টমাস মিচেল (অভিনেতা)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টমাস মিচেল
Thomas Mitchell 1953.JPG
১৯৫৩ সালে মিচেল
স্থানীয় নাম
Thomas Mitchell
জন্ম
টমাস জন মিচেল

(১৮৯২-০৭-১১)১১ জুলাই ১৮৯২
মৃত্যু১৭ ডিসেম্বর ১৯৬২(1962-12-17) (বয়স ৭০)
বেভারলি হিলস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পেশাঅভিনেতা, পরিচালক, নাট্যকার, চিত্রনাট্যকার
কার্যকাল১৯১৬-১৯৬২
দাম্পত্য সঙ্গীরেচেল হারৎজেল
(বি. ১৯৩৭; বিচ্ছেদ. ১৯৩৯)

অ্যান স্টুয়ার্ট ব্রেসওয়ার
(বি. ১৯১৫; বিচ্ছেদ. ১৯৩৫)

অ্যান স্টুয়ার্ট ব্রেসওয়ার
(বি. ১৯৪১; মৃ. ১৯৯২)

টমাস জন মিচেল (ইংরেজি: Thomas John Mitchell; ১১ জুলাই ১৮৯২ - ১৭ ডিসেম্বর ১৯৬২)[১] ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেতা, পরিচালক, নাট্যকার এবং চিত্রনাট্যকার। দীর্ঘ কর্মজীবনে তার বিখ্যাত চরিত্র ভূমিকাসমূহ হল গন উইথ দ্য উইন্ড ছবিতে জেরাল্ড ওহারা, স্টেজকোচ ছবিতে ডক বুন, ইটস আ ওয়ান্ডারফুল লাইফ ছবিতে বিলি এবং হাই নুন ছবিতে মেয়র জোনা হেন্ডারসন। মিচেল প্রথম অভিনেতা, যিনি অভিনয়ের ত্রি-মুকুট (অস্কার, এমি ও টনি পুরস্কার) জয় করেন।[২]

মিচেল দুটি একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন; প্রথমটি দ্য হারিকেন (১৯৩৮) চলচ্চিত্রের জন্য এবং দ্বিতীয়টি স্টেজকোচ (১৯৩৯) চলচ্চিত্রের জন্য। দ্বিতীয় ছবিটিতে অভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতার জন্য একাডেমি পুরস্কার অর্জন করেন। তিনি তিনটি এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন; চিকিৎসা নাট্যধর্মী দ্য ডক্টর ধারাবাহিকে অভিনয় করে ১৯৫২ ও ১৯৫৩ সালে দুটি এমি পুরস্কারের মনোনয়ন হতে ১৯৫৩ সালে শ্রেষ্ঠ নাট্য ধারাবাহিক অভিনেতা বিভাগে একটি পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৫৫ সালে তিনি একটি সাপ্তাহিক অন্থলজি ধারাবাহিকে অভিনয় করে অপর একটি এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। মিচেল ১৯৫৩ সালে সঙ্গীতধর্মী হাস্যরসাত্মক হেজেল ফ্ল্যাগ মঞ্চনাটকে অভিনয় করে সঙ্গীতনাট্যে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে টনি পুরস্কার অর্জন করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Thomas Mitchell, Actor, Dead; Star of Stage and Screen, 70; Actor's Career in the Movies and in Theater Spanned a Half Century Appeared in Many Films"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। ১৮ ডিসেম্বর ১৯৬২। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  2. জ্যাক, ড্যান (২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭)। "Only 22 people had ever accomplished this feat. Now, Viola Davis joins the club"ওয়াশিংটন পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]