স্টার সিনেপ্লেক্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

স্টার সিনেপ্লেক্স বাংলাদেশের আধুনিকতম চলচ্চিত্র হল। অত্যাধুনিক সুবিধা সংবলিত এই হলটি দর্শকদের নিকট খুবই প্রিয়। এটি ঢাকার বসুন্ধরা অবস্থিত।

প্রতিষ্ঠা ও অবস্থান[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্র হল প্রতিষ্ঠিত হয় ৮ অক্টোবর, ২০০২ সালে[১]। লেভেল ৮, বসুন্ধরা সিটি, ১৩/৩ ক, পান্থপথ, তেজগাঁও, ঢাকা ১২০৫। এটি বসুন্ধরা গ্রুপের অধীনে বসুন্ধরা সিটিতে অবস্থিত।

কার্যক্রম[সম্পাদনা]

টিকিট[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র হলে রয়েছে সর্বমোট ৪টি টিকেট কাউন্টার। ৯ম তলায় সিনেপ্লেক্স-এ ঢোকার সময় হাতের বাম দিকে কাউন্টারগুলো অবস্থিত। হলে দর্শক আসনের মোট ২টি শ্রেণী রয়েছে। শ্রেণীগুলো হলো- প্রিমিয়াম ও দৈনিক।

প্রদর্শনীর সময়[সম্পাদনা]

সকাল ,ম্যাটিনী ১, ম্যাটিনী ২, সন্ধ্যা ১, এবং সন্ধ্যা ২ - এই মোট পাঁচ বেলা ছবি প্রদর্শন করা হয়। প্রতি সপ্তাহে চলচ্চিত্রের সময়সূচী পরিবর্তিত হয়।

প্রদর্শনী কক্ষ ও ধারণ ক্ষমতা[সম্পাদনা]

মোট প্রদর্শনী কক্ষ রয়েছে ৪টি, যেগুলোর প্রত্যেকটির ধারণ ক্ষমতা ২৬২ জন।

প্রদর্শিত চলচ্চিত্রর ধরন[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের মুক্তিপ্রাপ্ত আলোচিত চলচ্চিত্র এবং হলিউডের আলোচিত চলচ্চিত্র দর্শকদের জন্য প্রদর্শন করা হয়।

অন্যান্য সুবিধা[সম্পাদনা]

ওয়েটিং রুম[সম্পাদনা]

এখানে নারী ও পুরুষদের জন্য একই ওয়েটিং রুম রয়েছে।

ফুড কর্নার[সম্পাদনা]

ফুড কর্নারে পপকর্ন, চিকেন পপকর্ন, সফট ড্রিংকস ইত্যাদি রয়েছে।

টয়লেট ব্যবস্থা

টয়লেটের অবস্থা খুবই ভালো। এখানে নারী ও পুরুষের জন্য আলাদা টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে নারী ও পুরুষের জন্য ১টি করে টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে। সিনেপ্লেক্সের ভিতরে ডান দিকে নারীদের জন্য এবং বাম দিকে পুরুষের জন্য টয়লেট রয়েছে।

গাড়ি পার্কিং[সম্পাদনা]

বসুন্ধরা সিটির নিচে গাড়ি পার্কিং করা যায়। এখানে মোটরসাইকেল, প্রাইভেট কার পার্কের জন্য চার্জ দিতে হয়।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

এখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুবই জোরালো। প্রতি তলায় টয়লেটের সাথে ফায়ার এক্সিটের ব্যবস্থা এবং সিনেপ্লেক্সের প্রতিটি হলের জন্য আলাদা ফায়ার এক্সিটের ব্যবস্থা রয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "১৫ বছর পূর্তিতে স্টার সিনেপ্লেক্সের নতুন শাখা"Bhorer Kagoj। ২০১৯-১০-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৫