গুরুদয়াল সরকারী কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গুরুদয়াল সরকারী কলেজ
গুরুদয়াল সরকারি কলেজে।.jpg
ধরনসরকারি কলেজ
স্থাপিত১৯৪৩ (1943)
অধ্যক্ষমোঃ ইমান আলী
অবস্থান,
২৪°২৬′২৮″ উত্তর ৯০°৪৬′২৮″ পূর্ব / ২৪.৪৪১০৩২° উত্তর ৯০.৭৭৪৩৬৯° পূর্ব / 24.441032; 90.774369স্থানাঙ্ক: ২৪°২৬′২৮″ উত্তর ৯০°৪৬′২৮″ পূর্ব / ২৪.৪৪১০৩২° উত্তর ৯০.৭৭৪৩৬৯° পূর্ব / 24.441032; 90.774369
অধিভুক্তিজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
ওয়েবসাইটwww.gdc.gov.bd
গুরুদয়াল সরকারী কলেজের লোগো.png

গুরুদয়াল সরকারী কলেজ বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কলেজটি ১৯৪৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এতে উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর বিষয়ে পাঠদান করে থাকে। এর উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী শ্রেণীতে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা - তিনটি শাখায় পাঠদান করা হয় ও শিক্ষা কার্যক্রম ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় এবং স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষা কার্যক্রম জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত।[১][২][৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৪৩ সালে তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী খান বাহাদুর আব্দুল করিম সাহেব ও শিক্ষানুরাগী আইনজীবি জিল্লুর রহমান এর পৃষ্ঠপোষকতায় ‘‘কিশোরগঞ্জ কলেজ’’ নামে গুরুদয়াল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রাথমিক ভাবে রাখুয়াইল পাট গবেষণা কেন্দ্রের পাশে সিএন্ডবি এর ডাক বাংলোতে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয় ও ড. ডি. এল. দাস প্রতিষ্ঠাকালীন অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৪৫ সালে কৈবর্তরাজ গুরুদয়াল সরকার কলেজটির আর্থিক দূর্দশা মেটাতে ও শিক্ষা কার্যক্রম সম্প্রসারণ করতে বিনাশর্তে তৎকালীন পঞ্চাশ হাজার টাকা দান করেন ও এই অর্থ দিয়ে কলেজটির জন্য নিজস্ব জমি ও কলেজ ভবন নির্মিত হয়। তার প্রতি কৃতজ্ঞতা থেকে কলেজটির নতুন নামকরণ হয় ‘‘গুরুদয়াল কলেজ’’। ঐ বছরই কলেজটিতে স্নাতক শ্রেনী কার্যক্রম চালু করা হয়। ১৯৪৮ সালে বিজ্ঞানী সত্যেন বসুর পরামর্শে কলেজটিতে বিজ্ঞান শাখা যুক্ত করা হয়। ড. ডি.এল. দাসের পরে অধ্যক্ষ ওয়াসীমুদ্দিন কলেজটির উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন। ১৯৮০ সালে কলেজটির সরকারীকরণ করা হয়।

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

গুরুদয়াল কলেজের মুক্তিযোদ্ধাদের নামের তালিকার স্তম্ভ

প্রশাসন[সম্পাদনা]

কলেজ ভবন[সম্পাদনা]

  • রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ভবন
  • এস.টি হল

ছাত্রাবাস[সম্পাদনা]

  • ড.এম.ওসমান গণি ছাত্রাবাস।
  • ওয়াসিমুদ্দীন ছাত্রাবাস।
  • হাজী তায়েব উদ্দিন হল।

ছাত্রীনিবাস[সম্পাদনা]

  • শেখ হাসিনা হল।
  • বেগম খালেদা জিয়া হল।

গ্রন্থাগার[সম্পাদনা]

গুরুদয়াল সরকারি কলেজের সামনে কিশোরগঞ্জ লেকসিটির ওয়াচ টাওয়ার।

অন্যান্য[সম্পাদনা]

গুরুদয়াল কলেজের সামনে সন্ধ্যা বেলার কিশোরগঞ্জ লেকসিটি।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

বর্তমানে গুরুদয়াল সরকারী কলেজে ১৬টি বিষয়ে অনার্স কোর্স এবং ৬টি বিষয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু রয়েছে।

সহ-শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

  • উচ্চমাধ্যমিক পযার্য়
  • বাংলাদেশ রোভার স্কাউট
  • বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর
  • বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি

উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী[সম্পাদনা]

  • আব্দুল হামিদ, বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও সাবেক সংসদ স্পীকার
  • শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও প্রধান বিচারপতি
  • প্রফেসর ড. আবদুল মান্নান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য
  • মোঃ মোজাম্মেল হুসেন -- প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি
  • ড.আ.মান্নান--প্রাক্তন উপাচার্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
  • জেনারেল নুরউদ্দীন খান—প্রাক্তন সেনাপ্রধান ও মন্ত্রী।
  • ড. আলাউদ্দিন আহমেদ-- প্রাক্তন উপাচার্য, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।
  • মোঃ সিরাজুল ইসলাম-- বীর বিক্রম।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "যে কলেজে রাষ্ট্রপতি পড়েছেন"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৮ 
  2. "GURUDAYAL GOVERNMENT COLLEGE,Kishoreganj 2300, Bangladesh| Developed by explore IT"www.gdc.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৮ 
  3. "গুরুদয়াল কলেজ: স্বপ্ন যেখানে ডানা মেলে – Bangla News Center" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]