লতা মঙ্গেশকর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লতা মঙ্গেশকর
लता मंगेशकर
Lata-Mangeshkar.jpg
জন্ম(১৯২৯-০৯-২৮)২৮ সেপ্টেম্বর ১৯২৯
মৃত্যু৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২(2022-02-06) (বয়স ৯২)
কর্মজীবন১৯৪২ – ২০২২
পিতা-মাতাদীননাথ মঙ্গেশকর
সেবন্তী মঙ্গেশকর
আত্মীয়
পুরস্কারভারতরত্ন ২০০১

পদ্মবিভূষণ ১৯৯৯,
দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার ১৯৮৯,
মহারাষ্ট্রভূষণ পুরস্কার ১৯৯৭,
এনটিআর জাতীয় পুরস্কার ১৯৯৯,
পদ্মভূষণ (১৯৬৯),

ফিল্মফেয়ার আজীবন সম্মাননা পুরস্কার
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরনমারাঠি, চলচ্চিত্রের গান (নেপথ্য সঙ্গীত)
বাদ্যযন্ত্রসমূহকন্ঠশিল্পী
স্বাক্ষর
Signature of Lata Mangeshkar.svg

লতা মঙ্গেশকর (মারাঠি: लता मंगेशकर লতা মংগেশ্‌কর্‌; ২৮ সেপ্টেম্বর ১৯২৯ – ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২) ছিলেন ভারতের একজন স্বনামধন্য গায়িকা।[১][২] তিনি এক হাজারেরও বেশি ভারতীয় ছবিতে গান করেছেন এবং তার গাওয়া মোট গানের সংখ্যা দশ হাজারেরও বেশি।[৩][৪][৫] এছাড়া ভারতের ৩৬টি আঞ্চলিক ভাষাতে ও বিদেশি ভাষায় গান গাওয়ার একমাত্র রেকর্ডটি তারই। তিনি ২০২২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি মুম্বাইয়ে ৯২ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

১৯৮৯ সালে ভারত সরকার তাকে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে ভূষিত করে। তার অবদানের জন্য ২০০১ সালে তাকে ভারতের সর্বোচ্চ সম্মাননা ভারতরত্নে ভূষিত করা হয়; এম. এস. সুব্বুলক্ষ্মীর পর এই পদক পাওয়া তিনিই দ্বিতীয় সঙ্গীতশিল্পী।[৬] ২০০৭ সালে ফ্রান্স সরকার তাকে ফ্রান্সের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা লেজিওঁ দনরের অফিসার খেতাবে ভূষিত করে।[৭]

তিনি ৩টি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ১৫টি বাংলা চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি পুরস্কার, ৪টি শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার, ২টি বিশেষ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার, ফিল্মফেয়ার আজীবন সম্মাননা পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন। ১৯৭৪ সালে তিনি প্রথম ভারতীয় হিসেবে রয়্যাল অ্যালবার্ট হলে সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে লতা সর্বজ্যেষ্ঠ। তার বাকি ভাইবোনেরা হলেন - আশা ভোঁসলে, ঊষা মঙ্গেশকর, মীনা মঙ্গেশকরহৃদয়নাথ মঙ্গেশকর

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লতা মঙ্গেশকর ১৯২৯ সালের ২৮শে সেপ্টেম্বর তৎকালীন ইন্দোর রাজ্যের রাজধানী ইন্দোর (বর্তমান মধ্যপ্রদেশ) জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা পণ্ডিত দীনানাথ মঙ্গেশকর একজন মারাঠি ও কোঙ্কিণী সঙ্গীতজ্ঞ এবং মঞ্চ অভিনেতা ছিলেন। তার মাতা সেবন্তী[৮][৯] (পরবর্তী নাম পরিবর্তন করে সুধামতি রাখেন) বোম্বে প্রেসিডেন্সির তালনারের (বর্তমান উত্তর-পশ্চিম মহারাষ্ট্র) একজন গুজরাতি নারী ছিলেন। তিনি দীনানাথের দ্বিতীয় স্ত্রী ছিলেন। তার প্রথম স্ত্রী নর্মদা সেবন্তীর বড়বোন ছিলেন, যিনি মৃত্যুবরণ করেছিলেন।[১০]

শৈশবে বাড়িতে থাকাকালীন কে এল সায়গল ছাড়া আর কিছু গাইবার অনুমতি ছিল না তার। বাবা চাইতেন ও শুধু ধ্রপদী গান নিয়েই থাকুক। জীবনে প্রথম রেডিও কেনার সামর্থ্য যখন হলো, তখন তার বয়স আঠারো। কিন্তু রেডিওটা কেনার পর নব ঘুরাতেই প্রথম যে খবরটি তাকে শুনতে হয় তা হচ্ছে, কে. এল. সায়গল আর বেঁচে নেই। সঙ্গে সঙ্গেই রেডিওটা ফেরত দিয়ে দেন তিনি। ৫ বছর বয়সে বাবার পরিচালিত গীতি-নাট্যে অভিনয় করেন। ১৯৪১ সালে রেডিওতে দুটি গান রেকর্ড করেন, বাবার মৃত্যুর পর পেশা জীবনে পা রাখেন। ১৩ বছর বয়সে মারাঠি গানের রেকর্ড হয়, কিন্তু সে গান সিনেমা থেকে বাদ যায়। তাঁর প্রথম হিন্দি গান মারাঠি 'জগভাউ' নামক ছবিতে। হিন্দি চলচ্চিত্র 'আপ কি সেবা মে' প্রথম হিন্দি গান গেয়েছেন তিনি। তারপর ১৯৪৮এ প্রযোজক শশধর মুখোপাধ্যায়-এর ছবি 'শহিদ' ছবিতে তিনি সুযোগ পান এবং মজবুর সিনেমায় 'দিল মেরা তোড়া' গানে তিনি বিশেষ জনপ্রিয়তা পান।[৯]

পুরস্কার ও স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

লতা মঙ্গেশকর তার কর্মজীবনে অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা অর্জন করেছেন। তিনি ভারতের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা ভারতরত্ন (২০০১), দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা পদ্মবিভূষণ (১৯৯৯), তৃতীয় সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা পদ্মভূষণে (১৯৬৯) ভূষিত হয়েছেন।[১১] এই সঙ্গীতশিল্পীকে ২০০৭ সালে ফ্রান্স সরকার তাদের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা লেজিওঁ দনরের অফিসার খেতাব প্রদান করেছে। এছাড়া তিনি দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার (১৯৮৯), মহারাষ্ট্র ভূষণ পুরস্কার (১৯৯৭),[১২] এনটিআর জাতীয় পুরস্কার (১৯৯৯), জি সিনে আজীবন সম্মাননা পুরস্কার (১৯৯৯),[১৩] এএনআর জাতীয় পুরস্কার (২০০৯), শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে ৩টি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং ১৫টি বাংলা চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে ৪টি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেছেন। তিনি ১৯৬৯ সালে নতুন প্রতিভা বিকাশের লক্ষ্যে শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করেন। পরবর্তী কালে তিনি ১৯৯৩ সালে ফিল্মফেয়ার আজীবন সম্মাননা পুরস্কার এবং ১৯৯৪ ও ২০০৪ সালে দুইবার ফিল্মফেয়ার বিশেষ পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৭৪ সালে সব চেয়ে বেশি সংখ্যক গান রেকর্ড করার জন্য গিনেস বুক অফ রেকর্ডে তাঁর নাম ওঠে। তাঁকে ১৯৮০ সালে দক্ষিণ আমেরিকার সুরিনামের সাম্মানিক নাগরিকত্ব প্রদান করা হয়। ১৯৮৭ সালে আমেরিকার সাম্মানিক নাগরিকত্ব পান। ১৯৯০ সালে পুনে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাঁকে সাম্মনিক ডক্টরেট প্রদান করা হয় । ১৯৯৬ সালে ভিডিওকন স্ক্রিন লাইফটাইম পুরস্কার। ২০০০ সালে আই আই এফ লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কার এরকম আরো বহু পুরস্কার ও সম্মানে তিনি ভূষিত।[১৪]

উল্লেখযোগ্য বাংলা গান[সম্পাদনা]

বাংলাতে ২০০টি গান রেকর্ড করেছিলেন। তারমধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য গান [১৫]-

  • আজ নয় গুনগুন গুঞ্জন প্রেমের
  • প্রেম একবারই এসেছিল
  • রঙ্গিলা বাঁশিতে কে ডাকে
  • না যেও না রজনী এখনও
  • ওগো আর কিছু তো নাই
  • আকাশ প্রদীপ জ্বলে
  • একবার বিদায় দে মা
  • সাত ভাই চম্পা
  • নিঝুম সন্ধ্যায়
  • চঞ্চল মন আনমনা হয়
  • বাঁশি কেন গায়
  • যদিও রজনী পোহাল তবুও
  • ও মোর ময়না গো
  • কেন কিছু কথা বলো না
  • আজ মন চেয়েছে আমি হারিয়ে যাব
  • চলে যেতে যেতে দিন বলে যায়
  • চঞ্চল ময়ূরী এ রাত
  • কে যেন গো ডেকেছে আমায়
  • আষাঢ় শ্রাবণ মানে না তো মন
  • মঙ্গল দীপ জ্বেলে

উল্লেখযোগ্য হিন্দি গান[সম্পাদনা]

তাঁর গলায় পনেরো হাজারেরও বেশি হিন্দি গান রয়েছে। উল্লেখযোগ্য কিছু হিন্দি ছায়াছবির জনপ্রিয় গান [১৫] -

অসুস্থতা ও মৃত্যু[সম্পাদনা]

লতা ২০২২ সালের ৮ জানুয়ারি কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মুম্বাইয়ের ব্রীচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি হন। করোনা মুক্তও হয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তী শারীরিক অসুস্থতায় অবস্থার অবনতি হয়। তিনি ২০২২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮:১২ নাগাদ (ইউটিসি+৫:৩০) হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।[১৬] মুম্বই-এর শিবাজী পার্কে তাঁর অন্ত্যেষ্টি সম্পন্ন হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীনরেন্দ্র দামোদরদাস মোদী, সচিন তেন্ডুলকর, শাহরুখ খান প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।[১৭] ভারতের রাষ্ট্রপতি[১৮], প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং সরকারের পক্ষ থেকে দুদিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়।[১৯] ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে শিল্পীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ৭ ফেব্রুয়ারি অর্ধদিবস ছুটি এবং পরবর্তী পনেরো দিন তাঁর গান বাজানোর কথা ঘোষিত হয়।[২০]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Lata Mangeshkar"The Times of India। ১০ ডিসেম্বর ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২২ 
  2. Yasmeen, Afshan (২১ সেপ্টেম্বর ২০০৪)। "Music show to celebrate birthday of melody queen"Chennai, Tamil Nadu India: The Hindu। ৩ নভেম্বর ২০০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৮-১৯ 
  3. ডেস্ক, বিনোদন। "লতা মঙ্গেশকর আর নেই"Prothomalo। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৬ 
  4. "Lata Mangeshkar"The Times of India। ডিসেম্বর ১০, ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২২ 
  5. Yasmeen, Afshan (সেপ্টেম্বর ২১, ২০০৪)। "Music show to celebrate birthday of melody queen"The Hindu। নভেম্বর ৩, ২০০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৮-১৯ 
  6. "Lata Mangeshkar given Bharat Ratna"দ্য হিন্দু। ১১ আগস্ট ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  7. "Happy Birthday Lata Mangeshkar: 5 Timeless Classics By the Singing Legend"নিউজ এইটিন। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  8. "Unplugged: Lata Mangeshkar"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ২০, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  9. "eisamay ePaper বেঙ্গলি খবর, Latest News in Bengali, Breaking News In Bengali, সর্বশেষ সংবাদ | Eisamay"www.epaper.eisamay.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  10. বশি, অশীষ (সেপ্টেম্বর ২৯, ২০০৯)। "Meet Lata-ben Mangeshkar!"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া (ইংরেজি ভাষায়)। আহমেদাবাদ। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  11. "Padma Awards" (PDF) (ইংরেজি ভাষায়)। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ভারত সরকার। ২০১৫। ১৫ অক্টোবর ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  12. "Stage set for felicitation of Lata with Maharashtra Bhushan award"দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  13. "Zee Cine Lifetime Achievement Award (ZCA) - Zee Cine Lifetime Achievement Award Winners"awardsandshows.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  14. MumbaiFebruary 6, Anindita Mukherjee; February 6, 2022UPDATED:; Ist, 2022 10:11। "Bharat Ratna to Padma Bhushan, Lata Mangeshkar's awards list is legendary"India Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৬ 
  15. "সুরের এই ঝর ঝর ঝর ঝরনা... - Bagala news, Bagala Epaper, Bagala Audio News, News Podcast | Eisamay Epaper"www.epaper.eisamay.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  16. "প্রয়াত সুর সম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকর! শোকের ছায়া দেশজুড়ে"। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৬ 
  17. "'আঁখ মে ভরলো পানি...', দেশকে কাঁদিয়ে পঞ্চভূতে বিলীন সুর সম্রাজ্ঞী"EI Samay। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  18. "সোমবার অর্ধদিবস ছুটি, রাজ্যে ১৫ দিন বাজবে লতা মঙ্গেশকরের গান, ঘোষণা মমতার"Hindustantimes Bangla। ২০২২-০২-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  19. "লতা মঙ্গেশকরের মৃত্যুতে ২ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা কেন্দ্রের"Ganashakti Bengali (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  20. "সোমবার অর্ধদিবস ছুটি, রাজ্যে ১৫ দিন বাজবে লতা মঙ্গেশকরের গান, ঘোষণা মমতার"Hindustantimes Bangla। ২০২২-০২-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • ভিমানী, হরিষ (১৯৯৫)। In search of Lata Mangeshkar। ইন্দুস। আইএসবিএন 978-8172231705 
  • ভারতন, রাজু (১৯৯৫)। Lata Mangeshkar: A Biography। ইউবিএস পাবলিশার্স ডিস্ট্রিবিউটর্স। আইএসবিএন 978-8174760234 
  • কবির, নাসরিন মুন্নী (২০০৯)। Lata Mangeshkar: In Her Own Voice। নিয়োগী বুকস। আইএসবিএন 978-8189738419 
  • লতা, মঙ্গেশকর (১৯৯৫)। Madhuvanti Sapre and Dinkar Gangal, সম্পাদক। In search of Lata Mangeshkar (পাঞ্জাবি ভাষায়)। হার্পারকলিন্স/ইন্দুস। আইএসবিএন 978-8172231705 . A collection of articles written by Lata Mangeshkar since 1952.
  • নেরুরকর, বিশ্বাস। Lata Mangeshkar Gandhar Swaryatra (1945-1989) (মারাঠি ভাষায়)। মুম্বই: বসন্তী পি. নেরুরকর। .
  • বিচ্চু, মন্দর ভি. (১৯৯৬)। Gaaye Lata, Gaaye Lata (হিন্দি ভাষায়)। শারজাহ: পল্লবী প্রকাশন। আইএসবিএন 978-8172231705 . A collection of articles written by Lata Mangeshkar since 1952.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]