কবিতা কৃষ্ণমূর্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কবিতা কৃষ্ণমূর্তি সুব্রামানিয়াম
Kavita Krishnamurthy Subramaniam
Kavita Subramaniam.jpg
কবিতা কৃষ্ণমূর্তি , ২০০৮
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম নামসারদা কৃষ্ণমূর্তি
আরো যে নামে
পরিচিত
কবিতা কৃষ্ণমূর্তি সুব্রামানিয়াম
জন্ম (১৯৫৮-০১-২৫) ২৫ জানুয়ারি ১৯৫৮ (বয়স ৬০)
উদ্ভবদিল্লি, ভারত
পেশাপ্লে-ব্যাক শিল্পী, ফিউশন গায়িকা
কার্যকাল১৯৮০ - বর্তমান

কবিতা সুব্রামানিয়াম বা কৃষ্ণমূর্তি(সারদা কৃষ্ণমূর্তি নামে ১৯৫৮ সালের ২৫'শে জানুয়ারিতে জন্মগ্রহন করেন) (তামিল: சாரதா கிருஷ்ணமுர்த்தி) তিনি একজন জনপ্রিয় ভারতীয় সংগীত শিল্পী। তিনি ভারতীয় উপমহাদেশের বিভিন্ন ভাষায় গান করেছেন। [১] বিশেষ করে শাস্ত্রীয় সংগীতে তিনি অসামান্য অবদান রেখেছেন। এছাড়াও বিভিন্ন চলচ্চিত্রে তিনি গান করেছেন। বিখ্যাত সংগীত পরিচালকদের মধ্যে এ আর রহমান, আর ডি বর্মন প্রমূখের সাথে তিনি কাজ করেছেন। [২] [৩]

তিনি চার বার ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন। ২০০৬ সালে তার অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ভারত সরকারের কাছ থেকে পদ্মশ্রী খেতাব পান। ২০১৩ সালের মার্চে একটি অ্যাপ চালু করেন। যেটি অ্যাপল এবং গুগলের অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাবে। [৪]

শৈশব কাল[সম্পাদনা]

জন্মের সময় নাম ছিলো সারদা কৃষ্ণমূর্তি[৫] তিনি দিল্লি'র একটি তামিল পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। বাবার নাম টি. এস. কৃষ্ণমূর্তি । মিসেস ভট্টাচার্য নামে তার এক আত্মীয়ের কাছে প্রথম গান শিখতে শুরু করেন। প্রথম দিকে তিনি রবীন্দ্রসংগীত শিখতেন। [৩] এরপর বলরাম পুরী'র কাছে শাস্ত্রীয় সংগীত শিখেন। মাত্র আট বছর বয়স থেকেই বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন করতেন তিনি।

কর্ম জীবন[সম্পাদনা]

মাত্র নয় বছর বয়সেই জনপ্রিয় এবং কিংবদন্তি শিল্পী লতা মঙ্গেশকর এর সাথে গান করার সুযোগ পান। ১৪ বছর বয়সে তিনি মুম্বই এ আসেন। এখানে সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে অর্থনীতিতে বিএ অনার্স করেন। একদিন একটি অনুষ্ঠানে দৈবক্রমে রানু মুখার্জী'র (হেমন্ত কুমারের মেয়ে) সাক্ষাত পান। রানু কবিতাকে তার বাবার কাছে নিয়ে যান। [৫] হেমন্ত কুমার কবিতার কন্ঠ শুনে আভিভূত হন এবং বিভিন্ন প্রোগ্রামে গান করার সুযোগ দেন। এমনই এক অনুষ্ঠানে মান্না দে কবিতা'র গান শুনেন। এবং কবিতাকে বিভিন্ন জায়গাতে গান করার সুযোগ করে দেন। এদিকে তার সেই আত্মীয় যার কাছে তিনি প্রথম গান শিখেছিলেন তার মাধ্যমে কবিতা বিখ্যাত সংগীত পরিচালক লক্ষীকান্ত'র সাথে পরিচিত হন।[৫] লক্ষীকান্ত তাকে কাজ করার সুযোগ দেন।

১৯৮০ সালে তিনি প্রথম গান করেন মাং ভারো সাজনা ছবিতে। কিন্তু, দূর্ভাগ্যবশত গান টি শেষ পর্যন্ত বাদ যায়। ১৯৮৫ সালে তিনি আভির্ভূত হন ব্যাপক জনপ্রিয় গান পেয়ার ঝুটকা নাহি ছিনেমা'র তুমছে মিলকার না জানে কিউ গানের মধ্য দিয়ে। এর পরেই একের পর এক হিট গান উপহার দিতে থাকেন। যেমনঃ মি.ইন্ডিয়া ছবির হাওয়া হাওয়াই এবং কারতে হে হুম পেয়ার মিঃ ইন্ডিয়া ছে। এসময়টা ছিলো তার জন্য খুব সৌভাগ্যের, কিছুদিন পরেই তিনি জনপ্রিয় কিংবদন্তি শিল্পী কিশোর কুমার এর সাথে কাজ করার সুযোগ পান।

১৯৯০ সালের দিকে তিনি লিডিং কণ্ঠশিল্পীদের তালিকায় চলে আসেন। এরপর থেকে আর ঘুরে দাড়াতে হয়নি তাকে। কাজ করে গেছেন একের পর এক বিখ্যাত ছবিতে এবং বিখ্যাত সব সংগীত পরিচালকদের সাথে। এ লাভ স্টোরি, ইয়ারানা, অগ্নি সাক্ষী, ভৈরবী, খামোশি এমন সব চলচ্চিত্রে গান করার পর তিনি নিজেকে একটি অন্যতম উচ্চতায় তুলে ধরেন। কাজ শুরু করেন বিখ্যাত সব শিল্পী আর সংগীত পরিচালকদের সাথে যেমনঃ বাপ্পি লাহিড়ী, এ আর রহমান, ইসমাইল দরবার, নাদিম-শ্রাবন, যতীন ললিত, বিজু শাহ এবং অনু মালিক। এছাড়াও তিনি অনেক শিল্পীর সাথে ডুয়েট গান করেন যেমনঃ কিশোর কুমার, সুরেশ ওয়াকার, কুমার শানু, উদিত নারায়ন এবং সনু নিগম আর নারী কণ্ঠশিল্পীদের মধ্যে অলকা ইয়াগনিক, অনুরাধা পাঢ়য়াল এবং সাধনা সারগাম এর সাথে তিনি সফল জুটি হিসেবে অনেক গান করেন।

শাস্ত্রীয় সংগীতে মনোনিবেশ[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালের ১১ নভেম্বর তিনি জনপ্রিয় বেয়ালা বাদক ড. এল সুব্রামানিয়াম এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এবং চলচ্চিত্রে গান করা থেকে প্রায় সরে আসেন। এসময় তিনি শাস্ত্রীয় সংগীতে মননিবেশ করেন। পাঁচ মহাদেশের শিল্পীদের নিয়ে করা অয়ের্নার ব্রসের গ্লোবাল ফিউশন এর তিনি অন্যতম গায়িকা। এসময় তিনি যুক্তরাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, দূর প্রাচ্য, মধ্য প্রাচ্য সহ বিভিন্ন যায়গাতে গান পরিবেশনের জন্য ভ্রমণ করেন। যেমন লন্ডনের রয়েল আলবার্ট হল, ওয়াশিংটনের জন এফ কেনেডি সেন্টার, নিউ ইয়র্ক এর ম্যাডিসন স্কয়ারলিংকন সেন্টার এবং বেইজিং, সিঙ্গাপুরকুয়ালালামপুর এর বিভিন্ন কনসার্টে তিনি অংশগ্রহন করেন।

শাস্ত্রীয় সংগীতের পাশাপাশি বিভিন্ন পপ এবং গজলেও কন্ঠ দেন তিনি।

পপ ও ভক্তি সংগীত[সম্পাদনা]

বিভিন্ন ধরনের গানের পাশাপাশি কবিতা পপ এবং ভক্তি মূলক অনেক গানে কন্ঠ দেন। যেমনঃ

  • আদি গণেশ
  • ভেঙ্কটেশ সুপ্রভাতাম
  • শিব স্লোক
  • কই আকেলে কাহা
  • মীরা কা রাম
  • মহা লক্ষী স্তোত্রাম
  • পপ টাইম
  • সাঁই কা বর দান
  • সাগুফতাগি
  • দিল কি আওয়াজ
  • এথেন্স
  • আসমিতা
  • মাহিয়া
  • হাথ কার দি আপনে

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

কবিতা কৃষ্ণমূর্তি বিখ্যাত বেহালা বাদক ড. এল সুব্রামানিয়াম এর সাথে ১১ নভেম্বর ১৯৯৯ এ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের কোনো সন্তান নাই। কিন্তু, এল সুব্রামানিয়ামের আগের পক্ষে তিন সন্তান আছে। এরমধ্যে বিন্দু সুব্রামানিয়াম সংগীত শিল্পী এবং রচয়িতা। নারায়ন সুব্রামানিয়াম একজন ডাক্তার আর অম্বি সুব্রামানিয়াম অন্যতম একজন বেহালা বাদক। [৬][৭]

২০০৭ সালে কবিতা এবং তার স্বামী একত্রে ব্যাঙ্গালুরুতে একটি মিউজিক ইন্সটিটিউট তৈরি করেছেন। যার নাম সুব্রামানিয়াম একাডেমি।[৮]

পুরষ্কার এবং সম্মাননা[সম্পাদনা]

কবিতা কৃষ্ণমূর্তি অসংখ্য পুরস্কার এবং সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। যেমনঃ

সরকারি সম্মাননা

  • ২০০৫ – পদ্মশ্রী – ভারত সরকারের দেওয়া চতুর্থ সর্বোচ্চ সম্মাননা

ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড

  • ২০০৩ – বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী হিসেবে শ্রেয়া ঘোষাল এর সাথে দেবদাস ছিনেমার ডোলা রে ডোলা গানের জন্য
  • ১৯৯৭– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – আজ মে উপর গানের জন্য খামোশি ছিনেমা
  • ১৯৯৬– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – মেরে পিয়া ঘার আয়ে গানের জন্য ইয়ারা না ছিনেমা
  • ১৯৯৫– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – পেয়ার হুয়া চুপকে ছে এ লাভ স্টোরি ছিনেমা

[৩]

স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ড

  • ১৯৯৭ –বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – আজ মে উপর গানের জন্য খামোশি ছিনেমা
  • ২০০০– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – হাম দিল দে চুকে ছানাম

জি ছিনে অ্যাওয়ার্ড

  • ২০০৩ – বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী হিসেবে শ্রেয়া ঘোষাল এর সাথে দেবদাস ছিনেমা'র ডোলা রে ডোলা গানের জন্য
  • ২০০০– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী – নিমুড়া গানের জন্য

ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়ান ফিল্ম একাডেমি অ্যাওয়ার্ড ]]

  • ২০০৩– বেস্ট ফিমেল প্লে-ব্যাক শিল্পী হিসেবে শ্রেয়া ঘোষাল এর সাথে দেবদাস' ছিনেমার ডোলা রে ডোলা গানের জন্য

References[সম্পাদনা]

  1. Priyanka Dasgupta (১৯ ডিসেম্বর ২০০৯)। "Kavita Krishnamurthy conquering global shores"Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১০ 
  2. Pallab Bhattacharya (৩ ডিসেম্বর ২০০৯)। "Solidarity against terror through music and poetry"Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১০ 
  3. Rupa Damodaran (৮ মে ২০০৪)। "Bollywood Kavita trills for good lyrics"News Straits Times। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১০ 
  4. "iTunes app for Kavita Krishnamurthy" 
  5. Amit Puri (২৩ আগস্ট ২০০৩)। "...kehte hain mujhko Hawa Hawaii"The Tribune। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১০ 
  6. http://www.rediff.com/getahead/slide-show/slide-show-1-achievers-interview-with-bindu-subramaniam/20110512.htm
  7. http://www.mybangalore.com/article/0411/violinist-ambi-subramaniam-talks-about-music-and-more.html
  8. http://www.sapaindia.com

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]