মারিয়োঁ কোতিয়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
মারিয়োঁ কোতিয়ার
অর্দ্রে দে আর্তস এৎ দে লেত্রেস
De rouille et d'os Cannes 2012 (cropped).jpg
কান চলচ্চিত্র উৎসব ২০১২ এর অনুষ্ঠানে কোতিয়ার
জন্ম (১৯৭৫-০৯-৩০) ৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৭৫ (বয়স ৪২)
প্যারিস, ফ্রান্স
পেশা অভিনেত্রী, গায়িকা
কার্যকাল ১৯৯৩–বর্তমান
সঙ্গী গিইয়ামে কানেট
পিতা-মাতা জঁ-ক্লোদ কোতিয়ার (পিতা)
নিসিমা থেইয়াদ (মাতা)
ওয়েবসাইট Cotillard.net

মারিয়োঁ কোতিয়ার (ফরাসি: Marion Cotillard; ফরাসি উচ্চারণ: [ma.ʁjɔ̃ kɔ.ti.jaʁ] ( শুনুন); জন্ম: ৩০ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৫) একজন ফরাসি অভিনেত্রী, গায়িকা ও গীতিকার এবং গ্রিনপিসের একজন পরিবেশবাদী।[১] তিনি ফরাসি চলচ্চিত্র লা ভি অঁ রোজ (২০০৭) দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরিচিতি লাভ করেন। তিনি একবার করে একাডেমি পুরস্কার, বাফটা পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, দুইবার সিজার পুরস্কার, এবং একবার করে লুমিয়ে পুরস্কারইউরোপিয়ান ফিল্ম পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৯৩ সালে থেকে আজ পর্যন্ত তিনি প্রায় ৫০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন ও টেলিভিশন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। ২০০৮ সাল থেকে তিনি 'লেডি ডিওর' হাতব্যাগের পণ্যদূত। তিনি ২০১০ সালে ফ্রান্সের অর্দ্রে দে আর্তস এৎ দে লেত্রেসের নাইট উপাধি লাভ করেন এবং ২০১৬ সালে অফিসার হিসেবে তার পদোন্নতি হয়। ২০১৪ সালে তাকে "একবিংশ শতাব্দীর সর্বোচ্চ ব্যাংক-ব্যালেন্স সমৃদ্ধ ফরাসি অভিনেত্রী" হিসেবে উল্লেখ করা হয়।[২] দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফের রবি কলিন তার চোখ এবং মুখের অভিব্যক্তি দিয়ে আবেগ প্রকাশ করার সামর্থ্য সম্পর্কে বলেন, "আমাদের সময়ের সেরা নির্বাক চলচ্চিত্র অভিনেত্রী"।[৩] ২০১৬ সালে তিনি ফ্রান্সের সর্বোচ্চ সম্মান লেজিওঁ দনরের নাইট উপাধিতে ভূষিত হন।

অভিনয় পরিবারে জন্ম হওয়ায়, শিশু বয়স থেকেই কোতিয়ার মঞ্চে অভিনয় শুরু করেন। উন্নতির ধাপে, কিশোরী বয়সে একপর্যায়ে তিনি টেলিভিশন ও পরবর্তীকালে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন। কোতিয়ায়ারে প্রথম ইংরেজি ভাষার কাজ ছিল ১৯৯৩ সালে হাইল্যান্ডার টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয়। তার চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় লহিস্তোইরে দু গার্সোঁ কুই ভোলাইত কোঅন লেমব্রাসে (১৯৯৪) এবং তার প্রথম প্রধান চরিত্রে টেলিভিশন চলচ্চিত্রে অভিনয় ছিল ক্লোই (১৯৯৬)। ১৯৯০-এর শেষ দিকে তিনি ফরাসি চলচ্চিত্রের উল্লেখযোগ্য মুখ হয়ে ওঠেন। সে সময় তিনি যে সকল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, তার মধ্যে আছে, পরিচালক আর্নল্ড ডেসপ্লেচিনের মাই সেক্স লাইফ... অর হাও আই গট ইনটু এন আর্গুমেন্ট (১৯৯৬) এবং ট্যাক্সি (১৯৯৮)। ট্যাক্সি চলচ্চিত্রের জন্য তিনি সবচেয়ে সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী বিভাগে সিজার পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার হলিউডে অভিষেক হয় টিম বার্টন পরিচালিত বিগ ফিশ (২০০৩) চলচ্চিত্র দিয়ে।

২০০৩ সালের পর থেকে কোতিয়ার ফরাসি এবং ইংরেজি ভাষার মূলধারার এবং আর্ট-হাউজ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে থাকেন এবং তার কাজের জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এবং পুরস্কার লাভ করেন। তিনি উন লং দিমাঞ্চে দ ফিয়াসাঁইয়েস (২০০৪) ছবিতে তিনা লমবার্দি চরিত্রের অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে তার প্রথম সিজার পুরস্কার লাভ করেন। ২০০৭ সালে ফরাসি গায়িকা এদিত পিয়াফের জীবনীমূলক লা ভি অঁ রোজ ছবিতে তার ভূমিকার জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে তিনি তার দ্বিতীয় সিজার পুরস্কার লাভ করেন, এবং শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য বাফটা পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, লুমিয়ে পুরস্কার, একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। ২০১৭ সাল পর্যন্ত তিনিই একমাত্র অভিনেত্রী যিনি ফরাসি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য একাডেমি পুরস্কার লাভ করেছেন এবং ছয়জন অভিনয়শিল্পীর মধ্যে দ্বিতীয় যিনি বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেছেন। সঙ্গীতধর্মী নাইন (২০০৯) চলচ্চিত্রটি তাকে তার দ্বিতীয় গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন এনে দেয়। পরবর্তীতে তিনি মাইকেল মানের পাবলিক এনিমিস (২০০৯) ছবিতে বিলি ফ্রেচেত চরিত্রে এবং ক্রিস্টোফার নোলানের থ্রিলারধর্মী ইনসেপশন (২০১০) ছবিতে মাল চরিত্রে অভিনয় করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

কোতিয়ার ১৯৭৫ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ফ্রান্সের প্যারিসে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ওরলিন্সে হৈ-হুল্লোড়পূর্ণ এবং সৃজনশীল একটি পরিবারে বেড়ে ওঠেন। তার পিতা জঁ-ক্লোদ কোতিয়ার একজন মূখাভিনেতা এবং অভিনয় শিক্ষক। তিনি ২০০৬ সালে শ্রেষ্ঠ পরিচালনার জন্য মলিয়ে পুরস্কার জয় করেন। তিনি ব্রিটন বংশোদ্ভূত।[৪] কোতিয়ারের মাতা নিসিমা থেইয়াদ একজন অভিনেত্রী এবং নাট্য শিক্ষক।[৫] তিনি কাবিল বংশোদ্ভূত।[৬][৭] কোতিয়ারের দুই জমজ ছোট ভাই রয়েছে। তাদের নাম কোয়েন্টিন এবং গিউয়ামে। গিউয়ামে একজন চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক। কোতিয়ার তার শৈশব থেকে অভিনয় শুরু করেন এবং তার পিতার পরিচালনায় একটি মঞ্চনাটকে অভিনয় করেন।[৮]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯০ এর দশকের শেষের দিকে ফরাসি অভিনেতা জুলিয়েন রাসামের সাথে তার সম্পর্ক ছিল।[৯] ২০০০ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত তার ফরাসি অভিনেতা স্টিফেন গুইরিন-তিলির সাথে সম্পর্ক ছিল। তারা একত্রে কোয়েল্কোস জোর্স দে ত্রোপ (২০০০) ও হেউরেউস (২০০১) স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং লে রেদোতেবলস (২০০১) টেলিভিশন ধারাবাহিক, এবং ২০০৫ সালে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র কাভালকেডএদি-এ অভিনয় করে।[১০] ফরাসি গায়ক সিনক্লেরের সাথে ২০০৫ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল।[১১][১২]

২০০৭ সালের অক্টোবর থেকে ফরাসি অভিনেতা ও পরিচালক গুইয়ামে কানেতের সাথে তার সম্পর্ক রয়েছে।[১৩][১৪][১৫] তারা ১৯৯৭ সাল থেকে বন্ধু ছিলেন,[১৬] এবং ২০০৩ সালে একত্রে প্রথম জেউঁ দেফান্তস ছবিতে অভিনয় করেন। একটি প্রচলিত ভুল ধারণা হল তারা বিবাহিত, কিন্তু তা নয়। কোতিয়ারকে তার বাম হাতে একটি হিরার সোলিটার পড়তে দেখা যায়, যা কানেতের দেওয়া একটি উপহার এবং তারা বাগদত্তাও নন। ২০১৪ সালে তিনি কানেতের সাথে তার বিয়ের কথা অস্বীকার করেন,[১৭] বরং তিনি সাক্ষাৎকারে তাকে "আমার ছেলে বন্ধু" বলে উল্লেখ করেন।[১৮][১৯][২০][২১] ২০১১ সালে তাদের প্রথম সন্তান, একটি পুত্র, জন্মগ্রহণ করে এবং ২০১৭ সালে তাদের দ্বিতীয় সন্তান, একটি কন্যা, জন্মগ্রহণ করে।[২২][২৩][২৪]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

২০১৭ সাল পর্যন্ত, কোতিয়ার অভিনীত চলচ্চিত্রসমূহ বিশ্বব্যাপী বক্স অফিসে ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছে।[২৫][২৬][২৭]

পুরস্কার ও মনোনয়ন[সম্পাদনা]

মারিয়োঁ কোতিয়ার একবার করে একাডেমি পুরস্কার, বাফটা পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, দুইবার সিজার পুরস্কার, এবং একবার করে লুমিয়ে পুরস্কারইউরোপিয়ান ফিল্ম পুরস্কার লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "'Inception' Star Marion Cotillard's other new film"গ্রিনপিস। ২২ জুলাই ২০১০। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  2. "Marion Cotillard, reine du box-office français"Madame Figaro (ফরাসি ভাষায়)। ২২ এপ্রিল ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  3. "Marion Cotillard: 'I felt I could lose myself'"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। ১৬ আগস্ট ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  4. "Marion Cotillard: 'Before my family, everything was dedicated to the character'"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। ২ আগস্ট ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  5. Gilbey, Ryan (৭ জুলাই ২০০৭)। "Marion has no regrets either" (ইংরেজি ভাষায়)। News.com.au। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  6. "Niseema Theillaud, mère Méditerranée" (ফরাসি ভাষায়)। Gala.fr। ১৫ মার্চ ২০১১। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  7. "Marion Cotillard, belle à douter" (ফরাসি ভাষায়)। RTBF। ১০ মে ২০১৬। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  8. Bunbury, Stephanie (১৫ জুলাই ২০০৭)। "Birds of a feather"The Age (ইংরেজি ভাষায়) (Melbourne, Australia)। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  9. "MARION ET GUILLAUME: UN BÉBÉ POUR LE PRINTEMPS"প্যারিস ম্যাচ (ফরাসি ভাষায়) (প্যারিস)। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  10. "Marion Cotillard, Inception : les hommes de sa vie"Télé Star (ফরাসি ভাষায়)। ৩ মার্চ ২০১৬। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  11. "Marion Cotillard en couple avec Sinclair?"actustar.com (ফরাসি ভাষায়)। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০০৫। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  12. "Marion Cotillard et Sinclair"Gala.fr (French ভাষায়)। ২৩ অক্টোবর ২০০৫। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  13. "Guillaume Canet et Marion Cotillard : ensemble !"Pure People (French ভাষায়)। ১৫ অক্টোবর ২০০৭। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  14. "Marion Cotillard sur un nuage"Gala.fr (French ভাষায়)। ১৭ অক্টোবর ২০০৭। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  15. "La fiction a rejoint la réalité"DH.be (French ভাষায়)। ২০ অক্টোবর ২০০৭। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  16. "Truly, madly, deeply"The Sunday Times। ২৭ মার্চ ২০১১। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  17. "Marion Cotillard: "Elle joue le jeu""Libération.fr (ফরাসি ভাষায়)। ২০ মে ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  18. "Marion Cotillard Talks 'The Immigrant,' ‘Lady Macbeth,' Scorsese and the Dardennes Brothers"ভ্যারাইটি (ইংরেজি ভাষায়)। ৭ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  19. "Marion Cotillard by John Cameron Mitchell"Interview Magazine। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  20. "Marion Cotillard Flirts With the Dark Side"ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল (ইংরেজি ভাষায়)। ৮ মে ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  21. "Marion Cotillard: Drawn to Drama – Interview"Under the Radar (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ জানুয়ারি ২০১৫। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  22. "Marion Cotillard Gives Birth"পিপল (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১১-০৫-২০। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  23. "It’s a Girl! Marion Cotillard Welcomes a Daughter"পিপল। ১৬ মার্চ ২০১৭। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  24. "Marion Cotillard maman : le prénom de sa fille dévoilé"Gala.fr (ফরাসি ভাষায়)। ১৬ মার্চ ২০১৭। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  25. "Marion Cotillard – JP's Box-Office"jpbox-office.com (ইংরেজি ভাষায়)। ১ মার্চ ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  26. "Marion Cotillard – Box Office History" (ইংরেজি ভাষায়)। The Numbers। ১ মার্চ ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
  27. "Marion Cotillard" (ইংরেজি ভাষায়)। CBO Box Office। ১ মার্চ ২০১৪। সংগৃহীত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]