জুনায়েদ বাবুনগরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জুনায়েদ আহমদ বাবুনগরী
উপাধিমুহাদ্দিস
জন্মফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ
জাতিভুক্তবাংলাদেশী
মূল আগ্রহআকিদা, তাফসির, তাসাউফ, হাদিস, ফিকহ
লক্ষণীয় কাজ
শিক্ষায়তনআল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম

আল্লামা হাফেজ জুনায়েদ বাবুনগরী বাংলাদেশের একজন ইসলামি চিন্তাবিদ, জনপ্রিয় একজন মুসলিম নেতা, প্রখ্যাত হাদিস বিশারদ আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসা অন্যতম প্রধান মুহাদ্দিস এবং চট্টগ্রামের হাটহাজারী থেকে পরিচালিত সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর মহাসচিব।

জন্ম ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

জুনাইদ বাবুনগরীর জন্ম ১৯৫৫ সালে, চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি থানার বাবুনগর গ্রামে। ৫ বছর বয়সে তিনি জামিয়া বাবুনগর মাদ্রাসায় ভর্তি হন। এরপর ১০ বছর আল্‌-জামিয়াতুল আহ্‌লিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসায় অতিবাহিত করেন। ২০ বছর বয়সে তিনি পাকিস্তানের দারুল উলুম করাচি মাদরাসায় ভর্তি হন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শিক্ষকতা[সম্পাদনা]

জুনাইদ বাবুনগরী একাধারে চার বছর অধ্যয়ন ও বিশ্ববিখ্যাত ধর্মগুরুদের পদাঙ্ক অনুসরণের মাধ্যমে হাদিস, তাফসির, ফিকাহশাস্ত্র বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করেন। তিনি চট্টগ্রামে আল্‌-জামিয়াতুল ইসলামিয়া বাবুনগর মাদরাসায় শিক্ষক হিসেবে তিনি নিযুক্ত হন। বর্তমানে তিনি আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম এর মুহাদ্দিসের দায়িত্ব পালন করছেন।[১]

হেফাজতে ইসলাম[সম্পাদনা]

সাম্প্রদায়িকতা[সম্পাদনা]

জুনায়েদ বাবুনগরী মনে করেন, বাংলাদেশ মুসলমানদের দেশ হিসেবে এখানে নাস্তিকদের থাকার অধিকার নেই। এমনকি, তিনি হেফাজতে ইসলামের মুখপাত্র হিসেবে বলেন, "এদেশে নাস্তিক মুরতাদরা থাকবে নয়তো হেফাজত থাকবে।" এছাড়াও তিনি নাস্তিকদের দেশ থেকে বিতারণের জন্য বিভিন্ন সময় কঠোর ভাষায় ঘোষণা দিয়েছেন।[২][৩]

গ্রেফতার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]