সুজান সার‍্যান্ডন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সুজান সার‍্যান্ডন
Susan Sarandon at the set of 'American Mirror' cropped and edited.jpg
২০১৬ সালে আমেরিকান মিরর ছবির সেটে সার‍্যান্ডন
স্থানীয় নাম
Susan Sarandon
জন্ম
সুজান অ্যাবিগেল টমালিন

(1946-10-04) ৪ অক্টোবর ১৯৪৬ (বয়স ৭২)
জাতীয়তামার্কিন
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল১৯৭০-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীক্রিস সার‍্যান্ডন
(বি. ১৯৬৭; বিচ্ছেদ. ১৯৭৯)
সঙ্গীফ্রাঙ্কো আমুরি (১৯৮৪-১৯৮৮)
টিম রবিন্স (১৯৮৮-২০০৯)
জোনাথন ব্রিকলিন (২০০৯-২০১৫)
সন্তান৩, ইভা আমুরি সহ

সুজান সার‍্যান্ডন (ইংরেজি: Susan Sarandon) নামে পরিচিত সুজান অ্যাবিগেল টমালিন (ইংরেজি: Susan Abigail Tomalin; জন্ম: ৪ অক্টোবর ১৯৪৬)[১] হলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী ও সমাজকর্মী। তিনি একটি করে একাডেমি পুরস্কার, বাফটা পুরস্কার, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার ও দুটি দাভিদ দি দোনাতেল্লো অর্জন করেছেন এবং ছয়টি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কার ও নয়টি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেছেন। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি তার সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত। তিনি ১৯৯৯ সালে ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত নিযুক্ত হন[২] এবং ২০০৬ সালে অ্যাকশন অ্যাগেইনস্ট হাঙ্গার হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

সার‍্যান্ডন ১৯৭০ সালে জো চলচ্চিত্র দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন এবং পরে আ ওয়ার্ল্ড অ্যাপার্ট (১৯৭০-৭১) সোপ অপেরায় অভিনয় করেন। ১৯৭৪ সালে তিনি টিভি চলচ্চিত্র এফ. স্কট ফিট্‌জেরাল্ড অ্যান্ড 'দ্য লাস্ট অব দ্য বেলেস'-এ জেল্ডা ফিট্‌জেরাল্ডের যুবতী বয়সের চরিত্রে এবং ১৯৭৫ সালে জনপ্রিয় কাল্ট চলচ্চিত্র দ্য রকি হরর পিকচার শো-এ অভিনয় করেন। তিনি আটলান্টিক সিটি (১৯৮০), থেলমা অ্যান্ড লুইস (১৯৯১), লরেঞ্জোস অয়েল (১৯৯২) ও দ্য ক্লায়েন্ট (১৯৯৪) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং ডেড ম্যান ওয়াকিং (১৯৯৫) ছবিতে অভিনয় করে একাডেমি পুরস্কার ও স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া তিনি দ্য ক্লায়েন্ট ছবিতে তার কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ প্রধান চরিত্রে অভিনেত্রী বিভাগে বাফটা পুরস্কার লাভ করেন। তার অন্যান্য উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হল প্রিটি বেবি (১৯৭৮), দ্য হাঙ্গার (১৯৮৩), দ্য উইচেস অব ইস্টউইক (১৯৮৭), বুল ডারহাম (১৯৮৮), হোয়াইট প্যালেস (১৯৯০), লিটল উইমেন (১৯৯৪), স্টেপমম (১৯৯৮), এনচেন্টেড (২০০৭), দ্য লাভলি বোনস (২০০৯), ট্যামি (২০১৪), দ্য মেডলার (২০১৫), এবং আ ব্যাড মমস ক্রিসমাস (২০১৭)।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বার্নিস, জেনেট (মার্চ–এপ্রিল ২০০৭)। "Susan Catches Wales"অ্যানসেস্ট্রি ম্যাগাজিন (ইংরেজি ভাষায়)। Ancestry Inc: ৩৯। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০১৮ 
  2. "Susan Sarandon: Charity Work & Causes"লুক টু দ্য স্টার্স (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]