রংপুরী ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
রংপুরি
কামতা (ভারত)
রংপুরী (বাংলাদেশ)
রাজবংশী (নেপাল)
Rajbanshi.png
দেশোদ্ভব বাংলাদেশ
ভারত
নেপাল
স্থানীয় ভাষাভাষী
১৫ মিলিয়ন (২০১১)[২]
পূর্ব নাগরী লিপি (বাংলাদেশ, অসম এবং পশ্চিমবঙ্গ-এ অফিসিয়াল) দেবনাগরী (ব্যবহার বিরল)
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩ বিভিন্ন প্রকার:
rkt – কামতা/রংপুরী
rjs – রাজবংশী
kyv – Kayort[১]
গ্লোটোলগ rang1265  (রংপুরী)[৩]
rajb1243  (রাজবংশী)[৪]

রংপুরী একটি ইন্দো-আর্য পরিবারভূক্ত ভাষায়, এ ভাষায় বাংলাদেশের রাজবংশী সম্প্রদায়, ভারত এবং নেপালের রাজবংসী ও তাজপুরিয়া সম্প্রদায়ের লোকেরা কথা বলে। তবে এই ভাষাভাষী জনগণ কার্যত দ্বিভাষী। তারা রংপুরী ভাষার পাশাপাশি বাংলা ভাষা অথবা অসমিয়া ভাষায় কথা বলে। এই ভাষাকে বাংলার একটি উপভাষা হিসেবে গণ্য করা হয়।

নাম[সম্পাদনা]

রংপুরি ভাষা বিভিন্ন নামে পরিচিত। বাংলাদেশে ভাষাটি রংপুরী, বাহে বাংলা, আঞ্চলিত বাংলা, কামতাপুরীয়া নামে পরিচিত। ভারতে কামতাপুরী, দত্তা, রাজবংশী, রাজবাঁশি, রাজবাশি, রাজবাংশি, গোয়ালপারীয়া, কোচ রাজবংশী ; নেপালে তাজপুরি, আসামে কোচ রাজবংশী নামে পরিচিত।

উপভাষা[সম্পাদনা]

রাজবংশী ভাষার একাধিক কথ্য রূপ প্রচলিত। একে পূর্ব, মধ্য, পশ্চিম এবং পাহাড়ী (কোচ) এই চার ভাগে ভাগ করা যায়। এই ভাষাভাষী জনগোষ্ঠীর মধ্য রাজবংশী ভাষায় অধিকাংশ লোকে কথা বলে। ভাষা মোটামুটি একই রকম এবং এই ভাষায় কিছু প্রকাশনা আছে। পশ্চিমা কথ্যরূপে এলাকাভেদে পরিবর্তিত হয়। তিন কথ্যরূপের মধ্যে ৭৭-৮৯% মিল পাওয়া যায়। রাজবংশী ভাষা ৪৮-৫৫ ভাগ বাংলা, ৪৩-৪৯ ভাগ মৈথিলি এবং নেপালি শব্দ দ্বারা গঠিত।

অসমীয়া, সিলেটি এবং বাংলার সাথে তুলনা[সম্পাদনা]

রংপুরী অসমীয়া বাংলা সিলেটি
Muĩ kôrû Môi kôrû Ami kôri Mui xori
Muĩ kôrûsû Môi kôri asû Ami kôrchi Mui xoriar
Muĩ kôrsinû Môi kôrisilû Ami kôrêchi Mui xorsilam
Muĩ kôrûsinû Môi kôri asilû Ami kôrchilam Mui xorat aslam
Muĩ kôrim Môi kôrim Ami kôrbo Mui xormu
Muĩ kôrtê thakim Môi kôri/kôrat thakim Ami kôrtê thakbo Mui xorat taxmu

পরিসীমা[সম্পাদনা]

আসামের ধুবড়ী, কোকরাঝার, চিরাং, বঙাইগাঁও এবং গোয়ালপার পারা জেলায় এই ভাষাভাষী মানুষের সংখ্যা সৰ্বাধিক, দরং জেলাতে এই ভাষাভাষী কিছু সংখ্যক লোক আছে। উত্তর বঙ্গের কোচবিহার, জলপাইগুরি উত্তর দিনাজপুর দক্ষিণ দিনাজপুর এবং দাৰ্জিলিং এর তরাই অঞ্চল, বিহারের কাটিহার, পূৰ্ণিয়া এবং কিষানগঞ্জ জেলার কিছু অঞ্চল, নেপালের মোরেং এবং ঝাঁপা জেলা, ভূটানের কিছু অঞ্চল তথা বাংলাদেশের অবিভক্ত রংপুর জেলায় এই ভাষার মানুষ আছে। মেঘালয়, ত্ৰিপুরা এবং সম্বলপুর (ওড়িশা)তে এই ভাষার লোক আছে। অঞ্চলভেদে রাজবংশী, গোয়ালপারীয়া, উত্তর বঙ্গীয়, দেশী ভাষা, রংপুরী ভাষা আদি বিভিন্ন নামে পরিচিত। এই ভাষাভাষী মানুষের সংখ্যা ১৫ মিলিয়নেরও অধিক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hammarström (2015) Ethnologue 16/17/18th editions: a comprehensive review: online appendices
  2. "এথ্‌নোলগে" কামতা/রংপুরী (১৮তম সংস্করণ, ২০১৫)
    "এথ্‌নোলগে" রাজবংশী (১৮তম সংস্করণ, ২০১৫)
    "এথ্‌নোলগে" Kayort[১] (১৮তম সংস্করণ, ২০১৫)
  3. নোরধোফ, সেবাস্টিয়ান; হামারস্ট্রাম, হারাল্ড; ফোস্কেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যার্থ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৩)। "রংপুরী"গ্লোটোলগ। লিপজিগ: বিবর্তনীয় নৃতত্ত্বে ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 
  4. নোরধোফ, সেবাস্টিয়ান; হামারস্ট্রাম, হারাল্ড; ফোস্কেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যার্থ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৩)। "রাজবংশী"গ্লোটোলগ। লিপজিগ: বিবর্তনীয় নৃতত্ত্বে ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]