সাঘাটা উপজেলা

স্থানাঙ্ক: ২৫°০৬′২০″ উত্তর ৮৯°৩৫′১০″ পূর্ব / ২৫.১০৫৬° উত্তর ৮৯.৫৮৬১° পূর্ব / 25.1056; 89.5861
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাঘাটা
উপজেলা
সাঘাটা রংপুর বিভাগ-এ অবস্থিত
সাঘাটা
সাঘাটা
সাঘাটা বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
সাঘাটা
সাঘাটা
বাংলাদেশে সাঘাটা উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°০৬′২০″ উত্তর ৮৯°৩৫′১০″ পূর্ব / ২৫.১০৫৬° উত্তর ৮৯.৫৮৬১° পূর্ব / 25.1056; 89.5861
দেশবাংলাদেশ
বিভাগরংপুর বিভাগ
জেলাগাইবান্ধা জেলা
আয়তন
 • মোট২৩১.০২ বর্গকিমি (৮৯.২০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট২,৭১,০৪৫জন
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৫৭৫১ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫৫ ৩২ ৮৮
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

সাঘাটা উপজেলা বাংলাদেশের সর্ব উত্তরের রংপুর বিভাগের গাইবান্ধা জেলার অন্তর্গত একটি প্রশাসনিক এলাকা। [২]

অবস্থান[সম্পাদনা]

সাঘাটা উপজেলার উত্তরে ফুলছড়ি উপজেলা, দক্ষিণে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা, পূর্বে যমুনা নদী দ্বারা জামালপুরের সাথে বিভক্ত ও পশ্চিমে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

ইউনিয়ন : ১০টি - পদুমশহর, ভরতখালী, সাঘাটা, মুক্তিনগর, কচুয়া, ঘুড়িদহ, হলদিয়া, জুমারবাড়ী, কামালেরপাড়া এবং বোনারপাড়া[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কথিত আছে যে, এক সময়ে নদী পথে ব্যবসা করার জন্য পাবনা ও দৌলতপুর এলাকার কিছু হিন্দু সাহা অত্র এলাকায় আগমন করেন ও স্থায়ীভাবে ব্যবসা শুরু করেন। সেই সময়ে অত্র এলাকা গোবিন্দগঞ্জ থানার অধীন ছিল। পরবর্তীতে আনুমানিক ১৯০২ সালে বসবাসরত ব্যবসায়ী সাহাগণের উদ্যোগে অত্র এলাকায় থানার সৃষ্টি হয়। সাহাগণের নামানুসারে অত্র থানার নামকরণ হয় সাহাঘাটা। যাহা কালক্রমে সাঘাটা নামে পরিচিতি লাভ করে। [৪]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ খ্রিষ্টাব্দে অনুষ্ঠিত আদমশুমারীর প্রাথমিক হিসাব অনুযায়ী মোট জনসংখ্যা ২৩২১১৮ জন । জনগোষ্ঠির প্রধান ধর্মবিশ্বাস ইসলাম (৮৯ শতাংশ) ; এর পরেই রয়েছে হিন্দু ধর্ম (৯ শতাংশ)। বাকি ১ শতাংশ মানুষ বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, অথবা অগ্নিউপাসক। মুসলমানদের মধ্যে অধিকাংশ সুন্নি মতাবলম্বী।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

এখনে ৩৩ টি সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে । [৫] এর মধ্যে ১ টি সরকারী কলেজ রয়েছে। উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলো হল কাজী আজহার আলী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, সাঘাটা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ , সাঘাটা ডিগ্রি কলেজ ।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

সাঘাটা উপজেলা মূলত কৃষি নির্ভর অর্থনীতির উপর নির্ভরশীল। এখানকার অধিকাংশ লোকই কৃষি কাজে যুক্ত। এখানকার প্রধান কৃষিজ ফসলের মধ্যে রয়েছে ধানপাট। এখানে আউশ, আমন, বোরো এবং ইরি ধান উৎপন্ন হয়ে থাকে।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

বিবিধ[সম্পাদনা]

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

সাঘাটা উপজেলায় সড়ক, রেলনদী পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে। দুটি রেলস্টেশন রয়েছে; বোনারপাড়া রেলওয়ে স্টেশন ও ভরত খালী (বন্ধ)।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে সাঘাটা উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  2. http://archive.prothom-alo.com/detail/date/2010-01-25/news/37570 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১৪-০১-২৪ তারিখে প্রথম আলো, রংপুরকে বিভাগ ঘোষণা, তারিখ: ২৫-০১-২০১০
  3. "ইউনিয়ন সমূহ"gaibandha.gov.bd [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. http://saghata.gaibandha.gov.bd/site/page/44a8114c-18fd-11e7-9461-286ed488c766 উপজেলার পটভূমি
  5. http://www.dinajpureducationboard.gov.bd/?page_id=76 দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড, সাঘাটা উপজেলা

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]