পাবনা সদর উপজেলা

স্থানাঙ্ক: ২৪°১′১২″ উত্তর ৮৯°১৭′২৪″ পূর্ব / ২৪.০২০০০° উত্তর ৮৯.২৯০০০° পূর্ব / 24.02000; 89.29000
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাবনা সদর
উপজেলা
পাবনা সদর রাজশাহী বিভাগ-এ অবস্থিত
পাবনা সদর
পাবনা সদর
পাবনা সদর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
পাবনা সদর
পাবনা সদর
বাংলাদেশে পাবনা সদর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°১′১২″ উত্তর ৮৯°১৭′২৪″ পূর্ব / ২৪.০২০০০° উত্তর ৮৯.২৯০০০° পূর্ব / 24.02000; 89.29000 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগরাজশাহী বিভাগ
জেলাপাবনা জেলা
আয়তন
 • মোট৪৩৮.৩৯ বর্গকিমি (১৬৯.২৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট৫,৯০,৯১৪
 • জনঘনত্ব১,৩০০/বর্গকিমি (৩,৫০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫০ ৭৬ ৫৫
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

পাবনা সদর উপজেলা বাংলাদেশের পাবনা জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।পাবনা জেলা পদ্মা এবং যমুনা নদীর মিলনস্থলে অবস্থিত। ১৯৪৮ সালে যমুনা নদীকে পাবনা জেলার সীমানা নির্ধারক ঘোষণা করা হয়। কাজেই পাবনা একটি প্রাচীন জেলা এবং সদর উপজেলা জেলার প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত

অবস্থান[সম্পাদনা]

এই উপজেলার পূর্বে সাঁথিয়া উপজেলা এবং সুজানগর উপজেলা, পশ্চিমে ঈশ্বরদী উপজেলা, উত্তরে আটঘরিয়া উপজেলা এবং দক্ষিণে কুষ্টিয়া জেলা এবং পদ্মা নদী ও ইছামতি নদী।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

নির্বাচনী এলাকাঃ ৭২, পাবনা-৫। থানা/ইউনিয়নঃ ১ টি পৌরসভা এবং ১০ টি ইউনিয়ন। মৌজাঃ ২৫৯ টি।

ইউনিয়নগুলিঃ মালিগাছা ইউনিয়ন, ভাঁড়ারা ইউনিয়ন, আতাইকুলা ইউনিয়ন, মালঞ্চি ইউনিয়ন, দাপুনিয়া ইউনিয়ন, গয়েশপুর ইউনিয়ন, সাদুল্লাপুর ইউনিয়ন, চরতারাপুর ইউনিয়ন, হেমায়েতপুর ইউনিয়ন, দোগাছী ইউনিয়ন

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯২৮ সালের ১৬ অক্টোবর তারিখে তৎকালীন রাজশাহী জেলার ৫টি এবং যশোহর জেলার ৩টি থানা নিয়ে পাবনা জেলার সৃষ্টি হয়। ১৮৫৫ সালে সিরাজগঞ্জ থানাকে ময়মনসিংহ জেলা থেকে নিয়ে পাবনা জেলার সাথে যুক্ত করা হয়। ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত পাবনা সদর মহকুমা এবং সিরাজগঞ্জ নিয়ে পাবনা জেলা গঠিত ছিল। ১৯৮৪ সালে পাবনা ও সিরাজগঞ্জ দুটি স্বতন্ত্র জেলা হিসেবে পরিচিতি লাভ করে।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

জনসংখ্যাঃ ৪,৭৬,৯৩২ জন। ঘনত্বঃ ১০৭৪ জন/বর্গ কিঃ মিঃ

মোট ইউনিয়ন:

ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার
পুরুষ মহিলা
আতাইকোলা ১৬ ৮৪৫৮ ১৮৫০১ ১৬৭০৯
গয়েশপুর ৫১ ৭৭২৫ ১৭৫৭৭ ১৫৫৭৮ ৩৭.৭২
চরতারাপুর ২৫ ৭৪৫৬ ১২৮৯৬ ১২০৩৮ ৩১.৯৪
দাপুনিয়া ৩৪ ৭৮৬৯ ১৪৭৪৫ ১৪০৪৭ ৪২.০১
দোগাছী ৪৩ ১৪২২৯ ৩৩৩৮২ ৩১৪২৭ ৪২.৪৯
ভাঁড়ারা ১৭ ২০১৮২ ২৩৬৪৩ ২১৬১৩ ২৮.৮৭
মালঞ্চী ৬৯ ৫৮৩৬ ১২৮৮৬ ১২০০৬ ৪১.৯৬
মালিগাছা ৭৭ ৭০৯৭ ১৮১৫৩ ১৭২৯৬ ৪৪.২০
সাদুল্ললাপুর ৯৪ ৭৭৫৬ ১৪২৭০ ১৩২০৪ ২৯.৮৭
হেমায়েতপুর ৬০ ১৬৭৩২ ২০৮৮২ ১৯৭৭৪ ৪৬.৯৪

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যাা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

পাবনা জেলা স্কুল - স্থাপিত 1853 মেডিক্যাল কলেজঃ ১ টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ঃ ১ টি সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ঃ ১ টি ক্যাডেট কলেজঃ ১ টি পলিটেকনিক ইনষ্টিটিটঃ ১ টি ভোকেশনাল ইনষ্টিটিউটঃ ১ টি কমার্শিয়াল ইনষ্টিটিউটঃ ১ টি আইন কলেজঃ ১ টি প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষক ইনষ্টিটিউটঃ ১ টি টেক্সটাইল ইনষ্টিটিউটঃ ১ টি সেবিকা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রঃ ১ টি হোমিওপ্যাথিক কলেজঃ ১ টি

মাদ্রাসা[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

পাবনা সদর উপজেলার দোগাছী ও গয়েশপুরের তাঁতের কাপড় ও লুঙ্গি দেশবিখ্যাত এবং পাবনা সদর উপজেলায় তাঁত শিল্প আছে। পাবনা সদর থানায় সর্বমোট ব্যাংক এর সংখ্যা ৬১ টি।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি[সম্পাদনা]

শহিদ বুদ্ধিজীবী ডা. ফজলে রাব্বী

ঐতিহাসিক নিদর্শন ও ঐতিহ্য[সম্পাদনা]

পাবনা মানসিক হাসপাতাল

গণমাধ্যম[সম্পাদনা]

পাবনা জেলা থেকে প্রতিদিন ৭টি দৈনিক পত্রিকা প্রকাশিত হয়। এ জেলার সাপ্তাহিক পত্রিকা রয়েছে ৬ টি।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে জেলা সদর"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]