কাটখাল ইউনিয়ন

স্থানাঙ্ক: ২৪°২৫′৩০″ উত্তর ৯১°০২′৪৫″ পূর্ব / ২৪.৪২৫০° উত্তর ৯১.০৪৫৮° পূর্ব / 24.4250; 91.0458
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কাটখাল
ইউনিয়ন
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সীল.svg কাটখাল ইউনিয়ন পরিষদ
ডাকনাম: কাটখাল
কাটখাল ঢাকা বিভাগ-এ অবস্থিত
কাটখাল
কাটখাল
কাটখাল বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কাটখাল
কাটখাল
বাংলাদেশে কাটখাল ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°২৫′৩০″ উত্তর ৯১°০২′৪৫″ পূর্ব / ২৪.৪২৫০° উত্তর ৯১.০৪৫৮° পূর্ব / 24.4250; 91.0458
দেশবাংলাদেশ
বিভাগঢাকা বিভাগ
জেলাকিশোরগঞ্জ জেলা
উপজেলামিঠামইন উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড২৩৭১
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

কাটখাল ইউনিয়ন বাংলদেশের ঢাকা বিভাগের কিশোরগঞ্জ জেলার মিটামইন উপজেলার একটি ইউনিয়ন[১][২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন থানায় কাটখাল ইউনিয়নের অবস্থান। কাটখাল ইউনিয়নের বর্তমান আয়তন ১৬ বর্গকিলোমিটার

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

আয়তন ও জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

কাটখাল ইউনিয়ন এর মোট আয়তন প্রায় ১৬ বর্গ কিলোমিটার। জনসংখ্যা প্রায় ১৭০৫০ জন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হার :

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাটখাল ইউনিয়ন বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

  • দিল্লীর আখরা

মোঘল সম্রাট জাহাঙ্গীরের বদন্যতায় এই আখড়া প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বিধায় এটি দিল্লির আখড়া নামে পরিচতি। অবস্হান কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন নামক উপজেলার কাটখাল নামক গ্রামে। সাধক নারায়ন গোস্বামী এই আখড়া প্রতিষ্ঠা করেন। আখড়ার সেবায়েত বৈষ্ণবদের মতে দিল্লি আখড়ার বর্তমান বয়স প্রায় সাড়ে ৪০০ বছর। আখড়ার ৩৭২ একর জমির চারপাশে বিশাল এলাকাজুড়ে রয়েছে প্রায় তিন হাজার হিজল গাছ। এই হিজল গাছ নিয়ে রয়েছে চমকপ্রদ কাহিনী। এইগুলো নাকি ছিল এক একটি দানব। নারায়ন গোস্বামী দানবগুলোকে হিজল গাছে রূপান্তর করেন।

সম্রাট জাহাঙ্গীর ১২১২ সালে আখড়ার নামে একটি তামার পাত্রে আখড়ার জমি লিখে দেন। কিন্তু ১৩৭০ সালে ডাকাতরা এই পাত্রটি নিয়ে যায় বলে আখড়ার সেবায়তরা জানান। দিল্লির আখড়ায় প্রতি বছর ৮ চৈত্র দুই দিনের মেলা বসে। শুকনো মৌসুমে পায়ে, হেঁটে আখড়ায় আসতে হয়। বর্ষাকালে নৌকার কারণে যাতায়াত খুব সহজ। দিল্লির আখড়া নামের মধ্যেই ঐতিহাসিক ছাপ। স্থানটি ভারতের দিল্লির কোন অংশ নয়, কিশোরগঞ্জের হাওর অধ্যুষিত মিঠামইন উপজেলার শেষ প্রান্তে এর অবস্থান। দিল্লির সম্রাট জাহাঙ্গীরের স্মৃতিবিজড়িত এই দিল্লির আখড়াকে কেন্দ্র করে রয়েছে বিশাল খোলা জায়গা। আখড়ার চারদিকে এই বিশাল জায়গায় রয়েছে প্রায় তিন হাজার হিজল গাছ। প্রাচীন এই আখড়া আর হিজল গাছগুলো হাওরের এক অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি- যা সকলকেই হাতছানি দিয়ে ডাকে। দিল্লির আখড়ার প্রতিষ্ঠাকাল সম্পর্কে জানা যায়, দিল্লির সম্রাট জাহাঙ্গীরের সময়ে সাধক নারায়ন গোস্বামী এই আখড়া প্রতিষ্ঠা করেন। আখড়ার সেবায়েত বৈষ্ণবদের মতে দিল্লি আখড়ার বর্তমান বয়স প্রায় সাড়ে ৪০০ বছর।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

বর্তমান চেয়ারম্যান-

প্রাক্তন চেয়ারম্যানগণের তালিকা
ক্রমিক নাম মেয়াদ
০১
০২
০৩
০৪
০৫
০৬
০৭

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কাটখাল ইউনিয়ন"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ২৬ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২০ 
  2. "মিটামইন উপজেলা"বাংলাপিডিয়া। ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। ১ মে ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০২০