জন হার্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্যার

জন হার্ট

John Hurt by Walterlan Papetti.jpg
২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে হার্ট
স্থানীয় নাম
John Hurt
জন্ম
জন ভিনসেন্ট হার্ট

(১৯৪০-০১-২২)২২ জানুয়ারি ১৯৪০
চেস্টারফিল্ড, ডার্বিশায়ার, ইংল্যান্ড
মৃত্যু২৫ জানুয়ারি ২০১৭(2017-01-25) (বয়স ৭৭)
ক্রোমার, নরফোক, ইংল্যান্ড
যেখানের শিক্ষার্থীরয়্যাল একাডেমি অব ড্রামাটিক আর্ট
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৬১-২০১৭
দাম্পত্য সঙ্গীঅ্যানেট রবার্টসন
(বি. ১৯৬২; বিচ্ছেদ. ১৯৬৪)

ডোনা পিকক
(বি. ১৯৮৪; বিচ্ছেদ. ১৯৯০)

জোন ডালটন
(বি. ১৯৯০; বিচ্ছেদ. ১৯৯৬)

আনওয়েন রিস-মায়ার্স
(বি. ২০০৫; মৃ. ২০১৭)
সন্তান

স্যার জন ভিনসেন্ট হার্ট, সিবিই (ইংরেজি: John Vincent Hurt; ২২ জানুয়ারি ১৯৪০ - ২৫ জানুয়ারি ২০১৭) ছিলেন একজন ইংরেজ অভিনেতা। তিনি পঞ্চাশ বছরের অধিক সময় মঞ্চে ও পর্দায় কাজ করেছেন। হার্টকে ব্রিটেনের অন্যতম সেরা অভিনয়শিল্পী হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং পরিচালক ডেভিড লিঞ্চ তাকে "সোজা কথায় বিশ্বের সেরা অভিনেতা" বলে আখ্যায়িত করেন।[১][২]

হার্ট আ ম্যান ফর অল সিজনস্‌ (১৯৬৬) চলচ্চিত্রে রিচার্ড রিচ চরিত্রে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন এবং টেন রিলিংটন প্লেস (১৯৭০) চলচ্চিত্রে টিমোঠি ইভানস চরিত্রে অভিনয় করে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। পরবর্তী কালে দ্য নেকড সিভিল সারভেন্ট (১৯৭৫) টেলিভিশন চলচ্চিত্রে কুয়েন্টিন ক্রিস্প চরিত্রে অভিনয় করে তার প্রথম বাফটা পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৭৬ সালে তিনি বিবিসির টিভি ধারাবাহিক আই, ক্লডিয়াস-এ কালিগুলা চরিত্রে অভিনয় করেন। জেল নাট্যধর্মী মিডনাইট এক্সপ্রেস (১৯৭৮) ছবিতে তার অভিনয় তাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরিচিতি পাইয়ে দেয় এবং তিনি সেরা পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারবাফটা পুরস্কার অর্জন করেন এবং শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতার জন্য একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। বিজ্ঞান কল্পকাহিনিমূলক ভীতিপ্রদ অ্যালিয়েন (১৯৭৯) ছবিতে নভোচারী কেন চরিত্রে অভিনয় করে তিনি বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং কয়েকটি প্রকাশনা এই ছবিটি একটি দৃশ্যকে চলচ্চিত্র শিল্পের ইতিহাসে সবচেয়ে স্মরণীয় দৃশ্য বলে উল্লেখ করেছে।[৩]

চলচ্চিত্র শিল্পে তার অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১২ সালে তাকে বাফটা আজীবন সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করা হয়।[৪] নাটকে তার অবদানের জন্য ২০১৫ সালে তিনি নাইট উপাধিতে ভূষিত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সেফটন, কনর (২৯ জানুয়ারি ২০১৭)। "Acclaimed British actor Sir John Hurt dies from cancer aged 77"স্কাই নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. ক্রেপস, ড্যানিয়েল (২৮ জানুয়ারি ২০১৭)। "John Hurt, Oscar-Nominated 'Elephant Man' Actor, Dead at 77"রোলিং স্টোন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  3. যেসব সূত্র অ্যালিয়েন ছবিতে হার্টের চরিত্রের শেষ দৃশ্যটিকে চলচ্চিত্র শিল্পের ইতিহাসে সবচেয়ে স্মরণীয় দৃশ্য বলে উল্লেখ করেছে সেগুলো হল:
  4. "John Hurt 'thrilled' with Bafta honour"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]