মসজিদ-ই-সিরাজ উদ-দৌলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মসজিদ-ই-সিরাজ উদ-দৌলা
MASJID-E-SIRAJ-UD-DULLAH.jpg
মসজিদ-ই-সিরাজ উদ-দৌলা
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিইসলাম
অবস্থাসক্রিয়
অবস্থান
অবস্থানবাংলাদেশ সিরাজ উদ-দৌলা সড়ক, চন্দনপুরা, চট্টগ্রাম
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক২২°২০′৫৯″ উত্তর ৯১°৫০′১৮″ পূর্ব / ২২.৩৪৯৭৭৮৩° উত্তর ৯১.৮৩৮২০১৯° পূর্ব / 22.3497783; 91.8382019 (Chandanpura Mosque)স্থানাঙ্ক: ২২°২০′৫৯″ উত্তর ৯১°৫০′১৮″ পূর্ব / ২২.৩৪৯৭৭৮৩° উত্তর ৯১.৮৩৮২০১৯° পূর্ব / 22.3497783; 91.8382019 (Chandanpura Mosque)
স্থাপত্য
ধরনমসজিদ

মসজিদ-ই-সিরাজ উদ-দৌলা (চন্দনপুরা জামে মসজিদ হিসেবে পরিচিত) বাংলাদেশের চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ১৬ নং চকবাজার ওয়ার্ডের নবাব সিরাজ উদ-দৌলা সড়কের চন্দনপুরা অংশে অবস্থিত একটি মসজিদ।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৬৬৬ সালে শায়েস্তা খার সেনাদল আরাকানের মগরাজাদের কাছ থেকে চট্টগ্রামকে স্বাধীন করেন। এরপর এখানে তার নির্দেশে অসংখ্য মসজিদ নির্মান করা হয়। এর মধ্যে মসজিদ-ই-সিরাজ উদ-দৌলা অন্যতম। ১৯৪৬ সালে মাস্টার আব্দুল হামিদ নামে একজন ব্যাক্তি মসজিদটি পুননীর্মান এবং সংস্কারকাজ শুরু করেন। ১৯৫০ সালে তার বড় ছেলে আবু সাইয়্যিদ দোভাষ মসজিদটির সংস্কারকাজ শেষ করেন।[১]

স্থাপত্যশৈলি[সম্পাদনা]

মসজিদটিতে রয়েছে মোট ১৫টি গম্বুজ। সবচেয়ে বড় গম্বুজটি তৈরিতে তৎকালীন সময়ের প্রায় চার লাখ টাকার ১৫ মণ রুপা ও পিতলের প্রয়োজন হয়। ভারতের বিভিন্ন জায়গা থেকে এগুলো সংগ্রহ করা হয়। গম্বুজের চারপাশে রাসুল (সা.)-এর পরিবার ও দুনিয়ায় জান্নাতের সুসংবাদ পাওয়া ১০ সাহাবির নাম লেখা আছে।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "শায়েস্তা খাঁর স্মৃতিবাহী চন্দনপুরা হামিদিয়া তাজ মসজিদ"। কালের কন্ঠ। ২৭ নভেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]