ডেবি রেনল্ডস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডেবি রেনল্ডস
Debbie Reynolds 6 Allan Warren.jpg
১৯৮৭ সালে অ্যালেন ওয়ারেনের তোলা ছবিতে রেনল্ডস
স্থানীয় নাম
Debbie Reynolds
জন্ম
ম্যারি ফ্রান্সেস রেনল্ডস

(১৯৩২-০৪-০১)১ এপ্রিল ১৯৩২
মৃত্যু২৮ ডিসেম্বর ২০১৬(2016-12-28) (বয়স ৮৪)
লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
সমাধিফরেস্ট লন মেমোরিয়াল পার্ক
পেশাঅভিনেত্রী, গায়িকা, ব্যবসায়ী, নৃত্যশিল্পী
কার্যকাল১৯৪৮-২০১৬
দাম্পত্য সঙ্গীএডি ফিশার
(বি. ১৯৫৫; বিচ্ছেদ. ১৯৫৯)

হ্যারি কার্ল
(বি. ১৯৬০; বিচ্ছেদ. ১৯৭৩)

রিচার্ড হ্যামলেট
(বি. ১৯৮৪; বিচ্ছেদ. ১৯৯৬)
সন্তানক্যারি ফিশার
টড ফিশার
ওয়েবসাইটdebbiereynolds.com

ম্যারি ফ্রান্সেস "ডেবি" রেনল্ডস (ইংরেজি: Mary Frances "Debbie" Reynolds; ১ এপ্রিল ১৯৩২ - ২৮ ডিসেম্বর ২০১৬) ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী, গায়িকা, ব্যবসায়ী, নৃত্যশিল্পী, চলচ্চিত্র ইতিহাসবেত্তা ও মানবহিতৈষী। তার কর্মজীবনের ব্যপ্তি ছিল সত্তর বছর। তিনি থ্রি লিটল ওয়ার্ডস (১৯৫০) চলচ্চিত্রে হেলেন কেন চরিত্রে অভিনয় করে বর্ষসেরা নবাগত বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। প্রধান চরিত্রে তার প্রথম আলোচিত সাফল্য ছিল সিঙিন ইন দ্য রেইন (১৯৫২) চলচ্চিত্রে ক্যাথি সেলডেন চরিত্রে কাজ। তার অন্যান্য সফল চলচ্চিত্রসমূহ হল দি অ্যাফেয়ার্স অব ডবি গিলিস (১৯৫৩), সুজান স্লেপ্ট হিয়্যার (১৯৫৪), বান্ডেল অব জয় (১৯৫৬, সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারে মনোনীত), দ্য ক্যাটারড অ্যাফেয়ার (১৯৫৬, শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে ন্যাশনাল বোর্ড অব রিভিউ পুরস্কার জয়ী), এবং ট্যামি অ্যান্ড দ্য ব্যাচেলর (১৯৫৭)। শেষোক্ত চলচ্চিত্রে তার গাওয়া "ট্যামি" গানটি বিলবোর্ড সঙ্গীত তালিকায় প্রথম স্থানে পৌঁছে। ১৯৫৯ সালের তার প্রথম পপ সঙ্গীতের অ্যালবাম ডেবি প্রকাশিত হয়।[১]

তিনি মলি ব্রাউনের জীবনীমূলক চলচ্চিত্র দ্য আনসিঙ্কেবল মলি ব্রাউন (১৯৬৪)-এ অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য একাডেমি পুরস্কার[২] ও সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অন্যান্য চলচ্চিত্রসমূহ হল দ্য সিঙিং নান (১৯৬৬), ডিভোর্স আমেরিকান স্টাইল (১৯৬৭), হোয়াট্‌স দ্য ম্যাটার উইথ হেলেন? (১৯৭১), শার্লট্‌স ওয়েব (১৯৭৩), মাদার (১৯৯৬, সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারে মনোনীত), এবং ইন অ্যান্ড আউট (১৯৯৭)।

১৯৬৯ সালে তিনি দ্য ডেবি রেনল্ডস শো টেলিভিশন অনুষ্ঠানে কাজ শুরু করেন, এই কাজের জন্য তিনি একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৭৩ সালে তিনি ব্রডওয়ের সঙ্গীতনাট্য আইরিন-এর পুনরুজ্জীবিতকরণে অভিনয় করে সঙ্গীতনাট্যে শ্রেষ্ঠ মুখ্য অভিনেত্রী বিভাগে টনি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৯৯ সালে আ গিফট অব লাভ ধারাবাহিকে অভিনয় করে তিনি একটি ডেটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং উইল অ্যান্ড গ্রেস ধারাবাহিকে গ্রেসের মা ববি চরিত্রে অভিনয় করে একটি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৮৮ সালে তার প্রথম আত্মজীবনী ডেবি: মাই লাইফ এবং ২০১৩ সালে তার দ্বিতীয় আত্মজীবনী আনসিঙ্কেবল: আ মেমোয়ার প্রকাশিত হয়।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Debbie Reynolds, a wholesome Hollywood icon"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ ডিসেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৯ 
  2. লোরি, ব্রায়ান (২৮ ডিসেম্বর ২০১৬)। "Debbie Reynolds, 'Singin' in the Rain' star, dies at 84"সিএনএন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৯ 
  3. "Debbie Reynolds Memoir: 'Unsinkable' To Highlight Divorces"দ্য হাফিংটন পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস। ৩১ জানুয়ারি ২০১২। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]