কুমারখালী উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কুমারখালি
উপজেলা
কুমারখালি বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কুমারখালি
কুমারখালি
বাংলাদেশে কুমারখালী উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°৫১′১৫″উত্তর ৮৯°১৪′৩০″পূর্ব / ২৩.৮৫৪২° উত্তর ৮৯.২৪১৭° পূর্ব / 23.8542; 89.2417স্থানাঙ্ক: ২৩°৫১′১৫″উত্তর ৮৯°১৪′৩০″পূর্ব / ২৩.৮৫৪২° উত্তর ৮৯.২৪১৭° পূর্ব / 23.8542; 89.2417
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ খুলনা বিভাগ
জেলা কুষ্টিয়া জেলা
আয়তন
 • মোট ২৬৫.৮৯ কিমি (১০২.৬৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট ৩,১৫,১৩৮
 • ঘনত্ব ১২০০/কিমি (৩১০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৬৩.২১%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইট kumarkhali.kushtia.gov.bd/

কুমারখালি বাংলাদেশের কুষ্টিয়া জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর জীবনের এক উল্লেখযোগ্য অংশ এই উপজেলার শিলাইদহ অঞ্চলে কাটিয়েছেন।

অবস্থান[সম্পাদনা]

কুমারখালী উপজেলার পূর্বে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা, পশ্চিমে- কুষ্টিয়া সদর উপজেলা , উত্তরে পাবনা সদর উপজেলা এবং দক্ষিনে- ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলা অবস্থিত।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে কুমারখালি উপজেলা গঠিত; এগুলো হলোঃ

  • জগন্নাথপুর ইউনিয়ন,
  • বাগুলাট ইউনিয়ন,
  • পান্টি ইউনিয়ন,
  • সদকি ইউনিয়ন,
  • চাঁদপুর ইউনিয়ন,
  • চাপড়া ইউনিয়ন,
  • কয়া ইউনিয়ন,
  • নন্দলালপুর ইউনিয়ন,
  • চর সাদিপুর ইউনিয়ন,
  • শিলাইদহ ইউনিয়ন,
  • যদুবয়রা ইউনিয়ন এবং
  • কুমারখালি পৌরসভা।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কুমারখালি অনেক পুরনো একটি উপজেলা, গড়াই নদীর কোল ঘেসে এই জেলার অবস্থান। ওপারে হিজলাবট আর এপারে কুমারখালি । যদিও হিজলাবট গড়াই নদিতে বেশির ভাগ ভেঙ্গে গিয়েছে, কুমারখালিও ভেঙ্গেছে কিন্তু তা বেশি না, হিজলাবট ভাঙ্গার কারনে হিজলাবট থেকে বেশির ভাগ মানুষ কুমারখালি তে চলে আসে। কুমার নদীর নাম আনুসারে "কুমারখালি" নামকরন হয়ে থাকতে পারে

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

নদীসমূহ[সম্পাদনা]

কয়া ইউনিয়নে পদ্মা নদী

কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নে রয়েছে পদ্মা নদী

কৃষি[সম্পাদনা]

ধান, মুগ ডাল, খেসারির ডাল, তরমুচ, বাঙ্গি, বাদাম ইত্যাদি জন্মে। এছাড়াও আখ এবং প্রচুর পরিমাণ পাট, সর্ষে জন্মে। অনেক ভালো মানের গবাদি পশু পালন করে এখান কার মানুষ। এসব থেকে বেশির ভাগ অর্থ আসে।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  1. বাউল সাধক ফকির লালন সাঁই
  2. কাঙাল হরিনাথ মজুমদার
  3. সাহিত্যিক মীর মোশাররফ হোসেন
  4. বিপ্লবী বাঘা যতীন
  5. মাহমুদা খাতুন সিদ্দিকা সাহিত্যিক।
  6. শুভেন্দু বিশ্বাস, বিশ্বখ্যাত হরবোলা শিল্পী
  7. গোলাম কিবরিয়া mp
  8. আবুল হোসেন তরুন mp
  9. আব্দুল আওয়াল মিয়া mp
  10. নুরে আলম জিকু mp
  11. বেগম সুলতানা তরুন mp
  12. আবদুর রউফ mp
  13. আবু তালেব(বীর উত্তম)
  14. শরফুদ্দীন আহমেদ(বীর উত্তম)

ধর্ম[সম্পাদনা]

এখানে হিন্দু এবং মুসলিম ধর্মের মানুষ বসবাস করেন। এ ছারাও এখান রয়েছে বেদে পারা ( বাইদানি ) যারা সাপ নিয়ে খেলা দেখায়। জেলে পারা রয়েছে যারা মাছ ধরে । মাঝি পারা রয়েছে যারা নৌকা চালায় । আবার কিছু আছে বৈরাগী যারা গান বাদ্য করে (বাউল সমাজ)

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • বৌদ্ধ মন্দির,
  • বালিয়াকান্দি শাহী মসজিদ,
  • কাঙাল মজুমদারের ছাপাখান,
  • কুঠিবাড়ী,
  • লালন শাহ্‌-এর মাজার,
  • হারডিং ব্রিজ।

বিবিধ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে কুমারখালী উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগৃহীত ২৭ জানুয়ারী, ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]