জীবননগর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জীবননগর
উপজেলা
জীবননগর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
জীবননগর
জীবননগর
বাংলাদেশে জীবননগর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°২৪′৫৯″ উত্তর ৮৮°৪৯′১০″ পূর্ব / ২৩.৪১৬৩৯° উত্তর ৮৮.৮১৯৪৪° পূর্ব / 23.41639; 88.81944স্থানাঙ্ক: ২৩°২৪′৫৯″ উত্তর ৮৮°৪৯′১০″ পূর্ব / ২৩.৪১৬৩৯° উত্তর ৮৮.৮১৯৪৪° পূর্ব / 23.41639; 88.81944 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগখুলনা বিভাগ
জেলাচুয়াডাঙ্গা জেলা
আয়তন
 • মোট২০০ কিমি (৮০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট১,৭৯,৫৮১
 • ঘনত্ব৯০০/কিমি (২৩০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট৪২.২৮%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

জীবননগর উপজেলা বাংলাদেশের চুয়াডাঙ্গা জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

জীবননগর উপজেলাটি খুলনা বিভাগের চুয়াডাঙ্গা জেলার অন্তর্ভুক্ত। ২৩°২২´ থেকে ২৩°৩১´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৮°৪৫´ থেকে ৮৮°৫৭´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ তে এটি অবস্থিত। এর উত্তরে - চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা, পূর্বে - কোটচাঁদপুর উপজেলা, দক্ষিণে - মহেশপুর উপজেলা এবং দামুরহুদা উপজেলা, পশ্চিমে - ভারতের পশ্চিমবঙ্গ[২]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

১৯৯.৩২ বর্গ কিমি ব্যাপ্ত এই উপজেলার প্রশাসনিক এলাকা। এর অবস্থান: ২৩°২২´ থেকে ২৩°৩১´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৮°৪৫´ থেকে ৮৮°৫৭´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ।

  • পৌরসভাঃ ১ টি - জীবননগর পৌরসভা (আয়তনঃ ১২.৪০ বর্গ কি.মি.);
  • ইউনিয়নঃ ০৮ টি -
  1. উথলী ইউনিয়ন
  2. আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়ন
  3. বাঁকা ইউনিয়ন
  4. রায়পুর ইউনিয়ন
  5. সীমান্ত ইউনিয়ন
  6. হাসাদাহ ইউনিয়ন
  7. মনোহরপুর ইউনিয়ন
  8. কেডিকে ইউনিয়ন[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কথিত আছে যে ১৬৬০-৬৫ সালের সময় জীবন খাঁ নামে এক ভয়ংকর ডাকাত এ অঞ্চলে আস্তানা গাড়ে। এ এলাকা তখন গভীর বন-জঙ্গলে পরিপূর্ণ এবং বাঘের আবাসস্থল ছিল। পাশে ছিল বর্তমানে মৃত ভৈরব নদী। বৃটিশরা ১৭৭৩ সালে ভারতবর্ষ দখলের পর এই সব ডাকাতদের রবিনহুড স্টাইলে মহৎ দৃষ্টিতে দেখতে থাকে। জীবন খাঁ ডাকাত কে রিবনহুডের মতো মহৎ ব্যক্তি বিবেচনা করে তার নামে এই এলাকার নাম জীবননগর রাখে। পাকিস্তান আমলে ১৯৬৩ সালে জীবননগরকে থানা হিসাবে এবং বাংলাদেশ আমলে ১৯৮৩ সালে উপজেলা হিসেবে উন্নীত করা হয়।[৪]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

জীবননগরে শিক্ষার মান উন্নয়নশীল। এখানে শিক্ষার হার ৫৫.৮৫%। জীবননগর পৌরসভার মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মোট ১২টি। তার মধ্যে মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৩টি ও কলেজ ২টি। এখানকার বার্ষিক পাশের হার ৯৪%।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

  • বি সি কে এম পি মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • রায়পুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • হাসাদাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • উথলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • জীবননগর আলিয়া মাদ্রাসা
  • হাসাদাহ ফাজিল মাদ্রাসা
  • মাধবপুর দাখিল মাদ্রাসা
  • নিধিকুন্ড-বাড়ান্দি দাখিল মাদ্রাসা
  • শাপলাকলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • জীবননগর মহিলা ডিগ্রী কলেজ
  • জীবননগর পাইলট গার্লস স্কুল
  • জীবননগর পাইলট হাই স্কুল
  • জীবননগর পৌর কিন্ডারগার্টেন এন্ড হাইস্কুল
  • আন্দুলবাড়িয়া মাধ্যমিক বালক বিদ্যালয়
  • আন্দুলবাড়িয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়
  • গয়েশপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • ধোপাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • হাসাদাহ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়
  • আলিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • করতোয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সীমান্ত ইউনিয়ন,জীবননগর।
  • মনোহরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মনোহরপুর ইউনিয়ন, জীবননগর।
  • খয়েরহুদা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কেডিকে ‍ইউনিয়ন, জীবননগর।
  • খয়েরহুদা প্রতিবন্ধি স্কুল, কেডিকে ‍ইউনিয়ন, জীবননগর।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র[সম্পাদনা]

স্বাস্থ্যকেন্দ্রের নাম সংখ্যা
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স (Upazila Health Complex) ১ টি(৫১শয্যা)
পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র (Family Planning Centre) - টি
উপগ্রহ ক্লিনিক (Satellite Clinic) - টি
বেসরকারী ক্লিনিক (Private Clinic) - টি

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

অর্থনীতি দিক দিয়ে জীবননগর বাংলাদেশের একটি অন্যতম শহর । এখানে প্রধান অর্থকরী ফসল পাট,ধান,আলু প্রচুর পরিমানে জন্মে ।এছাড়াও এখানে প্রচুর পানক্ষেত ও খেজুর গাছ আছে। এখানকার খেজুরের রস অনেক বিখ্যাত।এছাড়াও এখানে কিছু ছোট কারখানাও আছে। আর এই জন্য এ শহরকে চুয়াডাঙ্গার বানিজ্যেকেন্দ্র বলা হয়।

নদ-নদী[সম্পাদনা]

জীবননগর উপজেলায় অনেকগুলো নদী রয়েছে। নদীগুলো হচ্ছে ভৈরব নদভৈরব-কপোতাক্ষ নদ[৫][৬]

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

১. মুক্তিযোদ্ধা গণ কবর

২. শরৎচন্দ্রের স্মৃতি বিজড়িত- কাশীপুর জমিদার বাড়ী

৩. রাখাল শাহ এর মাজার

৪. প্রস্তাবিত দৌলৎগজ্ঞ-মাজদিয়া স্থলবন্দর

৫.রায়পুর কালা দুয়া ও জয়দিয়া বাওড়

৬.দত্তনগর কৃষি খামার

৭.মারূফদাহ বাওড়

আরও অনেক

পত্রপত্রিকা[সম্পাদনা]

১. সাপ্তাহিক জীবননগর বার্তা

কৃতি ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

১.মোখলেসুর রহমান টিপু তরফদার (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক)

২.গোলাম মর্তুজা (বিশিষ্ট সমাজসেবক)

৩.মাহমুদ হাসান খান বাবু (চেয়ারম্যান, রাইজিং গ্রুপ ও সমাজসেবক)

৪.কাজী রকিব উদ্দীন অাহমেদ (সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার)

৫.মোঃ সাখাওয়াত হোসেন (শিক্ষক, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়)

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে জীবননগর উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারী ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. "জীবননগর উপজেলা"banglapedia.org 
  3. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "ইউনিয়ন সমূহ"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুলাই ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  4. "Chuadanga District - চুয়াডাঙ্গা জেলা"dcchuadanga.gov.bd 
  5. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠা ৩৯০, আইএসবিএন ৯৭৮-৯৮৪-৮৯৪৫-১৭-৯
  6. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক, বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি, কথাপ্রকাশ, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি, ২০১৫, পৃষ্ঠা ৬১৩, ISBN 984-70120-0436-4.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]