লুপিটা ইয়ংও

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লুপিটা ইয়ংও
Lupita Nyong'o May 2017.jpg
২০১৭ সালের মে মাসে ইয়ংও
স্থানীয় নাম
Lupita Nyong'o
জন্ম
লুপিটা আমোন্ডি ইয়ংও

(1983-03-01) ১ মার্চ ১৯৮৩ (বয়স ৩৬)
বাসস্থানব্রুকলিন, নিউ ইয়র্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
নাগরিকত্বকেনিয়া
মেক্সিকো
যেখানের শিক্ষার্থীইয়েল বিশ্ববিদ্যালয় (এমএফএ)
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল২০০৫-বর্তমান
পিতা-মাতাপিটার আনিয়াং ইয়ংও (পিতা)
ডরোথি ওগাডা বুয়ু ইয়ংও (মাতা)

লুপিটা আমোন্ডি ইয়ংও (ইংরেজি: Lupita Amondi Nyong'o; আইপিএ: [luˈpiːtɑː ˈɲɔːŋɔ]; জন্ম: ১ মার্চ ১৯৮৩)[১] হলেন একজন কেনীয়-মেক্সিকান অভিনেত্রী। তিনি কেনীয় রাজনীতিবিদ পিটার আনিয়াং ইয়ংওর কন্যা। ইয়েল স্কুল অব ড্রামা থেকে অভিনয়ের উপর স্নাতকোত্তর লাভের পর তিনি স্টিভ ম্যাকুইনের ঐতিহাসিক নাট্যধর্মী চলচ্চিত্র টুয়েলভ ইয়ার্স আ স্লেইভ (২০১৩) চলচ্চিত্রে প্যাটসি চরিত্রে অভিনয় করে সমাদৃত হন এবং শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীর জন্য একাডেমি পুরস্কার অর্জন করেন। তিনি প্রথম কেনীয় ও মেক্সিকান অভিনেত্রী হিসেবে অস্কার জয় করেন।[২][৩]

ইয়ংওর ব্রডওয়ে মঞ্চে অভিষেক হয় এক্লিপসড (২০১৫) নাটকে এতিম কিশোরী চরিত্রে এবং এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে টনি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।[৪] তিনি স্টার ওয়ার্স ত্রয়ীতে মাজ কানাটা চরিত্রে অভিনয় করেন, দ্য জাঙ্গল বুক (২০১৬) চলচ্চিত্রে রাক্সা চরিত্রে কণ্ঠ দেন এবং মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের সুপারহিরো চলচ্চিত্র ব্ল্যাক প্যান্থার (২০১৮)-এ নাকিয়া চরিত্রে অভিনয় করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Lupita Nyong'o"বায়োগ্রাফি (ইংরেজি ভাষায়)। এঅ্যান্ডই টেলিভিশন নেটওয়ার্কস। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৯ 
  2. পোন্তে, তেরেসা (২ মার্চ ২০১৪)। "Three Mexicans win Oscars"শিকাগো নাউ। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৯ 
  3. "Oscar Winner Lupita Nyong'o Is 'the Pride of Africa'"। এবিসি নিউজ। ৩ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৯ 
  4. "Tony Award Nominations"। টনি পুরস্কার। ৩ মে ২০১৬। মে ৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]