কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ

স্থানাঙ্ক: ২২°২০′৩৫″ উত্তর ৯১°৫০′০৪″ পূর্ব / ২২.৩৪৩০৪৯° উত্তর ৯১.৮৩৪৪৯২° পূর্ব / 22.343049; 91.834492
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ
কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ
কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ
বাংলাদেশে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২০′৩৫″ উত্তর ৯১°৫০′০৪″ পূর্ব / ২২.৩৪৩০৪৯° উত্তর ৯১.৮৩৪৪৯২° পূর্ব / 22.343049; 91.834492
অবস্থান বাংলাদেশ চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ
প্রতিষ্ঠিত ১৭২৩
স্থাপত্য তথ্য
ধরন মুঘল স্থাপত্য
গম্বুজ

কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ হলো বাংলাদেশের চট্টগ্রাম শহরের একটি মসজিদ ও মোঘল আমলের শৈলিতে নির্মিত স্থাপত্য। এটি নগরীর জামালখান ওয়ার্ডের মোমিন সড়কস্থ ঝাউতলায় অবস্থিত। মসজিদ সংলগ্ন এলাকাটি কদম মোবারক নামে পরিচিত।[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

তৎকালীন মোঘল সম্রাট মুহাম্মদ শাহ এর শাসনামলে ফৌজদার মুহাম্মদ ইয়াসিন খান ১৭২৩ সালে (১১৫৬ হিজরি) মসজিদটি নির্মাণ করেন।[২][১] মসজিদটিতে দুইটি পদচিহ্ন বা কদম সম্বলিত পাথর সংরক্ষিত আছে। এটি অনুসারে মসজিদের নামকরণ করা হয় "কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ"। জনশ্রুতি আছে, একটি পাথরে ইসলামের নবি মুহাম্মাদ এর পদচিহ্ন এবং অন্যটিতে আব্দুল কাদের জিলানী এর পদচিহ্ন আছে। কথিত আছে, মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রথম মুতওয়াল্লি ইয়াসিন খান মদিনা শহর থেকে মুহাম্মাদ এর পদচিহ্ন সম্বলিত পাথর সংগ্রহ করে দেশে আনেন।[১][২][৩]

বিবরণ[সম্পাদনা]

ছাদযুক্ত আয়তাকার কদম মোবারক মসজিদটি উঁচু জায়গায় নির্মিত। এখানে রয়েছে তিনটি গম্বুজ, দুইটি খিলান, পাঁচটি দরজা। মসজিদের ভেতরের দেয়ালগুলো আয়তাকার প্যানেল ও কুলুঙ্গি দিয়ে সাজানো। মসজিদের চারকোণায় রয়েছে তিনস্তর বিশিষ্ট অষ্টভুজ আকৃতির মিনার, যার প্রতিটি শীর্ষে রয়েছে ক্ষুদ্র গম্বুজ এবং এর ওপরে রয়েছে গোলাকার অলঙ্করণ।[১] মসজিদের উত্তর ও দক্ষিণ পাশে দুইটি ছোট কক্ষ রয়েছে। উত্তর দিকের কক্ষে মুহাম্মাদ-এর ডান পায়ের ছাপ সম্বলিত পাথর সংরক্ষিত এবং পাশেই রয়েছে আব্দুল কাদের জিলানীর পদচিহ্ন সম্বলিত পাথর।[২] মোঘল স্থাপত্যের আরবি ক্যালিওগ্রাফি, লতাগুল্মের নকশা, মোজাইক নকশা, জ্যামিতিক রেখাচিত্রযুক্ত পাথরের অলঙ্করণে মসজিদটি সজ্জিত। বিভিন্ন সময়ে সংস্কার এবং সম্প্রসারণ করা হলেও মোঘল স্থাপত্যের শৈলিতে নির্মিত মসজিদটির সৌন্দর্য এখনও আগের মতই দৃশ্যমান।[১] মসজিদসহ পাশের আরও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নিয়ে গড়ে উঠেছে কদম মোবারক শাহী জামে মসজিদ কমপ্লেক্স। এর আওতায় আছে মসজিদ, মাদ্রাসা, কবরস্থান, জানাযার স্থান ও মুসলিম এতিম খানা। এতিমখানাটি মাওলানা মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী প্রতিষ্ঠা করেন, এটিই চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় এতিমখানা। এর পাশেই রয়েছে কদম মোবারক উচ্চ বিদ্যালয় এবং ইসলামাবাদী স্মৃতি মিলনায়তন।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পুরাকীর্তির সংক্ষিপ্ত বর্ণনা - চট্টগ্রাম"chittagong.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ 
  2. শামসুল হোসেন (২০১২)। "কদম মুবারক মসজিদ"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  3. "বাংলাদেশের প্রাচীন ঐতিহাসিক ৫ মসজিদ"। বাংলাদেশ জার্নাল। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২