মোস্তফাপুর ইউনিয়ন, মৌলভীবাজার সদর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মোস্তফাপুর
ইউনিয়ন
Government Seal of Bangladesh.svg ১১নং মোস্তফাপুর ইউনিয়ন পরিষদ।
মোস্তফাপুর সিলেট বিভাগ-এ অবস্থিত
মোস্তফাপুর
মোস্তফাপুর
মোস্তফাপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
মোস্তফাপুর
মোস্তফাপুর
বাংলাদেশে মোস্তফাপুর ইউনিয়ন, মৌলভীবাজার সদরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°২৭′৫৫.০০১″ উত্তর ৯১°৪৫′২৮.০০১″ পূর্ব / ২৪.৪৬৫২৭৮০৬° উত্তর ৯১.৭৫৭৭৭৮০৬° পূর্ব / 24.46527806; 91.75777806স্থানাঙ্ক: ২৪°২৭′৫৫.০০১″ উত্তর ৯১°৪৫′২৮.০০১″ পূর্ব / ২৪.৪৬৫২৭৮০৬° উত্তর ৯১.৭৫৭৭৭৮০৬° পূর্ব / 24.46527806; 91.75777806 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগসিলেট বিভাগ
জেলামৌলভীবাজার জেলা
উপজেলামৌলভীবাজার সদর উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
আয়তন
 • মোট১,৯৬৫ হেক্টর (৪,৮৫৫ একর)
জনসংখ্যা (২০১১ আদমশুমারী অনুযায়ী)
 • মোট২৪,১৯৫
 • জনঘনত্ব১,২০০/বর্গকিমি (৩,২০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৬০ ৫৮ ৭৪ ৮০
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

মোস্তফাপুর ইউনিয়ন বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলার মৌলভীবাজার সদর উপজেলার একটি ইউনিয়ন।[১][২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মোস্তফাপুর গ্রামের নামানুসারে এই ইউনিয়নের নামকরণ করা হয় মোস্তফাপুর। হযরত শাহ জালাল (রহঃ) এর অন্যতম সফরসঙ্গী হিসেবে হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রহঃ) ইসলামের আলো প্রচারের জন্য মৌলভীবাজারে আগমন করেন। এই মহান সাধক ও ইসলাম প্রচারকের সম্মানে এই গ্রামটির নামকরণ করা হয়েছিল। তিনি মৌলভীবাজারে আগমন করে মোস্তফাপুর গ্রামের যে বাড়িতে প্রথমে এসে বসবাস শুরু করেছিলেন সেই বাড়িটি এখন মোস্তফাপুর পুরান বাড়ী নামে পরিচিত।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

আয়তন ও জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

শিক্ষার হার :

শিক্ষা প্রতিষ্ঠাণ

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

বর্তমান চেয়ারম্যান-

চেয়ারম্যানগণের তালিকা
ক্রমিক নাম মেয়াদ
০১
০২
০৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মোস্তফাপুর ইউনিয়ন"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. "মৌলভীবাজার সদর উপজেলা"বাংলাপিডিয়া। ১৯ এপ্রিল ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০