লাকসাম-চাঁদপুর রেলপথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লাকসাম–চাঁদপুর রেলপথ
The Path To Infinity (141511661).jpeg
চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশনে লাকসাম–চাঁদপুর রেলপথ
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
ধরনবাংলাদেশের মিটার-গেজ রেলপথ
সিস্টেমবাংলাদেশ রেলওয়ে
অবস্থাসক্রিয়
অঞ্চলচট্টগ্রাম বিভাগ
বিরতিস্থললাকসাম জংশন রেলওয়ে স্টেশন
চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন
স্টেশনসমূহ১২টি
ক্রিয়াকলাপ
উদ্বোধন১৮৯৫ সালের ১ জুলাই
মালিকবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালকবাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল
বৈশিষ্ট্যউন্মুক্ত
প্রযুক্তিগত
রেলপথের দৈর্ঘ্য৬৯ কিলোমিটার
ট্র্যাকসংখ্যা১টি
ট্র্যাক গেজ১,০০০ মিলিমিটার (৩ ফুট   ইঞ্চি)
বৈদ্যুতিকরণনেই
আখাউড়া–লাকসাম–চট্টগ্রাম রেলপথ

Up arrow
আখাউড়া-কুলাউড়া
-ছাতক লাইন
Left arrow টঙ্গি-ভৈরব-আখাউড়া লাইন
আখাউড়া জংশন
গঙ্গাসাগর
Right arrow আখাউড়া-আগরতলা লাইন
ইমামবাড়ী
কসবা
মন্দবাগ
সালদানদী
শশীদল
রাজাপুর
সদর রসুলপুর
কুমিল্লা
ময়নামতি
লালমাই
আলীশ্বর
Left arrow লাকসাম জংশন
চিতোষী রোড
শাহরাস্তি
মেহের
ওয়ারুক
হাজীগঞ্জ
বলাখাল
মধুরোড
শাহতলী
মৈশাদী
চাঁদপুর কোর্ট
চাঁদপুর
দৌলতগঞ্জ
খিলা
নাথের পেটুয়া
বিপুলাসার
সোনাইমুড়ি
বজরা
চৌমুহনী
মাইজদী
মাইজদী কোর্ট
হরিনারায়ণপুর
নোয়াখালী
নাওটি
নাঙ্গলকোট
হাসানপুর
গুণবতী
শর্শদি
Up arrow
লামডিং–
সাব্রুম রেলপথ
বিলোনিয়া (ভারত)
Right arrow
লামডিং–
সাব্রুম রেলপথ
বাংলাদেশ
ভারত
সীমান্ত
বিলোনিয়া
পরশুরাম
চিথলিয়া
ফুলগাজী
মুন্সিরহাট
পীরবক্সহাট
আনন্দপুর
বন্দুয়া দৌলতপুর
Right arrow
ফেনী জংশন
কালিদহ
ফাজিলপুর
মুহুরীগঞ্জ
চিনকী আস্তানা
মাস্তাননগর
মীরসরাই
বারতাকিয়া
নিজামপুর কলেজ
বারৈয়াঢালা
সীতাকুন্ড
বাড়বকুন্ড
কুমিরা
ভাটিয়ারী
ফৌজদারহাট
Left arrow
কৈবল্যধাম
পাহাড়তলী
ক্রিকেট স্টেডিয়াম
মহিলা পলিটেকনিক
হালিশহর
পোর্ট মার্কেট
সল্টগোলা
চট্টগ্রাম বন্দর
সাগরিকা
এসআরভি
চট্টগ্রাম জংশন
চট্টগ্রাম
Down arrow
চট্টগ্রাম–
কক্সবাজার রেলপথ

লাকসাম–চাঁদপুর রেলপথ বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক পরিচালিত বাংলাদেশের একটি মিটার-গেজ রেলপথ।[১] এটি কুমিল্লা জেলার লাকসাম জংশন রেলওয়ে স্টেশন থেকে চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত বিস্তৃত। এটি বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল কর্তৃক রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালিত হয়।[২][৩]

উদ্বোধন[সম্পাদনা]

১৮৯২ সালে ইংল্যান্ডে গঠিত আসাম বেঙ্গল রেলওয়ে কোম্পানি এদেশে রেলপথ নির্মাণের দায়িত্ব নেয়। এই কোম্পানির অধীনে ১৮৯৫ সালের ১লা জুলাই চট্টগ্রাম থেকে কুমিল্লা ১৫০ কিমি রেলপথ এবং লাকসাম থেকে চাঁদপুর পর্যন্ত ৬৯ কিলোমিটার মিটার-গেজ রেলপথ উদ্বোধন করা হয়।[৪]

স্টেশন তালিকা[সম্পাদনা]

রেল পরিষেবা[সম্পাদনা]

লাকসাম–চাঁদপুর রেলপথ দিয়ে নিম্নোক্ত যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করে:

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "চাঁদপুর-লাকসাম ডাবল রেললাইন নির্মাণ প্রয়োজন"banglanews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  2. "৪৫ মিনিটে লাকসাম থেকে চাঁদপুর"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  3. chandpurweb.com। "৬০ বছর পর চাঁদপুর-লাকসাম রেলপথে আমূল পরিবর্তন"chandpurweb.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  4. "রেলওয়ে - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৪