অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড
All India Muslim Personal Law Board.jpg
গঠিত৭ এপ্রিল ১৯৭২ (৪৮ বছর আগে) (1972-04-07)
ধরনএনজিও
আইনি অবস্থাসক্রিয়
স্থানাঙ্ক২৮°৩৩′৫০″ উত্তর ৭৭°১৭′২৩″ পূর্ব / ২৮.৫৬৩৯৮° উত্তর ৭৭.২৮৯৭১° পূর্ব / 28.56398; 77.28971স্থানাঙ্ক: ২৮°৩৩′৫০″ উত্তর ৭৭°১৭′২৩″ পূর্ব / ২৮.৫৬৩৯৮° উত্তর ৭৭.২৮৯৭১° পূর্ব / 28.56398; 77.28971
যে অঞ্চলে কাজ করে
ভারত
দাপ্তরিক ভাষা
উর্দু, ইংরেজি
সভাপতি
রাবে হাসান নদভী
মূল ব্যক্তিত্ব
কারী মুহাম্মদ তৈয়ব, আবুল হাসান আলী নদভী, ওয়ালী রহমানি
স্টাফ
৫১
স্বেচ্ছাকর্মী
২০১
ওয়েবসাইটwww.aimplboard.in

অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড ১৯৭৩ সালে গঠিত একটি বেসরকারী সংস্থা যা ভারতে মুসলমানদের শরীয়াহ্ আইন সংরক্ষণ এবং প্রয়োগের জন্য কাজ করে, বিশেষভাবে , মুসলিম পার্সোনাল ল (শরিয়াহ্) ১৯৭৩ আইনের।[১][২][৩] ।আইনটি উত্তরাধিকার বাদে ব্যক্তিগত আইনের সমস্ত বিষয়ে প্রযোজ্য। [৪] ফয়জুর রহমান দাবি করেছেন যে, বেশিরভাগ মুসলিম হিন্দু নাগরিক কোড নয়, মুসলিম আইন অনুসরণ করেন। [৫][৬]

বোর্ড ভারতে মুসলিম মতামতের শীর্ষস্থানীয় সংস্থা হিসাবে নিজেকে উপস্থাপন করে, এমন একটি ভূমিকা যার জন্য এটি সমালোচিত হয়েছে,[৭][৮][৯] পাশাপাশি সমর্থিত। [১০] অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল ইন্দিরা গান্ধীর সময়। [১১]

বোর্ডে বেশিরভাগ মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব করা হয় এবং এর সদস্যদের মধ্যে ভারতীয় মুসলিম সমাজের ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ, পণ্ডিত, আইনজীবী, রাজনীতিবিদ এবং অন্যান্য পেশাদার ব্যক্তি অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন। যাইহোক, তাহির মাহমুদ, রাজনীতিবিদ আরিফ মোহাম্মদ খান, অবসরপ্রাপ্ত সুপ্রিম কোর্টের বিচারক Markandey Katju [১২][১৩] অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের বিলুুপ্তির পরামর্শ দিয়েছেন । [১৪][১৫]

অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের সদস্যরা ভারতে আহমদিয়া মুসলমানদের সাপোর্ট করেন না। [১৬][১৭] আহমদীদের অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডে বসতেও দেওয়া হয়নি, কারণ ভারতের বেশিরভাগ মুসলমান আহমদীদেরকে মুসলমান হিসাবে বিবেচনা করে না। [১৮][১৯]

[২০][২১]

বিবরণ[সম্পাদনা]

বোর্ড একটি বেসরকারি সংস্থা যা মুসলিম ব্যক্তিগত আইন রক্ষা করতে , ভারত সরকারের সাথে যোগাযোগ করতে এবং প্রভাবিত করতে এবং সাধারণ জনগণকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে গাইড করার জন্য কাজ করে। বোর্ডে ৫১ উলামার একটি ওয়ার্কিং কমিটি রয়েছে যা বিভিন্ন চিন্তাভাবনার প্রতিনিধিত্ব করে। এ ছাড়াও এটিতে প্রায় ২৫ জন মহিলা সহ সাধারণ উলামার ২০২ জন ব্যক্তির একটি সাধারণ সংস্থা রয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

তবে শিয়ামুসলিম নারীবাদীদের মধ্যে কয়েকটি যথাক্রমে অল ইন্ডিয়া শিয়া পার্সোনাল ল বোর্ড এবং অল ইন্ডিয়া মুসলিম উইমেনস পার্সোনাল ল বোর্ড তাদের নিজস্ব পৃথক বোর্ড গঠন করেছে কিন্তু মুসলমান বা সরকারের কাছ থেকে কোন উল্লেখযোগ্য সমর্থন পেতে ব্যর্থ হয়েছে। [২২]

কার্যনির্বাহী কমিটি[সম্পাদনা]

রাবে হাসানী নাদভী বোর্ডের বর্তমান সভাপতি এবং কালবে সাদিক, জালালউদ্দিন উমরি, ফখরুদ্দীন আশরাফ, সাঈদ আহমেদ ওমেড়ি এর বর্তমান সহ-সভাপতি। ওয়ালী রাহমানির এর সাধারণ সম্পাদক এবং খালিদ সাইফুল্লাহ রাহমানি, ফজলুর রহিম মুজাদ্দেদী, জাফরাব জিলানী, উমরান মাহফুজ রহমানি সচিব। রিয়াজ উমর বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ।

এর কার্যনির্বাহী সদস্যদের মধ্যে কে আলী কুট্টি মুসুলিয়র, মুহাম্মদ সুফিয়ান কাসমি, রহমতউল্লাহ মীর কাসমি প্রমুখ রয়েছেন।

সহযোগী আলেমগণ[সম্পাদনা]

কারণ এবং ক্রিয়া[সম্পাদনা]

বোর্ড মূলত শরীয়াহ আইনকে যে কোনও আইন বা আইন থেকে লঙ্ঘন বলে বিবেচনা করে তা রক্ষা করার দিকে মনোনিবেশ করে। [২] এই ভূমিকায় প্রাথমিকভাবে এটি মুসলিম মহিলাদের জন্য বিবাহবিচ্ছেদের আইন পরিবর্তনের বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছে। [২৩] এ সম্পর্কে এটি এমনকি একটি বই প্রকাশ করেছে - নিকাহ-ও-তালাক (বিবাহ এবং বিবাহবিচ্ছেদ)। যাইহোক, সময়ে সময়ে এটি বোর্ডের দ্বারা এটি ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল যে এটি তার অবস্থানের বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করতে পারে। [২৪] এটি সমকামী অধিকারের বিষয়েও আপত্তি জানিয়েছে [২৫][২৬] এবং একই লিঙ্গের ব্যক্তিদের মধ্যে যৌনমিলনের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা ১৮৬১ সালের ভারতীয় আইনকে সমর্থন করে। [২৭]

শিশুর বিনামূল্যে ও বাধ্যতামূলক শিক্ষা আইন, ২০০৯-এর বিষয়েও আপত্তি জানিয়েছে কারণ তারা বিশ্বাস করে যে এটি মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থাকে লঙ্ঘন করবে। [২৮] এটি বাল্যবিবাহকে সমর্থন করেছে এবং বাল্যবিবাহ নিয়ন্ত্রণ সংস্থার বিরোধিতা করেছে। [২৯] এটি বাবরি মসজিদ সম্পর্কে ভারতের হাইকোর্টের রায় নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। [৩০] এ জন্য এটি রাজনৈতিক পদক্ষেপের হুমকি দিতেও রাজি। [৩১] জানুয়ারী ২০১২-তে জয়পুর সাহিত্য উৎসবে লেখক সালমান রুশদির সরাসরি ভিডিও কনফারেন্সের বিরোধিতা করার জন্য বোর্ডটি শিরোনামে ছিল। [৩২] তাদের যুক্তি রয়েছে যে "আমাদের ধর্মের জন্য মারাত্মক হুমকি রয়েছে। যোগ, সূর্য নমস্কর এবং বৈদিক সংস্কৃতির মাধ্যমে 'ব্রাহ্মণ ধর্ম' চাপিয়ে দেওয়ার এক অদৃশ্য নকশা রয়েছে। এরা সকলেই ইসলামী বিশ্বাসের পরিপন্থী। বৃহত্তর আকারে প্রতিবাদ শুরু করার জন্য আমাদের সম্প্রদায়কে জাগ্রত করা দরকার " [৩৩]

আদর্শ নিকাহনামা[সম্পাদনা]

২০০৩ সালে বোর্ড একটি মডেল 'নিকাহনামা' খসড়া তৈরি করেছিল, যেখানে নির্দিষ্ট নির্দেশিকা এবং শর্তাবলী দিয়েছিল, যার ভিত্তিতে উত্তরপ্রদেশের সুন্নি মুসলমানদের বৃহত অংশে স্বামী-স্ত্রী উভয়কেই বিয়ে বাতিল করা যেতে পারে। [৩৪][৩৫]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Secular? That's a laugh" 
  2. AIMPLB Home Page
  3. vakilno1.com। "The Muslim Personal Law (Shariat) Application Act, 1937"। vakilno1.com। ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  4. "The Muslim Personal Law Board Shouldn't Presume to Speak For All Indian Muslims" 
  5. "Uniform civil code: will it work in India?" 
  6. "Contrasting laws save marriage, for now" 
  7. Lawrence, Bruce B (১৫ নভেম্বর ২০০৭)। On violence: a reader.। Duke University Press। পৃষ্ঠা 265। আইএসবিএন 9780822337690। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  8. Narain, Vrinda B (২৪ মে ২০০৮)। Reclaiming the nation: Muslim women and the law in India। University of Toronto Press। পৃষ্ঠা 93। আইএসবিএন 9780802092786। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  9. "Youth raise voice, seek say in Muslim law board" 
  10. Gani, H. A. (১৯৮৮)। Reform of Muslim personal law: the Shah Bano controversy and the Muslim Women (Protection of Rights on Divorce) Act, 1986। Deep & Deep Publications। পৃষ্ঠা 65। 
  11. "Bade Ghulam Ali Khan's yoga mudra" 
  12. "Muslim personal law is barbaric: Justice Markandey Katju" 
  13. "Katju favours uniform civil law" 
  14. "Ban triple talaq and abolish Muslim Personal Law Board, says former minorities commission chairman" 
  15. "Arif Mohammad Khan on Shah Bano case: 'Najma Heptullah was key influence on Rajiv Gandhi'" 
  16. "'Heretical' Ahmadiyya sect raises Muslim hackles" 
  17. "Wretched of the Land" 
  18. Naqvi, Jawed (১ সেপ্টেম্বর ২০০৮)। "Religious violence hastens India's leap into deeper obscurantism"Dawn। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১২-২৯ 
  19. "IS THE AHMADI COMMUNITY JUST AS PERSECUTED IN OTHER MUSLIM-MAJORITY COUNTRIES?"Herald.Dawn। ১৩ অক্টোবর ২০১৩। ২৯ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১২-২৯ 
  20. http://twocircles.net/2007aug08/interview_maulana_kalbe_sadiq_shia_scholar.html#.V9U9gPB97IU
  21. http://indiatoday.intoday.in/story/shia-cleric-maulana-kalbe-sadiq-aimplb-rss-mohan-bhagwat/1/408357.html
  22. PARVEEN ABDI (১২ জুন ২০০৬)। "All India Muslim Women's Personal Law Board on Muslim Women's Reservation"। .milligazette.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  23. "Sharia courts should be first option: AIMPLB"The Times of India। ১৮ জুলাই ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  24. "All Muslims are equal: AIMPLB"The Times of India। ২৫ অক্টোবর ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  25. JYOTI THOTTAM (২ জুলাই ২০০৯)। "All India's Historic Ruling on Gay Rights"Times। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  26. UNI (২ জুলাই ২০০৯)। "All India Muslim Personal Law Board moves SC over legalising homosexuality, UNI"Times। ২৬ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  27. Gardiner Harris (11 December 2013) Court Restores India’s Ban on Gay Sex The New York Times. Retrieved 11 December 2013
  28. TNN (৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "Bill to address minorities' RTE concerns in next session: Sibal"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  29. Haviland, Charles (৫ সেপ্টেম্বর ২০০২)। "Battle over India's marriage age"BBC News 
  30. Zeenews Bureau (৩০ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "Not satisfied with Ayodhya verdict; will move SC: AIMPLB"। Zeenews.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  31. Deepak Gidwani (২৯ জানুয়ারি ২০১২)। "AIMPLB set to corner Congress in UP polls"। DNAIndia.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  32. CNN-IBN (২৪ জানুয়ারি ২০১২)। "Salman Rushdie has hurt religious sentiments in his book: AIMPLB member"। IBNLive.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  33. India Express: "AIMPLB calls conclave to push its fight against ‘Vedic culture, Brahmin dharma’" by Mohd Faisal Fareed 13 August 2015
  34. http://www.hindustantimes.com/lucknow/shia-board-moots-model-nikahnama-denounces-triple-talaq-in-one-sitting/story-E6a0ft9mnod91s7sKLe7MI.html
  35. http://www.ndtv.com/india-news/no-triple-talaq-without-both-husband-and-wifes-consent-shia-law-board-1457034

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]