পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন, ২০২১

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন, ২০২১

← ২০১৬ ২৭ মার্চ – ২৯ এপ্রিল, ২০২১ (২৯২টি আসন)
৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ (২টি আসন)
২০২৬ →

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ২৯৪টি আসন
সংখ্যাগরিষ্ঠতার পাওয়ার জন্য ১৪৮টি আসনের প্রয়োজন
ভোটের হার৮২.৩২%
  সংখ্যাগরিষ্ঠ দল বিরোধী দল তৃতীয় দল
  Ms. Mamata Banerjee, in Kolkata on July 17, 2018 (cropped) (cropped).JPG Dilip Ghosh.jpg Unknown person.jpg
নেতা/নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিলীপ ঘোষ আব্বাস সিদ্দিকী
দল তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপি ইন্ডিয়ান সেক‍্যুলার ফ্রন্ট
জোট তৃণমূল+ বিজেপি+ সংযুক্ত মোর্চা
নেতা হয়েছেন ১৯৯৮ ২০১৫ ২০২১
নেতার আসন নন্দীগ্রাম (বিচারাধীন)[১] প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি
গত নির্বাচন ৪৪.৯১% ভোট
২১১টি আসন
১০.১৬ % ভোট
৩টি আসন
নেই
০ আসন
পূর্ববর্তী আসন ২১১
আসনে জিতেছে ২১৩ ৭৭
আসন পরিবর্তন বৃদ্ধি বৃদ্ধি ৭৪ বৃদ্ধি
জনপ্রিয় ভোট ২৮,৭৩৫,৪২০ ২২,৮৫০,৭১০ ৮১৩,৪৮৯
শতকরা ৪৭.৯৪ % ৩৮.১৩% ১.৩৫ %
সুয়িঙ Up-arrow ৩.০৩ % Up-arrow ২৮% Up-arrow ১.৩৫

  চতুর্থ দল পঞ্চম দল
  Unknown person.jpg The Minister of State for Railways, Shri Adhir Ranjan Chowdhury addressing at the presentation of the National Awards for Outstanding Service in Railways, in Mumbai on April 16, 2013.jpg
নেতা/নেত্রী সূর্যকান্ত মিশ্র অধীর রঞ্জন চৌধুরী
দল সিপিআই(এম) কংগ্রেস
জোট সংযুক্ত মোর্চা সংযুক্ত মোর্চা
নেতা হয়েছেন ২০১৫ ২০২০
নেতার আসন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি
গত নির্বাচন ১৯.৭৫% ভোট
২৬টি আসন
১২.৩ % ভোট
৪৪টি আসন
পূর্ববর্তী আসন ২৬ ৪৪
আসনে জিতেছে
আসন পরিবর্তন হ্রাস ২৬ হ্রাস ৪৪
জনপ্রিয় ভোট ২,৮৩৭,২৭৬ ১৭,৫৭,১৩১
শতকরা ৪.৬% ৩ %
সুয়িঙ হ্রাস ১৫.১% হ্রাস ৯.৩ %

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ২০২১.svg
নির্বাচনী ফলাফলের মানচিত্র

India West Bengal Legislative Assembly Elections Elections 2021.svg

মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনের পূর্বে

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
তৃণমূল কংগ্রেস

নির্বাচনের পর মুখ্যমন্ত্রী

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
তৃণমূল কংগ্রেস

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার সপ্তদশ সাধারণ নির্বাচন ২০২১ সালের ২৭ মার্চ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত আট দফায় অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ২৯৪টি আসনের মধ্যে ২৯২টিতে ভোট গ্রহণ করা হয়।[২] দু'টি আসনে প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় ভোটগ্রহণ স্থগিত রয়েছে।[৩]

এই নির্বাচনে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ২৯০টি আসনে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এবং তিনটি আসনে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাকে ও একটি আসনে নির্দল প্রার্থীকে সমর্থন জানায়। ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী)-নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট জোট গঠন করে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্টের সঙ্গে। ভারতীয় জনতা পার্টি সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ২৯৩টি আসনে এবং একটি আসনে সমর্থন জানায় জোটসঙ্গী অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়নকে। এছাড়াও এই নির্বাচনে সোশ্যালিস্ট ইউনিটি সেন্টার অফ ইন্ডিয়া (কমিউনিস্ট) ১৯৩টি আসনে, বহুজন সমাজ পার্টি ১১৩টি আসনে এবং অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন ১৩টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

২০২১ সালের ২ মে পশ্চিমবঙ্গের সপ্তদশ বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষিত হয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্র থেকে পরাজিত হলেও (তিনি অবশ্য কারচুপির অভিযোগ তুলে এই ফলাফলকে কলকাতা হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ করেছেন এবং বর্তমানে সম্পূর্ণ বিষয়টি বিচারাধীন) তাঁর দল সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ২১৩টি আসনে জয়লাভ করে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে এবং ভারতীয় জনতা পার্টি ৭৭টি আসন জয় করে বিধানসভায় প্রধান বিরোধী দলের স্বীকৃতি লাভ করে। সংযুক্ত মোর্চার বাম দলগুলি এবং ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস এই নির্বাচনে একটি আসনেও জয়লাভ করতে পারেনি, তবে এই জোটের অপর দল ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট একটি আসন জয় করে। এরপর ২০২১ সালের ৫ মে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয় বারের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

প্রেক্ষাপট[সম্পাদনা]

নির্বাচনী ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভবন

ভারতীয় সংবিধানের ১৬৮ নং ধারা অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা হল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের এককক্ষীয় আইনসভার একমাত্র কক্ষ। এই বিধানসভা স্থায়ী সংস্থা নয়, তা নির্দিষ্ট সময় অন্তর ভেঙে দেওয়া হয়।[৪] যদি না আগে ভেঙে দেওয়া হয়, তাহলে বিধানসভার মেয়াদ প্রথম অধিবেশনের তারিখ থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত। বিধায়কেরা জনগণ কর্তৃক প্রত্যক্ষভাবে নির্বাচিত হন। ২০২১ সালের ৩০ মে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার মেয়াদ সমাপ্ত হওয়ার কথা ছিল।[৫]

পূর্ববর্তী সাধারণ নির্বাচন[সম্পাদনা]

২০১৬ সালে আয়োজিত পূর্ববর্তী নির্বাচনে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস (সংক্ষেপে তৃণমূল) ২১১টি আসনে জয়লাভ করে বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস (সংক্ষেপে কংগ্রেস) ও বামফ্রন্ট জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে কংগ্রেস ৪৪টি আসনে এবং বামফ্রন্ট ৩৩টি আসনে জয়লাভ করে। অন্যদিকে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ও গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা (জিজেএম) প্রত্যেকে ৩টি করে আসনে জয়লাভ করেছিল।[৬]

প্রাক্‌-নির্বাচন রাজনৈতিক পরিস্থিতি[সম্পাদনা]

২০১৯ সালের সাধারণ নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি লোকসভা আসনের মধ্যে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ২২টিতে এবং ভারতীয় জনতা পার্টি ১৮টিতে জয়লাভ করে।[৭] বিজেপি এই নির্বাচনে ৪০ শতাংশ ভোট পায়, যা পূর্ববর্তী নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের তুলনায় অনেকটাই বেশি। ২০১৬ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে বিভিন্ন উপনির্বাচনে জয়লাভ করে রাজ্য বিধানসভায় বিজেপির আসনসংখ্যা বেড়ে হয় ৩১। ২০২১ সাল পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস ও জাতীয় কংগ্রেসের অনেক নেতা দলত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেন।[৮] বিভিন্ন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বামফ্রন্ট ও অন্যান্য বিরোধী দলগুলির ভোট বিজেপির দিকে সরে যাওয়ায় বিজেপির প্রাপ্ত ভোটের হারের এই আকস্মিক উত্থান সম্ভব হয়েছিল।[৯][১০][১১]

রাজনৈতিক ইস্যু[সম্পাদনা]

কোভিড-১৯[সম্পাদনা]

কোভিড-১৯ অতিমারী একটি নির্বাচনী ইস্যুতে পরিণত হয়।[১২][১৩] পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরুদ্ধে কোভিড পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ও কোভিডে মৃতের সংখ্যায় "গোঁজামিল" দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়।[১৪] নির্বাচনী প্রচার চলাকালীন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার ও বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার একে অপরের বিরুদ্ধে কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিহত করার ক্ষেত্রে ব্যর্থতার অভিযোগ তোলে।[১৫]

বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সংক্রমণের দ্বিতীয় তরঙ্গের পূর্বাভাষ সত্ত্বেও নির্বাচনী প্রচারের মাসগুলিতে আয়োজিত কোভিড-১৯ জরুরি ব্যবস্থাপনা সম্মেলনগুলিতে উপস্থিত না থাকার অভিযোগ উত্থাপন করে।[১৬]

ঘূর্ণিঝড় আমফান[সম্পাদনা]

কলকাতার দেশবন্ধু পার্কের ঘূর্ণিঝড় আমফান-পরবর্তী অবস্থা।

নির্বাচনের এক বছর আগে ২০২০ সালের মে মাসে ঘূর্ণিঝড় আমফান রাজ্যে আছড়ে পড়ে।[১৭][১২] ঘূর্ণিঝড়ের দুর্যোগ কেটে যাওয়ার পর বহু ক্ষেত্রে অভিযোগ ওঠে অব্যবস্থাপনা[১৮] এবং ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে।[১৯][২০] রাজ্যের একাধিক জেলায় এই সব অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিবাদ আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটে।[২১][২২] বিরোধীরা বিধানসভা নির্বাচনের আগে এটিকে নির্বাচনী ইস্যু করে তোলে।[২৩][২৪]

নাগরিকত্ব, অনুপ্রবেশ ও শরণার্থী ইস্যু[সম্পাদনা]

২০১৯ সালে ভারতীয় জনতা পার্টির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার ভারতীয় সংসদে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইন, ২০১৯ পাস করে। এই আইনে ভারতে বসবাসকারী বাংলাদেশের ধর্মীয় সংখ্যালঘু অনুপ্রবেশকারী ও শরণার্থীদের নাগরিকত্বের প্রতিশ্রুতি ও পুনর্বাসনের আশ্বাস দেওয়া হয়।[৮][২৫] ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে প্রকাশিত বিজেপির বাংলা পুস্তিকাতে দাবি করা হয় যে, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি প্রয়োগ করা হবে কথিত অবৈধ মুসলমান অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করার জন্য, তবে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, জৈন, পারসি ও অন্যান্য ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের দ্বারা রক্ষা করা হবে।[২৬][২৭]

অন্যান্য ইস্যু[সম্পাদনা]

এই নির্বাচনে ধর্ম, ভাষা ও জাতপাত-ভিত্তিক মেরুকরণ ক্রিয়াশীল হওয়ার সম্ভাবনা দেখা গিয়েছিল।[২৮] তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি উভয়েই বিভিন্ন সম্প্রদায়ের জন্য কর্মসূচির প্রতিশ্রুতি দেয়।[২৯][৩০] যদিও ইতিপূর্বে বামফ্রন্ট সরকার তাদের ‘শ্রেণি’ ধারণার প্রেক্ষিতে পশ্চিমবঙ্গের দলিতদের উচ্চবিত্ত সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে চালিত করেছিল, তবু দলিতরা তাদের পরিচয় রাজনৈতিকভাবে দৃঢ়ভাবে ঘোষণা করতে শুরু করে।[৩১][৩২][৩৩] ধর্মীয় মেরুকরণ নির্দিষ্টভাবে তীব্র হয়ে ওঠে উত্তর চব্বিশ পরগনার মতো বাংলাদেশ-সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে। রাজ্য ও বিধানসভা কেন্দ্রগুলির অধিবাসী ও বহিরাগত-সংক্রান্ত বিতর্কও নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করে।[৩৪][৩৫][৩৬] তৃণমূল কংগ্রেসের বিদ্রোহী ও বিক্ষুব্ধ নেতারাও নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করতে উদ্যত হন।[৩৭] এছাড়া ২০২০ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বাস্থ্যসাথী, খাদ্যসাথী ইত্যাদি প্রধান সরকারি প্রকল্পের সুবিধা প্রদানের উদ্দেশ্যে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্প চালু করে, যেটি জনসাধারণের মধ্যে বিশেষভাবে সমাদৃত হয়।[৩৮][৩৯]

সময়সূচি[সম্পাদনা]

২০২১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি নতুন দিল্লিতে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা একটি সাংবাদিক সম্মেলনে অসম, কেরল, তামিলনাড়ুপুদুচেরি বিধানসভার সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণা করেন। নির্বাচন কমিশনার সুশীল চন্দ্র ও রাজীব কুমার সহ নির্বাচন কমিশনের উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

২০২১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষিত হয়। ২০২১ সালের ২৭ মার্চ থেকে ২৯ এপ্রিলের মধ্যে ৮টি পর্যায়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় এবং পরবর্তী ২ মে তারিখে ভোটগণনার পরে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষিত হয়।[৪০][৪১] নির্বাচনে বিঘ্ন ঘটায় জাঙ্গিপাড়া বিধানসভা কেন্দ্রের ৮৮ নং বুথে চতুর্থ পর্যায়ে পুনরায় ভোটগ্রহণ করা হয়।[৪২] সামশেরগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের জাতীয় কংগ্রেস প্রার্থী ও জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের আরএসপি প্রার্থীর মৃত্যুতে ওই দুই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করা হয়।[৪৩] প্রথমে পরবর্তী ১৩ মে তারিখে এই দুই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণের সময়সূচি ঘোষিত হয়।[৪৪] কিন্তু সেই তারিখটি ইদের তারিখ হওয়ায় ভোটগ্রহণ পিছিয়ে ১৬ মে করা হয়।[৪৫]

সময়সূচি
নির্বাচনী অনুষ্ঠান পর্যায়
প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় চতুর্থ পঞ্চম ষষ্ঠ সপ্তম অষ্টম
বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মানচিত্র ও সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের পর্যায়ক্রম
West Bengal Legislative Assembly General Election 2021 -Phase wise (Updated).svg
বিধানসভা কেন্দ্রের সংখ্যা ৩০ ৩০ ৩১ ৪৪ ৩৫ ৪৩ ৩৪ ৩৫
বিজ্ঞপ্তি ইস্যুর তারিখ ২ মার্চ ২০২১ ৫ মার্চ ২০২১ ১২ মার্চ ২০২১ ১৬ মার্চ ২০২১ ২৩ মার্চ ২০২১ ২৬ মার্চ ২০২১ ৩১ মার্চ ২০২১ ৩১ মার্চ ২০২১
মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৯ মার্চ ২০২১ ১২ মার্চ ২০২১ ১৯ মার্চ ২০২১ ২৩ মার্চ ২০২১ ৩০ মার্চ ২০২১ ৩ এপ্রিল ২০২১ ৭ এপ্রিল ২০২১ ৭ এপ্রিল ২০২১ ২৬ এপ্রিল ২০২১[ক]
মনোনয়ন পরীক্ষা ১০ মার্চ ২০২১ ১৫ মার্চ ২০২১ ২০ মার্চ ২০২১ ২৫ মার্চ ২০২১ ৩১ মার্চ ২০২১ ৫ এপ্রিল ২০২১ ৮ এপ্রিল ২০২১ ৮ এপ্রিল ২০২১ ২৭ এপ্রিল ২০২১[ক]
মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১২ মার্চ ২০২১ ১৭ মার্চ ২০২১ ২২ মার্চ ২০২১ ২৬ মার্চ ২০২১ ৩ এপ্রিল ২০২১ ৭ এপ্রিল ২০২১ ১২ এপ্রিল ২০২১ ১২ এপ্রিল ২০২১ ২৯ এপ্রিল ২০২১[ক]
নির্বাচনের তারিখ ২৭ মার্চ ২০২১ ১ এপ্রিল ২০২১ ৬ এপ্রিল ২০২১ ১০ এপ্রিল ২০২১ ১৭ এপ্রিল ২০২১ ২২ এপ্রিল ২০২১ ২৬ এপ্রিল ২০২১ ২৯ এপ্রিল ২০২১ ১৬ মে ২০২১[৪৫]
ভোটগণনার তারিখ ২ মে ২০২১ ১৯ মে ২০২১[৩]
সূত্র: ভারতের নির্বাচন কমিশন

অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দল ও জোট[সম্পাদনা]

      সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ও সহযোগী দলসমূহ[সম্পাদনা]

২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ও তার সহযোগী দলগুলির আসন বণ্টনের মানচিত্র

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার (জিজেএম) দু’টি গোষ্ঠীই তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন জানায়।[৪৮] তৃণমূল কংগ্রেস দার্জিলিং জেলার তিনটি আসনই জিজেএম-কে ছেড়ে দেয়। অবশ্য জিজেএম-এর দুই গোষ্ঠীই অর্থাৎ "গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা (বিমল)" ও "গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা (তামাং)" তিনটি আসনের প্রত্যেকটিতে আলাদা আলাদা প্রার্থী ঘোষণা করে।[৪৯] শিবসেনাও এই নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকেই সমর্থন করে।[৫০] জয়পুর বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর প্রার্থীপদ বাতিল ঘোষিত হলে দলটি নির্দল প্রার্থীকে সমর্থন জানায়।[৫১][৫২]

রাজনৈতিক দল প্রতীক নেতা/নেত্রী প্রার্থীসংখ্যা
সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস তৃণমূল All India Trinamool Congress symbol.svg মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২৯০
গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা জিজেএম অস্বীকৃত বিমল গুরুং

বিনয় তামাং

নির্দল প্রযোজ্য নয়

এই নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের শ্লোগান ছিল "জয় হিন্দ; জয় বাংলা", "বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়" ও "খেলা হবে"। তৃতীয় শ্লোগানটি তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র তথা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু ভট্টাচার্য রচিত একই শিরোনামের একটি গান থেকে গৃহীত হয়। ২০২১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি তৃণমূল কংগ্রেস প্রাতিষ্ঠানিকভাবে "বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়" শ্লোগানটিকে দলের নির্বাচনী শ্লোগান ঘোষণা করে।[৫৩][৫৪]

      সংযুক্ত মোর্চা[সম্পাদনা]

২০২১ সালের ২৮ জানুয়ারি ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী ঘোষণা করেন যে, কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের মধ্যে যে আসন-সমঝোতার কথাবার্তা চলছিল, তাতে ১৯৩টি আসনের বণ্টন নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে এবং বাকি ১০১টি আসনের বণ্টন পরবর্তী পদক্ষেপের মাধ্যমে করা হবে।[৫৫][৫৬] ২৮ জানুয়ারি তারিখে স্থিরি হওয়া ১৯৩টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস ৯২টি আসনে এবং বামফ্রন্ট পায় ১০১টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সিদ্ধান্ত নেয়।[৫৫] এই ১৯৩টি আসনের মধ্যে ২০১৬ সালের নির্বাচনে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের বিজিত সকল ৭৭টি আসনের বণ্টন নিয়ে দুই পক্ষ একমত হয়।[৫৫] ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশে বামফ্রন্ট, কংগ্রেস ও আইএসএফ ঘোষণা করে যে তারা সংযুক্ত মোর্চা নামে একটি জোট গঠন করে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।[৫৭] আইএসএফ প্রথমে দাবি করে যে, বামফ্রন্টের কোটা থেকে ৩০টি আসন পেয়েছে।[৫৮] চূড়ান্ত আসন-সমঝোতার সিদ্ধান্ত গৃহীত হওয়ার পর ঘোষণা করা হয় যে, বামফ্রন্ট ১৬৫টি আসনে, কংগ্রেস ৯২টি আসনে এবং আইএসএফ ৩৭টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।[৫৯][৬০]

৫ মার্চ বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের প্রার্থীদের যে তালিকা প্রকাশ করেন, তাতে কংগ্রেস ও আইএসএফ নেতাদের ছেড়ে দেওয়া আসনগুলির কথা উল্লিখিত হয়।[৬১] ৬ মার্চ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস প্রথম দুই পর্যায়ের ১৩ জন প্রার্থীর প্রথম তালিকা প্রকাশ করে।[৬২] ১০ মার্চ বামফ্রন্ট প্রার্থীদের যে দ্বিতীয় তালিকা প্রকাশ করে তাতে অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস ফেডারেশন (এআইএসএফ), অল ইন্ডিয়া ইউথ ফেডারেশন (এআইওয়াইএফ), স্টুডেন্ট’ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (এসএফআই) ও ডেমোক্র্যাটিক ইউথ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (ডিওয়াইএফআই) থেকে বেশ কয়েকজন নতুন ও নবীন প্রার্থীকে কয়েকজন সুপরিচিত প্রবীণ প্রার্থীর (যাঁদের মধ্যে পূর্বতন বামফ্রন্ট সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী ও প্রাক্তন সাংসদেরাও ছিলেন) সঙ্গে স্থান দেওয়া হয়।[৬৩] সেই দিন বিমান বসু ঘোষণা করেন যে, ৫ মার্চ প্রকাশিত প্রথম তালিকায় যে ‘হাই-প্রোফাইল’ নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের সিপিআই(এম) প্রার্থীর নাম অনুল্লিখিত ছিল, সেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ডিওয়াইএফআই-এর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সভানেত্রী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়[৬৪] ১৪ মার্চ কংগ্রেস ৩৪ জন প্রার্থীর নাম দ্বিতীয় তালিকায় প্রকাশ করে।[৬৫] একই দিনে আইএসএফ প্রথম ২০ জন প্রার্থীর নামের তালিকা প্রকাশ করে।[৬৬] ১৭ মার্চ সংযুক্ত মোর্চা আরও ১৫ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে। এঁদের মধ্যে ৯ জন ছিলেন বামফ্রন্ট প্রার্থী, ২ জন কংগ্রেস এবং ৪ জন আইএসএফ-সমর্থিত প্রার্থী।[৬৭] ২০ মার্চ কংগ্রেস ৩৯ জন প্রার্থীর তৃতীয় তালিকা[৬৮] এবং ২২ মার্চ আরও দু’টি নাম ঘোষণা করে।

২০২১ পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে সংযুক্ত মোর্চার অন্তর্ভুক্ত রাজনৈতিক দলগুলির আসন-বণ্টনের মানচিত্র
রাজনৈতিক দল প্রতীক নেতৃত্ব ব্লক প্রার্থীসংখ্যা
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী) সিপিআই(এম)
Indian Election Symbol Hammer Sickle and Star.png
সূর্যকান্ত মিশ্র[৬৯] বামফ্রন্ট ১৩৭
সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লক ফব
Indian Election Symbol Lion.svg
দেবব্রত বিশ্বাস ১৮
বিপ্লবী সমাজতন্ত্রী দল আরএসপি
Indian Election Symbol Spade and Stoker.png
বিশ্বনাথ চৌধুরী ১১
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি সিপিআই
Indian Election Symbol Ears of Corn and Sickle.png
স্বপন বন্দ্যোপাধ্যায় ১০
মার্ক্সবাদী ফরওয়ার্ড ব্লক এমএফবি
Indian Election Symbol Hammer Sickle and Star.png
সমর হাজরা
ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস কংগ্রেস
Hand INC.svg
অধীর রঞ্জন চৌধুরী - ৯১
ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট[খ] আরএসএমপি[৭২]
Indian Election Symbol Envelope.jpg
আব্বাস সিদ্দিকি - ২৮

      ভারতীয় জনতা পার্টি ও তার সহযোগী রাজনৈতিক দলসমূহ[সম্পাদনা]

২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টি ও তার সহযোগী দলগুলির আসন বণ্টনের মানচিত্র

পাঁচটি পার্বত্য দল বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিকে সমর্থন করার কথা জানায়। এগুলি হল: গোর্খা ন্যাশানাল লিবারেশন ফ্রন্ট (জিএনএলএফ), বিপ্লবী মার্ক্সবাদী কমিউনিস্ট পার্টি, অখিল ভারতীয় গোর্খা লিগ (এবিজিএল), গোর্খাল্যান্ড রাজ্য নির্মাণ মোর্চা ও সুমেতি মুক্তি মোর্চা।[৪৮] হিন্দু সংহতি নামে একটি পশ্চিমবঙ্গ-ভিত্তিক দক্ষিণপন্থী সংগঠন প্রথমে বিজেপির থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নেয়[৭৩] এবং পরে ঘোষণা করে যে তারা নিজেরা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।[৭৪] যদিও শেষ পর্যন্ত তারা বিজেপিকেই সমর্থন করে।[৭৫] বিজেপি আমতা বিধানসভা কেন্দ্রটি হিন্দু সংহতির সভাপতিকে বিজেপির প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য ছেড়ে দেয়।[৭৬]

বিজেপি ঝাড়খণ্ড-সীমান্তবর্তী বাঘমুন্ডি বিধানসভা কেন্দ্রটি ছেড়ে দেয় অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়নকে (এজেএসইউ)।[৭৭][৭৮]

রাজনৈতিক দল প্রতীক নেতৃত্ব প্রার্থীসংখ্যা
ভারতীয় জনতা পার্টি বিজেপি BJP Election Symbol.png দিলীপ ঘোষ ২৯৩
অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়ন এজেএসইউ Indian Election Symbol Banana.svg আশুতোষ মাহাতো

অন্যান্য রাজনৈতিক দল[সম্পাদনা]

শিবসেনা প্রথমে বলেছিল যে তারা ১০০টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।[৭৯] কিন্তু ২০২১ সালের ৪ মার্চ তারা ঘোষণা করে যে, শিবসেনা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে না, বরং বাইরে থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করবে।[৮০]

রাজনৈতিক দল প্রতীক নেতৃত্ব প্রার্থীসংখ্যা
সোশ্যালিস্ট ইউনিটি সেন্টার অফ ইন্ডিয়া (কমিউনিস্ট) এসইউসিআই(সি) Indian Election Symbol Battery Torch.svg প্রভাস ঘোষ ১৯৩
জনতা দল (সংযুক্ত)[৮১] জেডি(ইউ) Indian Election Symbol Arrow.png সঞ্জয় বর্মা ৪০[৮২]
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী–লেনিনবাদী) লিবারেশন[৮৩] সিপিআই(এমএল)এল দীপঙ্কর ভট্টাচার্য ১২
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী–লেনিনবাদী) রেড স্টার[৮৪] সিপিআই(এমএল) রেড স্টার কে এন রামচন্দ্রন
অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন[৮৫] এআইএমআইএম Indian Election Symbol Kite.svg আসাদুদ্দিন ওয়াইসি ১৩
বহুজন সমাজ পার্টি[৮৬] বিএসপি Indian Election Symbol Elephant.png মায়াবতী ১১৩
ন্যাশানাল পিপল’স পার্টি[৮৭] এনপিপি Indian Election Symbol Book.svg 2

প্রার্থী[সম্পাদনা]

২৯২টি আসনে মোট ২,১৩২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। প্রধান চারটি রাজনৈতিক দল/জোটের প্রার্থীদের তালিকা নিচে দেওয়া হল:

প্রার্থী তালিকা
বিধানসভা কেন্দ্র তৃণমূল[৮৮][৮৯][৯০][৯১][৯২][৯৩][৯৪] এনডিএ[৭৮][৯৫][৯৬][৯৭][৯৮][৯৯] সংযুক্ত মোর্চা ভোট গ্রহণের তারিখ
# নাম রাজনৈতিক দল প্রার্থী রাজনৈতিক দল প্রার্থী রাজনৈতিক দল প্রার্থী
কোচবিহার জেলা
মেখলিগঞ্জ তৃণমূল পরেশচন্দ্র অধিকারী বিজেপি দধিরাম রায় ফব গোবিন্দ রায় ১০ এপ্রিল, ২০২১
মাথাভাঙা তৃণমূল গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ বিজেপি সুশীল বর্মন সিপিআই(এম) অশোক বর্মণ
কোচবিহার উত্তর তৃণমূল বিনয়কৃষ্ণ বর্মন বিজেপি সুকুমার রায় ফব নগেন্দ্রনাথ রায়
কোচবিহার দক্ষিণ তৃণমূল অভিজিৎ দে ভৌমিক বিজেপি নিখিল রঞ্জন রায় ফব অক্ষয় ঠাকুর
শীতলকুচি তৃণমূল পার্থপ্রতিম রায় বিজেপি বরেনচন্দ্র বর্মণ সিপিআই(এম) সুধাংশু প্রামাণিক
সিতাই তৃণমূল জগদীশচন্দ্র বর্মা বসুনিয়া বিজেপি দীপক কুমার রায় কংগ্রেস কেশবচন্দ্র রায়
দিনহাটা তৃণমূল উদয়ন গুহ বিজেপি নিশীথ প্রামাণিক ফব আবদুল রউফ
নাটাবাড়ি তৃণমূল রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বিজেপি মিহির গোস্বামী সিপিআই(এম) আকিক হাসান
তুফানগঞ্জ তৃণমূল প্রণব কুমার রায় বিজেপি মালতী রাভা রায় কংগ্রেস রবিন রায়
আলিপুরদুয়ার জেলা
১০ কুমারগ্রাম তৃণমূল লাওস কুজুর বিজেপি মনোজ ওঁরাও আরএসপি কিশোর মিনজ ১০ এপ্রিল, ২০২১
১১ কালচিনি তৃণমূল পাসাং লামা বিজেপি বিশাল রানা কংগ্রেস অভিজিৎ নারজিনারি
১২ আলিপুরদুয়ার তৃণমূল সৌরভ চক্রবর্তী বিজেপি সুমন কাঞ্জিলাল কংগ্রেস দেবপ্রসাদ রায়
১৩ ফালাকাটা তৃণমূল সুভাষ রায় বিজেপি দীপক বর্মণ সিপিআই(এম) ক্ষিতীশচন্দ্র রায়
১৪ মাদারিহাট তৃণমূল রাজেশ লাকড়া বিজেপি মনোজ টিগ্‌গা আরএসপি সুভাষ লোহার
জলপাইগুড়ি জেলা
১৫ ধূপগুড়ি তৃণমূল মিতালি রায় বিজেপি বিষ্ণুপদ রায় সিপিআই(এম) ড. প্রদীপ কুমার রায় ১৭ এপ্রিল, ২০২১
১৬ ময়নাগুড়ি তৃণমূল মনোজ রায় বিজেপি কৌশিক রায় আরএসপি নরেশচন্দ্র রায়
১৭ জলপাইগুড়ি তৃণমূল প্রদীপ কুমার বর্মা বিজেপি সুজিত সিংহ কংগ্রেস সুখবিলাস বর্মা
১৮ রাজগঞ্জ তৃণমূল খগেশ্বর রায় বিজেপি সুপেন রায় সিপিআই(এম) রতন রায়
১৯ ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি তৃণমূল গৌতম দেব বিজেপি শিখা চট্টোপাধ্যায় সিপিআই(এম) দিলীপ সিং
২০ মাল তৃণমূল বুলু চিক বারাইক বিজেপি মহেশ বাগে সিপিআই(এম) মনু ওঁরাও
২১ নাগরাকাটা তৃণমূল জোসেফ মুন্ডা বিজেপি পুনা ভেংড়া কংগ্রেস সুখবীর সুব্বা
কালিম্পং জেলা
২২ কালিম্পং জিজেএম (গুরুং) ড. রাম বাহাদুর ভুজেল বিজেপি শুভা প্রধান কংগ্রেস দিলীপ প্রধান ১৭ এপ্রিল, ২০২১
জিজেএম (তামাং) রুদেন সাদা লেপচা
দার্জিলিং জেলা
২৩ দার্জিলিং জিজেএম (গুরুং) পেম্বা শেরিং বিজেপি নীরজ জিম্বা সিপিআই(এম) গৌতম রাজ রাই ১৭ এপ্রিল, ২০২১
জিজেএম (তামাং) কেশব রাজ শর্মা
২৪ কার্শিয়াং জিজেএম (গুরুং) নারবু লামা বিজেপি বিষ্ণুপ্রসাদ শর্মা সিপিআই(এম) উত্তম ব্রাহ্মণ
জিজেএম (তামাং) শেরিং লামা দাহাল
২৫ মাটিগাড়া-নকশালবাড়ি তৃণমূল রাজন সুনদাস বিজেপি আনন্দময় বর্মণ কংগ্রেস শংকর মালাকার
২৬ শিলিগুড়ি তৃণমূল ওমপ্রকাশ মিশ্র বিজেপি শংকর ঘোষ সিপিআই(এম) অশোক ভট্টাচার্য
২৭ ফাঁসিদেওয়া তৃণমূল ছোটন কিস্কু বিজেপি দুর্গা মুর্মু কংগ্রেস সুনীলচন্দ্র তিরকে
উত্তর দিনাজপুর জেলা
২৮ চোপড়া তৃণমূল হামিদুল রহমান বিজেপি মহম্মদ শাহিন আখতার সিপিআই(এম) আনোয়ারুল হক ২২ এপ্রিল ২০২১
২৯ ইসলামপুর তৃণমূল আব্দুল করিম চৌধুরী বিজেপি সৌম্যরূপ মণ্ডল কংগ্রেস সাদিকুল ইসলাম
৩০ গোয়ালপোখর তৃণমূল মহম্মদ গুলাম রব্বানি বিজেপি গুলাম সারওয়ার কংগ্রেস মাসুদ নাসিম এহসান
৩১ চাকুলিয়া তৃণমূল মিনহাজুল আরফিন আজাদ বিজেপি শচীন প্রসাদ ফব আলি ইমরান রামজ
৩২ করণদিঘি তৃণমূল গৌতম পাল বিজেপি সুভাষ সিংহ ফব হাফিজুল ইকবাল
৩৩ হেমতাবাদ তৃণমূল সত্যজিৎ বর্মণ বিজেপি চন্দ্রিমা রায় সিপিআই(এম) ভূপেন্দ্রনাথ বর্মণ
৩৪ কালিয়াগঞ্জ তৃণমূল তপন দেব সিংহ বিজেপি সৌমেন রায় কংগ্রেস প্রভাস সরকার
৩৫ রায়গঞ্জ তৃণমূল কানাইয়া লাল আগরওয়াল বিজেপি কৃষ্ণা কল্যাণী কংগ্রেস মোহিত সেনগুপ্ত
৩৬ ইটাহার তৃণমূল মোশাররফ হোসেইন বিজেপি অমিতকুমার কুন্ডু সিপিআই শ্রীকুমার মুখোপাধ্যায়
দক্ষিণ দিনাজপুর
৩৭ কুশমণ্ডি তৃণমূল রেখা রায় বিজেপি রঞ্জিত কুমার রায় আরএসপি নর্মদাচন্দ্র রায় ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৩৮ কুমারগঞ্জ তৃণমূল তোরাফ হোসেন মণ্ডল বিজেপি মানস সরকার কংগ্রেস নার্গিস বানু চৌধুরী
৩৯ বালুরঘাট তৃণমূল শেখর দাশগুপ্ত বিজেপি অশোক লাহিড়ী আরএসপি সুচেতা বিশ্বাস
৪০ তপন তৃণমূল কল্পনা কিসকু বিজেপি বুধরাই টুডু আরএসপি রঘু উরয়ো
৪১ গঙ্গারামপুর তৃণমূল গৌতম দাস বিজেপি সত্যেন্দ্রনাথ রায় সিপিআই(এম) নন্দলাল হাজরা
৪২ হরিরামপুর তৃণমূল বিপ্লব মিত্র বিজেপি নীলাঞ্জন রায় সিপিআই(এম) রফিকুল ইসলাম
মালদহ জেলা
৪৩ হাবিবপুর তৃণমূল প্রদীপ বাস্কে বিজেপি জোয়েল মুর্মু সিপিআই(এম) ঠাকুর টুডু ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৪৪ গাজোল তৃণমূল বাসন্তী বর্মণ বিজেপি চিন্ময় দেব বর্মণ সিপিআই(এম) অরুণ বিশ্বাস
৪৫ চাঁচোল তৃণমূল নীহাররঞ্জন ঘোষ বিজেপি দীপংকর রাম কংগ্রেস আসিফ মেহবুব
৪৬ হরিশ্চন্দ্রপুর তৃণমূল তাজমুল হোসেন বিজেপি মহম্মদ মতিউর রহমান কংগ্রেস আলম মোস্তাক
৪৭ মালতীপুর তৃণমূল আবদুল রহিম বক্সি বিজেপি মৌসুমি দাস কংগ্রেস আলবেরুনি জুলকারনাইন
৪৮ রতুয়া তৃণমূল সমর মুখোপাধ্যায় বিজেপি অভিষেক সিংহানিয়া কংগ্রেস নাজিমা খাতুন
৪৯ মানিকচক তৃণমূল সাবিত্রী মিত্র বিজেপি গৌরচাঁদ মণ্ডল কংগ্রেস মহম্মদ মোত্তাকিন আলম ২৯ এপ্রিল, ২০২১
৫০ মালদহ তৃণমূল উজ্জ্বল চৌধুরী বিজেপি গোপালচন্দ্র সাহা কংগ্রেস ভূপেন্দ্রনাথ হালদার
৫১ ইংরেজবাজার তৃণমূল কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী বিজেপি শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী সিপিআই(এম) কৌশিক মিশ্র
৫২ মোথাবাড়ি তৃণমূল সাবিনা ইয়াসমিন বিজেপি শ্যামচাঁদ ঘোষ কংগ্রেস মহম্মদ দুলাল শেখ
৫৩ সুজাপুর তৃণমূল মহম্মদ আবদুল গনি বিজেপি এস কে জিয়াউদ্দিন কংগ্রেস ইশা খান চৌধুরী
৫৪ বৈষ্ণবনগর তৃণমূল চন্দনা সরকার বিজেপি স্বাধীন কুমার সরকার কংগ্রেস আজিজুল হক
মুর্শিদাবাদ জেলা
৫৫ ফারাক্কা তৃণমূল মনিরুল ইসলাম বিজেপি হেমন্ত ঘোষ কংগ্রেস মনিরুল হক ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৫৬ সামশেরগঞ্জ তৃণমূল আমিরুল ইসলাম বিজেপি মিলন ঘোষ কংগ্রেস রোকেয়া খাতুন ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
৫৭ সুতি তৃণমূল এমানি বিশ্বাস বিজেপি কৌশিক দাস কংগ্রেস হুমায়ুন রোজা ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৫৮ জঙ্গিপুর তৃণমূল জাকির হোসেন বিজেপি সুজিত দাস আরএসপি জানে আলম ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
৫৯ রঘুনাথগঞ্জ তৃণমূল আখতারুজ্জামান বিজেপি গোলাম মোদার্শা কংগ্রেস আব্দুল কাশিম বিশ্বাস ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৬০ সাগরদিঘি তৃণমূল সুব্রত সাহা বিজেপি মাফুজা খাতুন কংগ্রেস এস. কে. হাসেনুজ্জামান
৬১ লালগোলা তৃণমূল মহম্মদ আলি বিজেপি কল্পনা ঘোষ কংগ্রেস আবু হেনা
৬২ ভগবানগোলা তৃণমূল ইদ্রিশ আলি বিজেপি মেহবুব আলম সিপিআই(এম) কামাল হোসেন
৬৩ রানিনগর তৃণমূল সৌমিক হোসেন বিজেপি মাসুহারা খাতুন কংগ্রেস ফিরোজা বেগম
৬৪ মুর্শিদাবাদ তৃণমূল শাওনি সিংহরায় বিজেপি গৌরীশংকর ঘোষ কংগ্রেস নিয়াজুদ্দিন শেখ
৬৫ নবগ্রাম তৃণমূল কানাইচন্দ্র মণ্ডল বিজেপি মোহন হালদার সিপিআই(এম) কৃপালিনী ঘোষ
৬৬ খড়গ্রাম তৃণমূল আশিস মারজিত বিজেপি আদিত্য মৌলিক কংগ্রেস বিপদতারণ বাগদি ২৯ এপ্রিল, ২০২১
৬৭ বারোয়ান তৃণমূল জীবনকৃষ্ণ সাহা বিজেপি অমিয় কুমার দাস কংগ্রেস শিলাদিত্য হালদার
৬৮ কান্দি তৃণমূল অপূর্ব সরকার (ডেভিড) বিজেপি গৌতম রায় কংগ্রেস সাইফুল আলম খান
৬৯ ভরতপুর তৃণমূল হুমায়ুন কবির বিজেপি ইমনকল্যাণ মুখোপাধ্যায় কংগ্রেস কমলেশ চট্টোপাধ্যায়
৭০ রেজিনগর তৃণমূল রবিউল আলম চৌধুরী বিজেপি অরবিন্দ বিশ্বাস কংগ্রেস কাফিরুদ্দিন শেখ
৭১ বেলডাঙা তৃণমূল হাসানুজ্জামান শেখ বিজেপি সুমিত ঘোষ কংগ্রেস শেখ সফিউজ্জামান
৭২ বহরমপুর তৃণমূল নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায় বিজেপি সুব্রত মৈত্র কংগ্রেস মনোজ চক্রবর্তী
৭৩ হরিহরপাড়া তৃণমূল নিয়ামত শেখ বিজেপি তন্ময় বিশ্বাস কংগ্রেস মির আলমগির
৭৪ নওদা তৃণমূল সাহিনা মমতাজ বেগম (খান) বিজেপি অনুপম মণ্ডল কংগ্রেস মোশারাফ হোসেন মণ্ডল
৭৫ ডোমকল তৃণমূল জাফিকুল ইসলাম বিজেপি রুবিয়া খাতুন সিপিআই(এম) মুস্তাফিজুর রহমান
৭৬ জলঙ্গি তৃণমূল আব্দুর রেজ্জাক বিজেপি চন্দন মণ্ডল সিপিআই(এম) সাইফুল ইসলাম মোল্লা
নদিয়া জেলা
৭৭ করিমপুর তৃণমূল বিমলেন্দু সিংহ রায় বিজেপি সমরেন্দ্রনাথ ঘোষ সিপিআই(এম) প্রভাস মজুমদার ২২ এপ্রিল, ২০২১
৭৮ তেহট্ট তৃণমূল তাপস কুমার সাহা বিজেপি আশুতোষ পাল সিপিআই(এম) সুবোধ বিশ্বাস
৭৯ পলাশিপাড়া তৃণমূল মানিক ভট্টাচার্য বিজেপি বিভাসচন্দ্র মণ্ডল সিপিআই(এম) এম. এস. সাদি
৮০ কালীগঞ্জ তৃণমূল নাসিরুদ্দিন আহমেদ (লাল) বিজেপি অভিজিৎ ঘোষ কংগ্রেস আব্দুল কাসেম
৮১ নাকাশিপাড়া তৃণমূল কল্লোল খান বিজেপি শান্তনু দেব সিপিআই(এম) শুক্লা সাহা চক্রবর্তী
৮২ চাপড়া তৃণমূল রুকবানুর রহমান বিজেপি কল্যাণ কুমার নন্দী আরএসএমপি কাঞ্চন মৈত্র
৮৩ কৃষ্ণনগর উত্তর তৃণমূল কৌশানী মুখোপাধ্যায় বিজেপি মুকুল রায় কংগ্রেস সিলভি সাহা
৮৪ নবদ্বীপ তৃণমূল পুণ্ডরীকাক্ষ সাহা (নন্দ) বিজেপি সিদ্ধার্থ নস্কর সিপিআই(এম) স্বর্ণেন্দু সিংহ
৮৫ কৃষ্ণনগর দক্ষিণ তৃণমূল উজ্জ্বল বিশ্বাস বিজেপি মহাদেব সরকার সিপিআই(এম) সুমিত বিশ্বাস
৮৬ শান্তিপুর তৃণমূল অজয় দে বিজেপি জগন্নাথ সরকার কংগ্রেস ঋজু ঘোষাল ১৭ এপ্রিল, ২০২১
৮৭ রানাঘাট উত্তর পশ্চিম তৃণমূল শংকর সিংহ বিজেপি পার্থসারথি চট্টোপাধ্যায় কংগ্রেস বিজয়েন্দু বিশ্বাস
৮৮ কৃষ্ণগঞ্জ তৃণমূল ড. তাপস মণ্ডল বিজেপি আশিস কুমার বিশ্বাস আরএসএমপি অনুপ মণ্ডল
৮৯ রানাঘাট উত্তর পূর্ব তৃণমূল সমীর কুমার পোদ্দার বিজেপি অসীম বিশ্বাস আরএসএমপি দিনেশচন্দ্র বিশ্বাস
৯০ রানাঘাট দক্ষিণ তৃণমূল বর্ণালি দে বিজেপি মুকুটমণি অধিকারী সিপিআই(এম) রমা বিশ্বাস
৯১ চাকদহ তৃণমূল শুভংকর সিংহ (যিশু) বিজেপি বঙ্কিমচন্দ্র ঘোষ সিপিআই(এম) নারায়ণ দাশগুপ্ত
৯২ কল্যাণী তৃণমূল অনিরুদ্ধ বিশ্বাস বিজেপি অম্বিকা রায় সিপিআই(এম) সবুজ দাস
৯৩ হরিণঘাটা তৃণমূল নীলিমা নাগ (মল্লিক) বিজেপি অসীম সরকার সিপিআই(এম) অলকেশ দাস
উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা
৯৪ বাগদা তৃণমূল পরিতোষ কুমার সাহা বিজেপি বিশ্ব্জিৎ দাস কংগ্রেস প্রবীর কীর্তনিয়া ২২ এপ্রিল, ২০২১
৯৫ বনগাঁ উত্তর তৃণমূল শ্যামল রায় বিজেপি অশোক কীর্তনিয়া সিপিআই(এম) পীযূষকান্তি সাহা
৯৬ বনগাঁ দক্ষিণ তৃণমূল আলোরানি সরকার বিজেপি স্বপন মজুমদার সিপিআই(এম) তাপস কুমার বিশ্বাস
৯৭ গাইঘাটা তৃণমূল নরোত্তম বিশ্বাস বিজেপি সুব্রত ঠাকুর সিপিআই কপিলকৃষ্ণ ঠাকুর
৯৮ স্বরূপনগর তৃণমূল বীণা মণ্ডল বিজেপি বৃন্দাবন সরকার সিপিআই(এম) বিশ্ব্জিৎ সরকার
৯৯ বাদুড়িয়া তৃণমূল কুয়াশি আবদুল মল্লিক বিজেপি সুকল্যাণ বৈদ্য কংগ্রেস ড. আবদুস সাত্তার
১০০ হাবড়া তৃণমূল জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বিজেপি রাহুল সিনহা সিপিআই(এম) ঋজিনন্দন বিশ্বাস
১০১ অশোকনগর তৃণমূল নারায়ণ গোস্বামী বিজেপি তনুজা চক্রবর্তী আরএসএমপি তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়
১০২ আমডাঙা তৃণমূল রফিকুর রহমান বিজেপি জয়দেব মান্না আরএসএমপি জামাল উদ্দিন
১০৩ বীজপুর তৃণমূল সুবোধ অধিকারী বিজেপি শুভ্রাংশু রায় সিপিআই(এম) সুকান্ত রক্ষিত
১০৪ নৈহাটি তৃণমূল পার্থ ভৌমিক বিজেপি ফাল্গুনী পাত্র সিপিআই(এম) ইন্দ্রাণী কুণ্ডু মুখোপাধ্যায়
১০৫ ভাটপাড়া তৃণমূল জিতেন্দ্র শ বিজেপি পবন সিং কংগ্রেস ধর্মেন্দ্র শ
১০৬ জগদ্দল তৃণমূল সোমনাথ শ্যাম বিজেপি অরিন্দম ভট্টাচার্য ফব নিমাই সাহা
১০৭ নোয়াপাড়া তৃণমূল মঞ্জু বসু বিজেপি সুনীল সিং কংগ্রেস শুভঙ্কর সরকার
১০৮ ব্যারাকপুর তৃণমূল রাজ চক্রবর্তী বিজেপি ড. চন্দ্রমণি শুক্ল সিপিআই(এম) দেবাশিস ভৌমিক
১০৯ খড়দহ তৃণমূল কাজল সিংহ বিজেপি শীলভদ্র দত্ত সিপিআই(এম) দেবজ্যোতি দাস
১১০ দমদম উত্তর তৃণমূল চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বিজেপি অর্চনা মজুমদাদ সিপিআই(এম) তন্ময় ভট্টাচার্য
১১১ পানিহাটি তৃণমূল নির্মল ঘোষ বিজেপি সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেস তাপস মজুমদার ১৭ এপ্রিল, ২০২১
১১২ কামারহাটি তৃণমূল মদন মিত্র বিজেপি অনিন্দ্য রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় সিপিআই(এম) সায়নদীপ মিত্র
১১৩ বরানগর তৃণমূল তাপস রায় বিজেপি পার্নো মিত্র কংগ্রেস অমল কুমার মুখোপাধ্যায়
১১৪ দমদম তৃণমূল ব্রাত্য বসু বিজেপি বিমল শংকর নন্দ সিপিআই(এম) পলাশ দাস
১১৫ রাজারহাট নিউটাউন তৃণমূল তাপস চট্টোপাধ্যায় বিজেপি ভাস্কর রায় সিপিআই(এম) সপ্তর্ষি দেব
১১৬ বিধাননগর তৃণমূল সুজিত বসু বিজেপি সব্যসাচী দত্ত কংগ্রেস অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়
১১৭ রাজারহাট গোপালপুর তৃণমূল অদিতি মুন্সি বিজেপি শমীক ভট্টাচার্য সিপিআই(এম) শুভজিৎ দাশগুপ্ত
১১৮ মধ্যমগ্রাম তৃণমূল রথীন ঘোষ বিজেপি রাজশ্রী রাজবংশী আরএসএমপি বিশ্ব্জিৎ মাইতি
১১৯ বারাসাত তৃণমূল চিরঞ্জিত চক্রবর্তী বিজেপি শংকর চট্টোপাধ্যায় ফব সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়
১২০ দেগঙ্গা তৃণমূল রহিমা মণ্ডল বিজেপি দীপিকা চট্টোপাধ্যায় আরএসএমপি করিম আলি
১২১ হাড়োয়া তৃণমূল হাজি শেখ নুরুল ইসলাম বিজেপি রাজেন্দ্র সাহা আরএসএমপি কুতুবুদ্দিন ফতেহি
১২২ মিনাখাঁ তৃণমূল উষারানি মণ্ডল বিজেপি জয়ন্ত মণ্ডল সিপিআই(এম) প্রদ্যোৎ রায়
১২৩ সন্দেশখালি তৃণমূল সুকুমার মাহাতো বিজেপি ভাস্কর সর্দার আরএসএমপি বরুণ সর্দার
১২৪ বসিরহাট দক্ষিণ তৃণমূল ড. সপ্তর্ষি বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি তারকনাথ ঘোষ কংগ্রেস অমিত মজুমদার
১২৫ বসিরহাট উত্তর তৃণমূল রফিকুল ইসলাম মণ্ডল বিজেপি নারায়ণ মণ্ডল আরএসএমপি বাইজিদ আমিন
১২৬ হিঙ্গলগঞ্জ তৃণমূল দেবেশ মণ্ডল বিজেপি নিমাই দাস সিপিআই ড. রঞ্জন মণ্ডল
দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা
১২৭ গোসাবা তৃণমূল জয়ন্ত নস্কর বিজেপি চিত্ত প্রামাণিক আরএসপি Anil Chandra Mondal ১ এপ্রিল, ২০২১
১২৮ বাসন্তী তৃণমূল শ্যামল মণ্ডল বিজেপি রমেশ মাজি আরএসপি সুভাষ নস্কর ৬ এপ্রিল, ২০২১
১২৯ কুলতলি তৃণমূল গণেশচন্দ্র মণ্ডল বিজেপি মিন্টু হালদার সিপিআই(এম) রামশংকর হালদার
১৩০ পাথরপ্রতিমা তৃণমূল সমীর কুমার জানা বিজেপি অসিত হালদার কংগ্রেস শুকদেব বেরা ১ এপ্রিল, ২০২১
১৩১ কাকদ্বীপ তৃণমূল মন্টুরাম পাখিরা বিজেপি দীপংকর জানা কংগ্রেস ইন্দ্রনীল রাউত
১৩২ সাগর তৃণমূল বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা বিজেপি বিকাশ কামিলা সিপিআই(এম) শেখ মুকুলেশ্বর রহমান
১৩৩ কুলপি তৃণমূল জগরঞ্জন হালদার বিজেপি প্রণব মল্লিক আরএসএমপি শিরাজুদ্দিন গাজি ৬ এপ্রিল, ২০২১
১৩৪ রায়দিঘি তৃণমূল অলোক জলদাতা বিজেপি শান্তনু বাপুলি সিপিআই(এম) কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়
১৩৫ মন্দিরবাজার তৃণমূল জয়দেব হালদার বিজেপি দিলীপ জাটুয়া আরএসএমপি সঞ্জয় সরকার
১৩৬ জয়নগর তৃণমূল বিশ্বনাথ দাস বিজেপি রবিন সর্দার সিপিআই(এম) অপূর্ব প্রামাণিক
১৩৭ বারুইপুর পূর্ব তৃণমূল বিভাস সর্দার বিজেপি চন্দন মণ্ডল সিপিআই(এম) স্বপন নস্কর
১৩৮ ক্যানিং পশ্চিম তৃণমূল পরেশরাম দাস বিজেপি অর্ণব রায় কংগ্রেস প্রতাম মণ্ডল
১৩৯ ক্যানিং পূর্ব তৃণমূল শওকত মোল্লা বিজেপি কালীপদ নস্কর আরএসএমপি গাজি সাহাবুদ্দিন সিরাজ
১৪০ বারুইপুর পশ্চিম তৃণমূল বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি দেবোপম চট্টোপাধ্যায় সিপিআই(এম) লাহেক আলি
১৪১ মগরাহাট পূর্ব তৃণমূল নমিতা সাহা বিজেপি চন্দন নস্কর সিপিআই(এম) চন্দন সাহা
১৪২ মগরাহাট পশ্চিম তৃণমূল গিয়াসুদ্দিন মোল্লা বিজেপি মানস সাহা আরএসএমপি মইদুল ইসলাম
১৪৩ ডায়মন্ড হারবার তৃণমূল পান্নালাল হালদার বিজেপি দীপক হালদার সিপিআই(এম) প্রতীক উর রহমান
১৪৪ ফলতা তৃণমূল শংকর কুমার নস্কর বিজেপি বিধান পাড়ুই কংগ্রেস আবদুর রেজ্জাক মোল্লা
১৪৫ সাতগাছিয়া তৃণমূল মোহনচন্দ্র নস্কর বিজেপি চন্দন পাল দাস সিপিআই(এম) গৌতম পাল
১৪৬ বিষ্ণুপুর তৃণমূল দিলীপ মণ্ডল বিজেপি অগ্নীশ্বর নস্কর সিপিআই(এম) ঝুমা কয়াল
১৪৭ সোনারপুর দক্ষিণ তৃণমূল অরুন্ধতী মৈত্র বিজেপি অঞ্জনা বসু সিপিআই শুভম বন্দ্যোপাধ্যায় ১০ এপ্রিল, ২০২১
১৪৮ ভাঙড় তৃণমূল মহম্মদ রেজাউল করিম বিজেপি সৌমি হাতি আরএসএমপি নৌশাদ সিদ্দিকি
১৪৯ কসবা তৃণমূল জাভেদ আহমেদ খান বিজেপি ইন্দ্রনীল খান সিপিআই(এম) শতরূপ ঘোষ
১৫০ যাদবপুর তৃণমূল মলয় মজুমদার বিজেপি রিঙ্কু নস্কর সিপিআই(এম) সুজন চক্রবর্তী
১৫১ সোনারপুর উত্তর তৃণমূল ফিরদৌসি বেগম বিজেপি রঞ্জন বৈদ্য সিপিআই(এম) মোনালিসা সিনহা
১৫২ টালিগঞ্জ তৃণমূল অরূপ বিশ্বাস বিজেপি বাবুল সুপ্রিয় সিপিআই(এম) দেবদূত ঘোষ
১৫৩ বেহালা পূর্ব তৃণমূল রত্না চট্টোপাধ্যায় বিজেপি পায়েল সরকার সিপিআই(এম) সমিতা হর চৌধুরী
১৫৪ বেহালা পশ্চিম তৃণমূল পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিজেপি শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় সিপিআই(এম) নীহার ভক্ত
১৫৫ মহেশতলা তৃণমূল দুলালচন্দ্র দাস বিজেপি উমেশ দাস সিপিআই(এম) প্রদ্যুৎ চৌধুরী
১৫৬ বজবজ তৃণমূল অশোক দেব বিজেপি তরুণ আদক কংগ্রেস শেখ মুজিবর রহমান
১৫৭ মেটিয়াবুরুজ তৃণমূল আব্দুল খালেক মোল্লা বিজেপি রামজি প্রসাদ আরএসএমপি নুরুজ্জামান
কলকাতা জেলা
১৫৮ কলকাতা বন্দর তৃণমূল ফিরহাদ হাকিম বিজেপি অবধ কিশোর গুপ্তা কংগ্রেস মহম্মদ মুখতার ২৬ এপ্রিল, ২০২১
১৫৯ ভবানীপুর তৃণমূল শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বিজেপি রুদ্রনীল ঘোষ কংগ্রেস মহম্মদ সাদাব খান
১৬০ রাসবিহারী তৃণমূল দেবাশিস কুমার বিজেপি সুব্রত সাহা কংগ্রেস আশুতোষ চট্টোপাধ্যায়
১৬১ বালিগঞ্জ তৃণমূল সুব্রত মুখোপাধ্যায় বিজেপি লোকনাথ চট্টোপাধ্যায় সিপিআই(এম) ড. ফুয়াদ হালিম
১৬২ চৌরঙ্গী তৃণমূল নয়না বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি দেবদত্ত মাজি কংগ্রেস সন্তোষ পাঠক ২৯ এপ্রিল, ২০২১
১৬৩ এন্টালি তৃণমূল স্বর্ণকমল সাহা বিজেপি প্রিয়াংকা টাইবারওয়াল আরএসএমপি মহম্মদ ইকবাল আলম
১৬৪ বেলেঘাটা তৃণমূল পরেশ পাল বিজেপি আ্যডভোকেট কাশীনাথ বিশ্বাস সিপিআই(এম) রাজীব বিশ্বাস
১৬৫ জোড়াসাঁকো তৃণমূল বিবেক গুপ্ত বিজেপি মীনা দেবী পুরোহিত কংগ্রেস আজমল খান
১৬৬ শ্যামপুকুর তৃণমূল শশী পাঁজা বিজেপি সন্দীপন বিশ্বাস ফব জীবন প্রকাশ সাহা
১৬৭ মানিকতলা তৃণমূল সাধন পাণ্ডে বিজেপি কল্যাণ চৌবে সিপিআই(এম) রূপা বাগচী
১৬৮ কাশীপুর-বেলগাছিয়া তৃণমূল অতীন ঘোষ বিজেপি শিবাজী সিংহ রায় সিপিআই(এম) প্রদীপ দাশগুপ্ত
হাওড়া জেলা
১৬৯ বালি তৃণমূল রাণা চট্টোপাধ্যায় বিজেপি বৈশালী ডালমিয়া সিপিআই(এম) দীপ্সিতা ধর ১০ এপ্রিল, ২০২১
১৭০ হাওড়া উত্তর তৃণমূল গৌতম চৌধুরী বিজেপি উমেশ রাই সিপিআই(এম) পবন সিং
১৭১ হাওড়া মধ্য তৃণমূল অরূপ রায় বিজেপি সঞ্জয় সিং কংগ্রেস পলাশ ভাণ্ডারী
১৭২ শিবপুর তৃণমূল মনোজ তিওয়ারি বিজেপি রথীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী ফব ড. জগন্নাথ ভট্টাচার্য
১৭৩ হাওড়া দক্ষিণ তৃণমূল নন্দিতা চৌধুরী বিজেপি রন্তিদেব সেনগুপ্ত সিপিআই(এম) সুমিত্রা অধিকারী
১৭৪ সাঁকরাইল তৃণমূল প্রিয়া পাল বিজেপি প্রভাকর পণ্ডিত সিপিআই(এম) সামির মালিক
১৭৫ পাঁচলা তৃণমূল গুলশান মল্লিক বিজেপি মোহিত ঘাঁটি আরএসএমপি মহম্মদ জলিল
১৭৬ উলুবেড়িয়া পূর্ব তৃণমূল বিদেশ বসু বিজেপি প্রত্যুষ মণ্ডল আরএসএমপি আব্বাসুদ্দিন খান
১৭৭ উলুবেড়িয়া উত্তর তৃণমূল ড. নির্মল মাজি বিজেপি চিরণ বেরা সিপিআই(এম) অশোক দোলুই ৬ এপ্রিল, ২০২১
১৭৮ উলুবেড়িয়া দক্ষিণ তৃণমূল পুলক রায় বিজেপি পাপিয়া অধিকারী ফব কুতুবুদ্দিন আহমেদ
১৭৯ শ্যামপুর তৃণমূল কালীপদ মণ্ডল বিজেপি তনুশ্রী চক্রবর্তী কংগ্রেস অমিতাভ চক্রবর্তী
১৮০ বাগনান তৃণমূল অরুণাভ সেন বিজেপি অনুপম মল্লিক সিপিআই(এম) বশির আহমেদ
১৮১ আমতা তৃণমূল সুকান্ত পাল বিজেপি দেবতনু ভট্টাচার্য কংগ্রেস অসিত মিত্র
১৮২ উদয়নারায়ণপুর তৃণমূল সমীর কুমার পাঁজা বিজেপি সুমিত রঞ্জন কাড়ার কংগ্রেস অশোক কোলে
১৮৩ জগৎবল্লভপুর তৃণমূল সীতানাথ ঘোষ বিজেপি অনুপম ঘোষ আরএসএমপি শেখ সাব্বির আহমেদ
১৮৪ ডোমজুড় তৃণমূল কল্যাণ ঘোষ বিজেপি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সিপিআই(এম) উত্তম বেরা ১০ এপ্রিল, ২০২১
হুগলি জেলা
১৮৫ উত্তরপাড়া তৃণমূল কাঞ্চন মল্লিক বিজেপি প্রবীর ঘোষাল সিপিআই(এম) রজত বন্দ্যোপাধ্যায় ১০ এপ্রিল, ২০২১
১৮৬ শ্রীরামপুর তৃণমূল সুদীপ্ত রায় বিজেপি কবীর শংকর বসু কংগ্রেস অলোকরঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়
১৮৭ চাঁপদানি তৃণমূল অরিন্দম গুঁই বিজেপি দিলীপ সিং কংগ্রেস আব্দুল মান্নান
১৮৮ সিঙ্গুর তৃণমূল বেচারাম মান্না বিজেপি রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য সিপিআই(এম) সৃজন ভট্টাচার্য
১৮৯ চন্দননগর তৃণমূল ইন্দ্রনীল সেন বিজেপি দীপাঞ্জন গুহ সিপিআই(এম) গৌতম সরকার
১৯০ চুঁচুড়া তৃণমূল অসিত মজুমদার বিজেপি লকেট চট্টোপাধ্যায় ফব ড. প্রণব ঘোষ
১৯১ বলাগড় তৃণমূল মনোরঞ্জন ব্যাপারী বিজেপি সুভাষচন্দ্র হালদার সিপিআই(এম) মহামায়া মণ্ডল
১৯২ পাণ্ডুয়া তৃণমূল ড. রত্না দে নাগ বিজেপি পার্থ শর্মা সিপিআই(এম) শেখ আমজাদ হোসেন
১৯৩ সপ্তগ্রাম তৃণমূল তপন দাশগুপ্ত বিজেপি দেবব্রত বিশ্বাস (বাবান) কংগ্রেস পবিত্র দেব
১৯৪ চণ্ডীতলা তৃণমূল স্বাতী খোন্দকার বিজেপি যশ দাশগুপ্ত সিপিআই(এম) মহম্মদ সেলিম
১৯৫ জাঙ্গিপাড়া তৃণমূল স্নেহাশিস চক্রবর্তী বিজেপি দেবজিৎ সরকার আরএসএমপি শেখ মইনুদ্দিন (বুড়ো) ৬ এপ্রিল, ২০২১
১৯৬ হরিপাল তৃণমূল কাবেরী মান্না বিজেপি সমীরণ মিত্র আরএসএমপি সিমল সোরেন
১৯৭ ধনেখালি তৃণমূল অসীমা পাত্র বিজেপি তুষার মজুমদার কংগ্রেস অনির্বাণ সাহা
১৯৮ তারকেশ্বর তৃণমূল রামেন্দু সিংহ রায় বিজেপি স্বপন দাশগুপ্ত সিপিআই(এম) সুরজিৎ ঘোষ
১৯৯ পুরশুড়া তৃণমূল দিলীপ যাদব বিজেপি বিমান ঘোষ কংগ্রেস মণিকা মল্লিক ঘোষ
২০০ আরামবাগ তৃণমূল সুজাতা মণ্ডল খাঁ বিজেপি মধুসূদন বাগ সিপিআই(এম) শক্তিমোহন মালিক
২০১ গোঘাট তৃণমূল মানস মজুমদার বিজেপি বিশ্বনাথ কারক ফব শিবপ্রসার মালিক
২০২ খানাকুল তৃণমূল মুন্সি নাজবুল করিম বিজেপি সুশান্ত ঘোষ আরএসএমপি ফায়সাল খান
পূর্ব মেদিনীপুর জেলা
২০৩ তমলুক তৃণমূল সৌমেন মহাপাত্র বিজেপি হরেকৃষ্ণ বেরা সিপিআই গৌতম পান্ডা ১ এপ্রিল, ২০২১
২৯৪ পাঁশকুড়া পূর্ব তৃণমূল বিপ্লব রায়চৌধুরী বিজেপি দেবব্রত পটনায়ক সিপিআই(এম) শেখ ইব্রাহিম আলি
২০৫ পাঁশকুড়া পশ্চিম তৃণমূল ফিরোজা বিবি বিজেপি শিন্টু সেনাপতি সিপিআই চিত্তরঞ্জন দাস ঠাকুর
২০৬ ময়না তৃণমূল সংগ্রাম কুমার দোলুই বিজেপি অশোক দিন্দা কংগ্রেস মানিক ভৌমিক
২০৭ নন্দকুমার তৃণমূল সুকুমার দে বিজেপি নীলাঞ্জন অধিকারী সিপিআই(এম) করুণাশংকর ভৌমিক
২০৮ মহিষাদল তৃণমূল তিলক চক্রবর্তী বিজেপি বিশ্বনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় আরএসএমপি বিক্রম চট্টোপাধ্যায়
২০৯ হলদিয়া তৃণমূল স্বপন নস্কর বিজেপি তাপসী মণ্ডল সিপিআই(এম) মণিকা কর পাইক
২১০ নন্দীগ্রাম তৃণমূল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি শুভেন্দু অধিকারী সিপিআই(এম) মীণাক্ষী মুখোপাধ্যায়
২১১ চণ্ডীপুর তৃণমূল সোহম চক্রবর্তী বিজেপি পুলককান্তি গুড়িয়া সিপিআই(এম) আশিস গুছাইত
২১২ পটাশপুর তৃণমূল উত্তম বসাক বিজেপি অম্বুজাক্ষ মহান্তি সিপিআই সৈকত গিরি ২৭ মার্চ, ২০২১
২১৩ কাঁথি উত্তর তৃণমূল তরুণ কুমার জানা বিজেপি সুনীতা সিংহ সিপিআই(এম) সুতনু মাইতি
২১৪ ভগবানপুর তৃণমূল অর্ধেন্দু মাইতি বিজেপি রবীন্দ্রনাথ মাইতি কংগ্রেস শিউ মাইতি
২১৫ খেজুড়ি তৃণমূল পার্থপ্রতিম দাস বিজেপি শান্তনু প্রামাণিক সিপিআই(এম) হিমাংশু দাস
216 Kanthi Dakshin তৃণমূল Jyotirmoy Kar বিজেপি Arup Kumar Das CPI Anulup Panda
২১৭ রামনগর তৃণমূল অখিল গিরি বিজেপি স্বদেশ রঞ্জন নায়ক সিপিআই(এম) সব্যসাচী জানা
২১৮ এগরা তৃণমূল তরুণ মাইতি বিজেপি অরূপ দাস কংগ্রেস মানস কুমার করমহাপাত্র
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা
২১৯ দাঁতন তৃণমূল বিক্রমচন্দ্র প্রধান বিজেপি শক্তিপদ নায়ক সিপিআই Sisir Patra ২৭ মার্চ, ২০২১
ঝাড়গ্রাম জেলা
২২০ নয়াগ্রাম তৃণমূল দুলাল মুর্মু বিজেপি বকুল মুর্মু সিপিআই(এম) হরিপদ সোরেন ২৭ মার্চ, ২০২১
২২১ গোপীবল্লভপুর তৃণমূল খগেন্দ্রনাথ মাহাতো বিজেপি সঞ্জিত মাহাতো সিপিআই(এম) প্রশান্ত দাস
২২২ ঝাড়গ্রাম তৃণমূল বীরবাহা হাঁসদা বিজেপি সুখময় শতপতি সিপিআই(এম) মধুজা সেন রায়
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা
২২৩ কেশিয়াড়ি তৃণমূল পরেশ মুর্মু বিজেপি সোনালি মুর্মু সিপিআই(এম) পুলিনবিহারী বাস্কে ২৭ মার্চ, ২০২১
২২৪ খড়গপুর সদর তৃণমূল প্রদীপ সরকার বিজেপি হিরণ চট্টোপাধ্যায় কংগ্রেস রীতা শর্মা ১ এপ্রিল, ২০২১
২২৫ নারায়ণগড় তৃণমূল সূর্যকান্ত আট্টা বিজেপি রামপ্রসাদ গিরি সিপিআই(এম) তাপস সিনহা
২২৬ সবং তৃণমূল মানস ভুঁইয়া বিজেপি অমূল্য মাইতি কংগ্রেস চিরঞ্জীব ভৌমিক
২২৭ পিংলা তৃণমূল অজয় মাইতি বিজেপি অন্তরা ভট্টাচার্য কংগ্রেস সমীর রায়
২২৮ খড়গপুর তৃণমূল দিনেন রায় বিজেপি তপন ভুঁইয়া সিপিআই(এম) শেখ সাদ্দাম আলি ২৭ মার্চ, ২০২১
২২৯ ডেবরা তৃণমূল হুমায়ুন কবির বিজেপি ভারতী ঘোষ সিপিআই(এম) প্রাণকৃষ্ণ মণ্ডল ১ এপ্রিল, ২০২১
২৩০ দাসপুর তৃণমূল মমতা ভুঁইয়া বিজেপি প্রশান্ত বেরা সিপিআই(এম) ধ্রুবশেখর মণ্ডল
২৩১ ঘাটাল তৃণমূল শংকর দোলুই বিজেপি শীতল কপট সিপিআই(এম) কমল দোলুই
২৩২ চন্দ্রকোণা তৃণমূল অরূপ ধাড়া বিজেপি শিবরাম দাস আরএসএমপি গৌরাঙ্গ দাস
২৩৩ গড়বেতা তৃণমূল উত্তরা সিংহ বিজেপি মদন রুইদাস সিপিআই(এম) তপন ঘোষ ২৭ মার্চ, ২০২১
234 Salboni তৃণমূল Srikanta Mahata বিজেপি Rajib Kundu সিপিআই(এম) Susanta Ghosh
২৩৫ কেশপুর তৃণমূল শিউলি সাহা বিজেপি প্রীতিশ রঞ্জন সিপিআই(এম) রামেশ্বর দোলুই ১ এপ্রিল, ২০২১
২৩৬ মেদিনীপুর তৃণমূল জুন মালিয়া বিজেপি শমিত দাশ সিপিআই তরুণ কুমার ঘোষ ২৭ মার্চ, ২০২১
ঝাড়গ্রাম জেলা
২৩৭ বিনপুর তৃণমূল দেবনাথ হাঁসদা বিজেপি পালান সরেন সিপিআই(এম) দিবাকর হাঁসদা ২৭ মার্চ, ২০২১
পুরুলিয়া জেলা
২৩৮ বান্দোয়ান তৃণমূল রাজীবলোচন সরেন বিজেপি পারসি মুর্মু সিপিআই(এম) সুশান্ত বেসরা ২৭ মার্চ, ২০২১
২৩৯ বলরামপুর তৃণমূল শান্তিরাম মাহাতো বিজেপি বাণেশ্বর মাহাতো কংগ্রেস উত্তম বন্দ্যোপাধ্যায়
২৪০ বাঘমুন্ডি তৃণমূল সুশান্ত মাহাতো আজসু আশুতোষ মাহাতো কংগ্রেস নেপাল মাহাত
২৪১ জয়পুর নির্দল দিব্যজ্যোতি সিং দেও[৫২][৫১] বিজেপি নরহরি মাহাতো ফব ধীরেন মাহাতো
২৪২ পুরুলিয়া তৃণমূল সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি সুদীপ মুখোপাধ্যায় কংগ্রেস পার্থপ্রতিম বন্দ্যোপাধ্যায়
২৪৩ মানবাজার তৃণমূল সন্ধ্যারানি টুডু বিজেপি গৌরী সিং সর্দার সিপিআই(এম) যামিনীকান্ত মান্ডি
২৪৪ কাশীপুর তৃণমূল স্বপন কুমার বেলঠারিয়া বিজেপি কমলাকান্ত হাঁসদা সিপিআই(এম) মল্লিকা মাহাতো
২৪৫ পাড়া তৃণমূল উমাপদ বাউড়ি বিজেপি নদীয়াচাঁদ বাউড়ি সিপিআই(এম) স্বপন বাউড়ি
২৪৬ রঘুনাথপুর তৃণমূল হাজারি বাউড়ি বিজেপি বিবেকানন্দ বাউড়ি সিপিআই(এম) গণেশ বাউড়ি
Bankura district
২৪৭ শালতোড়া তৃণমূল সন্তোষ মণ্ডল বিজেপি চন্দনা বাউড়ি সিপিআই(এম) নন্দদুলাল বাউড়ি ২৭ মার্চ, ২০২১
২৪৮ ছাতনা তৃণমূল শুভাশিস বটব্যাল বিজেপি সত্যনারায়ণ মুখোপাধ্যায় আরএসপি ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়
২৪৯ রানিবাঁধ তৃণমূল জ্যোৎস্না মান্ডি বিজেপি খুদিরাম টুডু সিপিআই(এম) দেবলীনা হেমব্রম
250 Raipur তৃণমূল Mrittunjay Murmu বিজেপি Sudhangsu Hansda RSMP Milan Mandi
২৫১ তালড্যাংরা তৃণমূল অরূপ চক্রবর্তী বিজেপি শ্যামল কুমার সরকার সিপিআই(এম) মনোরঞ্জন পাত্র ১ এপ্রিল, ২০২১
২৫২ বাঁকুড়া তৃণমূল সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি নীলাদ্রিশেখর ডানা কংগ্রেস রাধারানি বন্দ্যোপাধ্যায়
২৫৩ বড়জোড়া তৃণমূল অলোক মুখোপাধ্যায় বিজেপি সুপ্রীতি চট্টোপাধ্যায় সিপিআই(এম) সুজিত চক্রবর্তী
২৫৪ ওন্দা তৃণমূল অরূপ কুমার খান বিজেপি অমর সখা ফব তারাপদ চক্রবর্তী
২৫৫ বিষ্ণুপুর তৃণমূল অর্চিতা বিদ বিজেপি তন্ময় ঘোষ কংগ্রেস দেবু চট্টোপাধ্যায়
২৫৬ কোতুলপুর তৃণমূল সংগীতা মালিক বিজেপি হরকালী পাতিহার কংগ্রেস অক্ষয় সাঁতরা
২৫৭ ইন্দাস তৃণমূল রুনু মেটে বিজেপি নির্মল ধাড়া সিপিআই(এম) নয়ন শীল
২৫৮ সোনামুখী তৃণমূল শ্যামল সাঁতরা বিজেপি দিবাকর ঘৌর্মি সিপিআই(এম) অজিত রায়
পূর্ব বর্ধমান জেলা
২৫৯ খণ্ডঘোষ তৃণমূল নবীনচন্দ্র বাগ বিজেপি বিজন মণ্ডল সিপিআই(এম) অসীমা রা ১৭ এপ্রিল, ২০২১
২৬০ বর্ধমান দক্ষিণ তৃণমূল খোকন দাস বিজেপি সন্দীপ নন্দী সিপিআই(এম) পৃথা তা
২৬১ রায়না তৃণমূল শম্পা ধাড়া বিজেপি মানিক রায় সিপিআই(এম) বাসুদেব খান
২৬২ জামালপুর তৃণমূল অলোক কুমার মাঝি বিজেপি বলরাম ব্যাপারি মার্ক্সবাদী ফব[গ] সমর হাজরা
২৬৩ মন্তেশ্বর তৃণমূল সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বিজেপি সৈকত পাঁজা সিপিআই(এম) অনুপম ঘোষ
২৬৪ কালনা তৃণমূল দেবপ্রসাদ বাগ বিজেপি বিশ্ব্জিৎ কুন্ডু সিপিআই(এম) নীরব খান
২৬৫ মেমারি তৃণমূল মধুসূদন ভট্টাচার্য বিজেপি ভীষ্মদেব ভট্টাচার্য সিপিআই(এম) সনৎ বন্দ্যোপাধ্যায়
২৬৬ বর্ধমান উত্তর তৃণমূল নীতিশ কুমার মালিক বিজেপি রাধাকান্ত রায় সিপিআই(এম) চণ্ডীচরণ লেট
২৬৭ ভাতার তৃণমূল মনগোবিন্দ অধিকারী বিজেপি মহেন্দ্র কোঙার সিপিআই(এম) নজরুল হক ২২ এপ্রিল, ২০২১
২৬৮ পূর্বস্থলী দক্ষিণ তৃণমূল স্বপন দেবনাথ বিজেপি রাজীব কুমার ভৌমিক কংগ্রেস অভিজিৎ ভট্টাচার্য
২৬৯ পূর্বস্থলী উত্তর তৃণমূল তপন চট্টোপাধ্যায় বিজেপি গোবর্ধন দাস সিপিআই(এম) প্রদীপ কুমার সাহা
২৭০ কাটোয়া তৃণমূল রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বিজেপি শ্যামা মজুমদার কংগ্রেস প্রবীর গঙ্গোপাধ্যায়
২৭১ কেতুগ্রাম তৃণমূল শেখ শাহনাওয়াজ বিজেপি মথুরা ঘোষ সিপিআই(এম) মিজানুর রহমান
২৭২ মঙ্গলকোট তৃণমূল অপূর্ব চৌধুরী বিজেপি রাণা প্রতাপ গোস্বামী সিপিআই(এম) শাহজাহান চৌধুরী
২৭৩ আউসগ্রাম তৃণমূল অভেদানন্দ থান্ডের বিজেপি কলিতা মাঝি সিপিআই(এম) চঞ্চল মাঝি
২৭৪ গলসি তৃণমূল নেপাল ঘোড়ুই বিজেপি বিকাশ বিশ্বাস ফব নন্দ পণ্ডিত
পশ্চিম বর্ধমান জেলা
২৭৫ পাণ্ডবেশ্বর তৃণমূল নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী বিজেপি জিতেন্দ্র তিওয়ারি সিপিআই(এম) সুভাষ বাউড়ি ২৬ এপ্রিল, ২০২১
২৭৬ দুর্গাপূর পূর্ব তৃণমূল প্রদীপ মজুমদার বিজেপি কর্নেল দীপ্তাংশু চৌধুরী সিপিআই(এম) আভাস রায়চৌধুরী
২৭৭ দুর্গাপুর পশ্চিম তৃণমূল বিশ্বনাথ পাড়িয়াল বিজেপি লক্ষ্মণ ঘড়াই কংগ্রেস দেবেশ চক্রবর্তী
২৭৮ রানিগঞ্জ তৃণমূল তাপস বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি ড. বিজন মুখোপাধ্যায় সিপিআই(এম) হেমন্ত প্রভাকর
২৭৯ জামুড়িয়া তৃণমূল হরেরাম সিংহ বিজেপি তাপস রায় সিপিআই(এম) ঐশী ঘোষ
২৮০ আসানসোল দক্ষিণ তৃণমূল সায়নী ঘোষ বিজেপি অগ্নিমিত্রা পাল সিপিআই(এম) প্রশান্ত ঘোষ
২৮১ আসানসোল উত্তর তৃণমূল মলয় ঘটক বিজেপি কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায় আরএসএমপি মহম্মদ মুস্তাকিন
২৮২ কুলটি তৃণমূল উজ্জ্ব্ল চট্টোপাধ্যায় বিজেপি ড. অজয় পোদ্দার কংগ্রেস চণ্ডীদাস চট্টোপাধ্যায়
২৮৩ বারাবনি তৃণমূল বিধান উপাধ্যায় বিজেপি অরিজিৎ রায় কংগ্রেস রণেন্দ্রনাথ বাগচী
বীরভূম জেলা
২৮৪ দুবরাজপুর তৃণমূল দেবব্রত সাহা বিজেপি অনুপ রায় ফব বিজয় বাগদী ২৯ এপ্রিল, ২০২১
২৮৫ সিউড়ি তৃণমূল বিকাশ রায়চৌধুরী বিজেপি জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায় কংগ্রেস চঞ্চল চট্টোপাধ্যায়
২৮৬ বোলপুর তৃণমূল চন্দ্রনাথ সিংহ বিজেপি অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় আরএসপি তপন হোড়
২৮৭ নানুর তৃণমূল বিধানচন্দ্র মাঝি বিজেপি তারক সাহা সিপিআই(এম) শ্যামলী প্রধান
২৮৮ লাভপুর তৃণমূল অভিজিৎ সিংহ বিজেপি বিশ্ব্জিৎ মণ্ডল সিপিআই(এম) সৈয়দ মাহফুজুল করিম
২৮৯ সাঁইথিয়া তৃণমূল নীলাবতী সাহা বিজেপি পিয়া সাহা সিপিআই(এম) মৌসুমী কোনাই
২৯০ ময়ূরেশ্বর তৃণমূল অভিজিৎ রায় বিজেপি শ্যামাপদ মণ্ডল আরএসএমপি কাশীনাথ পাল
২৯১ রামপুরহাট তৃণমূল ড.আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি শুভাশিস চৌধুরী সিপিআই(এম) সঞ্জীব বর্মণ
২৯২ হাঁসন তৃণমূল অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায় বিজেপি নিখিল বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেস মিলটন রশিদ
২৯৩ নলহাটি তৃণমূল রাজেন্দ্রপ্রসাদ সিং বিজেপি তাপস কুমার যাদব ফব দীপক চট্টোপাধ্যায়
২৯৪ মুরারই তৃণমূল মোশারফ হোসেন বিজেপি দেবাশিস রায় কংগ্রেস মহম্মদ আসিফ ইকবাল

সমীক্ষা[সম্পাদনা]

বুথফেরত সমীক্ষা[সম্পাদনা]

২৭ মার্চ তারিখে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ভোটারদের প্রভাবিত করতে এমন যে কোনও জনমত সমীক্ষা ও বুথফেরত সমীক্ষার ফলপ্রকাশ ২৯ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার পূর্বে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল।[১০১][১০২] যদিও পরবর্তী অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে সময়টি ওই দিনেই সন্ধ্যা সাতটায় পিছিয়ে আনা হয়।[১০৩]

প্রকাশের তারিখ সমীক্ষক সংস্থা সংখ্যাধিক্য
তৃণমূল+ বিজেপি+ সং. মোর্চা অন্যান্য
২৯ এপ্রিল, ২০২১ এবিপি নিউজ- সি-ভোটার[১০৪] ১৫২-১৬৪ ১০৯-১২১ ১৪-২৫ - ৩১-৫৫
৪২.১% ৩৯.২% ১৫.৪% - ২.৯%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ এন কে ডিজিটাল ম্যাগাজিন[১০৫] (১৯৩+১)=১৯৪ ৭৩ ২২ ১২১
৩০ এপ্রিল - ১ মে, ২০২১ এখন বিশ্ববাংলা সংবাদ[১০৬][১০৭][১০৮][১০৯][১১০][১১১][১১২][১১৩] ২১৭ ৬৩ ১০±২ ১৫৪
২৯ এপ্রিল, ২০২১ টুডে’জ চাণক্য[১১৪] ১৮০ ১০৮ - ৭২
৪৬% ৩৯% ৯% - ৭%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ ইটিজি রিসার্চ[১১৫] ১৬৪-১৭৬ ১০৫-১১৫ ১০-১৫ - ৪৯-৭১
৪২.৪% ৩৯.১% ১৪.২% - ৩.৩%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ পি-মার্ক ১৫২-১৭২ ১১২-১৩২ ১০-২০ - ২০-৬০
২৯ এপ্রিল, ২০২১ নিউজএক্স – পোলস্ট্র্যাট[১১৬][১১৭] ১৪২-১৫২ ১২৫-১৩৫ ১৬-২৬ - ৭-২৭
৪৩.৯% ৪০.৫% ১০.৭% - ৩.৪%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ ইন্ডিয়া টুডে- অ্যাক্সিস-মাই-ইন্ডিয়া[১১৮] ১৩০-১৫৬ ১৩৪-১৬০ ০-১ - ত্রিশঙ্কু
৪৪% ৪৩% ১০% - ১%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ রিপাবলিক টিভি - সিএনএক্স[১১৯] ১২৮-১৩৮ ১৩৮-১৪৮ ১১-২১ - ০-২০
৪০.০৭% ৪২.৭৫% ১৪.৪২% - ২.৬৮%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ ইন্ডিয়া টিভি – পিপলস পালস[১২০] ৮৮ ১৯২ ১২ - ১০৪
২৯ এপ্রিল, ২০২১ জন-কি-বাত[১২১] ১০৪-১২১ ১৬২-১৮৫ ৩-৯ - ৫৮-৬৪
৪৪-৪৫% ৪৬-৪৮% ৫-৮% - ১-৪%
২৯ এপ্রিল, ২০২১ প্রিয় বন্ধু মিডিয়া[১২২] ৮২ ১৮৭ ২২ ১০৫
২৯ এপ্রিল, ২০২১ আরামবাগ টিভি[১২৩] ৮৪-১১৯ ১৫৯-১৯২ ১১-২০ - ৪০-১০৮
২৯ এপ্রিল, ২০২১ সুদর্শন নিউজ[১২৪] ৯৭-১০৪ ১৭০-১৮০ ৬-১০ ১-৩ ৬৬-৮৩
সামগ্রিক গড় ১৩৭-১৪৭ ১৩১-১৪২ ১১-১৬ অনিষ্পন্ন

জনমত সমীক্ষা[সম্পাদনা]

প্রকাশের তারিখ সমীক্ষক সংস্থা সংখ্যাধিক্য
তৃণমূল+ বিজেপি+ সংযুক্ত মোর্চা অন্যান্য
২৫ মার্চ ২০২১ পি-মার্ক[১২৫][১২৬] ১২১-১৩০ ১৪৯-১৫৮ ১১-১৫ - ১৯-৩৭
৪৩% ৪২% ১৩% - ১%
২৪ মার্চ ২০২১ টাইমস নাও সি-ভোটার [১২৭] ১৫২-১৬৮ ১০৪-১২০ ১৮-২৬ ০-২ ৩২-৬৪
৪২% ৩৭% ১৩% ৮%
২৪ মার্চ ২০২১ টিভি৯ ভারতবর্ষ[১২৮] ১৪৬ ১২২ ২৩ অনিষ্পন্ন
৩৯.৬% ৩৭.১% ১৭.৪% ৫.৯%
২৩ মার্চ ২০২১ এবিপি নিউজ - সিএনএক্স[১২৯] ১৩৬-১৪৬ ১৩০-১৪০ ১৪-১৮ ১-৩ অনিষ্পন্ন
৪০% ৩৮% ১৬% ৬%
২৩ মার্চ ২০২১ ইন্ডিয়া টিভি - পিওপলস পালস[১৩০] ৯৫ ১৮৩ ১৬ ৮৮
২৩ মার্চ ২০২১ জন-কি-বাত[১৩১][১৩২] ১১৪-১৩৪ ১৫০-১৬২ ১০-১৪ ১৬-৪৪
৪৪.১% ৪৪.৮% ৭.৫% ৩%
২০ মার্চ ২০২১ পোলস্ট্র‍্যাট[১৩৩] ১৬৩ ১০২ ২৯ ৬১
৪৪.৪% ৩৭.৪% ১১.৭% - ৭%
১৫ মার্চ ২০২১ এবিপি নিউজ - সি ভোটার ১৫০-১৬৬ ৯৮-১১৪ ২৩-৩১ ৩-৫ ৩৬-৫২
৪৩.৪% ৩৮.৪% ১২.৭% ৫.৫%
৮ মার্চ ২০২১ এবিপি নিউজ - সিএনএক্স[১৩৪] ১৫৪-১৬৪ ১০২-১১২ ২২-৩০ ০১-০৩ ৪২-৬২
৪২% ৩৪% ২০% ৪%
৮ মার্চ ২০২১ টাইমস নাও - সি ভোটার[১৩৫] ১৪৬-১৬২ ৯৯-১১২ ২৯-৩৭ ৩১-৬৩
৪২.২% ৩৭.৫% ১৪.৮% ৫.৫%
১৩-১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ এন কে ডিজিটাল ম্যাগাজিন[ঘ][১৩৬][১৩৭][১৩৮][১৩৯][১৪০] ১৯২ ৬৯ ৩০ ১২৩
৪৯% ৩৯% ১০% ২% ১০%

এন কে ডিজিটাল ম্যাগাজিন-এর প্রাকনির্বাচনী সমীক্ষা জঙ্গিপুর ও সামশেরগঞ্জে (যেখানে সাধারণ নির্বাচন স্থগিত রাখা হয়েছিল) এবং ভবানীপুর উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের জয়ের পূর্বাভাস দিয়েছে।[১৪১][১৪২][১৪৩]

নির্বাচন[সম্পাদনা]

কোভিড-১৯ অতিমারীর মধ্যে এই নির্বাচন আয়োজিত হয়েছিল বলে ভারতের নির্বাচন কমিশন প্রয়োজনীয় নির্দেশাবলি জারি করেছিল।[১৪৪]

কোভিড-১৯ নির্দেশাবলি[সম্পাদনা]

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ অতিমারীর প্রেক্ষাপটে ভারতের নির্বাচন কমিশন নির্বাচন আয়োজনের জন্য স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত বিভিন্ন নির্দেশাবলি জারি করে। এই নির্দেশাবলির মধ্যে ছিল মাস্কের ব্যবহার, নির্বাচনী বুথের স্যানিটাইজেশন,পোলিং বুথে ঢোকার আগে থার্মাল স্ক্যানারের ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ইত্যাদি।[১৪৫] পোলিং স্টেশনে সর্বোচ্চ ভোটারের সংখ্যা ১৫০০ থেকে কমিয়ে ১০০০ করা হয়।[১৪৬]

২০২১ সালের ৬ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গের উলুবেড়িয়ায় বিধানসভা নির্বাচনের তৃতীয় পর্যায়ে একজন স্বেচ্ছাসেবক ভোটারদের থার্মাল স্ক্রিনিং করছেন।

রাজ্যে কোভিড-১৯ সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত ঘটলে[১৪৭] নির্বাচন কমিশন কোভিড-১৯ নির্দেশাবলি কঠোরভাবে অনুসরণ করতে বলে সকল স্বীকৃত রাজ্য ও জাতীয় রাজনৈতিক দলগুলিকে সতর্কবার্তা প্রেরণ করে।[১৪৮] ১৬ এপ্রিল তারিখ থেকে নির্বাচন কমিশন সন্ধ্যা সাত থেকে সকাল দশটা পর্যন্ত সকল রাজনৈতিক সভা, সমাবেশ, মিছিল ও পথনাটিকা নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।[১৪৯] ভারতে কোভিড-১৯ অতিমারীর দ্বিতীয় তরঙ্গের প্রেক্ষিতে ২০২১ সালের ২২ এপ্রিল সপ্তম ও অষ্টম পর্যায়ের ভোটগ্রহণের ঠিক পূর্বে ভারতের নির্বাচন কমিশন সাইকেল, বাইক ও যানবাহন নিয়ে সব ধরনের রোড শো-গুলির অনুমতি প্রত্যাহার করে নেয় এবং সেই সঙ্গে জানিয়ে দেয় যে জনসমাবেশগুলিতে পাঁচশো জনের বেশি লোককে প্রবেশাধিকার দেওয়া যাবে না। [১৫০] ২৭ এপ্রিল ভারতের নির্বাচন কমিশন ভোটগণনার দিন ও তার পরে সব ধরনের বিজয় মিছিল নিষিদ্ধ করে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে।[১৫১]

নিরাপত্তার প্রস্তুতি[সম্পাদনা]

পূর্ব বর্ধমান জেলার ২৬০ নং বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে এক প্রবীণ ভোটার সিআরপিএফ জওয়ানদের সাহায্যে ভোট দিচ্ছেন।

নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষিত হওয়ার আগে বেশ কয়েকটি হিংসাত্মক ঘটনা, হুমকি ও খুনের ঘটনা ঘটেছিল। তাই ভারতের নির্বাচন কমিশনস্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে পশ্চিমবঙ্গে বারো কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগের নির্দেশ দেয়। নির্বাচনমুখী রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা সুনিশ্চিত করতে ২৫ ফেব্রুয়ারি অন্তত ১২৫টি অতিরিক্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী পশ্চিমবঙ্গে প্রেরণের আদেশ জারি করা হয়। নির্বাচন কমিশন জানায় যে বিশেষভাবে সংবেদনশীল ক্ষেত্রগুলিতে বাহিনী নিয়োগে জোর দেওয়া হয়েছে।[১৫২] ৬০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বল (সিআরপিএফ), ৩০ কোম্পানি সশস্ত্র সীমা বল (এসএসবি), ২৫ কোম্পানি সীমা সুরক্ষা বল (বিএসএফ), ৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় ঔদ্যোগিক সুরক্ষা বল (সিআইএসএফ) ও ৫ কোম্পানি ভারত তিব্বত সীমা পুলিশ বল (আইটিবিপি) নিয়োগ করা হয়।[১৫৩] মোতায়েন করা কেন্দ্রীয় বাহিনীর মোট সংখ্যা ধাপে ধাপে ৭২৫ কোম্পানি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়।[১৫৪][১৫৫] নির্বাচনের তৃতীয় পর্যায়ের পরে অতিরিক্ত ২০০ সিএপিএফ কোম্পানি মোতায়েন করার পর মোট নিযুক্ত কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সংখ্যা বেড়ে ১,০০০ কোম্পানিতে পরিণত হয়।[১৫৬]

নির্বাচনের দ্বিতীয় পর্যায়ে তমলুকহলদিয়া মহকুমা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।[১৫৭] চতুর্থ পর্যায়ের ভোটগ্রহণের পরে ভারতের নির্বাচন কমিশন অতিরিক্ত ৭১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করে। তখন মোতায়েন করা মোট কেন্দ্রীয় বাহিনীর সংখ্যা দাঁড়ায় ১,০৭১ কোম্পানি।[১৫৮]

ভোটগ্রহণ[সম্পাদনা]

২০২১ সালের ৫ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গের উলুবেড়িয়ার একটি বিতরণ কেন্দ্রে নির্বাচন আধিকারিকেরা বিধানসভা নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্র (ইভিএম) ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি বহন করে নিয়ে যাচ্ছেন।
২০২১ সালের ১০ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের চতুর্থ পর্যায়ে কলকাতার রিজেন্ট পার্ক অঞ্চলের নেহেরু কলোনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটগ্রহণ বুথে প্রথমবারের ভোটাররা ভোটদানের পর ভোটের কালির চিহ্ন প্রদর্শন করছেন।
২০২১ সালের ৬ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের তৃতীয় পর্যায়ে উলুবেড়িয়ার একটি ভোটগ্রহণ বুথে ভোটাররা ভোটদানের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে রয়েছেন।

ভোটের হার[সম্পাদনা]

পর্যায় অনুযায়ী ভোটের হার
পর্যায় আসন সংখ্যা মোট ভোটারের সংখ্যা প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা শতাংশ হার
প্রথম ৩০ ৭৩,৮০,৯৪২ ৮৪.৬৩%
দ্বিতীয় ৩০ ৭৫,৯৪,৫৪৯ ৮৬.১১%
তৃতীয় ৩১ ৭৮,৫২,৪২৫ ৮৪.৬১%
চতুর্থ ৪৪ ১,১৫,৮১,০২২ ৭৯.৯০%
পঞ্চম ৪৫ ১,১৩,৪৭,৩৪৪ ৮২.৪৯%
ষষ্ঠ ৪৩ ১,০৩,৮৭,৭৯১ ৮২.০০%
সপ্তম ৩৪ ৮১,৮৮,৯০৭ ৭৬.৮৯%
অষ্টম ৩৫ ৮৪,৭৭,৭২৮ ৭৮.৩২%
পরে ৪,৯০,২১২
মোট ২৯৪ ৭,৩২,৯৮,৪২৮
৫,৯৯,৩৫,৯৮৮ ৮১.৮৭%

প্রথম পর্যায়[সম্পাদনা]

প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ১০,২৮৮টি ভোটগ্রহণ কেন্দ্র জুড়ে প্রায় ৭৪ লক্ষ ভোটার নথিভুক্ত হয়েছিলেন। ৫,৩৯২টি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ওয়েবকাস্টিং-এর ব্যবস্থা করা হয়। এই পর্যায়ে মোট ১০,২৮৮টি ব্যালট ইউনিট (বিইউ), ১০,২৮৮টি কন্ট্রোল ইউনিট (সিইউ) ও ১০,২৮৮টি ভিভিপ্যাট ব্যবহৃত হয়।[১৫৯]

প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনের আগে দুই অজ্ঞাত-পরিচয় দুষ্কৃতি নির্বাচন কমিশনের একটি গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিল।[১৬০] ২৭ মার্চ অর্থাৎ প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনের দিন বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্রে গণ্ডগোলের অভিযোগে কাঁথি দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের মাজনার ১৭২ নং বুথে তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকেরা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের অভিযোগ ছিল, কোনও ভোটার তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিলে ভিভিপ্যাটে বিজেপির পদ্ম চিহ্ন দেখাচ্ছে। শুধু মাজনায় নয়, পার্শ্ববর্তী বুথেও একই অভিযোগ ওঠে।[১৬১][১৬২] পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সাতসাতমাল গ্রামে নির্বাচনের প্রথম পর্যায়ের দিন গোলাগুলি ও বোমাবাজির ঘটনায় দুই নিরাপত্তাকর্মী আহত হন বলে খবর পাওয়া যায়।[১৬৩] নির্বাচনের প্রথম পর্যায়ে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় এক বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার হয়।[১৬৪] প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনে বাঁকুড়া জেলায় একটি বোমা বিস্ফোরণে তিন জন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী আহত হন।[১৬৫]

প্রথম পর্যায়ের নির্বাচনের দিন দাঁতন বিধানসভা কেন্দ্রে কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ বলের (সিআরপিএফ) বিরুদ্ধে ভোটারদের ভোট দিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। স্থানীয় একটি থানায় অভিযোগ দায়ের করে বলা হয় যে, সিআরপিএফ বিজেপি কর্মীদের বুথে প্রবেশ এবং তাদের নামে ভোট দেওয়ানোতে সাহায্য করছে।[১৬৬] ২৮ মার্চ ভারতের নির্বাচন কমিশন জানায় যে, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার নরেন্দ্রপুর থেকে ৫৬টি বোমা উদ্ধার হয়েছে।[১৬৭]

দ্বিতীয় পর্যায়[সম্পাদনা]

দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ১০,৫৯২টি নির্বাচন কেন্দ্রে প্রায় ৭৩ লক্ষ ভোটার নথিভুক্ত হয়েছিলেন। ৫,৫৩৫টি নির্বাচন কেন্দ্রে ওয়েবকাস্টিং-এর আয়োজন করা হয়েছিল। এই পর্যায়ে মোট ১০,৬২০টি ব্যালট ইউনিট (বিইউ), ১০,৬২০টি কন্ট্রোল ইউনিট (সিইউ) ও ১০,৬২০টি ভিভিপ্যাট ব্যবহৃত হয়। নগদ টাকা, মদ, ড্রাগ ও বিনামূল্যে পণ্য সরবরাহ করে ভোটারদের প্রভাবিত করা হচ্ছে কিনা তা পরীক্ষা করতে ১,১৩৭টি ফ্লাইং স্কোয়াড (এফএস) ও ১,০১২টি স্ট্যাটিক সার্ভিলেন্স টিম (এসএসটি) কার্যকরী করা হয়েছিল। কলকাতা, দুর্গাপুরের অন্ডালবাগডোগরায় তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের ৩টি এয়ার ইনটেলিজেন্স ইউনিট স্থাপিত হয়। সারা পশ্চিমবঙ্গ থেকে আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের ১৪,৪৯৯টি অভিযোগ দায়ের হয়, যার মধ্যে নির্বাচনের দিন সাড়ে চারটে পর্যন্ত ১১,৬৩০টি অভিযোগের নিষ্পত্তি করা হয়।[১৬৮]

দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের আগে ৩০ মার্চ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ময়না বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা একটি নির্বাচনী প্রচারাভিযানের সময় আক্রান্ত হন এবং তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। তিনি দাবি করেন লাঠি ও রড ঘোরাতে ঘোরাতে শতাধিক দুষ্কৃতি তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়েছিলেন। এই ঘটনায় তাঁর কাঁধে চোট লাগে।[১৬৯]

তৃতীয় পর্যায়[সম্পাদনা]

তৃতীয় পর্যায়ে ১০,৮৭১টি নির্বাচন কেন্দ্রে মোট নথিভুক্ত ভোটারের সংখ্যা ছিল ৭,৮৫২,৪২৫, এর মধ্যে ৬৪,০৮৩ জন ছিলেন শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী ভোটার এবং ১২৬,১৭৭ জন ভোটার ছিলেন অশীতিপর। তৃতীয় পর্যায়ে ২২ জন সাধারণ পর্যবেক্ষক, ৭ জন পুলিশ পর্যবেক্ষক এবং ৯ জন ব্যয়নির্বাহী পর্যবেক্ষক নিযুক্ত হন।[১৭০]

তৃতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের আগে উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার ব্যারাকপুরে বিজেপি প্রার্থীর মনোনয়ন জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে গোলাগুলি চলে এবং পরে বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।[১৭১] তৃতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের আগে ২ এপ্রিল ভাঙড় বিধানসভা কেন্দ্র থেকে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ ৪১টি তাজা বোমা বাজেয়াপ্ত করে।[১৭২]

চতুর্থ পর্যায়[সম্পাদনা]

চতুর্থ পর্যায়ের নির্বাচনে মোট নথিভুক্ত ভোটারের সংখ্যা ছিল ১১,৫৮১,০২২, যার মধ্যে ৫০,৫২৩ জন ছিলেন শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী এবং ২০৩,৯২৭ জন অশীতিপর প্রবীণ নাগরিক।[১৭৩]

নির্বাচনের তৃতীয় পর্যায় এক তৃণমূল কংগ্রেস নেতার বাড়িতে বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্র ও ভিভিপ্যাট যন্ত্র পাওয়া যায়। পরে সেক্টর অফিসারকে বরখাস্ত করা হয়।[১৭৪]

নির্বাচনের চতুর্থ পর্যায়ে কোচবিহার জেলার শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রে দু’টি প্রধান হিংসাত্মক ঘটনা ঘটে। পাঠানটুলিতে প্রথম বারের ভোটার আনন্দ বর্মণ ভোটদানের পর অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতিদের গুলিতে নিহত হন। তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি উভয়েই তাঁকে নিজেদের কর্মী বলে দাবি করলেও আনন্দ বর্মণের পরিবারের সদস্যরা জানান যে তিনি বিজেপি কর্মী ছিলেন।[১৭৫] শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রেরই জোড়পাটকিতে পোলিং স্টেশনে প্রহরারত সিআইএসএফ জওয়ানদের গুলিতে চার গ্রামবাসীর মৃত্যু ঘটে। জওয়ানেরা অভিযোগ করেন যে এই গ্রামবাসীরা দলবদ্ধ হয়ে তাঁদের আক্রমণ করেছিলেন। তাঁরা জানান যে তাঁরা একটি স্থানীয় বালককে প্রহার করেছেন বলে গুজব রটে গেলে এই গ্রামবাসীরা নিরাপত্তারক্ষীদের আক্রমণ করেন এবং তাঁরাও আত্মরক্ষার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হন। মৃত গ্রামবাসীদের পরিবারবর্গ দাবি করেন, এই গুলিচালনা ইচ্ছাকৃত এবং সেই গ্রামবাসীরা শুধুই ভোট দেওয়ার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।[১৭৬][১৭৭]

পঞ্চম পর্যায়[সম্পাদনা]

এই পর্যায়ের নির্বাচনে মোট নথিভুক্ত ভোটারের সংখ্যা ছিল ১১,৩৪৭,৩৪৪ যার মধ্যে ৬০,১৯৮ জন শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী এবং ১৭৯,৬৩৪ জন অশীতিপর প্রবীণ নাগরিক।[১৭৮]

নির্বাচনের পঞ্চম পর্যায়ে বিধাননগর বিধানসভা কেন্দ্রের শান্তিনগরে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি কর্মীদের মধ্যে ইট ও পাথর ছোঁড়াছুঁড়ির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় দুই পক্ষের আট জন আহত হন।[১৭৯]

ষষ্ঠ পর্যায়[সম্পাদনা]

এই পর্যায়ের নির্বাচনে মোট নথিভুক্ত ভোটারের সংখ্যা ছিল ১০,৩৮৭,৭৯১ যার মধ্যে ৬৪,২৬৬ জন শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী এবং ১৫৭,২৯০ জন অশীতিপর প্রবীণ নাগরিক। [১৮০]

ষষ্ঠ পর্যায়ের নির্বাচনের আগে মালদহ জেলায় নির্বাচনী প্রচারকালে গোপালচন্দ্র সাহা নামে এক বিজেপি প্রার্থী গুলিবিদ্ধ হন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।[১৮১]

অষ্টম পর্যায়[সম্পাদনা]

২৯ এপ্রিল অষ্টম পর্যায়ের নির্বাচনে উত্তর কলকাতার মহাজাতি সদনের কাছে বোমা ছোঁড়া হয়েছিল।[১৮২]

ফলাফল[সম্পাদনা]

২৯৪ কেন্দ্রের মধ্যে ২৯২টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষিত হয় ২০২১ সালের ২ মে তারিখে। ২টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার কথা ১৯ মে।

২১৩ ৭৭
তৃণমূল বিজেপি আইএসএফ জিজেএম (টি)

দল অনুযায়ী প্রাপ্ত আসনের শতাংশ

  তৃণমূল (৭২.৪৫%)
  বিজেপি (২৬.১৯%)
  আইএসএফ (০.৩৪%)
  জিজেএম (টি) (০.৩৪%)
রাজনৈতিক দল ও জোট প্রাপ্ত ভোটের পরিসংখ্যান প্রাপ্ত আসন
প্রাপ্ত ভোট % ±শ.সূ. প্রার্থীসংখ্যা প্রাপ্ত আসনসংখ্যা +/−
সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস (তৃণমূল) ২৮,৭৩৫,৪২০ ৪৭.৯৪ বৃদ্ধি ২৮৮ ২১৩ বৃদ্ধি
ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ২২,৮৫০,৭১০ ৩৮.১৩ বৃদ্ধি ২৯১ ৭৭ বৃদ্ধি৭৪
ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী) (সিপিআই(এম)) ২,৮৩৭,২৭৬ ৪.৭৩ হ্রাস ১৩৭ হ্রাস২৬
ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস (কংগ্রেস) ১,৭৫৭,১৩১ ২.৯৪ হ্রাস ৯১ হ্রাস৪৪
ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ) বৃদ্ধি ২৮ বৃদ্ধি
গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা (জিজেএম (টি)) হ্রাস অপরিবর্তিত
নোটা
মোট ৫৯,৯৩৫,৯৮৮ ১০০.০ ২৯২ ±০

জোট অনুযায়ী ফলাফল[সম্পাদনা]

তৃণমূল+ প্রাপ্ত আসন সংযুক্ত মোর্চা প্রাপ্ত আসন এনডিএ প্রাপ্ত আসন অন্যান্য প্রাপ্ত আসন
তৃণমূল ২১৩ কংগ্রেস বিজেপি ৭৭ নির্দল
জিজেএম(জি) সিপিআই(এম) এজেএসইউ এসইউসিআই(সি)
জিজেএম(টি) সিপিআই জেডি(ইউ)
নির্দল আরএসপি সিপিআই(এমএল)এল
ফব এআইএমআইএম
আইএসএফ সিপিআই(এমএল)আরএস
বিএসপি
এনপিপি
মোট ২১৪ মোট মোট ৭৭ মোট
পরিবর্তন +৩ পরিবর্তন -৭৬ পরিবর্তন +৭৪ পরিবর্তন

জেলা অনুযায়ী ফলাফল[সম্পাদনা]

অঞ্চল জেলা মোট আসন
তৃণমূল + এনডিএ সং. মোর্চা অন্যান্য
উত্তরবঙ্গ ও পার্বত্য অঞ্চল কোচবিহার
আলিপুরদুয়ার
জলপাইগুড়ি
কালিম্পং জেলা
দার্জিলিং
উত্তর দিনাজপুর
দক্ষিণ দিনাজপুর
মালদহ ১২
মোট ৫৪ ২৪ ৩০
বৃহত্তর কলকাতা নদিয়া ১৭
মুর্শিদাবাদ ২০ ১৮
উত্তর চব্বিশ পরগনা ৩৩ ২৮
দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা ৩১ ৩০
হাওড়া ১৬ ১৬
কলকাতা ১১ ১১
হুগলি ১৮ ১৪
মোট ১৪৬ ১২৫ ২০
জঙ্গলমহল ও মেদিনীপুর অঞ্চল ঝাড়গ্রাম
পশ্চিম মেদিনীপুর ১৫ ১৩
পূর্ব মেদিনীপুর ১৬
পুরুলিয়া
বাঁকুড়া ১২
মোট ৫৬ ৩৩ ২৩
মধ্যবঙ্গ পশ্চিম বর্ধমান
পূর্ব বর্ধমান ১৬ ১৬
বীরভূম ১১ ১০
মোট ৩৬ ৩২

নির্বাচনের পর্যায় অনুযায়ী ফলাফল[সম্পাদনা]

নির্বাচনের পর্যায় মোট আসন তৃণমূল+ বিজেপি+ সংযুক্ত মোর্চা অন্যান্য
প্রথম পর্যায় ৩০ ১৮ ১২
দ্বিতীয় পর্যায় ৩০ ১৯ ১১
তৃতীয় পর্যায় ৩১ ২৭
চতুর্থ পর্যায় ৪৪ ৩১ ১২
চতুর্থ পর্যায় ৪৫ ২৮ ১৭
ষষ্ঠ পর্যায় ৪৩ ৩৫
সপ্তম পর্যায় ৩৪ ২৫
অষ্টম পর্যায় ৩৫ ৩১
মোট ২৯২ ২১৪ ৭৭

বিধানসভা কেন্দ্র অনুযায়ী ফলাফল[সম্পাদনা]

বিধানসভা কেন্দ্র প্রদত্ত ভোট

(%)

বিজয়ী দ্বিতীয় স্থানাধিকারী ব্যবধান নির্বাচনের তারিখ
# নাম রাজনৈতিক দল প্রার্থী প্রাপ্ত ভোট % রাজনৈতিক দল প্রার্থী প্রাপ্ত ভোট %
কোচবিহার জেলা
মেখলিগঞ্জ
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল পরেশচন্দ্র অধিকারী ৯৯৩৩৮ ৪৯.৯৮ বিজেপি দধিরাম রায় ৮৪৬৫৩ ৪২.৫৯ ১৪৬৮৫ ১০ এপ্রিল, ২০২১
মাথাভাঙা
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি সুশীল বর্মণ ১১৩২৪৯ ৫২.৮৭ তৃণমূল গিরীন্দ্রনাথ বর্মণ ৮৭১১৫ ৪০.৬৭ ২৬১৩৪
কোচবিহার উত্তর
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি সুকুমার রায় ১২০৪৮৩ ৪৯.৪০ তৃণমূল বিনয়কৃষ্ণ বর্মণ ১০৫৮৬৮ ৪৩.৪০ ১৪৬১৫
কোচবিহার দক্ষিণ বিজেপি নিখিল রঞ্জন দে ৯৬৬২৯ ৪৬.৮৩ তৃণমূল অভিজিৎ দে ভৌমিক ৯১৮৩০ ৪৪.৩১ ৪৭৯৯
শীতলকুচি
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি বরেনচন্দ্র বর্মণ ১২৪৯৫৫ ৫০.৮০ তৃণমূল পার্থপ্রতিম রায় ১০৭১৪০ ৪৩.৫৬ ১৭৮১৫
সিতাই
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল জগদীশচন্দ্র বর্মা বাসুনিয়া ১১৭৯০৮ ৪৯.৪২ বিজেপি দীপক কুমার রায় ১০৭৭৯৬ ৪৫.১৮ ১০১১২
দিনহাটা বিজেপি নিশীথ প্রামাণিক ১১৬০৩৫ ৪৭.৬০ তৃণমূল উদয়ন গুহ ১১৫৯৭৮ ৪৭.৫৮ ৫৭
নাটাবাড়ি বিজেপি মিহির গোস্বামী ১১১৭৪৩ ৫১.৪৫ তৃণমূল রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ৮৮৩০৩ ৪০.৬৬ ২৩৪৪০
তুফানগঞ্জ বিজেপি মালতী রাভা রায় ১১৪৫০৩ ৫৪.৬৯ তৃণমূল প্রণব কুমার দে ৮৩৩০৫ ৩৯.৭৯ ৩১১৯৮
আলিপুরদুয়ার জেলা
১০ কুমারগ্রাম
(তফসিলি উপজাতি)
বিজেপি মনোজ কুমার ওঁরাও ১১১৯৭৪ ৪৮.১৬ তৃণমূল লাওস কুজুর ১০০৯৭৩ ৪৩.৪৩ ১১০০১ ১০ এপ্রিল, ২০২১
১১ কালচিনি
(তফসিলি উপজাতি)
বিজেপি বিশাল লামা ১০৩১০৪ ৫২.৬৫ তৃণমূল পাসাং লামা ৭৪৫২৮ ৩৮.০৬ ২৮৫৭৬
১২ আলিপুরদুয়ার বিজেপি সুমন কাঞ্জিলাল ১০৭৩৩৩ ৪৮.১৯ তৃণমূল সৌরভ চক্রবর্তী ৯১৩২৬ ৪১.০০ ১৬০০৭
১৩ ফালাকাটা বিজেপি দীপক বর্মণ ১০২৯৯৩ ৪৬.৭১ তৃণমূল সুভাষচন্দ্র রায় ৯৯০০৩ ৪৪.৯০ ৩৯৯০
১৪ মাদারিহাট বিজেপি মনোজ টিগ্গা ৯০৭১৮ ৫৪.৩৫ তৃণমূল রাজেশ লাকড়া ৬১০৩৩ ৩৬.৫৬ ২৯৬৮৫
জলপাইগুড়ি জেলা
১৫ ধূপগুড়ি
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি বিষ্ণুপদ রায় ১০৪৬৮৮ ৪৫.৬৪ তৃণমূল মিতালি রায় ১০০৩৩৩ ৪৩.৭৫ ৪৩৫৫ ১৭ এপ্রিল, ২০২১
১৬ ময়নাগুড়ি
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি কৌশিক রায় ১১৫৩০৬ ৪৮.৮৪ তৃণমূল মনোজ রায় ১০৩৩৯৫ ৪৩.৭৯ ১১৯১১
১৭ জলপাইগুড়ি
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল প্রদীপ কুমার বর্মা ৯৫৬৬৮ ৪২.৩৪ বিজেপি সুজিত সিংহ ৯৪৭২৭ ৪১.৯৩ ৯৪১
১৮ রাজগঞ্জ
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল খগেশ্বর রায় ১০৪৬৪১ ৪৮.৫ বিজেপি সুপেন রায় ৮৮৮৬৮ ৪১.১৯ ১৫৭৭৩
১৯ ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিজেপি শিখা চট্টোপাধ্যায় ১২৯০৮৮ ৪৯.৮৫ তৃণমূল গৌতম দেব ১০১৪৯৫ ৩৯.১৯ ২৭৫৯৩
২০ মাল
(তফসিলি উপজাতি)
তৃণমূল বুলু চিক বারাইক ৯৯০৮৬ ৪৬.৪৬ বিজেপি মহেশ বাগে ৯৩৬২১ ৪৩.৯ ৫৪৬৫
২১ নাগরাকাটা
(তফসিলি উপজাতি)
বিজেপি পুনা ভেংড়া ৭০৯৪৫ ৪৭.৭৮ তৃণমূল জোসেফ মুন্ডা ৫৬৫৪৩ ৩৮.০৮ ১৪৪০২
কালিম্পং জেলা
২২ কালিম্পং ৭২.৫৭ জিজেএম (তামাং) রুদেন সাদা লেপচা ৫৮২০৬ ৩৭.৫৯ বিজেপি শুভা প্রধান ৫৪৩৩৬ ৩৫.০৯ ৩৮৭০ ১৭ এপ্রিল, ২০২১
দার্জিলিং জেলা
২৩ দার্জিলিং ৬৮.০৯ বিজেপি নীরজ জিম্বা ৬৮৯০৭ ৪০.৮৮ জিজেএম (তামাং) কেশব রাজ শর্মা ৪৭৬৩১ ২৮.২৬ ২১৭২৬ ১৭ এপ্রিল, ২০২১
২৪ কার্শিয়াং ৭৩.৯৩ বিজেপি বিষ্ণুপ্রসাদ শর্মা ৭৩৪৭৫ ৪১.৮৬ জিজেএম (তামাং) শেরিং লামা দাহাল ৫৭৯৬০ ৩৩.০২ ১৫৫১৫
২৫ মাটিগাড়া-নকশালবাড়ি
(তফসিলি জাতি)
৮৩.৪৩ বিজেপি আনন্দময় বর্মণ ১৩৯৭৮৫ ৫৮.১০ তৃণমূল রাজেন সুন্দাস ৬৮৪৫৪ ২৮.৬৫ ৭০৮৪৮
২৬ শিলিগুড়ি ৭৭.৩৭ বিজেপি শংকর ঘোষ ৮৯৩৭০ ৫০.০৩ তৃণমূল ওম প্রকাশ মিশ্র ৫৩৭৮৪ ৩০.১১ ৩৫৫৮৬
২৭ ফাঁসিদেওয়া
(তফসিলি উপজাতি)
৮৬.০২ বিজেপি দুর্গা মুর্মু ১০৫৬৫১ ৫০.৮৯ তৃণমূল ছোটন কিস্কু ৭৭৯৪০ ৩৭.৫৫ ২৭৭১১
উত্তর দিনাজপুর জেলা
২৮ চোপড়া তৃণমূল হামিদুল রহমান ১২৪৯২৩ ৬১.২ বিজেপি মহম্মদ শাহিন আখতার ৫৯৬০৪ ২৯.৪ ৬৫৩১৯ ২২ এপ্রিল, ২০২১
২৯ ইসলামপুর তৃণমূল আব্দুল করিম চৌধুরী ১০০১৩১ ৫৮.৯১ বিজেপি সৌম্যরূপ মণ্ডল ৬২৬৯১ ৩৬.৮৮ ৩৭৪৪০
৩০ গোয়ালপোখর তৃণমূল মহম্মদ গুলাম রাব্বানি ১০৫৬৪৯ ৬৫.৪ বিজেপি গুলাম সারওয়ার ৩২১৩৫ ১৯.৮৯ ৭৩৫১৪
৩১ চাকুলিয়া তৃণমূল মিনহাজুল আরফিন আজাদ ৮৬৩১১ ৪৯.৭৮ বিজেপি শচীন প্রসাদ ৫২৪৭৪ ৩০.২৬ ৩৩৮৩৭
৩২ করণদিঘি তৃণমূল গৌতম পাল ১১৬৫৯৪ ৫৪.৭ বিজেপি সুভাষ সিংহ ৭৯৯৬৮ ৩৭.৫২ ৩৬৬২৬
৩৩ হেমতাবাদ
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল সত্যজিৎ বর্মণ ১১৬৪২৫ ৫২.১৪ বিজেপি চন্দ্রিমা রায় ৮৯২১০ ৩৯.৯৫ ২৭২১৫
৩৪ কালিয়াগঞ্জ
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি সৌমেন রায় ১১৬৭৬৮ ৪৮.৭১ তৃণমূল তপন দেব সিংহ ৯৪৯৪৮ ৩৯.৬১ ২১৮২০
৩৫ রায়গঞ্জ বিজেপি কৃষ্ণা কল্যাণী ৭৯৭৭৫ ৪৯.৪৪ তৃণমূল কানাতা লাল আগরওয়াল ৫৯০২৭ ৩৬.৫৮ ২০৭৪৮
৩৬ ইটাহার তৃণমূল মোশারাফ হোসেন ১১৪৬৪৫ ৫৯.১০ বিজেপি অমিত কুমার কুন্ডু ৭০৬৭০ ৩৬.৪৩ ৪৩৯৭৫
দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা
৩৭ কুশমন্ডি
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল রেখা রায় ৮৯৯৬৮ ৪৮.৮৮ বিজেপি রঞ্জিত কুমার রায় ৭৭৩৮৪ ৪২.০৮ ১২৫৮৪ ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৩৮ কুমারগঞ্জ তৃণমূল তোরাফ হুসেন মণ্ডল ৮৯১১৭ ৫২.৫৮ বিজেপি মানস সরকার ৫৯৭৩৬ ৩৫.২৪ ২৯৩৮১
৩৯ বালুরঘাট বিজেপি অশোক কুমার লাহিড়ী ৭০৪৮৪ ৪৭.২৫ তৃণমূল শেখর দাশগুপ্ত ৫৭৫৮৭ ৩৮.৬০ ১২৮৯৯
৪০ তপন
(তফসিলি উপজাতি)
বিজেপি বুধরাই টুডু ৮৪৩৮১ ৪৫.২৯ তৃণমূল কল্পনা কিসকু ৮২৭৩১ ৪৪.৪১ ১৬৫০
৪১ গঙ্গারামপুর
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি সত্যেন্দ্রনাথ রায় ৮৮৭২৪ ৪৬.৮২ তৃণমূল গৌতম দাস ৮৪১৩২ ৪৪.৪০ ৪৫৯২
৪২ হরিরামপুর তৃণমূল বিপ্লব মিত্র ৯৬১৩১ ৫১.২৩ বিজেপি নীলাঞ্জন রায় ৭৩৪৫৯ ৩৯.১৫ ২২৬৭২
মালদহ জেলা
৪৩ হাবিবপুর
(তফসিলি উপজাতি)
বিজেপি জুয়েল মুর্মু ৯৪০৭৫ ৪৭.৫২ তৃণমূল প্রদীপ বাস্কে ৭৪৫৫৮ ৩৭.৬৬ ১৯৫১৭ ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৪৪ গাজোল
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি চিন্ময় দেববর্মণ ১০০৬৫৫ ৪৫.৫ তৃণমূল বাসন্তী বর্মণ ৯৮৮৫৭ ৪৪.৬৯ ১৭৯৮
৪৫ চাঁচল তৃণমূল নীহাররঞ্জন ঘোষ ১১৫৯৬৬ ৫৮.০৮ বিজেপি দীপঙ্কর রাম ৪৮৬২৮ ২৪.৩৫ ৬৭৩৩৮
৪৬ হরিশ্চন্দ্রপুর তৃণমূল তাজমুল হোসেন ১২২৫২৭ ৬০.৩১ বিজেপি মতিবুর রহমান ৪৫০৫৪ ২২.১৮ ৭৭৪৭৩
৪৭ মালতীপুর তৃণমূল আব্দুর রহিম বক্সি ১২৬১৫৭ ৬৮.০২ বিজেপি মৌসুমি দাস ৩৪২০৮ ১৮.৪৪ ৯১৯৪৯
৪৮ রতুয়া তৃণমূল সমর মুখোপাধ্যায় ১৩০৬৭৪ ৫৯.৬৩ বিজেপি অভিষেক সিঙ্ঘানিয়া ৫৫০২৪ ২৫.১১ ৭৫৬৫০
৪৯ মানিকচক তৃণমূল সাবিত্রী মিত্র ১১০২৩৪ ৫৩.২৬ বিজেপি গৌরচন্দ্র মণ্ডল ৭৬৩৫৬ ৩৬.৮৯ ৩৩৮৭৮ ২৯ এপ্রিল, ২০২১
৫০ মালদহ বিজেপি গোপালচন্দ্র সাহা ৩৩৩৯৮ ৪৫.২৩ তৃণমূল উজ্জ্বল কুমার চৌধুরী ৭৭৯৪২ ৩৭.৭৫ ১৫৪৫৬
৫১ ইংরেজবাজার বিজেপি শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী ১০৭৭৫৫ ৪৯.৯৬ তৃণমূল কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী ৮৭৬৫৬ ৪০.৬৪ ২০০৯৯
৫২ মোথাবাড়ি তৃণমূল সাবিনা ইয়াসমিন ৯৭৩৯৭ ৫৯.৭০ বিজেপি শ্যামচাঁদ ঘোষ ৪০৮২৪ ২৫.০২ ৫৬৫৭৩
৫৩ সুজাপুর তৃণমূল মহম্মদ আব্দুল গনি ১৫২৪৪৫ ৭৩.৪৪ কংগ্রেস ইশা খান চৌধুরী ২২২৮২ ১০.৭৩ ১৩০১৬৩
৫৪ বৈষ্ণবনগর তৃণমূল চন্দনা সরকার ৮৩০৬১ ৩৯.৮১ বিজেপি স্বাধীন কুমার সরকার ৮০৫৯০ ৩৮.৬২ ২৪৭১
মুর্শিদাবাদ জেলা
৫৫ ফারাক্কা তৃণমূল মনিরুল ইসলাম ১০২৩১৯ ৫৪.৮৯ বিজেপি হেমন্ত ঘোষ ৪২৩৭৪ ২২.৭৩ ৫৯৯৪৫ ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৫৬ সামশেরগঞ্জ ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
৫৭ সুতি তৃণমূল এমানি বিশ্বাস ১২৭৩৫১ ৫৮.৮৭ বিজেপি কৌশিক দাস ৫৬৬৫০ ২৬.১৯ ৭০৭০১ ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৫৮ জঙ্গিপুর ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
৫৯ রঘুনাথগঞ্জ তৃণমূল আখতারুজ্জামান ১২৬৮৩৪ ৬৬.৫৯ বিজেপি গোলাম মোদাসওয়ার ২৮৫২১ ১৪.৯৭ ৯৮৩১৩ ২৬ এপ্রিল, ২০২১
৬০ সাগরদিঘি তৃণমূল সুব্রত সাহা ৯৫১৮৯ ৫০.৯৫ বিজেপি মাফুজা খাতুন ৪৪৯৮৩ ২৪.০৮ ৫০২০৬
৬১ লালগোলা তৃণমূল মহম্মদ আলি ১০৭৮৬০ ৫৬.৬৪ কংগ্রেস আবু হেনা ৪৭১৫৩ ২৪.৭৬ ৬০৭০৭
৬২ ভগবানগোলা তৃণমূল ইদ্রিশ আলি ১৫৩৭৯৫ ৬৮.০৫ সিপিআই(এম) মহম্মদ কামাল হোসেন ৪৭৭৮৭ ২১.১৫ ১০৬০০৮
৬৩ রানিনগর তৃণমূল আব্দুল সৌমিক হোসেন ১৩৪৯৫৭ ৬০.৭৯ কংগ্রেস ফিরোজা বেগম ৫৫২৫৫ ২৪.৮৯ ৭৯৭০২
৬৪ মুর্শিদাবাদ বিজেপি গৌরীশংকর ঘোষ ৯৫৯৬৭ ৪১.৮৬ তৃণমূল শাওনি সিংহ রায় ৯৩৪৭৬ ৪০.৭৮ ২৪৯১
৬৫ নবগ্রাম
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল কানাইচন্দ্র মণ্ডল ১০০৪৫৫ ৪৮.১৮ বিজেপি মোহন হালদার ৬৪৯২২ ৩১.১৪ ৩৫৫৩৩
৬৬ খড়গ্রাম
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল আশিস মারজিত ৯৩২৫৫ ৫০.১৫ বিজেপি আদিত্য মৌলিক ৬০৬৮২ ৩২.৬৪ ৩২৫৭৩ ২৯ এপ্রিল, ২০২১
৬৭ বারোয়ান
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল জীবনকৃষ্ণ সাহা ৮১৮৯০ ৪৬.৩২ বিজেপি অমিয়কুমার দাস ৭৯১৪১ ৪৪.৭৬ ২৭৪৯
৬৮ কান্দি তৃণমূল অপূর্ব সরকার ৯৫৩৯৯ ৫১.১৬ বিজেপি গৌতম রায় ৫৭৩১৯ ৩০.৭৪ ৩৮০৮০
৬৯ ভরতপুর তৃণমূল হুমায়ুন কবির ৯৬২২৬ ৫০.৯০ বিজেপি ইমনকল্যাণ মুখোপাধ্যায় ৫৩১৪৩ ২৮.১১ ৪৩০৮৩
৭০ রেজিনগর তৃণমূল রবিউল আলম চৌধুরী ১১৮৪৯৪ ৫৬.৩১ বিজেপি অরবিন্দ বিশ্বাস ৫০২২৬ ২৩.৮৭ ৬৮২৬৮
৭১ বেলডাঙা তৃণমূল শেখ হাসানুজ্জামান ১১২৮৬২ ৫৫.১৯ বিজেপি সুমিত ঘোষ ৫৯০৩০ ২৮.৮৬ ৫৩৮৩২
৭২ বহরমপুর বিজেপি সুব্রত মৈত্র ৮৯৩৪০ ৪৫.২১ তৃণমূল নাড়ুগোপাল মুখোপাধ্যায় ৬২৪৮৮ ৩১.৬২ ২৬৮৫২
৭৩ হরিহরপাড়া তৃণমূল নিয়ামত শেখ ১০২৬৬০ ৪৭.৫১ কংগ্রেস মির আলমগির ৮৮৫৯৪ ৪১.০০ ১৪০৬৬
৭৪ নওদা তৃণমূল সাহিনা মোমতাজ খান ১১৭৬৮৪ ৫৮.১৬ বিজেপি অনুপম মণ্ডল ৪৩৫৩১ ২১.৫১ ৭৪১৫৩
৭৫ ডোমকল তৃণমূল জাফিকুল ইসলাম ১২৭৬৭১ ৫৬.৪৫ সিপিআই(এম) মহম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান ৮০৪৪২ ৩৫.৫৭ ৪৭২২৯
৭৬ জলঙ্গি তৃণমূল আব্দুর রেজ্জাক ১২৩৮৪০ ৫৫.৭৪ সিপিআই(এম) সইফুল ইসলাম মোল্লা ৪৪৫৬৪ ২০.০৬ ৭৯২৭৬
নদিয়া জেলা
৭৭ করিমপুর তৃণমূল বিমলেন্দু সিংহ রায় ১১০৯১১ ৫০.০৭ বিজেপি সমরেন্দ্রনাথ ঘোষ ৮৭৩৩৬ ৩৯.৪৩ ২৩৫৭৫ ২২ এপ্রিল, ২০২১
৭৮ তেহট্ট তৃণমূল তাপস কুমার সাহা ৯৭৮৪৮ ৪৪.৮৬ বিজেপি আশুতোষ পাল ৯০৯৩৩ ৪১.৬৯ ৬৯১৫
৭৯ পলাশিপাড়া তৃণমূল ড. মানিক ভট্টাচার্য ১১০২৭৪ ৫৪.২২ বিজেপি বিভাসচন্দ্র মণ্ডল ৫৮৯৩৮ ২৮.৯৮ ৫১৩৩৬
৮০ কালীগঞ্জ তৃণমূল নাসিরুদ্দিন আহমেদ ১১১৬৯৬ ৫৩.৩৫ বিজেপি অভিজিৎ ঘোষ ৬৪৭০৯ ৩০.৯১ ৪৬৯৮৭
৮১ নাকাশিপাড়ি তৃণমূল কল্লোল খান ১০৪৮১২ ৫০.০১ বিজেপি শান্তনু দে ৮৩৫৪১ ৩৯.৮৬ ২১২৭১
৮২ চাপড়া তৃণমূল রুকবানুর রহমান ৭৩৮৬৬ ৩৪.৬৫ নির্দল জেবের শেখ ৬১৭৪৮ ২৮.৯৭ ১২১১৮
৮৩ কৃষ্ণনগর উত্তর বিজেপি মুকুল রায় ১০৯৩৫৭ ৫৪.১৯ তৃণমূল কৌশানী মুখোপাধ্যায় ৭৪২৬৮ ৩৬.৮০ ৩৫০৮৯
৮৪ নবদ্বীপ তৃণমূল পুণ্ডরীকাক্ষ সাহা ১০২১৭০ ৪৮.৫২ বিজেপি সিদ্ধার্থশংকর নস্কর ৮৩৫৯৯ ৩৯.৭০ ১৮৫৭১
৮৫ কৃষ্ণনগর দক্ষিণ তৃণমূল উজ্জ্ব্ল বিশ্বাস ৯১৭৩৮ ৪৬.৮৮ বিজেপি মহাদেব সরকার ৮২৪৩৩ ৪২.১৩ ৯৩০৫
৮৬ শান্তিপুর বিজেপি জগন্নাথ সরকার ১০৯৭২২ ৪৯.৯৪ তৃণমূল অজয় দে ৯৩৮৪৪ ৪২.৭২ ১৫৮৭৮ ১৭ এপ্রিল, ২০২১
৮৭ রানাঘাট উত্তর পশ্চিম বিজেপি পার্থসারথি চট্টোপাধ্যায় ১১৩৬৩৭ ৫০.৯১ তৃণমূল শংকর সিংহ ৯০৫০৯ ৪০.৫৫ ২৩১২৮
৮৮ কৃষ্ণগঞ্জ
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি আশিস কুমার বিশ্বাস ১১৭৬৬৮ ৫০.৭৩ তৃণমূল ড. তাপস মণ্ডল ৯৬৩৯১ ৪১.৫৬ ২১২৭৭
৮৯ রানাঘাট উত্তর পূর্ব
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি অসীম বিশ্বাস ১১৬৭৮৬ ৫৪.৩৯ তৃণমূল সমীর কুমার পোদ্দার ৮৫০০৪ ৩৯.৫৯ ৩১৭৮২
৯০ রানাঘাট দক্ষিণ
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি মুকুটমণি অধিকারী ১১৯২৬০ ৪৯.৩৪ তৃণমূল বর্ণালি দে রায় ১০২৭৪৫ ৪২.৫১ ১৬৫১৫
৯১ চাকদহ বিজেপি বঙ্কিমচন্দ্র ঘোষ ৯৯৩৬৮ ৪৬.৮৬ তৃণমূল শুভঙ্কর সিংহ ৮৭৬৮৮ ৪১.৩৫ ১১৬৮০
৯২ কল্যাণী
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি অম্বিকা রায় ৯৭০২৬ ৪৪.০৪ তৃণমূল অনিরুদ্ধ বিশ্বাস ৯৪৮২০ ৪৩.০৩ ২২০৬
৯৩ হরিণঘাটা
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি অসীম কুমার সরকার ৯৭৬৬৬ ৪৬.৩১ তৃণমূল নীলিমা নাগ ৮২৪৬৬ ৩৯.১১ ১৫২০০
উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা
৯৪ বাগদা
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি বিশ্বজিৎ দাস ১০৮১১১ ৪৯.৪১ তৃণমূল পরিতোষ কুমার সাহা ৯৮৩১৯ ৪৪.৯৪ ৯৭৯২ ২২ এপ্রিল, ২০২১
৯৫ বনগাঁ উত্তর
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি অশোক কীর্তনীয়া ৯৭৭৬১ ৪৭.৬৫ তৃণমূল শ্যামল রায় ৮৭,২৭৩ ৪২.৫৪ ১০৪৮৮
৯৬ বনগাঁ দক্ষিণ
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি স্বপন মজুমদার ৯৭,৮২৮ ৪৭.০৭ তৃণমূল আলোরানি সরকার ৯৫৮২৪ ৪৬.১১ ২০০৪
৯৭ গাইঘাটা
(তফসিলি জাতি)
বিজেপি সুব্রত ঠাকুর ১০০,৮০৮ ৪৭.২৭ তৃণমূল নরোত্তম বিশ্বাস ৯১,২৩০ ৪২.৭৮ ৯৫৭৮
৯৮ স্বরূপনগর
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল বীণা মণ্ডল ৯৯,৭৮৪ ৪৭.১১ বিজেপি বৃন্দাবন সরকার ৬৪,৯৮৪ ৩০.৬৮ ৩৪৮০০
৯৯ বাদুড়িয়া তৃণমূল আব্দুর রহিম কাজি ১০৯,৭০১ ৫১.৫৩ বিজেপি সুকল্যাণ বৈদ্য ৫৩,২৫৭ ২৫.০২ ৫৬,৪৪৪
১০০ হাবড়া তৃণমূল জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ৯০৫৩৩ ৪৪.৩৪ বিজেপি বিশ্ব্জিৎ সিনহা ৮৬৬৯২ ৪২.৪৬ ৩৮৪১
১০১ অশোকনগর তৃণমূল নারায়ণ গোস্বামী ৯৩,৫৮৭ ৪৩.১৮ বিজেপি তনুজা চক্রবর্তী ৭০,০৫৫ ৩২.৩২ ২৩,৫৩২
১০২ আমডাঙা তৃণমূল রফিকুর রহমান ৮৮,৯৩৫ ৪২.০০ বিজেপি জয়দেব মান্না ৬৩,৪৫৫ ২৯.৯৭ ২৫,৪৮০
১০৩ বীজপুর তৃণমূল সুবোধ অধিকারী ৬৬,৬২৫ ৪৭.৯০ বিজেপি শুভ্রাংশু রায় ৫৩,২৭৮ ৩৮.৩০ ১৩,৩৪৭
১০৪ নৈহাটি তৃণমূল পার্থ ভৌমিক ৭৭৭৫৩ ৪৯.৬৯ বিজেপি ফাল্গুনী পাত্র ৫৮৮৯৮ ৩৭.৬৪ ১৮৮৫৫
১০৫ ভাটপাড়া বিজেপি পবন কুমার সিং ৫৭২৪৪ ৫৩.৪০ তৃণমূল জিতেন্দ্র সাউ ৪৩৫৫৭ ৪০.৬৩ ১৩৬৮৭
১০৬ জগদ্দল তৃণমূল সোমনাথ শ্যাম ইচিনি ৮৭০৩০ ৪৮.০১ বিজেপি অরিন্দম ভট্টাচার্য ৬৮৬৬৬ ৩৭.৮৮ ১৮৩৬৪
১০৭ নোয়াপাড়া তৃণমূল মঞ্জু বসু ৯৪২০৩[১৮৩] ৪৮.৯ বিজেপি সুনীল সিং ৬৭৪৯৩ ৩৫.০৪ ২৬৭১০
১০৮ ব্যারাকপুর তৃণমূল রাজ চক্রবর্তী ৬৮৮৮৭ ৪৬.৪৭ বিজেপি চন্দ্রমণি শুক্ল ৫৯৬৬৫ ৪০.২৫ ৯২২২
১০৯ খড়দহ তৃণমূল কাজল সিনহা ৯৮৯০৭ ৪৯.০৪ বিজেপি শীলভদ্র দত্ত ৬১৬৬৭ ৩৩.৬৭[১৮৪] ২৮১৪০
১১০ দমদম উত্তর তৃণমূল চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ৯৫৪৬৫ ৪৪.৭৯ বিজেপি ড. অর্চনা মজুমদার ৬৬৯৬৬[১৮৫] ৩১.৪২ ২৮৪৯৯
১১১ পানিহাটি তৃণমূল নির্মল ঘোষ ৮৬,৪৯৫ ৪৯.৬১ বিজেপি সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় ৬১,৩১৮ ৩৫.১৭ ২৫,১৭৭ ১৭ এপ্রিল, ২০২১
১১২ কামারহাটি তৃণমূল মদন মিত্র ৭৩,৮৪৫ ৫১.১৭ বিজেপি অনিন্দ্য বন্দ্যোপাধ্যায় ৩৮,৪৩৭ ২৬.৬৪ ৩৫,৪০৮
১১৩ বরানগর তৃণমূল তাপস রায় ৮৫,৬১৫ ৫৩.৪২ বিজেপি পার্নো মিত্র ৫০,৪৬৮ ৩১.৪৯ ৩৫,১৪৭
১১৪ দমদম তৃণমূল ব্রাত্য বসু ৮৭,৯৯৯ ৪৭.৪৮ বিজেপি বিমলশংকর নন্দ ৬১,৩৬৮ ৩৩.০৬ ২৬,৭৩১
১১৫ রাজারহাট নিউ টাউন তৃণমূল তাপস চট্টোপাধ্যায় ১,২৭,৩৭৪ ৫৪.২২ বিজেপি ভাস্কর রায় ৭০,৯৪২ ৩০.২ ৫৬,৪৩২
১১৬ বিধাননগর তৃণমূল সুজিত বসু ৭৫,৯১২ ৪৬.৮৫ বিজেপি সব্যসাচী দত্ত ৬৭,৯১৫ ৪১.৯১ ৭,৯৯৭
১১৭ রাজারহাট গোপালপুর তৃণমূল অদিতি মুন্সি ৮৭,৬৫০ ৪৯.০৪ বিজেপি শমীক ভট্টাচার্য ৬২,৩৫৪ ৩৪.৮৯ ২৫,২৯৬
১১৮ মধ্যমগ্রাম তৃণমূল রথীন ঘোষ ১,১২,৭৪১ ৪৮.৯৩ বিজেপি রাজশ্রী রাজবংশী ৬৪,৬১৫ ২৮.০৪ ৪৮,১২৬
১১৯ বারাসাত তৃণমূল চিরঞ্জিত চক্রবর্তী ১,০৪,৪৩১ ৪৬.২৭ বিজেপি শংকর চট্টোপাধ্যায় ৮০,৬৪৮ ৩৫.৭৩ ২৩,৭৮৩
১২০ দেগঙ্গা তৃণমূল রহিমা মণ্ডল ১,০০,১০৫ ৪৬.৭ আইএসএফ করিম আলি ৬৭,৫৬৮ ৩১.৫২ ৩২,৫৩৭
১২১ হাড়োয়া তৃণমূল শেখ নুরুল ইসলাম (হাজি) ১,৩০,৩৯৮ ৫৭.৩৪ আইএসএফ কুতুবুদ্দিন ফতে ৪৯,৪২০ ২১.৭৩ ৮০,৯৭৮
১২২ মিনাখাঁ
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল ঊষারানি মণ্ডল ১,০৯,৮১৮ ৫১.৭২ বিজেপি জয়ন্ত মণ্ডল ৫৩,৯৮৮ ২৫.৪২ ৫৫,৮৩০
১২৩ সন্দেশখালি
(তফসিলি উপজাতি)
তৃণমূল সুকুমার মাহাত ১,১২,৪৫০ ৫৪.৬৪ বিজেপি ড. ভাস্কর সর্দার ৭২,৭৬৫ ৩৫.৩৬ ৩৯,৬৮৫
১২৪ বসিরহাট দক্ষিণ তৃণমূল ড. সপ্তর্ষি বন্দ্যোপাধ্যায় ১,১৫,৮৭৩ ৪৯.১৫ বিজেপি তারকনাথ ঘোষ ৯১,৪০৫ ৩৮.৭৭ ২৪,৪৬৮
১২৫ বসিরহাট উত্তর তৃণমূল রফিকুল ইসলাম মণ্ডল ১,৩৭,২১৬ ৫৭.৫৫ আইএসএফ মহম্মদ বাইজিদ আমিন ৪৭,৮৬৫ ২০.০৮ ৮৯,৩৫১
১২৬ হিঙ্গলগঞ্জ
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল দেবেশ মণ্ডল ১,০৪,৭০৬ ৫৩.৭৮ বিজেপি নিমাই দাস ৭৯,৭৯০ ৪০.৯৮ ২৪,৯১৬
দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা
১২৭ গোসাবা
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল জয়ন্ত নস্কর ১,০৫,৭২৩ ৫৩.৯৯ বিজেপি বরুণ প্রামাণিক (চিত্ত) ৮২,০১৪ ৪১.৮৮ ২৩,৭০৯ ১ এপ্রিল, ২০২১
১২৮ বাসন্তী
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল শ্যামল মণ্ডল ১,১১,৪৫৩ ৫২.১ বিজেপি রমেশ মাঝি ৬০,৮১১ ২৮.৪৩ ৫০,৬৪২ ৬ এপ্রিল, ২০২১
১২৯ কুলতলি
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল গণেশচন্দ্র মণ্ডল ১,১৭,২৩৮ ৫১.৫৭ বিজেপি মিন্টু হালদার ৭০,০৬১ ৩০.৮২ ৪৭,১৭৭
১৩০ পাথরপ্রতিমা তৃণমূল সমীরকুমার জানা ১,২০,১৮১ ৫১.৮৫ বিজেপি অসিত কুমার হালদার ৯৮,০৪৭ ৪২.৩ ২২,১৩৪ ১ এপ্রিল, ২০২১
১৩১ কাকদ্বীপ তৃণমূল মন্টুরাম পাখিরা ১,১৪,৪৯৩ ৫২.১৪ বিজেপি দীপংকর জানা ৮৯,১৯১ ৪০.৬২ ২৫,৩০২
১৩২ সাগর তৃণমূল বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা ১,২৯,০০০ ৫৩.৯৬ বিজেপি বিকাশ কামিল্যা ৯৯,১৫৪ ৪১.৪৮ ২৯,৮৪৬
১৩৩ কুলপি তৃণমূল যোগরঞ্জন হালদার ৯৬,৫৭৭ ৫০.০১ বিজেপি প্রণব কুমার মল্লিক ৬২,৭৫৯ ৩২.৫ ৩৩,৮১৮ ৬ এপ্রিল, ২০২১
১৩৪ রায়দিঘি তৃণমূল অলোক জলদাতা ১,১৫,৭০৭ ৪৮.৪৭ বিজেপি শান্তনু বাপুলি ৮০,১৩৯ ৩৩.৫৭ ৩৫,৫৬৮
১৩৫ মন্দিরবাজার
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল জয়দেব হালদার ৯৫,৮৩৪ ৪৮.০৪ বিজেপি দিলীপ কুমার জাটুয়া ৭২,৩৪২ ৩৬.২৬ ২৩,৪৯২
১৩৬ জয়নগর
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল বিশ্বনাথ দাস ১,০৪,৯৫২ ৫১.৮৫ বিজেপি রবীন সর্দার ৬৬,২৬৯ ৩২.৭৪ ৩৮,৬৮৩
১৩৭ বারুইপুর পূর্ব
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল বিভাস সর্দার (ভব) ১,২৩,২৪৩ ৫৪.৭৫ বিজেপি চন্দন মণ্ডল ৭৩,৬০২ ৩২.৭ ৪৯,৬৪১
১৩৮ ক্যানিং পশ্চিম
(তফসিলি জাতি)
তৃণমূল পরেশরাম দাস ১,১১,০৫৯ ৫০.৮৬ বিজেপি অর্ণব রায় ৭৫,৮১৬ ৩৪.৭২ ৩৫,২৪৩
১৩৯ ক্যানিং পূর্ব তৃণমূল শওকত মোল্লা ১,২২,৩০১ ৫২.৫৪ আইএসএফ গাজি সাহাবুদ্দিন সিরাজি ৬৯,২৯৪ ২৯.৭৭ ৫৩,০০৭
১৪০ বারুইপুর পশ্চিম তৃণমূল বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় ১,২১,০০৬ ৫৭.২৭ বিজেপি দেবোপম চট্টোপাধ্যায় (বাবু) ৫৯,০৯৬ ২৭.৯৭ ৬১,৯১০
১৪১