রংপুর সিটি কর্পোরেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
রংপুর সিটি কর্পোরেশন
ধরন
ধরন
এক কক্ষ
ইতিহাস
প্রতিষ্ঠাকাল জুন ২৮, ২০১২ (২০১২-০৬-২৮)
নেতৃত্ব
মেয়র শরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
নির্বাচন
ভোটদান ব্যবস্থা এফপিটিপি
সর্বশেষ নির্বাচন ২০ ডিসেম্বর, ২০১২[১]
ওয়েবসাইট
www.rpcc.gov.bd

রংপুর সিটি কর্পোরেশন বাংলাদেশের রংপুরের স্থানীয় সরকার সংস্থা। ২০১২ খ্রিস্টাব্দের ২০ ডিসেম্বর তারিখে জাতীয় সংসদে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) বিল, ২০০৯-এর মাধ্যমে রংপুর পৌরসভাকে আনুষ্ঠানিকভাবে রংপুর সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত করা হয়। সিটি করপোরেশনের আয়তন এখন ২০৩.৬৩ বর্গকিলোমিটার। এই আয়তনের মধ্যে রংপুর সদরের ১০টি, কাউনিয়া সারাই ও পীরগাছার কল্যাণীসহ ১২টি ইউনিয়ন মিলে ১১২টি মৌজাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এর মধ্যে ৭টি ইউনিয়ন পূর্ণাঙ্গ ও ৫টি আংশিক রয়েছে। তবে ক্যান্টনমেন্টকে সিটি করপোরেশনের আওতার বাইরে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৮৬৯ খৃস্টাব্দের ১ মে ৫০.৫৬ বর্গকিলোমিটারের রংপুর পৌরসভার গোড়াপত্তন হয়। প্রথম চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন রংপুরের তৎকালীন কালেক্টর ই জি গ্লোজিয়ার। ১৮৮২ খৃস্টাব্দে ডিমলার জমিদার রাজা জানকী বল্লভ সেন রংপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন। এছাড়াও অ্যাডভোকেট মাহাতাব উদ্দিন খান, মোহাম্মদ আফজাল, মুক্তিযোদ্ধা অপিল উদ্দিন আহমেদ, সাবেক এমপি শরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু, কাজী মো. জুননুন পর্যায়ক্রমে একাধিকবার এ পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। সবশেষ পৌর চেয়ারম্যান ছিলেন একেএম আব্দুর রউফ মানিক।

১৮৯২ সালে জমিদারের দানকৃত বাগানবাড়ির জমিতে গড়ে তোলা হয় রংপুর পৌর ভবন। ১৯৮৬ সালে রংপুর পৌরসভাকে 'ক' শ্রেণীতে উন্নীত করা হয়। এ পৌরসভাকে তখন ৫০ দশমিক ৫৬ বর্গকিলোমিটারে সমপ্রসারিত করা হয়েছিল। এর আগে পৌরসভার রাস্তাগুলো ছিল কাচা। যানবাহন বলতে ছিল পালকি, ঘোড়ারগাড়ি ও গরুরগাড়ি। রাতের অন্ধকার দূর করতে শহরের মোড়ে মোড়ে জ্বলতো অ্যান্ডির তেল বা কেরোসিনের তেলের বাতি। স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন বলতে অবস্থাসম্পন্ন বাসাবাড়িতে ছিল সার্ভিস ল্যাট্রিন, আর নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য মাঠে-ঘাটে খোলা পায়খান। সুপেয় পানি বলতে কুয়া, ইন্দারা এবং পুকুরের পানি।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "৯৬ কেন্দ্রে এগিয়ে সরফুদ্দীন"প্রথম আলো। ২০ ডিসেম্বর ২০১২। সংগৃহীত ১৪ মার্চ ২০১৫