ফুলবাড়ী উপজেলা, দিনাজপুর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ফুলবাড়ী
উপজেলা
ফুলবাড়ী বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
ফুলবাড়ী
ফুলবাড়ী
বাংলাদেশে ফুলবাড়ী উপজেলা, দিনাজপুরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৩১′ উত্তর ৮৮°৫৩′ পূর্ব / ২৫.৫১৭° উত্তর ৮৮.৮৮৩° পূর্ব / 25.517; 88.883স্থানাঙ্ক: ২৫°৩১′ উত্তর ৮৮°৫৩′ পূর্ব / ২৫.৫১৭° উত্তর ৮৮.৮৮৩° পূর্ব / 25.517; 88.883 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগরংপুর বিভাগ
জেলাদিনাজপুর জেলা
আয়তন
 • মোট২২৯.৫৫ কিমি (৮৮.৬৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,৭৬,০২৩[১]
সাক্ষরতার হার
 • মোট৫২.৬০%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৫২৬০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫৫ ২৭ ৩৮
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

ফুলবাড়ী বাংলাদেশের দিনাজপুর জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

অবস্থান[সম্পাদনা]

দিনাজপুর জেলার একটি উপজেলা হল ফুলবাড়ী। উত্তরে পার্বতীপুর উপজেলা, পূর্বে নবাবগঞ্জ উপজেলাবিরামপুর উপজেলা, দক্ষিণে বিরামপুর উপজেলা এবং ভারত এবং পশ্চিমে চিরিরবন্দর উপজেলা

নামকরণ[সম্পাদনা]

দিনাজপুর জেলার অন্যতম জনপ্রিয় এই উপজেলাটি ছোট যমুনা নদীর তীরে অবস্থিত। এককালে ফুলবাড়ী ছিলো একটি দূর্গনগরী, একে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠেছিলো নগর ও জনবসতি। সেইপ্রাচীনকালের নগরীর রেশ ও ক্রমধারায় নতুন আধুনিক শহর ধীরে ধীরে বেড়ে উঠেছে। কিন্তু দুর্গটির কোনো চিহ্ন আজ আর খুঁজে পাওয়া যায় না। বর্তমানে শহরের হাট বাজার ও ব্যবসাকেন্দ্র প্রাচীন দুর্গের অভ্যন্তরেই গড়ে উঠেছে। জনশ্রুতি রয়েছে যে, প্রাচীন আমলে এই অঞ্চলে প্রচুর ফুলের বাগান ছিল। ফুলের বাগানের আধিক্যের কারণে এই জায়গাটির নাম ফুলবাড়ী হয়েছে।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

ফুলবাড়ী উপজেলার ৭ টি ইউনিয়ন হলো—

  • ১নং এলুয়াড়ী ইউনিয়ন পরিষদ
  • ২নং আলাদীপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • ৩নং কাজিহাল ইউনিয়ন পরিষদ
  • ৪নং বেতদিঘী ইউনিয়ন পরিষদ
  • ৫নং খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ
  • ৬নং দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • ৭নং শিবনগর ইউনিয়ন পরিষদ

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সাম্প্রতিক ইতিহাস[সম্পাদনা]

ফুলবাড়ি চুক্তি[সম্পাদনা]

২০০৬ সালের ২৬ আগস্ট ফুলবাড়ি কয়লাখনি থেকে উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলনের জন্য এশিয়া এনার্জি কোম্পানির বিরুদ্ধে স্থানীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বিডিআর গুলি চালালে তিনজন নিহত হন ও প্রায় দুই শতাধিক আন্দোলনকারী আহত হন। পরবর্তীতে আন্দোলন পার্শ্ববর্তী পার্বতীপুর, বিরামপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত সরকার ফুলবাড়ী চুক্তি করতে বাধ্য হয়। তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটিসহ বিভিন্ন বামপন্থী রাজনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রতি বছর ২৬ আগস্ট "ফুলবাড়ী দিবস" হিসেবে পালন করে।[২]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

ফুলবাড়ির কয়েকটি বিদ্যালয় বেশ সুনামের সাথেই শিক্ষার ক্ষেত্রে অবদান রেখে চলেছে। এর মধ্যে সুজাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, জি.এম. পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও ফুলবাড়ি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় উল্লেখযোগ্য। একটি সরকারি কলেজ ও চারটি বেসরকারি কলেজ রয়েছে । ফুলবাড়ি সরকারি কলেজে ইতোমধ্যে অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে। এছাড়াও ডিগ্রী পাস কোর্স চালু রয়েছে।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

নদীসমূহ[সম্পাদনা]

পার্বতীপুর উপজেলার নিকটে রেলসেতু থেকে তোলা খড়খড়িয়া নদীর দৃশ্য।

ফুলবাড়ীতে দুটি নদী রয়েছে। নদী দুটি হচ্ছে খড়খড়িয়া নদী এবং ছোট যমুনা নদী[৩]

কৃতি ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী

সংগঠন[সম্পাদনা]

  • নয়া দিগন্ত শিশু ফোরাম
  • শিশু অধিকার রক্ষা ও শিশু কল্যাণ বিষয়ক সংগঠন
  • দৈনিক দেশমা, ফুলবাড়ী স্থানীয় সংবাদপত্র

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "এক নজরে ফুলবাড়ী"। বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ১৮ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০১৬ 
  2. "ফুলবাড়ী দিবস আজ"। দৈনিক প্রথম আলো। ২৬ আগস্ট ২০১৯। পৃষ্ঠা ৫। 
  3. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠা ৪০৫।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]