মুহাম্মাদ আবদুল মালেক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(মুহাম্মাদ আব্দুল মালেক থেকে পুনর্নির্দেশিত)

মুহাম্মাদ আবদুল মালেক
রঙিন ছবি
২০১৬ সালে মুহাম্মাদ আবদুল মালেক
সদস্য, বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা কমিশন
কাজের মেয়াদ
১৫ এপ্রিল ২০১২ – ৯ জানুয়ারি ২০১৭
নিয়োগদাতাশেখ হাসিনা
উচ্চতর হাদিস বিভাগীয় প্রধান, মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯৯৬
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1969-08-29) ২৯ আগস্ট ১৯৬৯ (বয়স ৫৩)
লাকসাম, কুমিল্লা
জাতীয়তাবাংলাদেশি
প্রাক্তন শিক্ষার্থী
ব্যক্তিগত
পিতামাতা
  • শামসুল হক (পিতা)
আখ্যাসুন্নি
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহহাদিস, ফিকহ
উল্লেখযোগ্য কাজ
ঊর্ধ্বতন পদ
শিক্ষকআব্দুর রশীদ নোমানী, তাকি উসমানি, আব্দুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ
সাহিত্যকর্মআল মাদখাল ইলা উলুমিল হাদিসিশ শরিফ (১৯৯৮)

মুহাম্মাদ আবদুল মালেক (জন্ম: ২৯ আগস্ট ১৯৬৯) একজন বাংলাদেশি হাদিস বিশেষজ্ঞ ও হানাফি ফকিহ। তিনি আব্দুর রশীদ নোমানীর কাছে তিন বছর উচ্চতর হাদিসশাস্ত্র এবং তাকি উসমানির কাছে দুই বছর ফিকহশাস্ত্র অধ্যায়ন করেন। পরবর্তীতে সৌদি আরবে আব্দুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহর সাথে আড়াই বছর হাদিসশাস্ত্রে গবেষণামূলক কাজ করেন। ১৯৯৮ সালে তার রচিত আল মাদখাল ইলা উলুমিল হাদিসিশ শরিফ প্রকাশিত হয়, যা বিভিন্ন দেশে পাঠ্যবই হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[১] তিনি ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়ার সহপ্রতিষ্ঠাতা, বর্তমানে তিনি এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাসচিব ও উচ্চতর হাদিস বিভাগের প্রধান। এই প্রতিষ্ঠানের মুখপত্র হিসেবে ২০০৫ সালে তার তত্বাবধানে মাসিক আল কাউসার প্রকাশিত হয়। ২০১২ সালে তিনি বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা কমিশনের সদস্য মনোনীত হন। এছাড়াও তিনি ভারতের ইসলামি ফিকহ একাডেমির সদস্য।

জীবনী[সম্পাদনা]

মুহাম্মাদ আবদুল মালেক ১৯৬৯ সালের ২৯ আগস্ট কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার সারাশপুরে জন্মগ্রহণ করেন।[২] পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। তার পিতা শামসুল হক একজন আলেম ছিলেন।[৩] পরিবারে কুরআন ও প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পর তিনি চাঁদপুরের খিড়িহারা কওমি মাদ্রাসায় মিশকাত জামাত পর্যন্ত অধ্যয়ন করেন। ১৯৮৮ সালে তিনি পাকিস্তানের জামিয়া উলুমুল ইসলামিয়ায় দাওরায়ে হাদিস সমাপ্ত করেন। এরপর তিনি এই মাদ্রাসার উচ্চতর হাদিস বিভাগে ভর্তি হয়ে তিন বছর আব্দুর রশীদ নোমানীর তত্ত্বাবধানে হাদিস অধ্যয়ন করেন।[৪] ১৯৯২ সালে তিনি দারুল উলুম করাচিতে ভর্তি হয়ে দুই বছর তাকি উসমানির তত্ত্বাবধানে উচ্চতর ফিকহফতোয়া অধ্যয়ন করেন।[৪] ১৯৯৫ সালে তিনি সৌদি আরব গমন করে আব্দুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহর তত্ত্বাবধানে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত প্রায় আড়াই বছর হাদিসশাস্ত্রসহ অন্যান্য গবেষণামূলক কাজের গবেষণা সহযোগী হিসেবে কাজ করেন।[৪]

১৯৯৬ সালে তিনি সহ আরও কয়েকজন আলেম ঢাকায় উচ্চতর ইসলামি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে তিনি এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাসচিব ও উচ্চতর হাদিস গবেষণা বিভাগের প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন।[৫] এছাড়াও তিনি জামিয়াতুল উলুম আল ইসলামিয়া ঢাকার শায়খুল হাদিস এবং ঢাকার শান্তিনগরের আজরুন কারিম জামে মসজিদের খতিবের দায়িত্ব পালন করছেন। কওমি মাদ্রাসার সরকারি স্বীকৃতি প্রদানের লক্ষ্যে ২০১২ সালে বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা কমিশন গঠিত হলে তিনি এর সদস্য মনোনীত হন।[৬]

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

২০০৫ সালে তার তত্ত্বাবধানে মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়ার মুখপত্র হিসেবে মাসিক আল কাউসার প্রকাশিত হয়। এ পত্রিকায় হাদিসশাস্ত্রের নবউদ্ভাবিত বিভ্রান্তির নিরসনমূলক রচনাসহ সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে তার লেখা প্রকাশিত হয়। তার রচিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে:[৭]

প্রকাশিত[সম্পাদনা]

  1. আল মাদখাল ইলা উলুমিল হাদিসিশ শরিফ (আরবি: المدخل إلى علوم الحديث الشريف‎‎)
  2. উম্মাহর ঐক্য পথ ও পন্থা (আরবি: وحدة الأمة واتباع السنة‎‎)
  3. আল ওয়াজিজ ফি শাইয়ি মিন মুসত্বলাহিল হাদিসিশ শরিফ (আরবি: الوجيز في شيء من مصطلح الحديث الشريف‎‎)
  4. মুহাদিরাত ফি উলুমুল হাদিস (আরবি: محاضرات في علوم الحديث‎‎)
  5. ইনায়াতুর রহমান ফি আদাদি আয় আল কুরআন (আরবি: عنايات الرحمن في عدد آي القرآن‎‎)
  6. তাসাওউফ তত্ত্ব ও বিশ্লেষণ (আরবি: التصوف بين عرض ونقد‎‎)
  7. তালিবানে ইলম পথ ও পাথেয় (আরবি: زاد طلاب علم النبوة‎‎)
  8. ঈমান সবার আগে (আরবি: الإيمان هو ا الأول‎‎)
  9. প্রচলিত ভুল (আরবি: الأغلاط الشائعة‎‎)
  10. তাওতিদ আল উখওয়াত আল ঈমানিয়াত বায়নাল মুসলিমিন আজদার বিআলমুহাওলাত মিন তাওহিদ আল আহলাত ওয়াল আয়াদ (আরবি: توطيد الأخوة الإيمانية بين المسلمين أجدر بالمحاولة من توحيد الأهلة والأعياد‎‎)
  11. নির্বাচিত প্রবন্ধ (আরবি: مجموع البحوث والمقالات‎‎)
  12. তাবলীগ জামাত: বর্তমান পরিস্থিতি ও উত্তরণের উপায় (আরবি: جماعة التبليغ : الأزمة الراهنة وطريق التقصي عنها‎‎)

অপ্রকাশিত[সম্পাদনা]

  • ' (আরবি: سيدي الشيخ كما رأيته‎‎)
  • ' (আরবি: الدعامة في الكلام على كثير من أحاديث وآثار العمامة‎‎)
  • ' (আরবি: شيخنا النعماني رحمه الله تعالى : صفحات مضيئة من حياته العلمية، وشيء من شمائله الوضيئة‎‎)
  • ' (আরবি: فتح الإله بسيرة الشيخ محمد الله‎‎)
  • ' (আরবি: مسألة شرط فقه الرواة لقبول الحديث عند الحنفية‎‎)
  • ' (আরবি: أبو حنيفة المفترى عليه‎‎)
  • ' (আরবি: نظرة عابرة حول تنكيل اليماني‎‎)
  • ' (আরবি: إنعام النظر في توضيح شرح نخبة الفكر‎‎)

সম্পাদনা[সম্পাদনা]

مقدمة «الدر المنصد‎‎)

  • ইঞ্জিল ও প্রচলিত ইঞ্জিল একটি পর্যালোচনা (আরবি: كفاية المغتذي في شرح جامع الترمذي‎‎)

স্বীকৃতি ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

উত্তরাধিকার[সম্পাদনা]

কালিমাতুন আন সিরাতিল মুহাদ্দিস ওয়াল ফকিহ আশ শায়খ মুহাম্মাদ আবদুল মালেকের প্রচ্ছদ

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. আবু সায়েম, মুহাম্মদ (২০২২)। كَلِمَات عَنْ أَخْبَارِ الشَّيْخ : مُحَمَّد عَبْدُ الْمَالِك الكُمِلَّائِي [কালিমাতুন আন সিরাতিল মুহাদ্দিস ওয়াল ফকিহ আশ শায়খ মুহাম্মাদ আবদুল মালেক আল-কুমিল্লায়ী] (আরবি ভাষায়)। ঢাকা: মুয়াসসাসা ইলমিয়্যাহ বাংলাদেশ। পৃষ্ঠা ৩৯। 
  2. আবু সায়েম ২০২২, পৃ. ২০।
  3. উল্লাহ, মুহাম্মদ আহসান (২০২১)। বাংলা ভাষায় হাদিস চর্চা (১৯৫২-২০১৫) (পিএইচডি)। বাংলাদেশ: ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ৪৫৩। 
  4. উল্লাহ ২০২১, পৃ. ৪৫৩।
  5. আলম, মোঃ মোরশেদ (২০১৪)। হাদিস শাস্ত্র চর্চায় বাংলাদেশের মুহাদ্দিসগণের অবদান (পিএইচডি)। ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা ২৬৬। ৩ জুন ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুন ২০২১ 
  6. উল্লাহ ২০২১, পৃ. ৪৫৪।
  7. আবু সায়েম ২০২২, পৃ. ৩৯–৬৭।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]