লালমনিরহাট সদর উপজেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লালমনিরহাট সদর
উপজেলা
লালমনিরহাট সদর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
লালমনিরহাট সদর
লালমনিরহাট সদর
বাংলাদেশে লালমনিরহাট সদর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৫২′ উত্তর ৮৯°২৯′ পূর্ব / ২৫.৮৬৭° উত্তর ৮৯.৪৮৩° পূর্ব / 25.867; 89.483স্থানাঙ্ক: ২৫°৫২′ উত্তর ৮৯°২৯′ পূর্ব / ২৫.৮৬৭° উত্তর ৮৯.৪৮৩° পূর্ব / 25.867; 89.483 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগরংপুর বিভাগ
জেলালালমনিরহাট জেলা
আয়তন
 • মোট২৫৯.৫৪ কিমি (১০০.২১ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট৩,৩৩,১৬৬
 • জনঘনত্ব১৩০০/কিমি (৩৩০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৫৫০০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫৫ ৫২ ৫৫
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

লালমনিরহাট সদর বাংলাদেশের লালমনিরহাট জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

অবস্থান[সম্পাদনা]

লালমনিরহাট জেলার সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের ম্যাগারাম গ্রাম থেকে তোলা আলোকচিত্র

এই উপজেলার স্থানাঙ্ক ২৫°৫৪′৫৫″ উত্তর ৮৯°২৭′০০″ পূর্ব / ২৫.৯১৫৩° উত্তর ৮৯.৪৫০০° পূর্ব / 25.9153; 89.4500। এর উত্তরে ভারতের কোচবিহার জেলা ও লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা, দক্ষিনে রংপুরের কাউনিয়া উপজেলা ও কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলা, পূর্বে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলারাজারহাট উপজেলা এবং পশ্চিমে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা ও রংপুরের গংগাচড়া উপজেলা

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

ইউনিয়ন ১২টি, মৌজা ১৬৭টি, গ্রাম ১৪৭ টি।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

লালমনিরহাট নামকরণের ইতিহাসঃ লালমনিরহাট নামকরণ নিয়ে জনশ্রুতি আছে যে, বৃটিশ সরকারের আমলে বর্তমান লালমনিরহাট শহরের মধ্যে দিয়ে রেলপথ বসানোর সময় উল্লিখিত অঞ্চলের রেল শ্রমিকরা বন-জঙ্গল কাটতে গিয়ে জনৈক ব্যক্তি ’লালমনি’ পেয়েছিলেন। সেই লালমনি থেকেই পর্যায়ক্রমে লালমনিরহাট নামের উৎপত্তি হয়েছে। অন্য এক সূত্র থেকে জানা যায়, বিপ্লবী কৃষক নেতা নুরুলদীনের ঘনিষ্ঠ সাথী লালমনি নামে এক ধনাঢ্য মহিলা ছিলেন। যার নামানুসারে লালমনিরহাট নামকরণ করা হয়েছে।

প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা[সম্পাদনা]

নিদারিয়া মসজিদ, উত্তর পূর্ব কোণ থেকে

লালমনিরহাট সদর উপজেলায় বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর এর তালিকাভুক্ত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা আছে। সেটি হচ্ছে নিদারিয়া মসজিদ[২] ঐতিহ্যবাহী সিন্দুরমতি মন্দির

ভাষা[সম্পাদনা]

লালমনিরহাট জেলার সবাই স্থানীয় ভাষায় কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। স্থানীয় ভাষাটি " রংপুরিয়া " ভাষা। জেলার অনেক মানুষ " ভাঁটিয়া " ভাষায় কথা বলে। ভাঁটিয়া ভাষা, রংপুরিয়া ভাষা থেকে একটু আলাদা।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা ৫৬৬৭২; পুরুষ ৫২.০২%, মহিলা ৪৮.৯৮%। জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিঃমিঃ ৩২১৬ জন।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হারঃ ৪৭.৯% এখানের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সিন্দুরমতি উচ্চ বিদ্যালয়

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

এখানের বেশিরভাগ ভাগ মানুষ কৃষি নির্ভর।

কৃতী ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  1. শেখ ফজলল করিম (কবি)
  2. তমিজ উদ্দিন বীরবিক্রম (মুক্তিযুদ্ধে অসাধারন অবদান)
  3. আসাদুল হাবিব দুলু (রাজনীতিক)
  4. ক্যাপ্টেন(অবঃ)আজিজুল হক বীরপ্রতিক
  5. সাথিরা জাকির জেসী বাংলাদেশী মহিলা ক্রিকেটার

বিবিধ[সম্পাদনা]

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন, ২০১৪)। "এক নজরে লালমনিরহাট সদর উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "প্রত্নস্হলের তালিকা"বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরhttp://www.archaeology.gov.bd/। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬  |প্রকাশক= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]