চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন
চট্টগ্রাম রেলস্টেশন
Inside the main Railway station in Chittagong 01.jpg
চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের অভ্যন্তরীন দৃশ্য
অবস্থানচট্টগ্রাম
 বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৩°৪৩′৫৫″ উত্তর ৯০°২৫′৩৪″ পূর্ব / ২৩.৭৩২০° উত্তর ৯০.৪২৬২° পূর্ব / 23.7320; 90.4262স্থানাঙ্ক: ২৩°৪৩′৫৫″ উত্তর ৯০°২৫′৩৪″ পূর্ব / ২৩.৭৩২০° উত্তর ৯০.৪২৬২° পূর্ব / 23.7320; 90.4262
লাইন (সমূহ)নারায়ণগঞ্জ-বাহাদুরাবাদ ঘাট লাইন
প্ল্যাটফর্ম
নির্মাণ
গঠনের ধরণমানক
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
ইতিহাস
চালু৭ নভেম্বর, ১৮৯৬
অবস্থান

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন বাংলাদেশের একটি বড় রেলস্টেশন। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের পরে এটি বাংলাদেশের ২য় সবচেয়ে বড় রেলস্টেশন। এটি চট্টগ্রামে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৯৬ সালের ৭ নভেম্বর, আসাম বেঙ্গল রেলওয়ের এজেন্ট স্টেশনের বাণিজ্যিক স্থাপনার সংস্থান এবং স্টেশন মাস্টারের আবাসনের প্রয়োজন মেটাতে প্রধান প্রকৌশলী সহযোগে দুই তলা পুরোনো ভবনের অঙ্কন স্বাক্ষর করেন যা পরবর্তীতে পুন:সংস্কার করা হয়।[১] এটি বাংলাদেশে স্থাপত্য সংরক্ষণের শ্রেষ্ঠ উদাহরণ হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে।[২]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

স্টেশন ভবনটি পূর্ব থেকে পশ্চিমে প্রায় ৫৬.২৪ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১০.৩৭ মিটার প্রস্থের একটি দ্বিতল ভবনের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। ভবনের নিচ তলায় ব্যবসায়িক স্থান এবং দ্বিতীয় তলায় রেলওয়ে কর্মকর্তাদের আবাসনের ব্যাবস্থা রয়েছে।[২] শুরুতে স্টেশন প্রাঙ্গনে একটি উন্মুক্ত চত্বর থাকলেও বর্তমানে তা নেই। ভবনেনর পরিপাটি ফ্যাসাদ স্থাপত্যিক অলঙ্করণে সজ্জিত। জাঁকজমকপূর্ণ গাড়ি-বারান্দার মধ্যখানে সংযুক্ত রয়েছে ধাতব শীর্ষভূষণ এবং গম্বুজ শৈাভিত অর্ধ-অষ্টালক মিনার।[১] পূর্বে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেন এই স্টেশন থেকে ছেড়ে যতো, তবে ২০১৩ সাল থেকে রেলপথ সংস্কারের কারণে তা বন্ধ রাখা হয়েছে।[৩]

চট্টগ্রাম রেলস্টেশনের একটি প্লাটফরম। ডানে অপেক্ষমান ঢাকাগামী একটি ট্রেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. রেলওয়ে বাংলাপিডিয়া
  2. শামসুল হোসেন। "বটতলী রেলওয়ে স্টেশন"www.heritagebangladesh.co। heritagebangladesh। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৯, ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. শাখাওয়াত হোসাইন (ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৫)। "চবি শাটল ট্রেন বটতলী যায় না দেড় বছর"দৈনিক কালের কণ্ঠঢাকা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৯, ২০১৫