩ জুন ২০০২
ব্রাজিল  ২-১  তুরস্ক Munsu Cup Stadium, Ulsan
৪ জুন ২০০২
গণচীন  ০-২  কোস্টা রিকা Gwangju World Cup Stadium, Gwangju
৮ জুন ২০০২
ব্রাজিল  ৪-০  গণচীন Jeju World Cup Stadium, Jeju
৯ জুন ২০০২
কোস্টা রিকা  ১-১  তুরস্ক Incheon Munhak Stadium, Incheon
১৩ জুন ২০০২
কোস্টা রিকা  ২-৫  ব্রাজিল Suwon World Cup Stadium, Suwon
তুরস্ক  ৩-০  গণচীন Seoul World Cup Stadium, Seoul

গ্রুপ ডি[সম্পাদনা]

দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 দক্ষিণ কোরিয়া +৩
 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র −১
 পর্তুগাল +২
 পোল্যান্ড −৪
৪ জুন ২০০২
দক্ষিণ কোরিয়া  ২-১  পোল্যান্ড Asiad Main Stadium, Busan
৫ জুন ২০০২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ৩-২  পর্তুগাল Suwon World Cup Stadium, Suwon
১০ জুন ২০০২
দক্ষিণ কোরিয়া  ১–১  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র Daegu World Cup Stadium, Daegu
পর্তুগাল  ৪–০  পোল্যান্ড Jeonju World Cup Stadium, Jeonju
১৪ জুন ২০০২
পর্তুগাল  ০–১  দক্ষিণ কোরিয়া Incheon Munhak Stadium, Incheon
পোল্যান্ড  ৩–১  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র Daejeon World Cup Stadium, Daejeon

গ্রুপ ই[সম্পাদনা]


দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 জার্মানি ১১ +১০
 প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড +৩
 ক্যামেরুন −১
 সৌদি আরব ১২ −১২
1 জুন ২০০২
প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড  1–1  ক্যামেরুন Niigata Stadium, Niigata
জার্মানি  8–0  সৌদি আরব Sapporo Dome, Sapporo
5 জুন ২০০২
জার্মানি  1–1  প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড Kashima Soccer Stadium, Ibaraki
6 জুন ২০০২
ক্যামেরুন  1–0  সৌদি আরব Saitama Stadium 2002, Saitama
11 জুন ২০০২
ক্যামেরুন  0–2  জার্মানি Shizuoka Stadium, Shizuoka
সৌদি আরব  0–3  প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড International Stadium Yokohama, Yokohama

গ্রুপ এফ[সম্পাদনা]

দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 সুইডেন +১
 ইংল্যান্ড +১
 আর্জেন্টিনা
 নাইজেরিয়া −২
2 জুন ২০০২
আর্জেন্টিনা  1–0  নাইজেরিয়া Kashima Soccer Stadium, Ibaraki
ইংল্যান্ড  1–1  সুইডেন Saitama Stadium 2002, Saitama
7 জুন ২০০২
সুইডেন  2–1  নাইজেরিয়া Kobe Wing Stadium, Kobe
আর্জেন্টিনা  0–1  ইংল্যান্ড Sapporo Dome, Sapporo
12 জুন ২০০২
সুইডেন  1–1  আর্জেন্টিনা Miyagi Stadium, Miyagi
নাইজেরিয়া  0–0  ইংল্যান্ড Nagai Stadium, Osaka

গ্রুপ জি[সম্পাদনা]


দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 মেক্সিকো +২
 ইতালি +১
 ক্রোয়েশিয়া −১
 ইকুয়েডর −২
3 জুন ২০০২
ক্রোয়েশিয়া  0–1  মেক্সিকো Niigata Stadium, Niigata
ইতালি  2–0  ইকুয়েডর Sapporo Dome, Sapporo
8 জুন ২০০২
ইতালি  1–2  ক্রোয়েশিয়া Kashima Soccer Stadium, Ibaraki
9 জুন ২০০২
মেক্সিকো  2–1  ইকুয়েডর Miyagi Stadium, Miyagi
13 জুন ২০০২
মেক্সিকো  1–1  ইতালি Ōita Stadium, Ōita
ইকুয়েডর  1–0  ক্রোয়েশিয়া International Stadium Yokohama, Yokohama

গ্রুপ এইচ[সম্পাদনা]

দল
খেলা ড্র পরা স্বগো বিগো গোপা
 জাপান +৩
 বেলজিয়াম +১
 রাশিয়া
 তিউনিসিয়া −৪
4 জুন ২০০২
জাপান  2–2  বেলজিয়াম Saitama Stadium 2002, Saitama
5 জুন ২০০২
রাশিয়া  2–0  তিউনিসিয়া Kobe Wing Stadium, Kobe
9 জুন ২০০২
জাপান  1–0  রাশিয়া International Stadium Yokohama, Yokohama
10 জুন ২০০২
তিউনিসিয়া  1–1  বেলজিয়াম Ōita Stadium, Ōita
14 জুন ২০০২
তিউনিসিয়া  0–2  জাপান Nagai Stadium, Osaka
বেলজিয়াম  3–2  রাশিয়া Shizuoka Stadium, Shizuoka

নকআউট পর্ব[সম্পাদনা]


১৬ দলের পর্ব কোয়ার্টার ফাইনাল সেমি ফাইনাল ফাইনাল
                           
১৫ জুন – সিয়গউইপো            
  জার্মানি  
২১ জুন – উলসান
  প্যারাগুয়ে  ০  
  জার্মানি  
১৭ জুন – জিয়নঝু
    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  ০  
  মেক্সিকো  ০
২৫ জুন – সিউল
  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র    
  জার্মানি  
১৬ জুন – শুয়ন
    দক্ষিণ কোরিয়া  ০  
  স্পেন (পেন.)  ১ (৩)
২২ জুন – গুয়াংঝু
  প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড  ১ (২)  
  স্পেন  ০ (৩)
১৮ জুন – দেইয়ন
    দক্ষিণ কোরিয়া (পেন.)  ০ (৫)  
  দক্ষিণ কোরিয়া (অ.স.প)  
৩০ জুন – ইয়োকহোমা
  ইতালি  ১  
  জার্মানি  ০
১৫ জুন – নিগাতা
    ব্রাজিল  
  ডেনমার্ক  ০
২১ জুন – শিজুকা
  ইংল্যান্ড    
  ইংল্যান্ড  ১
১৭ জুন – কোবে
    ব্রাজিল    
  ব্রাজিল  
২৬ জুন – সাইতামা
  বেলজিয়াম  ০  
  ব্রাজিল  
১৬ জুন – ওইতা
    তুরস্ক  ০   তৃতীয় স্থান
  সুইডেন  ১
২২ জুন – ওসাকা ২৯ জুন – দেগু
  সেনেগাল (অ.স.প)    
  সেনেগাল  ০   দক্ষিণ কোরিয়া  ২
১৮ জুন – মিয়াগি
    তুরস্ক (অ.স.প)       তুরস্ক  
  জাপান  ০
  তুরস্ক    

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী খেলা[সম্পাদনা]

স্বাগতিক দক্ষিণ কোরিয়াকে ৩-২ ব্যবধানে পরাজিত করে তুরস্ক তৃতীয় স্থান দখল করে। এ খেলায় বিশ্বকাপের ইতিহাসের দ্রুততম গোল হয়। পারমা’র স্ট্রাইকার ও তুরস্কের প্রখ্যাত খেলোয়াড় হাকান সুকার মাত্র ১১ সেকেন্ডে প্রথম গোলটি করেন।

ফাইনাল[সম্পাদনা]

২০০২ ফিফা বিশ্বকাপ ফাইনাল ২০০২ সালে অনুষ্ঠিত ফিফা বিশ্বকাপের সর্বশেষ ও শিরোপা নির্ধারণী খেলা যেখানে জার্মানি ও ব্রাজিল পরস্পরের মুখোমুখি হয়। খেলাটি অনুষ্ঠিত হয় জাপানের ইয়োকোহামার নিসান স্টেডিয়ামে। খেলায় ব্রাজিল ২-০ গোলে জয়লাভ করার মাধ্যমে তাদের ৫ম বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করে। খেলাটিতে দুইটি গোলই করেন ব্রাজিলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় রোনালদো। তিনি ছিলেন ঐ বিশ্বকাপের সর্বাধিক গোলদাতা। দুইটি গোলই হয় খেলায় দ্বিতীয়ার্ধে। এই ম্যাচের মাধ্যমেই ব্রাজিল ও জার্মানি প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে পরস্পরের মুখোমুখি হয়।

জার্মানি ০ – ২ ব্রাজিল
(প্রতিবেদন) রোনালদো গোল ৬৭'৭৯'

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Brazil crowned world champions"BBC Sport। ৩০ জুন ২০০২। ১৪ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১২ 
  2. "Turkey finish in style"BBC Sport। ২৯ জুন ২০০২। ৩১ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১২ 
  3. "France dismissed by Danes"। BBC Sport। ১১ জুন ২০০২। ১১ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

বিশ্বকাপ ফুটবল আসর সমূহ
উরুগুয়ে ১৯৩০ইতালি ১৯৩৪ফ্রান্স ১৯৩৮ব্রাজিল ১৯৫০সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪সুইডেন ১৯৫৮চিলি ১৯৬২ইংল্যান্ড ১৯৬৬মেক্সিকো ১৯৭০পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪আর্জেন্টিনা ১৯৭৮স্পেন ১৯৮২মেক্সিকো ১৯৮৬ইতালি ১৯৯০যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ফ্রান্স ১৯৯৮কোরিয়া/জাপান ২০০২জার্মানি ২০০৬দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ব্রাজিল ২০১৪