মুঘল স্থাপত্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

মুঘল স্থাপত্য ইসলামি, পারস্যভারতীয় স্থাপত্যের এক সংমিশ্রণ। ষোড়শ ও সপ্তদশ শতাব্দীতে ভারতীয় উপমহাদেশে প্রসারিত মুঘল সাম্রাজ্যে এই স্থাপত্যশৈলীটি বিকশিত হয়ে ওঠে।[১] মুঘল স্থাপত্যশৈলীর অনেক নিদর্শন ভারত, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানে দেখতে পাওয়া যায়।

১৫২৬ সালে পানিপথের যুদ্ধে বাবরের বিজয়ের পরে মুঘল রাজবংশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। পাঁচ বছরের শাসনামলে বাবর স্থাপত্যে যথেষ্ট আগ্রহী ছিলেন। তাঁর নাতি আকবর তার রাজত্বকালে স্থাপত্যশৈলীটি প্রবলভাবে বিকশিত হয়েছিল। তাঁর মধ্যে ছিল আগ্রা দুর্গ, ফতেহপুর সিক্রি এবং বুলন্দ দরওয়াজা। আকবরের ছেলে জাহাঙ্গীর কাশ্মীরের শালিমার উদ্যান তৈরি করেছিলেন।[২]

চিত্রসম্ভার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Losty, Jeremiah P. (২০১২)। Mughal India : art, culture and empire : manuscripts and paintings in the British Library। Roy, Malini, Dr., British Library.। London: British Library। আইএসবিএন 978-0-7123-5870-5ওসিএলসি 805013698 
  2. Michell, George; Pasricha, Amit (২০১১)। Mughal Architecture & Gardens (ইংরেজি ভাষায়)। Antique Collectors' Club। আইএসবিএন 978-1-85149-670-9 
  • Public Domain এই নিবন্ধটি একটি প্রকাশন থেকে অন্তর্ভুক্ত পাঠ্য যা বর্তমানে পাবলিক ডোমেইনেচিসাম, হিউ, সম্পাদক (১৯১১)। ব্রিটিশ বিশ্বকোষ (১১তম সংস্করণ)। কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটি প্রেস। [[বিষয়শ্রেণী:নিবন্ধ পরামিতি ছাড়া ১৯১১ সালের এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা থেকে উইকিপিডিয়া নিবন্ধসমূহে উদ্ধৃতি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে]]
  • Keay, John (2000). India: a History. Grove Press, New York.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]