আব্দুল হালিম বুখারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হাকিমুল মিল্লাত, আল্লামা

আব্দুল হালিম বুখারী
মহাপরিচালক, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়া
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০০৮
পূর্বসূরীনুরুল ইসলাম কদীম
মহাসচিব, আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশ
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯৮৩
প্রধান সম্পাদক, মাসিক আত তাওহীদ
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯৮২
সভাপতি, ইসলামী সম্মেলন সংস্থা বাংলাদেশ
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০১৬
পূর্বসূরীমুফতি আবদুর রহমান
ব্যক্তিগত
জন্মজানুয়ারি ১৯৪৫ (বয়স ৭৬)
রাজঘাটা, (তৎকালীন সাতকানিয়ার অন্তর্গত), বর্তমান লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম
ধর্মইসলাম
জাতীয়তাবাংলাদেশি
সন্তান
পিতামাতা
  • আব্দুল গণী বুখারী (পিতা)
  • শাকেরা বেগম (মাতা)
জাতিসত্তাবাঙালি
যুগআধুনিক
আখ্যাসুন্নি
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহহাদিস, ফিকহ, তাসাউফ, সাহিত্য, ইসলামি ইতিহাস, সমাজসেবা, লেখালেখি
উল্লেখযোগ্য কাজতাসহিলুত ত্বহাভি
যেখানের শিক্ষার্থী
আত্মীয়আব্দুর রহিম বুখারী (ভাই)
স্বাক্ষরAbdul Halim Bukhari’s signature.svg
ঊর্ধ্বতন পদ

আব্দুল হালিম বুখারী ( জন্ম: জানুয়ারি ১৯৪৫ ) একজন বাংলাদেশি দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত, শিক্ষাবিদ, ধর্মীয় লেখক, বক্তা, সমাজ সংস্কারক ও আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব। তিনি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাবেক উপদেষ্টা, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ার মহাপরিচালক, কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশের মহাসচিব, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের শরীয়াহ সুপারভাইজারি কমিটির সভাপতি, ইসলামি সম্মেলন সংস্থা বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ তাহফিজুল কুরআন সংস্থার সভাপতি এবং জামিয়া পটিয়ার মুখপাত্র মাসিক আত তাওহীদের প্রধান সম্পাদক। ২০১৮ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের স্বীকৃতি প্রদানের নিমিত্তে আল হাইআতুল উলয়া গঠিত হলে তিনি এর স্থায়ী কমিটির সদস্য মনোনীত হন।

জন্ম ও বংশ[সম্পাদনা]

বুখারী জানুয়ারি ১৯৪৫ সালে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার রাজঘাটা (তৎকালীন সাতকানিয়ার অন্তর্গত) গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আব্দুল গণী বুখারী।[১] তার পরদাদা সৈয়দ আহমদ বুখারী উজবেকিস্তানের বোখারার বাসিন্দা ছিলেন। বৈরী পরিবেশে তিনি চীন-ভারত হয়ে ইয়াঙ্গুনে হিজরত করেন। পরবর্তীতে তিনি বাংলাদেশে বসতি স্থাপন করেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

তিনি নিজ গ্রামের রাজঘাটা হোসাইনিয়া আজিজুল উলুম মাদ্রাসায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করেন। তারপর আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ায় ভর্তি হয়ে ১৯৬৪ সালে দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) সমাপ্ত করেন। ১৯৬৫ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চতর বাংলা সাহিত্য ও গবেষণা বিভাগে অধ্যয়ন করেন। তিনি টাঙ্গাইল আলিয়া মাদ্রাসা থেকে আলিম ও কামিল, গোপালপুর মাদ্রাসা থেকে ফাজিল ১ম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। তিনি টাঙ্গাইল কাগমারী কলেজ থেকে এইচএসসি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাশ করেন।[২] পাশাপাশি তিনি লাহোর ডন হোমিওপ্যাথিক কলেজে বায়োক্যামিকের উপর ২ বছর মেয়াদী কোর্স সম্পন্ন করেন।[১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শিক্ষকতার মাধ্যমে তিনি কর্মজীবনের সূচনা করেন। ১৯৬৭ — ১৯৬৮ পর্যন্ত তিনি টাঙ্গাইল দারুল উলুম আলিয়া মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক ছিলেন। এরপর তিনি সাতকানিয়া মাহমুদুল উলুম আলিয়া মাদ্রাসায় যোগদান করেন। ১৯৭২ সালে তিনি পুনরায় টাঙ্গাইল দারুল উলুম আলিয়া মাদ্রাসায় চলে যান। ১৯৭২ — ১৯৮২ পর্যন্ত সেখানে মুহাদ্দিস ও শায়খুল হাদিস হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮২ সালে তিনি আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ায় চলে আসেন।[১]

২০০৩ — ২০০৮ পর্যন্ত জামিয়ার সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব পালনের পর ২০০৮ সালে আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ার মহাপরিচালক মনোনীত হন।[১][৩][৪][৫][৬][৭][৮]

১৯৮২ থেকে জামিয়ার মুখপাত্র মাসিক আত তাওহীদের প্রধান সম্পাদক হিসেবে নিয়োজিত আছেন।[৯] বাংলাদেশের অন্যতম কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশের মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন ১৯৮৩ থেকে।[১০] জামিয়া পটিয়ার অধীনে পরিচালিত বাংলাদেশ তাহফীজুল কুরআন সংস্থার তিনি বর্তমান সভাপতি।[১১]

সারাদেশে ইসলামী সম্মেলন আয়োজন করার লক্ষ্যে ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসলামী সম্মেলন সংস্থা বাংলাদেশ। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ২০১৫ পর্যন্ত তিনি এই সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০১৫ সালে মুফতি আবদুর রহমানের মৃত্যুবরণের পর তিনি সভাপতির দায়িত্ব পান।[১২][১৩][১৪] তিনি শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের শরীয়াহ সুপারভাইজারি কমিটির সভাপতি।[১৫][১৬][১৬][১] ২০১৮ সালে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের স্বীকৃতি প্রদানের নিমিত্তে আল হাইআতুল উলয়া গঠিত হয়। আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশের মহাসচিব হিসেবে পদাধিকার বলে তিনি এর স্থায়ী কমিটির সদস্য মনোনীত হন।[১৭] ২০২০ সালের ১৫ নভেম্বর হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে তাকে উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য নির্বাচিত করা হয়।[১৮]

তাসাউফ[সম্পাদনা]

তিনি মুফতি আজিজুল হকের খলিফা জামিয়া ইসলামিয়া দারুসসুন্নাহ হ্নীলার সাবেক শায়খুল হাদিস শাহ মুহাম্মদ ইসহাকের নিকট বায়’আত গ্রহণ করেন এবং খেলাফত লাভ করেন।[১৯]

পরিবার[সম্পাদনা]

তিনি চট্টগ্রামের সাতকানিয়া নিবাসী মাওলানা এরশাদের কন্যা খালেসা বেগমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন৷ তার চার ছেলে ও তিন মেয়ে। পরিবারের সবাই ইসলামি কর্মকাণ্ডে জড়িত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

বই[সম্পাদনা]

তার উল্লেখ্যযোগ্য রচনার মধ্যে রয়েছে:[১]

  • তাসহিলুত ত্বহাভি
  • তাসহিলুল উসুল
  • তাসহিলুত তিরমিজী ইত্যাদি

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. মাহদী, সালিমুদ্দিন (২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০)। "মাওলানা মুফতি শাহ্ আব্দুল হালীম বােখারী দা.বা. এর সংক্ষিপ্ত জীবন ও কর্ম"কওমিপিডিয়া 
  2. "যাদের মাধ্যমে লেখালেখি ও উচ্চ শিক্ষায় প্রাণীত হয়েছি: ড. আফম খালিদ হুসাইন"বাংলানিউজ২৪.কম। ২০২১-০৩-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৩ 
  3. ১ নাম্বার, ধর্ম মন্ত্রণালয় (৯ জুলাই ২০১৯)। "ধর্মমন্ত্রানালয়ের ৫৫ জন শীর্ষ ওলামা মাশায়েখের তালিকা" (PDF)ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় 
  4. "ইসলামী শিক্ষাই দুনিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম : আবদুল হালিম বোখারি"দৈনিক নয়া দিগন্ত। ১৯৭০-০১-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০১ 
  5. কক্সবাজার, বিশেষ সংবাদদাতা (২১ জানুয়ারী ২০২০)। "মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে -আল্লামা আব্দুল হালিম বোখারী"দৈনিক ইনকিলাব। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০২ 
  6. "ওলামায়ে কেরামগণই হচ্ছে জাতির রাহবার : মাওলানা বোখারী"দ্য বাংলাদেশ টুডে। ৪ জানুয়ারী ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০২ 
  7. "আল্লাহর ওলিদের দরবার ও সোহবত থেকে দূরে থাকায় উম্মতের দুর্দিন চলছে: মাওলানা আব্দুল হালিম বুখারী"দৈনিক সময়ের আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৪ – www.shomoyeralo.com-এর মাধ্যমে। 
  8. উল্লাহ, সাখাওয়াত (২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮)। "কওমি সনদের স্বীকৃতি : শীর্ষ আলেমদের প্রতিক্রিয়া"কালের কন্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০২ 
  9. ১ম, পৃষ্ঠা। "প্রধান সম্পাদক"মাসিক আত তাওহীদ। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  10. ব্যুরো, কক্সবাজার। "ইমাম মুসলিম ইসলামিক সেন্টারে দাওরায়ে হাদিসের ক্লাস উদ্বোধন"দৈনিক ইনকিলাব। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০২ 
  11. "বাংলাদেশ তাহফীজুল কুরআন সংস্থার পরিচিতি"আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০২ 
  12. "ইসলামী সম্মেলন সংস্থা বাংলাদেশের কমিটি পুনর্গঠন"কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-১১ 
  13. "ইসলামী সম্মেলন সংস্থা বাংলাদেশের কমিটি পুনর্গঠন"বাংলানিউজ২৪.কম। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৩ 
  14. "হালীম বোখারী সভাপতি, আরশাদ সেক্রেটারি"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০১ 
  15. "Mufti Abdul Halim Bukharee, Chairman, Shariah Supervisory Committee of Shahjalal Islami Bank Limited, presiding over its 59th meeting at its head office in the city recently."m.thedailynewnation.com। ২০২০-১০-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৩ 
  16. "Members of Shariah Supervisory Committee: Shahjalal Islami Bank"www.sjiblbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০১ 
  17. "আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি'আতিল কওমিয়া বাংলাদেশের স্থায়ী কমিটি"আল হাইআতুল উলয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৩ 
  18. ডেস্ক, ওয়েব (১৫ নভেম্বর ২০২০)। "হেফাজতের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ"সময় টিভি। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১৫ 
  19. রিদওয়ানুল কাদির উখিয়াভী, হাফেজ, মাওলানা (আগস্ট ২০১৩)। "ঝরে গেল আজিজী কাননের সর্বশেষ পুষ্পটিও আল্লামা শাহ মােহাম্মদ ইসহাক ( সদর সাহেব ) রহ ."মাসিক আল আবরার। বসুন্ধরা, ঢাকা: মারকাযুল ফিকরিল ইসলামী বাংলাদেশ: ৩৬,৩৭,৩৮। ২৬ অক্টোবর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]