কালীগঞ্জ উপজেলা, সাতক্ষীরা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কালিগঞ্জ
উপজেলা
কালিগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কালিগঞ্জ
কালিগঞ্জ
বাংলাদেশে কালীগঞ্জ উপজেলা, সাতক্ষীরার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২৭′১০″ উত্তর ৮৯°২′৩৫″ পূর্ব / ২২.৪৫২৭৮° উত্তর ৮৯.০৪৩০৬° পূর্ব / 22.45278; 89.04306স্থানাঙ্ক: ২২°২৭′১০″ উত্তর ৮৯°২′৩৫″ পূর্ব / ২২.৪৫২৭৮° উত্তর ৮৯.০৪৩০৬° পূর্ব / 22.45278; 89.04306 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগখুলনা বিভাগ
জেলাসাতক্ষীরা জেলা
আয়তন
 • মোট৩৩৩.৭৯ কিমি (১২৮.৮৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা [১]
 • মোট৩,২৫,৬৩৫
 • জনঘনত্ব৯৮০/কিমি (২৫০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৪৭%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৪০ ৮৭ ৪৭
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

কালীগঞ্জ বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

অবস্থান[সম্পাদনা]

উত্তরে দেবহাটা উপজেলা,দক্ষিণে শ্যামনগর উপজেলা,পূর্বে আশাশুনি উপজেলা, পশ্চিমে ভারত অবস্থিত।

প্রশাসনিক কর্মকর্তা[সম্পাদনা]

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা- সরদার মোস্তফা শাহিন; উপজেলা চিয়্যারম্যান- সাঈদ মেহেদী; উপজেলা ভাইস চিয়্যারম্যান- মোঃ নাজমুল


প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

কালিগঞ্জ উপজেলায় ১২টি ইউনিয়ন আছে।এর কোন পৌরসভা নেই। ইউনিয়ন সমূহ হচ্ছে -

  1. কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন
  2. বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন
  3. চাম্পাফুল ইউনিয়ন
  4. দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়ন
  5. কুশুলিয়া ইউনিয়ন
  6. নলতা ইউনিয়ন
  7. তারালী ইউনিয়ন
  8. ভাড়াশিমলা ইউনিয়ন
  9. মথুরেশপুর ইউনিয়ন
  10. ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন
  11. রতনপুর ইউনিয়ন
  12. মৌতলা ইউনিয়ন

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কালিগঞ্জ সাতক্ষীরা জেলার র্অন্তগত একটি উপজেলা।কালিগঞ্জ এর কোন সঠিক ইতিহাস আজ পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে এই এলাকার ইতিহাস সম্পর্কে সতীশ চন্দ্র মিত্রর একটি বইয়ের উপর নির্ভর করতে হয় যা যশোহর খুলনার ইতিহাসের উপর রচিত। এই গ্রন্থে নামকরণ বিষয়ে কালিগঞ্জকে একটি আধুনিক নাম হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে।রাজা প্রতানের পতনের পর বাজিতপর পরগনা নদীয়ার রাজার হস্তগত হয় বলে ‍‌উল্লেখ করা আছে। তারপর চাঁপড়ার রাজা কৃষ্ণরাম এই পরগনা খরিদ করেন(১৭০৫-১৭২৯)। পরবতীর্তে তা কালক্রমে কলিকাতার দর্পনারায়ন ঠাকুরের হস্তে যায়। তদ্ববংশীয় কানাইলাল ঠাকুর নারায়ন পুরে কালি প্রতিষ্টা করেন। উক্ত কালী থেকে কালক্রমে কালিগঞ্জ হয় বলে গ্রন্থে উল্লেখিত আছে। এই ইতিহাস ব্যতীত বাইরে আর কোন উৎস পাওয়া যায়নি।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

কালিগঞ্জ এর মোট জনসংখ্যা ৩,২৫,৬৩৫জন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

এই উপজেলার শিক্ষা ব্যবস্থা এখন দ্রুত উন্নতিশীল হচ্ছে|এখানে বর্তমানে শিক্ষার হার শতকরা ৪৭ জন (১৫ বছরের উর্দ্ধে)|তবে ২০২০ সালের মধ্যে তা শতকরা ৮৯ জন হবে বলে আশাতীত|


সংস্কৃতি

রাজা প্রতাপাদিত্যের রাজত্বকাল থেকেই এই অঞ্চলের মানুষের মাঝে গড়ে উঠেছিল স্পন্দনমুখর গ্রাম সংস্কৃতির মেলা। যার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে প্রচীন অপ্রকাশিত নানা অপ্রচলিত পুথি-পত্র, ছড়া, লোকগল্প ,লোকগানের মধ্যে দিয়ে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

শিক্ষার আলো নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা হাজারো জ্ঞান পিপাসিত শিক্ষার্থীর জ্ঞান দুয়ারে পৌছে দিতে যার প্ররণা, সেই সুপরিকল্পিত কালিগঞ্জ পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উপজেলা ল্যাবরেটরি স্কুল, লাইসিয়াম প্রিক্যাডেট স্কুল,মহৎপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,নলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নলতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়,নলতা আহ্ছানিয়া মিশন রেসিডেন্সিয়াল কলেজ,ইত্যাদি|এছাড়া প্রায় শতাধিক বিদ্যালয় রয়েছে এখানে| যারা দেশ গঠনের শক্ত কারিগর তৈরী করতে প্রতিটি মুহূর্তকে কাজে লাগাতে বদ্ধপরিকর ।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বহুলাংশে নির্ভরশীল দেশের দক্ষিণ অঞ্চলের কৃষি আর মাছ চাষের জন্য। এই অঞ্চলের এক সময়কার বহু প্রজাতির বাঁশ তাল আর সুপারি বাগান আজ প্রায় উজাড়মুখি।

লোনাপানির মাছমিঠা পানির মাছ উভয় প্রকার মাছের চাষকৃত ঘেড় চোখে পড়ে এ অঞ্চলের রাস্তার দুপাশ ঘেয়ে যা এ অঞ্চলের অতি লাভ জনক সম্ভাবনার কথা বলে। বর্তমানে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর অনেক ঘেড়ে পঞ্চ পরিকল্পনা Project বা ষষ্ঠ পরিকল্পনা Project এর আওতায় এগিয়ে নিতে সক্রিয় হয়ে উঠতে চেষ্টা করছে।

নদ-নদী[সম্পাদনা]

১। ইছামতি নদী

২। কাকশিয়ালী নদী

৩। কালিন্দী নদী

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

  1. নলতা পাক রওজা শরীফ
  2. প্রবাজপুর শাহী মসজিদ
  3. ড্যামরাইল নবরত্ন মন্দির
  4. কালিগঞ্জ বিজ্র
  5. রেডিও নলতা
  6. কালিগঞ্জ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর
  7. ছোট মিঞার দরবার শরীফ
  8. সাত্তার মোড়লের খামার বাড়ি
  9. দুই সতিনীর দীঘি

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

গণমাধ্যম[সম্পাদনা]

রেডিও নলতা , সাতক্ষীরা জেলার ১ম কমিউনিটি রেডিও এটি। বাংলাদেশে ১৭ টি কমিউনিটি রেডিও -এর মধ্যে যার অবস্থান ২য়। সাতক্ষীরার মাটি ও মানুষের কথা বলে এটি। স্লোগান - "কণ্ঠহীনের কণ্ঠস্বর"। যার ফ্রিকোয়েন্সি হলো 99.2 |

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

মামা টি স্টলঃ কালিগঞ্জ থেকে প্রায় দুই কিমি দক্ষিণে অবস্থিত পাউখালি বাজার। শেখ আব্দুর রহমান মামা পরিচালিত মামা টি স্টল এখানেই অবস্থিত। কাস্টমারদের অতি ভালবাসার দেয়া মামা নামটিই তার দোকানের রোমানা টি স্টলের পরিবর্তে বর্তমান নাম মামা টি স্টলের রূপ ধারণ করে। এই ঐতিহ্যবাহী মামা টি স্টলের গরুর খাটি দুধের চায়ের স্বাদ এ এলাকাসহ পাশ্ববর্তী কয়েক এলাকার মানুষের মুখে লোকান্তরিত হয়ে আছে। শহর থেকে আসা পরিদর্শকদের একান্ত তৃপ্তি নিবৃত এক চাঞ্চল্যকর পরিবেশ সৃষ্টি করে আসছে দীর্ঘ আঠারো ধরে।

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে কালিগঞ্জ"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ২১ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]