ক্রিস্টোফার ওয়াকেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্রিস্টোফার ওয়াকেন
ChristopherWalkenFeb08.jpg
২০০৮ সালে ওয়াকেন
স্থানীয় নামChristopher Walken
জন্মরোনাল্ড ওয়াকেন
(১৯৪৩-০৩-৩১) ৩১ মার্চ ১৯৪৩ (বয়স ৭৫)[১]
কুইন্স, নিউ ইয়র্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
বাসস্থানউইলটন, কানেটিকাট, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
অন্য নামরনি ওয়াকেন, ক্রিস ওয়াকেন
যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র/ছাত্রীহফস্ট্রা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেতা, নৃত্যশিল্পী
কার্যকাল১৯৫২–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীজর্জিয়ানে থন (বি. ১৯৬৯)

ক্রিস্টোফার ওয়াকেন (ইংরেজি: Christopher Walken; জন্ম: রোনাল্ড ওয়াকেন, ৩১শে মার্চ, ১৯৪৩) হলেন একজন মার্কিন অভিনেতা ও নৃত্যশিল্পী। তিনি পর্দা ও মঞ্চ দুই মাধ্যমেই অভিনয় করেন।[২] তিনি শতাধিক চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন নাটকে কাজ করেছেন। কাজের স্বীকৃতস্বরূপ তিনি একটি একাডেমি পুরস্কার, একটি বাফটা পুরস্কার ও একটি স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার লাভ করেছেন।

১৯৭০-এর দশকে তিনি সমালোচকদের দ্বারা সমাদৃত অ্যানি হল (১৯৭৭) ও দ্য ডিয়ার হান্টার (১৯৭৮) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। দ্য ডিয়ার হান্টার ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন এবং বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ওয়াকেন অভিনীত অন্যান্য উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহ হল দ্য ডগ্‌স অব ওয়ার (১৯৮০), দ্য ডেড জোন (১৯৮৩), আ ভিউ টু আ কিল (১৯৮৫), ব্যাটম্যান রিটার্নস (১৯৯২), ট্রু রোম্যান্স (১৯৯৩), পাল্প ফিকশন (১৯৯৪), স্লিপি হলো (১৯৯৯), ক্যাচ মি ইফ ইউ ক্যান (২০০২), হেয়ারস্প্রে (২০০৭), সেভেন সাইকোপ্যাথস্‌ (২০১২) ও দ্য জাঙ্গল বুক (২০১৬)। ক্যাচ মি ইফ ইউ ক্যান ছবিতে ফ্রাংক আবিগনেল সিনিয়র চরিত্রে তার কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেতা বিভাগে বাফটা পুরস্কারস্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার লাভ করেন।

ওয়াকেনের চলচ্চিত্রসমূহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি আয় করে।[৩] তিনি শেকসপিয়ারীয় নাটক হ্যামলেট, ম্যাকবেথ, রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েটকরিওলানাস-এ কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন। তিনি স্যাটারডে নাইট লাইভ অনুষ্ঠানের জনপ্রিয় উপস্থাপক। তিনি সাতবার এই অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। ২০০১ সালে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালক ও পাণ্ডুলিপিকার হিসেবে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র পপকর্ন শ্রিম্প নির্মাণ করেন। এছাড়া তিনি ১৯৯৫ সালে তার আদর্শ এলভিস প্রেসলি সম্পর্কিত একটি নাটক হিম রচনা করেন এবং এতে অভিনয় করেন।[৪]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ওয়াকেন ১৯৪৩ সালের ৩১শে মার্চ নিউ ইয়র্কের কুইন্সের অ্যাস্টোরিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মনাম রোনাল্ড ওয়াকেন, যা রোনাল্ড কলম্যানের সম্মানার্থে রাখা হয়েছিল। তার মাতা রোজালি (জন্মনাম: রাসেল, ১৬ মে ১৯০৭ - ২৬ মার্চ ২০১০) স্কটল্যান্ডের গ্লাসগো থেকে অভিবাসিত হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসেন, এবং তার পিতা পল ওয়াকেন (৫ অক্টোবর ১৯০৩ - ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০০১) জার্মানির হর্স্ট থেকে অভিবাসিত হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসেন।[৫][৬] তার পিতা অ্যাস্টোরিয়ায় ওয়াকেন্স বেকারির মালিক ছিলেন এবং নিজেই তা পরিচালনা করতেন।[৭][৮] ওয়াকেন মেথডিস্ট ধর্মাবলম্বী।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Christopher Walken Filmography" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৮ 
  2. "Cinema's unforgettable character actors | Film" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৮ 
  3. ন্যাশ, ব্রুস। "Christopher Walken" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নাম্বারস। জুলাই ৯, ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৮ 
  4. ফেইনগোল্ড, মাইকেল। "Him by Christopher Walken"দ্য ভিলেজ ভয়েস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৮ 
  5. Salon.Com আর্কাইভকৃত জানুয়ারি ২১, ২০০৮ ওয়েব্যাক মেশিনে. "Both of his parents were immigrants – his father, Paul, from Germany; and his mother, Rosalie, from Glasgow, Scotland."
  6. "The Master Of Menace" (ইংরেজি ভাষায়)। সিবিএস নিউজ। ৪ ডিসেম্বর ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৮ 
  7. ওয়াইনরব, বার্নার্ড (২৪ জুন ১৯৯২)। "AT LUNCH WITH – Christopher Walken – A New York Actor Takes Stardom With a Grain of Salt – Biography –" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৮ 
  8. গ্যাভার, জ্যাক (জানুয়ারি ২০, ১৯৫৪)। "This Mom Feels Like Casting Agency With Three Young Sons Working On Stage, TV" (ইংরেজি ভাষায়)। তুসালুসা নিউজ। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৮ 
  9. "The religion of Christopher Walken, actor" (ইংরেজি ভাষায়)। Adherents.com। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]