দিলীপকুমার রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

দিলীপকুমার রায় (জানুয়ারি ২২,১৮৯৭ - মৃত্যু জানুয়ারি ৬, ১৯৮০) বিখ্যাত বাঙালি সঙ্গীতজ্ঞ, সঙ্গীতালোচক, গীতরচয়িতা, সুরকার ও গায়ক। সাহিত্যের নানান শাখায় উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্যও বিখ্যাত। তার পিতা ছিলেন বিখ্যাত নাট্যকার ও গীতিকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়

সঙ্গীতশিক্ষা[সম্পাদনা]

পরিণত সঙ্গীতশিক্ষা লাভ করেন সুরেন্দ্রনাথ মজুমদার, রাধিকাপ্রসাদ গোস্বামী ও অচ্ছন বাঈ-এর কাছে। পাশ্চাত্য সঙ্গীতেও তাঁর বিশেষ অধিকার ছিলো।

সঙ্গীতে অবদান[সম্পাদনা]

সুর রচনা ও গায়ন উভয় ক্ষেত্রেই তিনি একেবারে নিজস্ব ও পৃথক একটি ঢং প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। সবাই সেটিকে দিলীপী ঢং বলে অভিহিত করতেন। সঙ্গীত বিষয়ে বহু গ্রন্থ রচনা করে তিনি বাংলা সঙ্গীতালোচনা সাহিত্যে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করেছেন। রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে সঙ্গীত বিষয়ে তাঁর মতবিনিময় ঐতিহাসিক খ্যাতি লাভ করেছে। অতুলপ্রসাদ সেনকাজী নজরুল ইসলামের সঙ্গে দিলীপকুমার রায়ের বিশেষ হৃদ্যতা ছিলো। প্রথম দিকে নজরুলের সঙ্গীত রচনাকে কলকাতার সুধীমহলে জনপ্রিয় করে তোলার ক্ষেত্রে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিলো। নজরুল সম্পর্কে তাঁর স্মৃতিচারণ নজরুল সঙ্গীতালোচনার ভিত্তি নির্মাণ করে। নজ রুলের গানের স্বরলিপি প্রকাশের ক্ষেত্রেও তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করে গেছেন।

সন্ন্যাসজীবন[সম্পাদনা]

১৯২৮ সালে তিনি সন্ন্যাস গ্রহণ করেন এবং সারা জীবন সন্ন্যাসী থেকে সঙ্গীত ও সাহিত্য-সাধনায় নিয়োজিত থাকেন।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

১৯৮০ সালের ৬ই জানুয়ারী তাঁর দেহাবসান ঘটে।