শ্যামনগর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
শ্যামনগর
উপজেলা
শ্যামনগর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
শ্যামনগর
শ্যামনগর
বাংলাদেশে শ্যামনগর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°১৯′৩৬″ উত্তর ৮৯°৬′৯″ পূর্ব / ২২.৩২৬৬৭° উত্তর ৮৯.১০২৫০° পূর্ব / 22.32667; 89.10250স্থানাঙ্ক: ২২°১৯′৩৬″ উত্তর ৮৯°৬′৯″ পূর্ব / ২২.৩২৬৬৭° উত্তর ৮৯.১০২৫০° পূর্ব / 22.32667; 89.10250 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ খুলনা বিভাগ
জেলা সাতক্ষীরা জেলা
আয়তন
 • মোট ১৯৬৮.২৪ কিমি (৭৫৯.৯৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট ১,৫৩,৪৪১
 • ঘনত্ব ৭৮/কিমি (২০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৩২.৪২% [১]
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

শ্যামনগর (ইংরেজি: Shyamnagar) হল বাংলাদেশের খুলনা বিভাগের অন্তর্গত সাতক্ষীরা জেলার একটি উপজেলা

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থিত উপজেলা হল শ্যামনগর। এটিই বাংলাদেশের সর্ব বৃহৎ উপজেলা[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আয়তনঃ ১৯৬৮.২৪ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২১°৩৬´ থেকে ২২°২৪´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯°০০´ থেকে ৮৯°১৯´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে কালীগঞ্জ (সাতক্ষীরা) ও আশাশুনি উপজেলা, দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর, পূর্বে কয়রা ও আশাশুনি উপজেলা, পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য ।

জনসংখ্যাঃ ৩১৩৭৮১; পুরুষ ১৬০২৯৪, মহিলা ১৫৩৪৮৭। মুসলিম ২৪৩২৫৭, হিন্দু ৭০১৫১, বৌদ্ধ ৫৬, খ্রিস্টান ২০ এবং অন্যান্য ২৯৭। এ উপজেলায় মুন্ডা, ভগবেনে, চন্ডাল, কৈবর্ত প্রভৃতি নৃগোষ্ঠীর বসবাস রয়েছে।

জলাশয়ঃ যমুনা, রায়মঙ্গল, অর্পণগাছিয়া, মালঞ্চ, হাড়িয়াভাঙ্গা ও চুনার নদী এবং ভেট খাল উল্লেখযোগ্য।

প্রশাসনঃ শ্যামনগর থানা গঠিত হয় ১৮৯৭ সালে। বর্তমানে এটি উপজেলা।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

শ্যামনগর থানায় ১২টি ইউনিয়ন, ১২৭টি মৌজা/মহল্লা এবং ২১৬টি গ্রাম আছে। ইউনিয়নগুলো হলোঃ

  • ভুরুলিয়া ইউনিয়ন,
  • কাশিমাড়ী ইউনিয়ন,
  • শ্যামনগর ইউনিয়ন,
  • নূরনগর ইউনিয়ন,
  • কৈখালী ইউনিয়ন,
  • রমজাননগর ইউনিয়ন,
  • মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন,
  • ঈশ্বরীপুর ইউনিয়ন,
  • বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন,
  • আটুলিয়া ইউনিয়ন,
  • পদ্মপুকুর ইউনিয়ন ও
  • গাবুরা ইউনিয়ন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হারঃ ৬৪.৮৪%; পুরুষ ৩৮%, মহিলা ২৬.৮৪%। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানঃ ২৭৫টি; কলেজ ০৭, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪৩, প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৮৯, কমিউনিটি স্কুল ০৩, মাদ্রাসা ৩৬। [১] উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: শ্যামনগর মহসীন কলেজ (১৯৭২), আতরজান মহিলা মহাবিদ্যালয়, নকিপুর হরিচরণ মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় (১৮৯৯), নূরনগর আশালতা উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৫৫), ভুরুলিয়া নাগবাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯৪৫), পাতাখালি মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯৫৪), পাতাখালি সিনিয়র মাদ্রাসা (১৯৪৫), জয়নগর হামিদিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা (১৯৬৩)।

বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

প্রাচীন নিদর্শন ও দর্শনীয় স্থানঃ[সম্পাদনা]

  • বংশীপুর শাহী মসজিদ (মুগল আমলে নির্মিত),
  • নুরুল্লা খাঁ মাযার (নূরনগর),
  • শ্যামনগর জমিদার বাড়ি,
  • ছয় গম্বুজবিশিষ্ট হাম্মামখানা (বংশীপুর),
  • যশোরেশ্বরী মন্দির (ঈশ্বরীপুর),
  • চন্ড ভৈরবের মন্দির (ঈশ্বরীপুর),
  • যিশুর গির্জা (১৫৯৯),
  • গোবিন্দ দেবের মন্দির (গোপালপুর, ১৫৯৩),
  • জাহাজঘাটা নৌদুর্গ (খানপুর, ভুরুলিয়া),
  • রাজা প্রতাপাদিত্যের রাজধানী, ধুমঘাট।

অন্যান্য দর্শনীয় স্থানঃ[সম্পাদনা]

  • মান্দারবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত,
  • আকাশনীলা ইকো ট্যুরিজম সেন্টার,
  • কলাগাছি, সুন্দরবন,
  • গোপালপুর দীঘি পার্ক।

[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে শ্যামনগর উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৫ 
  2. "আরও প্রখ্যাত ব্যাক্তিবর্গ"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ৪ এপ্রিল ২০১৭। 
  3. "সাতক্ষীরার দর্শনীয় স্থান"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]