আবদুল ওয়াহহাব পীরজী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

আবদুল ওয়াহহাব

পীরজী হুজুর
ব্যক্তিগত
জন্ম১৮৯০
রামকৃষ্ণপুর, হোমনা, কুমিল্লা
মৃত্যু২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬(1976-09-29) (বয়স ৮৫–৮৬)
সমাধিস্থলআজিমপুর গোরস্থান
ধর্মইসলাম
জাতীয়তাবাংলাদেশি
পিতামাতা
  • আহসানুল্লাহ (পিতা)
জাতিসত্তাবাঙালি
যুগআধুনিক
আখ্যাসুন্নি
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহহাদিস, ফিকহ, তাসাউফ, শিক্ষা
উল্লেখযোগ্য কাজজামিয়া হোসাইনিয়া আশরাফুল উলুম, বড় কাটরা
যেখানের শিক্ষার্থীদারুল উলুম দেওবন্দ
শিক্ষক
মুসলিম নেতা

আবদুল ওয়াহহাব পীরজী (সাধারণত পীরজী হুজুর নামেই পরিচিত[১]; ১৮৯০ – ২৯ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬) ছিলেন একজন বাংলাদেশি দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত ও আধ্যাত্মিক নেতা। তিনি জামিয়া হোসাইনিয়া আশরাফুল উলুম, বড় কাটরা মাদ্রাসার সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রথম মহাপরিচালক। তিনি বহু খ্যাতিমান আলেমের উস্তাদ। আধ্যাত্মিকতায় তিনি আশরাফ আলী থানভী ও জাফর আহমদ উসমানির শিষ্য ছিলেন।

জীবনী[সম্পাদনা]

আবদুল ওয়াহহাব ১৮৯০ সালে কুমিল্লা জেলার হোমনা থানার অন্তর্গত রামকৃষ্ণপুর গ্রামের এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আহসানুল্লাহ। নিজগ্রামে প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পর তিনি ঢাকার মুহসিনিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হন। তারপর আরও উচ্চশিক্ষা লাভের উদ্দেশ্যে তিনি দারুল উলুম দেওবন্দ চলে যান। দেওবন্দে তিনি আনোয়ার শাহ কাশ্মীরির কাছে হাদিস ও আব্দুল ওয়াহেদ এলাহাবাদীর নিকট তাজবিদ শিক্ষা করেন। জাফর আহমদ উসমানিও তার শিক্ষক ছিলেন।[২]

তিনি প্রথমে আশরাফ আলী থানভীর নিকট তাসাউফের শিক্ষা নেন। তারপর জাফর আহমদ উসমানির কাছেও বায়আত গ্রহণ করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসায় তার কর্মজীবনের সূচনা হয়। ১৩৩৯ সালে তিনি জামিয়া হোসাইনিয়া আশরাফুল উলুম, বড় কাটরা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি মাদ্রাসাটির প্রথম মহাপরিচালক ছিলেন।[৩]

১৯৭৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তাকে আজিমপুর গোরস্থানে দাফন করা হয়।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

উদ্ধৃতি[সম্পাদনা]

  1. সম্পাদনা পরিষদ (জুন ১৯৮২)। সংক্ষিপ্ত ইসলামি বিশ্বকোষ ১ম খণ্ড। শেরেবাংলা নগর, ঢাকা: ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। পৃষ্ঠা ২৭। আইএসবিএন 954-06-022-7 
  2. নিজামপুরী, আশরাফ আলী (২০১৩)। দ্যা হান্ড্রেড (বাংলা মায়ের একশ কৃতিসন্তান) (১ম সংস্করণ)। হাটহাজারী, চট্টগ্রাম: সালমান প্রকাশনী। পৃষ্ঠা ১১৪। আইএসবিএন 112009250-7 
  3. নিজামপুরী ২০১৩, পৃ. ১১৫।

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]