দারুল উলুম দেওবন্দ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দারুল উলুম দেওবন্দ
دارالعلوم دیوبند
दारुल उलूम देवबंद
দারুল উলুম দেওবন্দ
ধরনকওমি মাদ্রাসা
স্থাপিত৩১ মে ১৮৬৬; ১৫২ বছর আগে (1866-05-31)
আচার্যমজলিসে শুরা
অবস্থানদেওবন্দ, সাহারানপুর, উত্তর প্রদেশ, ভারত
ওয়েবসাইটwww.darululoom-deoband.com

দারুল উলুম দেওবন্দ (হিন্দি: दारुल उलूम देवबन्द, আরবিউর্দু: دارالعلوم دیوبند‎‎) হল ভারতের একটি মাদরাসা। এখান থেকে দেওবন্দি আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। উত্তর প্রদেশের সাহারানপুর জেলার দেওবন্দ নামক স্থানে এই মাদ্রাসার অবস্থান। ১৮৬৬ সালে বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট ইসলামি পণ্ডিত এটির প্রতিষ্ঠা করেন। মাওলানা মুহাম্মদ কাসেম নানুতুবি তাদের প্রধান ছিলেন। অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন মাওলানা রশিদ আহমেদ গাঙ্গোহি ও হাজি সাইদ আবিদ হুসাইন[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

দেশ ভাগের বিরোধিতা[সম্পাদনা]

দারুল উলুম দেওবন্দের পণ্ডিতদের একটি বড় অংশ ভারত ভাগ করে দুই রাষ্ট্রব্যবস্থার বিরোধিতা করেন। [১][২][৩] মাওলানা হুসাইন আহমেদ মাদানি পাকিস্তান ধারণার বিরোধিতাকারী পণ্ডিতদের অন্যতম ছিলেন। এ সময় তিনি মাদরাসার শায়খুল হাদিস হিসেবে কর্মরত ছিলেন এবং আলেমদের সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের নেতৃত্ব দেন। তিনি বলেন, "সবাইকে একটি গণতান্ত্রিক সরকারের জন্য প্রয়াস চালাতে হবে যাতে হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিষ্টান ও পারসিরা অন্তর্ভুক্ত থাকবে। এধরনের স্বাধীনতা ইসলামসম্মত।" দেওবন্দ ধারা ইসলামের প্রাচীন রূপের পৃষ্ঠপোষকতা করে এবং যেকোনো প্রকার সহিংসতা থেকে নিজেকে দূরে রাখে।

স্বদেশিকতা[সম্পাদনা]

মুসলিম মহিলাদের নেল পলিশ পরা বা নখে বড় না রেখে তার বদলে মেহেন্দি পরা উচিত বলে দাবি দারুল উলমের।[৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Abdus-Sattar Ghazzali ISLAMIC PAKISTAN: ILLUSIONS & REALITY
  2. A History of Pakistan and Its Origins By Christophe Jaffrelot, Gillian Beaumont, p. 224, আইএসবিএন ১-৮৪৩৩১-১৪৯-৬.
  3. Barelvi Islam. globalsecurity.org
  4. "Wear Mehndi" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৯°৪১′৩২″ উত্তর ৭৭°৪০′৩৯″ পূর্ব / ২৯.৬৯২২২° উত্তর ৭৭.৬৭৭৫০° পূর্ব / 29.69222; 77.67750