চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশের রেলওয়ে স্টেশন
অন্যান্য নামবড়স্টেশন
অবস্থানচাঁদপুর সদর উপজেলা চাঁদপুর জেলা, চট্টগ্রাম বিভাগ
 বাংলাদেশ
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালিতবাংলাদেশ রেলওয়ে
লাইন
প্ল্যাটফর্ম
ট্রেন পরিচালকপূর্বাঞ্চল রেলওয়ে
নির্মাণ
গঠনের ধরনমানক
পার্কিংআছে
সাইকেলের সুবিধাআছে
প্রতিবন্ধী প্রবেশাধিকারআছে
ইতিহাস
চালু১ জুলাই ১৮৯৫
পরিষেবা
যাত্রীবাহী, মালবাহী
অবস্থান

চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন (আঞ্চলিকভাবে পরিচিত বড়স্টেশন হিসেবে) বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর সদর উপজেলায় অবস্থিত জেলার প্রধান ও লাকসাম-চাঁদপুর রেলপথের সর্বশেষ রেলওয়ে স্টেশন[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৯২ সালে ইংল্যান্ডে গঠিত আসাম বেঙ্গল রেলওয়ে কোম্পানি এদেশে রেলপথ নির্মাণের দায়িত্ব নেয়। ১৮৯৫ সালের ১ জুলাই চট্টগ্রাম থেকে কুমিল্লা ১৫০ কিমি মিটারগেজ লাইন এবং লাকসাম থেকে চাঁদপুর পর্যন্ত ৬৯ কিমি রেললাইন জনসাধারণের জন্য খোলা হয়।[৩] এসময় লাকসাম-চাঁদপুর লাইনের সর্বশেষ স্টেশন হিসেবে চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন তৈরি করা হয়।

পরিষেবা[সম্পাদনা]

চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে নিম্নলিখিত ট্রেন চলাচল করে:[৪]

  1. মেঘনা এক্সপ্রেস
  2. সাগরিকা এক্সপ্রেস
  3. চাঁদপুর কমিউটার

ঈদ-উল-ফিতর ও ঈদ-উল-আযহার সময় চট্টগ্রাম থেকে দুটি ঈদ স্পেশাল ট্রেন চলাচল করে, যাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাটল ট্রেনের কোচ ব্যবহার করা হয়। মালবাহী ট্রেন মাঝেমধ্যে চলাচল করে তবে নিয়মিত নয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "নতুন ভবনে চলছে চাঁদপুর রেলওয়ে বড় স্টেশনের কার্যক্রম"চাঁদপুর টাইমস। ২০১৯-০১-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  2. ":: চাঁদপুর কন্ঠ ::"www.chandpur-kantho.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  3. "রেলওয়ে - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৪ 
  4. "চাঁদপুর ট্রেনের নাম ও সময়সূচি"morningringer.com। ২০১৯-০২-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭