জেফ্রি রাশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেফ্রি রাশ
এসি
Geoffrey Rush Cannes 2011.jpg
২০১১ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে রাশ
স্থানীয় নামGeoffrey Rush
জন্মজেফ্রি রয় রাশ
(১৯৫১-০৭-০৬) ৬ জুলাই ১৯৫১ (বয়স ৬৭)
টুওম্বা, কুইন্সল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া
বাসস্থানমেলবোর্ন, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
জাতীয়তাঅস্ট্রেলিয়া
অন্য নামজেওফ রাশ
শিক্ষাস্নাতক
যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র/ছাত্রীকুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৭১-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীজেন মেনেলাউস (বি. ১৯৮৮)
সন্তান

জেফ্রি রয় রাশ এসি (ইংরেজি: Geoffrey Roy Rush; ৬ জুলাই ১৯৫১) হলেন একজন অস্ট্রেলীয় অভিনেতা। তিনি অভিনয়ের ত্রি-মুকুট (একটি একাডেমি পুরস্কার, একটি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কার ও একটি টনি পুরস্কার) বিজয়ী ২৪ জনের একজন। এছাড়াও তিনি তিনটি বাফটা পুরস্কার, দুটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, ও চারটি স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার অর্জন করেছেন। রাশ অস্ট্রেলিয়ান একাডেই অব সিনেমা অ্যান্ড টেলিভিশন আর্টসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং ২০১২ সালের বর্ষসেরা অস্ট্রেলীয়।[১][২] তিনিই প্রথম অভিনয়শিল্পী, যিনি কোন একক কাজের (শাইন) জন্য একাডেমি, বাফটা, গোল্ডেন গ্লোব, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড ও ক্রিটিকস চয়েস চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

রাশ ১৯৫১ সালের ৬ই জুলাই কুইন্সল্যান্ডের টুওম্বায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা রয় ব্যাডেন রাশ রয়্যাল অস্ট্রেলিয়ান বিমান বাহিনীর হিসাবরক্ষক এবং তাঁর মাতা মার্লে (বিশফ) ছিলেন একটি বিপণি বিতানের বিক্রয় সহকারী।[৩] তাঁর পিতার পূর্বপুরুষগণ ইংরেজ, আইরিশ, ও স্কটিশ ছিলেন এবং তাঁর মাতার পূর্বপুরুষগণ জার্মান ছিলেন। তাঁর যখন পাঁচ বছর বয়স তখন তাঁর পিতামাতার বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তাঁর মাতা তাঁকে নিয়ে তাঁর নানা-নানীর কাছে উপশহর ব্রিসবেনে চলে যান।

চলচ্চিত্র জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮১ সালে অস্ট্রেলীয় চলচ্চিত্র হুডউইঙ্ক দিয়ে রাশের বড় পর্দায় অভিষেক হয়। পরের বছর তিনি জিলিয়ান আর্মস্ট্রংয়ের স্টারস্ট্রাক ছবিতে কাজ করেন। পরের বছরগুলোতে তিনি কয়েকটি টেলিভিশন নাটকে ছোট চরিত্রে অভিনয় করেন, তন্মধ্যে একটি কাজ ছিল ১৯৯৩ সালের ব্রিটিশ টেলিভিশন ধারাবাহিক লাভজয়-এর একটি পর্বে দন্তচিকিৎসক ভূমিকায় কাজ করেন। তাঁর প্রথম আলোচিত সাফল্য ১৯৯৬ সালের শাইন। এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, বাফটা পুরস্কার, স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার এবং ক্রিটিকস চয়েস চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। একই বছর জেমস এল. ব্রুকস তাঁকে অ্যাজ গুড অ্যাজ ইট গেট্‌স-এ সিমন বিশপ চরিত্রে অডিশনের জন্য তাঁকে লস অ্যাঞ্জেলেসে নিয়ে যান এবং তাঁকে এই চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু রাশ এই চরিত্রটি ফিরিয়ে দেন, পরবর্তীতে গ্রেগ কিনার এই চরিত্রে অভিনয় করেন।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Geoffrey Rush - Biography, Movies, & Facts"এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০১৮ 
  2. সিঙ্গার, জিল (২৩ মার্চ ২০০৮)। "Rush to flat earth"হেরাল্ড সান। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  3. "Geoffrey Rush Biography (1951-)"ফিল্ম রেফারেন্স। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  4. এইটন, ডগলাস (৪-৫ সেপ্টেম্বর ২০০৪), "10 Things You Didn't Know About Geoffrey Rush", উইকেন্ড অস্ট্রেলিয়ান ম্যাগাজিন, পৃ. ১২।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]