সুন্দরলাল বহুগুণা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুন্দরলাল বহুগুণা
Sunderlal Bahuguna at New Tehri cropped.jpg
জন্ম(১৯২৭-০১-০৯)৯ জানুয়ারি ১৯২৭
মৃত্যু২১ মে ২০২১(2021-05-21) (বয়স ৯৪)[২]
পেশা
দাম্পত্য সঙ্গীবিমলা বহুগুণা
সন্তান

সুন্দরলাল বহুগুণা (৯ জানুয়ারী ১৯২৭ - ২১ মে ২০২১) [৩] একজন ভারতীয় বিশিষ্ট গড়ওয়ালি পরিবেশবিদ এবং চিপকো আন্দোলনের নেতা। চিপকো আন্দোলনের ভাবনাটি তার স্ত্রীর ছিল এবং সুন্দরলাল এই আন্দোলনটি বাস্তবায়িত করেছিলেন। ১৯৭০-এর দশকে প্রথমে চিপকো আন্দোলনের সদস্য হিসাবে এবং পরে ১৯৮০-এর দশক থেকে শুরু করে ২০০৪ সাল পর্যন্ত[৪] তেহরি বাঁধ নির্মাণের বিরুদ্ধে, বছরের পর বছর ধরে তিনি হিমালয় অঞ্চলে বন সংরক্ষণের জন্য লড়াই করে গেছেন। তিনি ভারতের গোড়ার দিকের অন্যতম পরিবেশবিদ,[৫] এবং পরে তিনি এবং চিপকো আন্দোলনের সাথে যুক্ত লোকেরা পরিবেশগত সমস্যাগুলি যেমন বড় বড় বাঁধ তৈরির বিরুদ্ধে আন্দোলন করে।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

সুন্দরলাল বহুগুণা ৯ জানুয়ারি ১৯২৭, উত্তরাখণ্ডের তেহরির কাছাকাছি মারোদা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি কলকাতায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দাবি করেছিলেন যে তাঁর পূর্বপুরুষ বন্দ্যোপাধ্যায় পদবীধারি, আটশো বছর আগে বাংলা থেকে তেহারিতে চলে এসেছিলেন। [৬] প্রথমদিকে, তিনি অস্পৃশ্যতার বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন এবং পরবর্তীতে ১৯৬৫ থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত তিনি তার মদ্যপান বিরোধী আন্দোলনে, পাহাড়ি মহিলাদের সংগঠিত করতে শুরু করেছিলেন। [৭] তিনি তেরো বছর বয়সে শ্রী দেব সুমন, যিনি একজন অহিংসাবাদী [৮] এবং স্বাধীনতার সময় উত্তর প্রদেশের (ভারত) কংগ্রেস দলের সাথে ছিলেন, তার নেতৃত্বে সামাজিক কার্যক্রম শুরু করেছিলেন। [৯] বহুগুণা ১৯৪৭ সালের পূর্বে ঔপনিবেশিক শাসনের বিরুদ্ধে জনগণকে একত্রিত করেছিলেন। [১০] তিনি তাঁর জীবনে গান্ধীবাদের নীতি গ্রহণ করেছিলেন এবং তাঁর স্ত্রী বিমলাকে এই শর্তে বিয়ে করেছিলেন যে তারা গ্রামাঞ্চলের মানুষের মধ্যে বাস করবে এবং গ্রামে আশ্রম প্রতিষ্ঠা করবে। গান্ধীর দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে তিনি হিমালয়ের জঙ্গল এবং পাহাড়ে ৪,০০০ কিলোমিটারেরও বেশি পায়ে হেঁটেছিলেন এবং হিমালয়ের ভঙ্গুর পরিবেশে, মেগা উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলির ক্ষতি এবং পরবর্তী সময়ে গ্রামে সামাজিক জীবনের অবক্ষয় পর্যবেক্ষণ করেছেন।

চিপকো আন্দোলন[সম্পাদনা]

চিপকো আন্দোলনটি ১৯৭৪ সালের ২ মার্চ উত্তর প্রদেশে , বন ঠিকাদারদের দ্বারা গাছ এবং বনাঞ্চলের ক্ষেতগুলি কেটে ফেলা আটকানোর লক্ষ্যে স্বতঃস্ফুর্তভাবে শুরু হয়েছিল। [১১] হিন্দিতে, " চিপকো " এর আক্ষরিক অর্থ "আলিঙ্গন" এবং লোকেরা যখন গাছ কাটছিল তখন গাছগুলিকে তারা জড়িয়ে ধরে আটকা ছিল। চিপকো আন্দোলনে এবং সাধারণভাবে পরিবেশবাদে সুন্দরলাল বহুগুণার অন্যতম উল্লেখযোগ্য অবদান ছিল তাঁর চিপকো স্লোগান "বাস্তুশাস্ত্রই স্থায়ী অর্থনীতি।" [১০] ১৯৮১ থেকে ১৯৮৩ সাল অবধি প্রায় ৫০০ কিলোমিটার ট্রান্স-হিমালয় পায়ে হেঁটে তিনি গ্রামে গ্রামে ভ্রমণ করেছিলেন এবং এই আন্দোলনের পক্ষে সমর্থন সংগ্রহ করে, এই আন্দোলনকে প্রাধান্য দিতে সাহায্য করেছিলেন। ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সাথে বহুগুণা সাক্ষাৎ করেন, সেই আলোচনার ফলস্বরূপ ইন্দিরা গান্ধী, ১৯৮০ সালে সবুজ গাছ কাটার উপর পরবর্তী ১৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। [৪] আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ গৌরা দেবীর সাথেও তিনি ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত ছিলেন।

তেহরি বাঁধ বিরোধী প্রতিবাদ[সম্পাদনা]

তেহরি বাঁধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বার্তা, যা সুন্দরলাল বহুগুণা দ্বারা বছরের পর বছর ধরে চালিত ছিল। এটি বলে "আমরা বাঁধ চাই না। বাঁধ পাহাড়কে বিনাশ করে। "

তিনি কয়েক দশক ধরে তেহরি বাঁধ বিরোধী বিক্ষোভের পিছনে ছিলেন, তিনি সত্যাগ্রহ পদ্ধতি অবলম্বন করেছিলেন এবং তাঁর প্রতিবাদের নিদর্শন হিসাবে ভাগীরথীর তীরে বারবার অনশন করেছিলেন। [১২] ১৯৯৫ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী পি. ভি. নরসিংহ রাও দ্বারা বাঁধের পরিবেশগত প্রভাব নিয়ে পর্যালোচনা কমিটি নিয়োগের আশ্বাসের পরে, তিনি ৪৫ দিনের দীর্ঘ অনশন বন্ধ করেন। এরপরে তিনি আর একটি দীর্ঘ অনশন করেন যা গান্ধী সমাধি, রাজ ঘাটে ৭৪ দিন স্থায়ী ছিল,[১৩] প্রধানমন্ত্রী, এইচ. ডি. দেবেগৌড়ার সময়, যিনি প্রকল্প পর্যালোচনার ব্যক্তিগত উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। যাইহোক, আদালতের মামলা সুপ্রিম কোর্টে এক দশকেরও বেশি সময় ধরে চললেও, ২০০১ সালে তেহরি বাঁধের কাজ আবার শুরু হয়, এরপরে ২০ এপ্রিল ২০০১ সালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

অবশেষে, বাঁধের জলাধারটি ২০০৪ সালে পূর্ণ হতে শুরু করে এবং ৩১ জুলাই ২০০৪ সালে শেষ পর্যন্ত তাকে কোটিতে নতুন আবাসে সরিয়ে নেওয়া হয়। পরে তিনি উত্তরাখণ্ডের রাজধানী দেরাদুনে চলে আসেন এবং সেখানে স্ত্রীর সাথে বসবাস শুরু করেন। [৪]

সুন্দরলাল বহুগুণা হিমালয়ের জনগণের অনুরাগী রক্ষক ছিলেন, পার্বত্য জনগণের (বিশেষত শ্রমজীবী মহিলাদের) দুর্দশার জন্য কাজ করেছিলেন। তিনি ভারতের নদী সংরক্ষণের জন্যও সংগ্রাম করেছিলেন। [১৪][১৫]

বহুগুণা ২১ মে ২০২১ সালে ৯৪ বছর বয়সে কোভিড -১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মারা যান। [১৬]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

বই[সম্পাদনা]

  • ভারতের পরিবেশ :বন্দনা শিবা, মেধা পাটকার এর সাথে মিথ এন্ড রিয়েলিটি
  • পরিবেশগত সঙ্কট ও ঝুঁকিতে মানব: রাজীব কে. সিনহার সাথে প্রায়োরিটিস ফর একশন
  • ভু প্রয়োগ মে বুনিয়াদি পরিবর্তন কি ঔর (হিন্দি)
  • ধরতি কি পুকার (হিন্দি) [২১]
  • জেমস, জর্জ আলফ্রেড (২০১৩)। বাস্তুশাস্ত্র হল স্থায়ী অর্থনীতি: সুন্দরলাল বহুগুণার সক্রিয়তা ও পরিবেশবাদ। আলবানি: স্টেট ইউনিভার্সিটি অফ নিউ ইয়র্ক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bahuguna betterworldheroes.com.
  2. "Environmentalist Sundarlal Bahuguna dies of Covid at AIIMS-Rishikesh"The Times of India। ২১ মে ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০২১ 
  3. Sharma, Seema (১০ জানুয়ারি ২০১৮)। "Dams paving way for more calamities: Sunderlal Bahuguna"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  4. Bahuguna, the sentinel of Himalayas by Harihar Swarup, The Tribune, 8 July 2007.
  5. Sunderlal Bahuguna, a pioneer of India's environmental movement.
  6. Banerjee, Sudeshna (১৩ মার্চ ২০১১)। "Bengali Bahuguna"The Telegraph, Calcutta। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১২ 
  7. Sunderlal Bahuguna ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৭ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে culturopedia.com.
  8. Pallavi Takur, Vikas Arora, Sheetal Khanka (২০১০)। Chipko Movement (1st সংস্করণ)। Global Vision Pub. House। পৃষ্ঠা 131। আইএসবিএন 9788182202887 
  9. Shiva, Vandana (১৯৯০)। Staying alive: women, ecology, and development। Zed Books। পৃষ্ঠা 70। আইএসবিএন 9780862328238 
  10. Goldsmith, Katherine। "A Gentle Warrior"Resurgence & Ecologist। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১২ 
  11. Chipko ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে Right Livelihood Award Official website.
  12. Big Dam on Source of the Ganges Proceeds Despite Earthquake Fear New York Times, 18 September 1990.
  13. "If the Himalayas die, this country is nowhere" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৯ ডিসেম্বর ২০০৬ তারিখে.
  14. 'My fight is to save the Himalayas' ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৬ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে Frontline, Volume 21 – Issue 17, 14– 27Aug 2004.
  15. Bahuguna ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৯ ডিসেম্বর ২০০৬ তারিখে uttarakhand.prayaga.org
  16. "LIVE: Leader of Chipko Movement, Sunderlal Bahuguna, succumbs to Covid-19"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৫-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২১ 
  17. "Noted activist Sunderlal Bahuguna turns 90"Pioneer (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১০-২১ 
  18. "Jamnalal Bajaj Awards Archive"Jamnalal Bajaj Foundation 
  19. "List of Padma awardees 2009"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৯-০১-২৬। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-১২ 
  20. "Padma Vishushan awardees"Govt. of India Portal। ২৭ এপ্রিল ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  21. "Sunderlal Bahuguna"। flipkart। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]