জ্যানেট গেনর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জ্যানেট গেনর
Janet Gaynor-publicity.JPG
১৯৩৪ সালে গেনর
স্থানীয় নামJanet Gaynor
জন্মলরা অগাস্টা গেইনর
(১৯০৬-১০-০৬)৬ অক্টোবর ১৯০৬
জার্মানটাউন, ফিলাডেলফিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
মৃত্যু১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৪(১৯৮৪-০৯-১৪) (৭৭ বছর)
পাম স্প্রিংস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
মৃত্যুর কারণসড়ক দুর্ঘটনায় আহত
সমাধিহলিউড ফরেভার সিমেট্রি
শিক্ষাসান ফ্রান্সিস্কো পলিটেকনিক হাই স্কুল
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল১৯২৪–১৯৮২
দাম্পত্য সঙ্গীজেসি লাইডেল পেক (বি. ১৯২৯; তালাক. ১৯৩৩)
অ্যাড্রিয়ান (বি. ১৯৩৯; মৃ. ১৯৫৯)
পল গ্রেগরি (বি. ১৯৬৪–১৯৮৪)
সন্তান
পুরস্কারএকাডেমি পুরস্কার

জ্যানেট গেনর (ইংরেজি: Janet Gaynor; জন্ম: লরা অগাস্টা গেইনর ৬ই অক্টোবর, ১৯০৬ - ১৪ই সেপ্টেম্বর, ১৯৮৪)[১] ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী ও চিত্রশিল্পী। তিনি একাডেমি পুরস্কারের প্রথম আয়োজনে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে পুরস্কার লাভ করেন।

গেনর স্বল্পদৈর্ঘ্য ও নির্বাক চলচ্চিত্রে অতিরিক্ত শিল্পী হিসেবে তার কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯২৬ সালে ফক্স ফিল্ম করপোরেশনের সাথে (পরবর্তীতে টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স) চুক্তির পর তার খ্যাতি ছড়িয়ে পরে এবং তিনি সেই যুগের বক্স অফিসে অন্যতম তারকা হয়ে ওঠেন। ১৯২৯ সালে তিনি সেভেন্‌থ হেভেন, সানরাইজ: আ সং অব টু হিউম্যানসস্ট্রিট অ্যাঞ্জেল ছবিতে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। সবাক চলচ্চিত্র যুগেও গেনর সফল ছিলেন এবং আ স্টার ইজ বর্ন ছবিতে অভিনয়ের জন্য তার দ্বিতীয় একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

১৯৩৯ সালে অভিনয় থেকে অবসর গ্রহণের পর গেনর পোশাক পরিকল্পনাবিদ অ্যাড্রিয়েনকে বিয়ে করেন। তাদের এক পুত্র জন্মগ্রহণ করে। পরবর্তীতে ১৯৫০-এর দশকে তিনি কয়েকটি চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন নাটকে কাজ করেন এবং নামকরা তৈল চিত্রশিল্পী হয়ে ওঠেন। ১৯৮০ সালে হ্যারল্ড অ্যান্ড মডি মঞ্চনাটক দিয়ে গেনরের ব্রডওয়েতে অভিষেক হয় এবং ১৯৮২ সালে অন গোল্ডেন পন্ড মঞ্চনাটক নিয়ে সফর করেন। ১৯৮২ সালে তিনি এক গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত হন এবং এই আঘাতেই ভুগেই তিনি ১৯৮৪ সালের সেপ্টেম্বরে মারা যান।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বার্ড, ডেভিড (১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৮৪)। "Janet Gaynor Is Dead At 77; First 'Best Actress' Winner" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৮ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]