ম্যারি স্টিনবার্জেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ম্যারি স্টিনবার্জেন
MarySteenburgenDec09.jpg
২০০৯ সালের ডিসেম্বর মাসে স্টিনবার্জেন
স্থানীয় নাম
Mary Steenburgen
জন্ম
ম্যারি নেল স্টিনবার্জেন

(1953-02-08) ৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩ (বয়স ৬৬)
বাসস্থানলস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
যেখানের শিক্ষার্থীহেনড্রিক্স কলেজ
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল১৯৭৮-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীম্যালকম ম্যাকডাওয়েল
(বি. ১৯৮০; বিচ্ছেদ. ১৯৯০)

টেড ড্যানসন[১] (বি. ১৯৯৫)
সন্তান

ম্যারি নেল স্টিনবার্জেন[২] (ইংরেজি: Mary Nell Steenburgen; জন্ম: ৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩)[৩] হলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী ও গায়িকা। তিনি জোনাথন ডেমির মেলভিন অ্যান্ড হাওয়ার্ড (১৯৮০) চলচ্চিত্রে লিন্ডা ডামার চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারগোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন।

স্টিনবার্জেন ১৯৭০-এর দশকে নিউ ইয়র্কের নেইবারহুড প্লেহাউজে অধ্যয়ন করেন। ১৯৮১ সালে র‍্যাগটাইম চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অভিনীত অন্যান্য উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহ হল ক্রস ক্রিক (১৯৮৩), পেরেন্টহুড (১৯৮৯), ব্যাক টু দ্য ফিউচার পার্ট টু (১৯৯০), ফিলাডেলফিয়া (১৯৯৩), হোয়াটস ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ (১৯৯৩), এলফ (২০০৩), দ্য ব্রেভ ওয়ান (২০০৭), স্টেপ ব্রাদার্স (২০০৮), দ্য প্রপোজাল (২০০৯), এবং দ্য হেল্প (২০১১)। তিনি ১৯৮৫ সালে মিনি ধারাবাহিক টেন্ডার ইজ দ্য নাইট-এ অভিনয় করে একটি বাফটা টিভি পুরস্কার এবং ১৯৮৮ সালে টিভি চলচ্চিত্র দ্য অ্যাটিক: দ্য হাইডিং অব আন ফ্রাংক-এ অভিনয় করে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

অভিনেতা জ্যাক নিকোলসন প্যারামাউন্টের নিউ ইয়র্ক অফিসের অভ্যর্থনা কক্ষে স্টিনবার্জেনকে আবিষ্কার করেন এবং তার পরিচালিত দ্বিতীয় চলচ্চিত্র গোয়িন সাউথ (১৯৭৮)-এ প্রধান অভিনেত্রী হিসেবে নির্বাচন করেন। পরের বছর স্টিনবার্জেন টাইম আফটার টাইম (১৯৭৯) ছবিতে লেখক এইচ. জি. ওয়েল্‌সের প্রেমে পড়া নারী চরিত্রে অভিনয় করেন। এতে তার বিপরীতে ওয়েলসের ভূমিকায় অভিনয় করেন তার ভবিষ্যৎ স্বামী ম্যালকম ম্যাকডাওয়েল

তার তৃতীয় চলচ্চিত্র মেলভিন অ্যান্ড হাওয়ার্ড (১৯৮০)। জোনাথন ডেমি পরিচালিত এই চলচ্চিত্রে তিনি উদীয়মান গায়ক মেলভিন ডামারের স্ত্রী লিন্ডা ডামার চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারগোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন।

তিনি হোয়াটস ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ (১৯৯৩) চলচ্চিত্রে জনি ডেপ অভিনীত চরিত্রের প্রেমিকার ভূমিকায়; অলিভার স্টোনের জীবনীমূলক নিক্সন (১৯৯৫) চলচ্চিত্রে হ্যানা নিক্সন চরিত্রে; এলফ (২০০৩) ছবিতে উইল ফেরেলের সাথে অভিনয় করেন।

তিনি হাস্যরসাত্মক দ্য ব্রেভ ওয়ান (২০০৭) চলচ্চিত্রের ফেরেলের চরিত্রের মায়ের চরিত্রে, স্টেপ ব্রাদার্স (২০০৮), ফোর ক্রিসমান (২০০৮) ছবিতে ভিন্স ভন ও রিজ উইদারস্পুনের সাথে; এবং দ্য প্রপোজাল (২০০৯) ছবিতে সান্ড্রা বুলকরায়ান রেনল্ডসের সাথে; এবং বহুল সমাদৃত দ্য হেল্প (২০১১) ছবিতে এমা স্টোনভায়োলা ডেভিসের সাথে অভিনয় করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ইভান্স, মেগান এম. (১০ নভেম্বর ২০১৮)। "Ted Danson's wife, Mary Steenburgen, would 'sign up for 100 more lifetimes' with her husband of 23 years"ফক্স নিউজ। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Mary Steenburgen Sees Herself in Her Latest Role"ফিলাডেলফিয়া ইনকোয়ারার। ৩ অক্টোবর ১৯৯৮। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  3. "Mary Steenburgen - Theater Actress, Actress, Television Actress, Film Actress"বায়োগ্রাফি। এঅ্যান্ডই টেলিভিশন নেটওয়ার্কস। ২৩ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]