মাহফুজুল হক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

মুহাম্মদ মাহফুজুল হক

দামাত বারাকাতুহুম
Mahfuzul Haque.jpg
২০১৭ সালে মাহফুজুল হক
মহাসচিব, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০২০
পূর্বসূরীআব্দুল কুদ্দুস
মহাপরিচালক, জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, ঢাকা
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০০২
পূর্বসূরীআজিজুল হক
আল হাইআতুল উলয়ার স্থায়ী কমিটির সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০১৮
মহাসচিব, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস
অফিসে
২০১৩ – ২০২০
পূর্বসূরীহুমায়ুন কবীর
উত্তরসূরীমামুনুল হক
ব্যক্তিগত
জন্মনভেম্বর ১৯৬৯ (বয়স ৫১)
ধর্মইসলাম
জাতীয়তাবাংলাদেশি
সন্তানআহমদুল হক
পিতামাতা
জাতিসত্তাবাঙালি
যুগআধুনিক
আখ্যাসুন্নি
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহহাদিস, শিক্ষা সংস্কার, ইসলামের ইতিহাস, রাজনীতি, লেখালেখি, তাসাউফ
উল্লেখযোগ্য কাজইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া মুহাম্মদপুর
যেখানের শিক্ষার্থী
আত্মীয়মামুনুল হক (ভাই)
স্বাক্ষরMahfuzul Haque’s Signature.svg
মুসলিম নেতা

মুহাম্মদ মাহফুজুল হক ( জন্ম: নভেম্বর ১৯৬৯ ) একজন বাংলাদেশি দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত, রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, ধর্মীয় বক্তা ও সমাজ সংস্কারক। তিনি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নায়েবে আমীর, বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের মহাসচিব, জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, ঢাকার মহাপরিচালক, আঞ্চলিক কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড ইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া মুহাম্মদপুরের সভাপতি এবং জামিয়া রাহমানিয়া থেকে প্রকাশিত মাসিক রহমানী পয়গামের তত্ত্বাবধায়ক। তিনি বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ছিলেন। আইন অনুসারে, তিনি আল হাইআতুল উলয়ার স্থায়ী কমিটির সদস্য।

জন্ম ও বংশ[সম্পাদনা]

মাহফুজুল হক ১৯৬৯ সালের নভেম্বরে ঢাকা জেলার আজিমপুরে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা আজিজুল হক ছিলেন বাংলাদেশের একজন সুপরিচিত ইসলামি পণ্ডিত ও সহিহ বুখারীর প্রথম বাংলা অনুবাদক, যিনি শায়খুল হাদিস নামে সমাধিক পরিচিত। মামুনুল হক তার অনুজ, একজন প্রভাবশালী ইসলামি বক্তা ও রাজনীতিবিদ। ২০১২ সালে তার পিতা ও ২০১৯ সালের শেষ দিকে তার মা মৃত্যুবরণ করেন। ১৩ ভাইবোনের মধ্যে তিনি ৮ম। [১][২][৩]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

পিতা আজিজুল হকের নিকট তিনি প্রাথমিক শিক্ষার সূচনা করেন। তারপর আজিমপুর চাঁন-তারা মসজিদ সংলগ্ন হেফজ মাদ্রাসায় ভর্তি হন। আবদুল মতিনের তত্ত্বাবধানে ১১ বছর বয়সে তিনি কুরআনের হেফজ (মুখস্থ) সম্পন্ন করেন। এরপর তিনি জামিয়া কুরআনিয়া আরাবিয়া লালবাগে কিতাব বিভাগে ভর্তি হন। ১৯৮৪ সালে নাহবেমির (নিম্ন মাধ্যমিক) শ্রেণিতে অধ্যয়নকালে মোহাম্মদ উল্লাহ হাফেজ্জীর ডাকে এরশাদ-বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়ে গ্রেফতার হন, তখন তার বয়স ছিল ১৪। ১৯৮৬ সালে তিনি ঢাকার বড় কাটারা মাদ্রাসায় ভর্তি হন। পরে পিতা আজিজুল হকের প্রতিষ্ঠিত জামিয়া মোহাম্মদপুরে চলে আসেন। পরবর্তীতে এটি জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, ঢাকা নামে সাত গম্বুজ মসজিদ সংলগ্ন জায়গায় স্থানান্তরিত হয়। ১৯৯১ সালে জামিয়া রাহমানিয়া থেকে দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) শেষ করেন। ১৯৯২ সালে ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ গমন করে ২য় বার দাওরায়ে হাদিস ( মাস্টার্স ) অধ্যয়ন করেন। [১]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শিক্ষাজীবন সমাপ্তির পর ১৯৯৩ সালে জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়ায় শিক্ষক হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে তিনি কর্মজীবনের সূচনা করেন। পাশাপাশি তিনি জামিয়ার “ইসলামি আইন ও গবেষণা” বিভাগে অধ্যয়ন করে মুফতি সনদ লাভ করেন। ২০০০ সালে আজিজুল হক জামিয়া হাকিকিয়া নামে একটি মাদ্রাসার কার্যক্রম চালু করলে তিনি এর পরিচালক নিযুক্ত হন। ২০০১ সালে তিনি জামিয়া রাহমানিয়ার সহকারি পরিচালক ও ২০০২ সালে মহাপরিচালক হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন। ২০০৫ সালে তিনি বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব এবং ২০২০ সালের ৩ অক্টোবর মহাসচিব নির্বাচিত হন। [৪][৫][৬] জামিয়া রহমানিয়ার শিক্ষক নিযুক্ত হওয়ার পর তিনি বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের রাজনীতিতে যুক্ত হন। [৭] ২০০৫ সালে দলের মজলিসে শুরার সদস্য, ২০১২ সালে সহ-সভাপতি এবং ২০১৩ সালে মহাসচিব নির্বাচিত হন। বেফাকের মহাসচিব নির্বাচিত হওয়ার পর গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ২০২০ সালের ১০ অক্টোবর তিনি খেলাফতের মহাসচিব হিসেবে পদত্যাগ করেন। পদাধিকার বলে তিনি আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশের স্থায়ী কমিটির সদস্য। [৮] ইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া মুহাম্মদপুরের তিনি সভাপতি, এই আঞ্চলিক কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৪০টি মাদ্রাসা রয়েছে। [৯] এছাড়াও তিনি জামিয়া রহমানিয়া থেকে প্রকাশিত মাসিক রহমানী পয়গামের তত্ত্বাবধায়ক। [১][১০] ২০২০ সালের ১৫ নভেম্বর হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের এক কেন্দ্রীয় সম্মেলনে তিনি নায়েবে আমীর বা সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। [১১]

পরিবার[সম্পাদনা]

পারিবারিক জীবনে তিনি তিন মেয়ে ও এক ছেলের জনক এবং পরিবারের সবাই কুরআনের হাফেজ[১]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

১৭ এপ্রিল বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সহ-সভাপতি যুবায়ের আহমদ আনসারী মৃত্যুবরণ করেন। তার জানাযায় লকডাউন ভেঙে কয়েক লক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করে। [১২] মাহফুজুল হক ও একটি দলের নেতা এই বিপুল পরিমাণ লোক সমাগমের পূর্ব পরিকল্পনা করছে সময় টিভির এমন একটি ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। [১৩] এই ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনায় মাহফুজুল হক সমালোচনার শিকার হন। পরবর্তীতে সময় টিভি কর্তৃপক্ষ এটি তাদের ভিডিও নয় বলে নিশ্চিত করেন এবং সময় টিভির লোগো ব্যবহার করে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন। [১৪] এর পূূর্বে যমুনা টিভি মাহফুজুল হকের পিতা আজিজুল হককে জঙ্গিনেতা হিসিবে প্রচার করে। [১৫] তিনি যমুনা টিভির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিলে টিভি কর্তৃপক্ষ দুঃখ প্রকাশ করে এবং ক্ষমা চায়। [১৬]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. এনায়েতুল্লাহ, মুফতি (২৯ অক্টোবর ২০২০)। "মাওলানা মুফতি মাহফুজুল হকের সংক্ষিপ্ত জীবনী"কওমিপিডিয়া 
  2. ডেস্ক, ইনকিলাব। "শাইখুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক রহ.-এর স্ত্রীর ইন্তেকাল"দৈনিক ইনকিলাব। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১১ 
  3. তুহিন মালিক, ডক্টর (২ ডিসেম্বর ২০১৯)। "শায়খুল হাদিসের বিরুদ্ধে এ কেমন অপপ্রচার!"দৈনিক নয়া দিগন্ত। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১১ 
  4. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "কওমি মাদ্রাসা বোর্ডের সভাপতি মাহমুদুল হাসান, মহাসচিব মাহফুজুল হক"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  5. "বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব পদ ছাড়লেন মাহফুজ, দায়িত্ব পেলেন মামুন | banglatribune.com"বাংলা ট্রিবিউন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  6. আকবর হোসেন, চৌধুরী (৪ অক্টোবর ২০২০)। "দলীয় পদ ছাড়ার শর্তে বেফাকের মহাসচিব মাহফুজুল হক"বাংলা ট্রিবিউন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  7. পারভেজ, আলতাফ (৯ ডিসেম্বর ২০১৮)। "'ইসলামি রাজনীতি' যেখানে থমকে আছে"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১২ 
  8. "কওমি মাদ্রাসা সমূহের দাওরায়ে হাদিস (তাকমীল)- এর সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি)-এর সমমান প্রদান আইন, ২০১৮"bdlaws.minlaw.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  9. প্রতিবেদক, জ্যেষ্ঠ (২১ অক্টোবর ২০১৯)। "মোহাম্মদপুরে কওমি মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকদের বিক্ষোভ"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১২ 
  10. "মাসিক রাহমানী পয়গাম"sites.google.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১২ 
  11. প্রতিবেদক, নিজস্ব (১৬ নভেম্বর ২০২০)। "হেফাজতের নতুন আমির বাবুনগরী, মহাসচিব কাসেমী, নায়েবে আমীর মাহফুজুল হক"নয়া দিগন্ত। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-১৫ 
  12. আনোয়ারুল ইসলাম, মুহাম্মদ (২ জুলাই ২০২০)। "আলোচিত জানাজা"দৈনিক মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  13. প্রতিবেদক, জাগরণ (২০ এপ্রিল ২০২০)। "জামায়াতে ইসলামীর ইন্ধন ছিল, ফোনালাপ ফাঁস"দৈনিক জাগরণ। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  14. "সময় টিভি'র লোগো ব্যবহার করে অপপ্রচার, থানায় জিডি"সময় টিভি। ২১ এপ্রিল ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  15. তুহিন মালিক, ডক্টর (ডিসেম্বর ২০১৯)। "শায়খুল হাদিসের বিরুদ্ধে এ কেমন অপপ্রচার!"দৈনিক নয়া দিগন্ত। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 
  16. "ক্ষমা চাইলো যমুনা টিভি! -"দৈনিক আমাদের প্রতিদিন। ২০১৯-১২-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩ 

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]