শাল্মলী খোলগড়ে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শাল্মলী খোলগড়ে
Shalmali Kholgade at TOIFA 2013.jpg
২০১৩ সালে তোইফা পুরস্কারে খোলগড়ে
জন্ম
শালমালি খোলগড়ে

পেশানেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী
কর্মজীবন২০১২–বর্তমান
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরনপশ্চিমা সংগীত, শাস্ত্রীয় সংগীত, পপ, সিনেমায়
বাদ্যযন্ত্রসমূহগাওয়া

শাল্মলী খোলগড়ে একজন ভারতীয় নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী, তিনি মূলত হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে গান করেন।[১] হিন্দি ছাড়াও তিনি অন্যান্য ভারতীয় ভাষায় যেমন মারাঠি, বাংলা, তেলেগু এবং তামিল ভাষায়ও গান গেয়েছেন। তার সংগীত জীবনে তিনি দুবার মনোনয়ন পেয়ে একবার ফিল্মফেয়ার পুরষ্কার পেয়েছেন এবং তার গানের শৈলীর জন্য প্রশংসিত হয়েছেন।[১]

সংগীত জীবন[সম্পাদনা]

কর্মজীবনের শুরুতে (২০০৪-২০১১)[সম্পাদনা]

শাল্মলী ১৬ বছর বয়সে গান পরিবেশন করতে শুরু করেছিলেন এবং ৮ বছর বয়স থেকেই তাঁর মা উমা খোলগড়ের অধীনে গান শেখা শুরু করেন। উমা খোলগড়ে ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী ও নাট্য ব্যক্তিত্ব ছিলেন। পরে তিনি শুভদা পারদকারের অধীনে তাঁর সংগীত শিক্ষা অব্যাহত রাখেন এবং সম্প্রতি লস অ্যাঞ্জেলেস কলেজ অফ মিউজিক এপ্রিল সেমিস্টারের জন্য তাকে গ্রহণ করতে রাজি হয়েছিল কিন্তু রেকর্ডিং প্রতিশ্রুতির কারণে সেখানে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করেন। মুম্বাইয়ের ব্লু ফ্রগে শাল্মলী তার প্রিয় এক গায়ক অ্যামি ওয়াইনহাউসকে শ্রদ্ধা জানিয়ে দুই ঘণ্টা সময় দেন; সেখানে ব্যাপক দর্শক উপস্থিতি ছিল। তিনি মিকি ম্যাকক্লিয়ারির জনপ্রিয় কাজ 'দ্য বারটেন্ডার'-এর একজন কণ্ঠশিল্পী, সেখানে তিনি পুরাতন বলিউডের গানগুলি সংবেদনশীল, পুরাতন স্কুল জাজের স্বাদে পুনর্নির্মাণ করেছেন এবং তা তাদের দ্বিতীয় অ্যালবাম 'বি সেভেনটি' তে প্রদর্শিত হয়েছে। পারফর্মার হিসাবে তাঁর বহুমুখিতা আরও বাড়িয়ে শাল্মলী বোম্বালু নামের একটি সরাইখানায় লাত্ভীয় দলের সাথে একক সংগীত শিল্পী হিসেবে পরিবেশনা করেন, তারা মস্কো, ইয়েরেভান এবং আর্মেনিয়া ভ্রমণ করেছিল। তিনি বেশ কয়েক বছর ধরে মুম্বাইয়ে পেশাদার শিল্পী হিসেবে গান করছেন, এবং আলী জাফরের গানের সহায়তাকারি গায়ক হিসাবে কাজ করেছেন।[২]

চলচ্চিত্রের গানে অভিষেক এবং বিরাট সাফল্য-অর্জন (২০১২-বর্তমান)[সম্পাদনা]

২০১৩ সালে ওরলি উৎসবে শিবানী কাশ্যপের সাথে খোলগড়ে

শাল্মলী ২০১২ সালে অমিত ত্রিবেদীর সংগীতের অধীনে ইশকজাদে চলচ্চিত্রের "পেরেশান" গানের মাধ্যমে বলিউডের নেপথ্য সঙ্গীতে প্রধান কণ্ঠশিল্পী হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেন। গানটি সমালোচিত এবং বাণিজ্যিক ভাবে সফল ছিল, ভারত জুড়ে টপচার্টে শীর্ষে ছিল।[৩][৪] পেরেশান গানের জন্য খোলগড়ে শ্রেষ্ঠ মহিলা নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরষ্কারসহ অন্যান্য বেশ কয়েকটি পুরষ্কার জিতেছিলেন।

২০১২ সালে তার অন্য দুটি গান, ককটেল ছবির "দারু দেশী"[৫][৬] এবং আইয়া ছবির "আগা বাই" জনপ্রিয়তা পেয়েছিল।[৭] ২০১৩ সালে খোলগড়ের প্রথম ট্র্যাক, রেস ২ চলচ্চিত্রের "লাত লাগ গাইয়ে" ব্যপক বাণিজ্যিক সাফল্য পেয়েছিল। গানটি বেশ কয়েক সপ্তাহ যাবৎ চার্টের শীর্ষে থাকে এবং নাচের ক্লাবগুলিতে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। খোলগড়ে ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি চলচ্চিত্রের "বালাম পিচকারি" ট্র্যাকটির জন্য আরও সমালোচনা এবং বাণিজ্যিক সাফল্য পেয়েছে। গানটির জন্য খোলগড়ে দ্বিতীয়বার শ্রেষ্ঠ মহিলা নেপথ্য সঙ্গীতশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরষ্কারসহ অনেকগুলি মনোনয়ন পেয়েছিলেন। তিনি শুদ্ধ দেশী রোম্যান্সের শিরোনাম ট্র্যাক, মেইন তেরা হিরো ছবির "বেশারমি কি হাইট" এবং "শনিবার রাতি", হাম্প্টি শর্মা কি দুলহানি ছবির "ডি সে ড্যান্স" এবং দাওয়াত-ই-ইস্ক ছবির "ছায়ারানা" গেয়েছিলেন, এগুলোর জন্য সমালোচকদের আরও প্রশংসা লাভ করেছিলেন। তিনি স্পোর্ট ড্রামা চলচ্চিত্র সুলতান (২০১৬) এর "বেবি কো বাস পছন্দ হ্যায়" গানের জন্যও প্রশংসা লাভ করেন। আইয়া (২০১২) ছবির "আগা বাই", গোরি তেরে পেয়ার মে (২০১৩) ছবির "চিঙ্গাম ছবক", বোম্বে ভেলভেট (২০১৫) ছবির "মহব্বত বুড়ি বেমারি", ওয়েলকাম টু করাচি (২০১৫) ছবির "শাকিরা", এবং এবিসিডি ২ (২০১৫) ছবির "নাচ মেরি জান" সহ ধারাবাহিক জনপ্রিয় গানে তিনি তাঁর গানের শৈলির জন্য সমালোচকদের উচ্চ প্রশংসা পান, সকল গানই চার্টে শীর্ষে ছিল।

২০১৩ সালের তামিল ছবি নান রাজাবাগা পোগিরেন এ খোলগড়ের প্রথম আঞ্চলিক গান "রাজা রাজা" বেশ প্রশংসিত হয়েছিল। রোমান্টিক ছবি রাজা রানীতে তাঁর গান "ওডে ওডে" ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে সফল হয়েছিল এবং তাকে দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতে একজন দক্ষ গায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিল। এই সাফল্যের ফলে তিনি আরও আঞ্চলিক গানে কন্ঠ দেন এবং তা জনপ্রিয়তা লাভ করে। এর মধ্যে আছে বাংলা চলচ্চিত্র প্রলয় (২০১৩) এর "কালা কই গেলি", তেলেগু চলচ্চিত্র তুফান (২০১৩) এর "প্রেমিনাচা", বাংলা চলচ্চিত্র হিরোগিরি (২০১৫) এর "মারিয়া", তেলেগু চলচ্চিত্র জিল (২০১৫) এর "জিল জিল জিল", মারাঠি ছবি টাইমপাস ২ (২০১৫) এর "তু মিলা "এবং মারাঠি চলচ্চিত্র হাইওয়ে (২০১৫) এর "ক্যাঙ্গারু" গানসমূহ। এগুলি ছাড়াও তিনি সনি এন্টারটেইনমেন্ট টেলিভিশনের রিয়েলিটি শো ইন্ডিয়ান আইডল জুনিয়রের অডিশনের অন্যতম বিচারক ছিলেন।

খোলগড়ে ২০২০ সালে মুক্তি পেতে যাওয়া মারাঠি ছবি জুন এর মাধ্যমে সংগীত সুরকার হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবেন।[৮]

অভিনয় জীবন[সম্পাদনা]

২০০৯ সালে রঞ্জন সিংয়ের পূর্ব ভারতের কোঙ্কণী-মারাঠি ছবি তু মাজা জীব চলচ্চিত্রে পার্শ্ব অভিনেত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করে শাল্মলী চলচ্চিত্রে অভিনয় শিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন, ছবিটি মহারাষ্ট্র দিবসে মুক্তি পায়। ছবিটি ভারতের বক্স অফিসে একটি মাঝারি সাফল্য পায় এবং মিশ্র সমালোচনা অর্জন করে, তবে তার অভিনয়ের জন্য তিনি প্রশংসিত হন।[৯]

ডিস্কের তালিকা[সম্পাদনা]

পুরস্কার এবং মনোনয়ন[সম্পাদনা]

বছর বিভাগ গান ও চলচ্চিত্র ফলাফল
মির্চি সঙ্গীত পুরস্কার
২০১২ বর্ষসেরা মহিলা কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে) মনোনীত[১০]
বর্ষসেরা আসন্ন মহিলা কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে)
"আগা বাই" (আইয়া)
ফিল্মফেয়ার পুরষ্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে) বিজয়ী
২০১৪ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "বালাম পিচকারি" (ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি) মনোনীত
স্ক্রিন পুরস্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে) বিজয়ী
২০১৪ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "বালাম পিচকারি" (ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি) মনোনীত
আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র অ্যাকাডেমি পুরস্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে) মনোনীত
জি সিনে পুরস্কার
২০১৩ নতুন গায়ক প্রতিভা বিভাগে সা রে গা মা পা পুরষ্কার "পেরেশান" (ইশকজাদে) বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী – নারী "পেরেশান" (ইশকজাদে) মনোনীত
২০১৪ শ্রেষ্ঠ নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী – নারী "বালাম পিচকারি" (ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি) মনোনীত
টাইমস অফ ইন্ডিয়া চলচ্চিত্র পুরষ্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী – নারী "পেরেশান" (ইশকজাদে) বিজয়ী
স্টারডাস্ট পুরস্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী "পেরেশান" (ইশকজাদে) বিজয়ী
বিআইজি স্টার ভারতীয় সংগীত পুরষ্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী – নারী "পেরেশান" (ইশকজাদে) মনোনীত
স্টার গিল্ড পুরষ্কার
২০১৩ শ্রেষ্ঠ নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী – নারী "পেরেশান" (ইশকজাদে) মনোনীত

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Broken flower"The Hindu। ২৫ জুলাই ২০১১। ২ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১২ 
  2. "Tribute concerts in India"। The Times of India। ১৫ জুন ২০১২। ৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জুলাই ২০১৩ 
  3. "Love Goes Grunge"Indian Express। ২০ এপ্রিল ২০১২। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১২ 
  4. "Ishaqzaade: Music Review"। The Times of India। ১৫ এপ্রিল ২০১২। 
  5. "NEW SONG: Deepika-Saif in Cocktail"Hindustan Times। ১ জুন ২০১২। ৯ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১২ 
  6. "Shamali Kholgade Page"। ৫ মার্চ ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০২০ 
  7. "Saif, Deepika get tipsy in Cocktail!"India Today। ৪ জুন ২০১২। ৯ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১২ 
  8. "Shalmali Kholgade to make her debut as a music composer - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২৭ 
  9. "First East Indian movie releases on Maharashtra Day"The Times of India। ৪ মে ২০০৯। ৭ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১২ 
  10. "Nominations - Mirchi Music Award Hindi 2012"www.radiomirchi.com। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-২৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]